টপিকঃ হৃদযন্ত্রের বারোটা বাজাতে পারে কম্পিউটার

মোবাইলের ক্ষতি নিয়েতো অনেক কিছুই শুনেছেন৷ বিশেষ করে এর তেজস্ক্রিয়তা মস্তিষ্কের ক্যান্সারের কারণ হতে পারে, হতে পারে যৌনক্ষমতা হ্রাসেরও কারণ৷ কিন্তু কম্পিউটারের এমন ক্ষতি নিয়ে কি ভেবেছেন কখনো?

কম্পিউটার বা ল্যাপটপের তেজস্ক্রিয়তাও কিন্তু আপনার ক্ষতি করতে পারে৷ বিজ্ঞানীরা বলছেন, কম্পিউটার এবং এর নানা যন্ত্রপাতি বিশেষ করে প্রিন্টার, মডেম এবং তারহীন নেটওয়ার্ক মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর হয়ে উঠতে পারে৷ এসব থেকে নির্গত তড়িৎচুম্বকীয় বিকিরণ ঘুমের ব্যাঘাত থেকে শুরু করে হৃদযন্ত্রের নানা অসুখ পর্যন্ত বাধাতে পারে৷ তাই, সাবধান৷

বলে বসবেন না, কম্পিউটার যে আমাদের জীবনের এক অপরিহার্য অঙ্গ৷ তেজস্ক্রিয়তার ভয়ে একেতো দূরে রাখলে চলবে না৷ না, বিজ্ঞানীরাও সেটা বলছেন না৷ বরং দিচ্ছেন কিছু সহজ বুদ্ধি-পরামর্শ৷ যেগুলো মেনে চললে খানিকটা রেহাই পাওয়া যেতেও পারে৷

কম্পিউটার মনিটরের কথাই ধরুন৷ পুরনো সিআরটি মানে বাক্স আকারের মনিটরগুলো কিন্তু বেশ ক্ষতিকর৷ গবেষণায় দেখা যাচ্ছে, এসব মনিটর সবচেয়ে বেশি ক্ষতিকর তাপ বিকিরণ করে৷ মনিটরের সামনের অংশ এবং আশপাশ - সবদিকেই তাপ বিকিরণ করে পুরনো মনিটরগুলো৷ ফলে শুধু আপনি নয়, আশেপাশের সবাই ক্ষতির শিকার হতে পারে এই মনিটর থেকে৷ অন্যদিকে, হালের এলসিডি মিনিটর থেকে ক্ষতিকর বিকিরণের পরিমাণ অনেক কম৷ তাই, বদলে ফেলুন মনিটর৷


যদি মনিটর বদলানো একান্ত সম্ভব না হয়, তাহলে অন্তত বিকিরণ নিরোধক পর্দা ব্যবহার করুন৷ বাজারে মোটামুটি সস্তাতেই পাওয়া যায় এমন পর্দা৷ কিনে মনিটরের সামনের অংশে লাগিয়ে নিলেই হলো৷

এবার আসুন মনিটরে উজ্জ্বলতার বিষয়ে৷ বিজ্ঞানীরা বলছে, আপনার মনিটর যত উজ্জ্বল, তা থেকে ক্ষতিকর বিকিরণের মাত্রা তত বেশি৷ তাই নিজেকে বাঁচাতে চাইলে মনিটরের ঔজ্জ্বল্য কমাতে হবে৷ কিন্তু সমস্যা হচ্ছে, উজ্জ্বলতা বেশি কমালে তা চোখের জন্য ক্ষতিকর৷ কারণ, অন্ধকার মনিটর থেকে কিছু পড়তে গেলে চোখের বেশ কষ্ট করতে হবে৷ সুতরাং মোটামুটি উজ্জ্বলতা বজায় রাখুন, আর নিজে মনিটর থকে অন্তত ৫০ থেকে ৭৫ সেন্টিমিটার দূরে বসুন৷

আপনি কম্পিউটারটিকে কোথায় রাখছেন, তার ওপরও ক্ষতির মাত্রা নির্ভর করে৷ বিশেষ করে কম্পিউটারের পেছনের অংশ কোন মানুষের কাছাকাছি রাখা উচিত নয়৷ কেননা, কম্পিউটারের সামনের দিকের চেয়ে পেছনে ক্ষতিকর বিকিরণের পরিমাণ বেশি৷ তাই, পেছন দিকটা কোন দেয়ালের দিকে রাখলেই ভালো৷

শুনতে হাস্যকর লাগতে পারে, কিন্তু বিজ্ঞানীরা বলছেন মরু অঞ্চলের ক্যাকটাসের কথা৷ কম্পিউটারের আশেপাশে এগুলো রাখলে নাকি বিকিরণ কম অনুভূত হয়৷ কেননা, ক্যাকটাসের রয়েছে তেজস্ক্রিয়তা শোষণের ক্ষমতা৷ তাই, সম্ভব হলে মনিটরের আশেপাশে কিছু ক্যাকটাস রেখে দিন৷

গবেষকদের দাবি, কম্পিউটারের পর্দা ক্যান্সার উৎপাদক পদার্থ নিঃসরণ করে, যা শরীরের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর৷ তা থেকে বাঁচতে চাইলে ঘরের মধ্যে পর্যাপ্ত বায়ু চলাচলের ব্যবস্থা করতে হবে৷ সেটা সম্ভব না হলে মনিটরের পাশে বায়ুচলনের উপযোগী ফ্যান বসিয়ে নিন৷

