টপিকঃ বিয়ের আগে বর-কনের স্বাস্থ্য পরীক্ষা

যারা বিজ্ঞান বিভাগ থেকে লেখা পড়া করেছেন তারা RH ফ্যাক্টর সম্বন্ধে জানেন । যারা জানেন না তাদের জন্য এই লেখাটা শেয়ার করলাম ।

বিয়ে মানুষের জীবনের গুরুত্বপূর্ণ একটি সিদ্ধান্ত। বিয়ের আগে স্বাস্থ্য বিষয়ে সতর্কতা অবলম্বন না করলে আপনি, আপনার প্রিয় মানুষটি এমনকি আপনার ভবিষ্যৎ সন্তানও স্বাস্থ্য ঝুঁকির কবলে পড়তে পারে। স্বাস্থ্য পরীক্ষার অংশ হিসেবে ব্লাড গ্রুপ, ডায়াবেটিস, এইচআইভি/ এইডস, হেপাটাইটিস বি ইত্যাদি basic screening test গুলো করতে হয়। তা না করলে Vulrarable discase -গুলো স্বামী-স্ত্রী ও সন্তানের মধ্যে স্থানান্তরিত হতে পারে।

স্বামী-স্ত্রীর ক্ষেত্রে দু'জনের রক্তের গ্রুপের RH ফ্যাক্টর নেগেটিভ-পজেটিভ হওয়া ঝুঁকিপূর্ণ। তবে দু'জনই নেগেটিভ অথবা দু'জনই পজেটিভ হওয়া ঝুঁকিপূর্ণ নয়। রক্তের গ্রুপের আরএইচ ফ্যাক্টর মেয়েদের ক্ষেত্রেই ঝুঁকিপূর্ণ। বিশেষ করে মেয়েদের ক্ষেত্রে (RH+) পজেটিভ হওয়ার চেয়ে (RH) নেগেটিভ হওয়া সন্তানের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ। সন্তান জন্মদানের ক্ষেত্রে বাবার ক্ষেত্রে (RH+) পজেটিভ ও মায়ের ক্ষেত্রে (RH) নেগেটিভ হলে সন্তানের ইরাইথ্রোব্লাস্টোসিস ফিটালিস হতে পারে। এতে সন্তানের পেটে পানি জমে ও বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সন্তান জন্মের আগেই মারা যায়। মনে রাখা দরকার ডায়াবেটিস, হেপাটাইটিস বি. এইচআইভি ইত্যাদি রোগ স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে স্থানান্তরিত হতে পারে। বর ও কনের যৌনবাহিত কোনো রোগ আছে কিনা তাও পরীক্ষা করতে হয়।

সুত্রঃ সংগ্রহীত

জীবনে চলার পথে কখনও কখনও উদাসীন হতে হয় , তা না হলে জীবন জটিল হয়ে যায় ।

লেখাটি CC by-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: বিয়ের আগে বর-কনের স্বাস্থ্য পরীক্ষা

হুমম.. এটা এখন সময়ের দাবী!!

তামিম৬৯'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: বিয়ের আগে বর-কনের স্বাস্থ্য পরীক্ষা

তামিম৬৯ লিখেছেন:

হুমম.. এটা এখন সময়ের দাবী!!


দারুন কথা বলেছেন ।

জীবনে চলার পথে কখনও কখনও উদাসীন হতে হয় , তা না হলে জীবন জটিল হয়ে যায় ।

লেখাটি CC by-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: বিয়ের আগে বর-কনের স্বাস্থ্য পরীক্ষা

জানি এটা। রেসাস ফ্যাক্টর  খুবই গুরুত্বপূর্ন। তাই  বর-কণের বায়োডাটার সংগে মেডিক্যাল রিপোর্ট ও চাইতে হবে।

এম. মেরাজ হোসেন
IQ: 113
http://www.iq-test.cc/badges/4774105_3724.png