টপিকঃ ভালোবাসার মর্যাদা

আমার জীবনের একটা ঘটনা আপনাদের সাথে শেয়ার করছি, শেয়ার করছি আপনাদের থেকে একটা পরামর্শ নেওয়ার জন্য---
একটা মেয়ের সঙ্গে কিছুদিন যাবৎ আমার একটা সম্পর্ক হয়েছিল। যে সম্পর্কটাকে আমি বন্ধুত্ব বলে মনে করতাম। মেয়েটা সবসময় আমাকে বলত সে আমাকে ভালোবাসে এবং বিয়ে করতে চায়, কিন্তু আমি তাকে ভালোবাসিনা ও বিয়ে করতে চাইও না। এই ব্যাপারটা আমারই এক বন্ধু জেনে সে আমাকে বলল “তুই যখন তাকে বিয়ে করবি না তখন আমার সঙ্গে ওর (মেয়েটার) সম্পর্ক করে দে”। বন্ধুর কথা শুনে তাই করলাম (খুব কষ্ট করে মেয়েটার ব্রেন ওয়াশ করে) এবং ওদের দুজনের সম্পর্কের মাঝখান থেকে আমি সরে আসলাম। এখন ওদের সম্পর্কটা বেশ ভালই চলছে।
এদিকে আমার সেই বন্ধু এখন মনে করে আমি সেই মেয়েটাকে ভালবাসতাম কিন্তু অন্যকোনো কারনে আমি বিয়ে করতে রাজি ছিলাম না। তাই আমার বন্ধু ওদের সম্পর্কের যেকোন কথা আমার থেকে আড়াল করে। তার কারন হিসাবে একথাটা সে আমাকে বলেছে।
এখানে আমার বন্ধুর সম্পর্কে কিছু কথা, সে আমার থেকে কয়েক বছরের বড়, তাকে ভীষণ শ্রদ্ধা করতাম এবং ভালোবাসতাম। আমারও মনে হত সেও আমাকে ভীষণ স্নেহ করে এবং ভালোবাসে। একসময় আমি মনে করতাম সেই-ই আমার প্রকৃত বন্ধু।

এখন আমার প্রশ্ন তাকে কি আমার প্রকৃত বন্ধু বলা যেতে পারে?
সে মনে করে মেয়েটাকে আমি ভালবাসি তাহলে তার কি করা উচিৎ ছিল?
এখন আমার কি করা উচিৎ বন্ধুর সঙ্গে সম্পর্ক রাখা না নষ্ট করা?
আপনারা এটা ভাববেন না যে আমি ভালবাসি প্রশ্ন হল যদি সত্যিই ভালোবাসতাম। তাহলে?
আমার মনের সব কথা আপনাদের বোঝাতে পারলাম কি না আল্লাহ জানে।

স্বাক্ষর নেই

My Name is Khan'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: ভালোবাসার মর্যাদা

ধারাবাহিকভাবেঃ


# দেখেন মানুষ কমবেশি সবাই চায় নিজের গোপন সম্পর্কের কথা যতটা সম্ভব গোপন রাখতে। এক্ষেত্রে আপনার বন্ধুর তার ও সেই মেয়েটির বিষয় আপনার কাছ থেকে আড়াল করার কারণটা আসলে স্বাভাবিক। উনি নিশ্চই এই জিনিসটা বাকিদের কাছেও যথাসম্ভব গোপন রাখেন। আপনার কাছ থেকেও রাখতে পারেন। এটা দিয়ে আপনি আপনাদের বন্ধুত্বের গভীরতা মাপতে পারবেন না। যতই বন্ধু হোন সবারই নিজের কিছু জিনিস থাকে যা অন্যের কাছ থেকে গোপন রাখতে হয়, মানুষজন রাখেও আর এটাই স্বাভাবিক। আপনি দেখেন যে মেয়েটার বিষয় ছাড়া বাকি জিনিসগুলোতে আপনার আর আপনার বন্ধুর কোন দূরত্ব তৈরি হয়েছে কিনা। যদি না হয় তাহলে তার প্রেমের ব্যাপারটাকে স্বাভাবিকভাবেই নেয়া উচিত।

# সে যদি মনে করে আপনি মেয়েটাকে ভালবাসেন আর সে নিজেও বাসে, তাহলে তার যেটা করা উচিত ছিল সেটা হচ্ছে আপনাকে সরিয়ে নিজের ভালবাসাকে আলোর মুখ দেখানো। সে যদি আপনাকে বন্ধু ভেবে ছাড় দিত, সেটাও যুক্তিযুক্ত হত, আবার সে ছাড় না দিয়ে নিজেই এগিয়ে যেত, সেটাও আমার মতে যথেস্ট যৌক্তিক। একজন মানুষ তো আর সবার প্রেমে পড়ে না। আর যার প্রেমে পড়ে তাকে পাওয়ার জন্য যে কেউই সর্বোচ্চ চেস্টা করে। এক্ষেত্রে বন্ধু বান্ধব কেন পিতামাতা কস্ট পাবেন এটাও অনেকেই দেখে না।

# বন্ধুর সাথে সম্পর্ক রাখার কথা তো আগেই বললাম।

# আপনি যদি সত্যিই ভালোবাসেন, তাহলে... তাহলে আপনাকে দেখতে হবে মেয়েটাও আপনাকে চায় কিনা। আপনি যতই ভালবাসেন মেয়েটা না চাইলে তো আপনি তাকে পাবেন না। আবার মেয়েটা যদি সত্যিই আপনাকে চাইত তাহলে আপনার কথামত ব্রেন ওয়াশড হত হত না। আপনি যতই ভালবাসেন পজিটিভ রেসপন্স না পেলে তো রইলেশন হবে না।

Re: ভালোবাসার মর্যাদা

বিষয়টা নিয়ে চিন্তা করাই বাদ দিন।

Re: ভালোবাসার মর্যাদা

ভাই এই নিষ্ঠুর দুনিয়াতে প্রকৃত বন্ধু বলতে কিছু নাই...... এই ব্যাপারে চিন্তা করা বাদ দেন,এটাই আপনার জন্য মঙ্গলজনক হবে বলে মন করি isee isee

রেগে গেলেন তো হেরে গেলেন............
এর জন্যই মনে হয় আমি বার বার হারি.........ঃ(

Re: ভালোবাসার মর্যাদা

মিলন লিখেছেন:

বিষয়টা নিয়ে চিন্তা করাই বাদ দিন।

এটার সাথে আমি একমত। 
আর যদি আপনি পাড়েন তার সাথে সরাসরি কথা বলেন।  এতে যেটাই হোক খারাপ হবে না।  সরাসরি আলাপে সমাধান হয় ভাল।  আপনার মঙ্গল কামনা করি।

এই গরমে স্বাক্ষর আর কি দিমু........

Re: ভালোবাসার মর্যাদা

hairpull hairpull hairpull আমার মাথা খারাপ হয়ে গেল। আপনাকে কি স্বান্তনা দেব!

roll