সর্বশেষ পরামর্শ৷ নিয়মিত বিরতিতে আপনার মুখ হালকা করে ধুয়ে ফেলুন৷ এতে করে ক্ষতিকর তেজস্ক্রিয় পদার্থ আপনার চোখেমুখে বাসা বাঁধতে পারবেনা৷ শুধু এটুকু করেই কম্পিউটারের ক্ষতি ৭০ শতাংশ কাটানো সম্ভব৷
সূত্র:http://www.dw-world.de/dw/article/0,,6124824,00.html

অন্যের কাছ থেকে যে ব্যবহার প্রত্যশা করেন আগে নিজে সে আচরন করুন।

Re: হৃদযন্ত্রের বারোটা বাজাতে পারে কম্পিউটার

হুম ক্যাকটাসটাকে এখন মনিটরের পাশে রাখা দরকার  roll

Re: হৃদযন্ত্রের বারোটা বাজাতে পারে কম্পিউটার

ক্যাকটাস পাশে রাখতে হবে তইলে  waiting

ওয়েব হোস্টিং | রিসেলার হোস্টিং | অনলাইন রেডিও হোস্টিং
টেট্রাহোস্ট বাংলাদেশ - www.tetrahostbd.com

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন শান্ত বালক (১৯-১০-২০১০ ২২:০৫)

Re: হৃদযন্ত্রের বারোটা বাজাতে পারে কম্পিউটার

ভাই, কম্পিউটারের (মনিটর) ক্ষতিকর দিক তুলে ধরে সচেতনতামূলক পোস্ট দেয়ায় ধন্যবাদ আপনাকে।

Re: হৃদযন্ত্রের বারোটা বাজাতে পারে কম্পিউটার

ধন্যবাদ।
ভাবছি ক্যাকটাসের ব্যবসা শুরু করব। hehe hehe hehe hehe

লিনাক্স ব্যবহার করুন-------
     কম্পিউটার থাকুক ভাইরাসমুক্ত,
     দেশ থাকুক দূর্নীতিমুক্ত।

Re: হৃদযন্ত্রের বারোটা বাজাতে পারে কম্পিউটার

সচেতনতামূলক পোস্টের জন্য ধন্যবাদ। ক্যাকটাসের ব্যাপারটা চিন্তা করতে হবে।

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন সেজান (২০-১০-২০১০ ০৯:৫০)

Re: হৃদযন্ত্রের বারোটা বাজাতে পারে কম্পিউটার

ধন্যবাদ শান্ত বালক ভাই সহ সবাইকে।

অন্যের কাছ থেকে যে ব্যবহার প্রত্যশা করেন আগে নিজে সে আচরন করুন।

Re: হৃদযন্ত্রের বারোটা বাজাতে পারে কম্পিউটার

খাইছে  surprised আমার মুড়ির টিন টাতো পাল্টানো লাগে..
লেখাটির জন্য আপনাকে ধন্যবাদ

Re: হৃদযন্ত্রের বারোটা বাজাতে পারে কম্পিউটার

ধন্যবাদ।

১০

Re: হৃদযন্ত্রের বারোটা বাজাতে পারে কম্পিউটার

ধন্যবাদ শেয়ার করার জন্য।

আল্লাহ আপনি মহান

১১

Re: হৃদযন্ত্রের বারোটা বাজাতে পারে কম্পিউটার

রাতে নিয়মিত ঘুম না হবার কারন তাহলে এই  dontsee। কি করি এখন  thinking

কারো আশা নষ্ট করবেন না, হয়তো এই আশাই তার শেষ সম্বল।

১২

Re: হৃদযন্ত্রের বারোটা বাজাতে পারে কম্পিউটার

এই ধরণের পোস্ট স্বাস্থ্য বিভাগে মানায়।
পোস্টটা স্বাস্থ্য বিভাগে সরিয়ে নেয়া হল।

Feed থেকে ফোরাম সিগনেচার, imgsign.com
ব্লগ: shiplu.mokadd.im
মুখে তুলে কেউ খাইয়ে দেবে না। নিজের হাতেই সেটা করতে হবে।

শিপলু'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

১৩

Re: হৃদযন্ত্রের বারোটা বাজাতে পারে কম্পিউটার

ক্যাটকাস অনেক আছে বাসায়। big_smile
তবে আমি লেপটপের LCD মনিটর ই ব্যবহার করি আর ব্রাইটনেস সব সময় ০ করে রাখি।

সারিম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৪

Re: হৃদযন্ত্রের বারোটা বাজাতে পারে কম্পিউটার

সারিম লিখেছেন:

ক্যাটকাস অনেক আছে বাসায়। big_smile
তবে আমি লেপটপের LCD মনিটর ই ব্যবহার করি আর ব্রাইটনেস সব সময় ০ করে রাখি।

LCD তে রেডিয়েশন হয় না বললেই চলে।
CRT তে অনেক বেশি হয়।

Feed থেকে ফোরাম সিগনেচার, imgsign.com
ব্লগ: shiplu.mokadd.im
মুখে তুলে কেউ খাইয়ে দেবে না। নিজের হাতেই সেটা করতে হবে।

শিপলু'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

১৫

Re: হৃদযন্ত্রের বারোটা বাজাতে পারে কম্পিউটার

সারিম লিখেছেন:

তবে আমি লেপটপের LCD মনিটর ই ব্যবহার করি আর ব্রাইটনেস সব সময়করে রাখি।

surprised surprised ০!