টপিকঃ দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান: টয়লেটের গন্ধ

(লেখাটি গত জানুয়ারী মাসে সামহোয়্যারইন-এ প্রকাশিত হয়েছিল। ফোরামের অনেকেও দেখেছেন। তবে মনে হল, যে জনস্বার্থে এটা এখানেও রাখা যেতে পারে। আমার পরিবেশ প্রকৌশলীর প্যাচাল ব্লগ থেকে সরাসরি কপি-পেস্ট করে দিলাম সেজন্য।)

বেশ কিছু মানুষ আছেন যারা টয়লেট থেকে বের হওয়ার পর অনেকক্ষন কেউ আর ওখানে প্রচন্ড দূর্গন্ধর কারণে ঢুকতে পারে না। বেচারারা খুবই লজ্জিত হন; মুক্তির উপায় খোজেন। এই লেখাটি তাদের কারো কারো উপকারে লাগবে।

যারা প্যানওয়ালা টয়লেট ব্যবহার করেন তাদের সবচেয়ে বেশী কাজে লাগবে এই পদ্ধতিটি:
-- কাজ শুরুর আগে প্যানটি পানি দিয়ে ভিজিয়ে নিন।
-- ময়লাটা প্যানে পড়ার সাথে সাথে পানি দিয়ে চালান করে দিলেই সমস্যা গায়েব।
-- এই কাজে গরম পানি ব্যবহার করবেন না।
মনে হতে পারে ব্যাপারটি কিছুই না, সাধারন জ্ঞান। কথাটি সত্য, কিন্তু এর পিছনে আছে কিছু বিজ্ঞান, যা জেনে রাখলে ক্ষতি নেই। এবার বিজ্ঞানটা বলি:

দূর্গন্ধ গ্যাসের খনি কোথায়?
আমাদের মলের মধ্যে প্রচুর সরলিকৃত খাদ্যবস্তু থাকে। খাদ্যবস্তু থেকে আমাদের শরীর প্রয়োজনীয় বস্তু সংগ্রহ করার পরেও ওগুলো কিছু ব্যাকটেরিয়ার জন্য যথেষ্ট প্রয়োজনীয় খাদ্য হিসেবে বিবেচিত হয়। আর এগুলোর সাথে থাকে প্রচুর ব্যাকটেরিয়া। শরীর থেকে বাইরে আসা মাত্র ব্যাকটেরিয়াগুলো মহা-সমারোহে বাতাসের অক্সিজেনের সাহায্যে ওদের খাদ্য রান্না করা শুরু করে; এতে করে বাইপ্রোডাক্ট হিসেবে তৈরী হয় দূর্গন্ধযুক্ত সেই গ্যাসগুলো, যা আমাদের নাকে অ্যাটাক করে।

ময়লা পানিতে গেলে কিভাবে সমস্যা সমাধান হচ্ছে?
পানি একটি সার্বজনিন দ্রাবক। এতে অনেক কঠিন, তরল ও বায়বীয় পদার্থ দ্রবীভুত হয়। কাজেই ময়লাটাকে পানিতে চালান করে দিলে ওটা থেকে উৎপন্ন গ্যাসগুলো বাতাসে না মিশে গিয়ে পানিতে দ্রবীভুত হয়ে যায়। ফলে গন্ধ ছড়ায় না। এখানে আরো একটি ব্যাপার মাথায় রাখা দরকার, সেটি হলো- পানিতে গ্যাসের দ্রাব্যতা তাপমাত্রা বাড়লে কমে যায়। কাজেই পরিস্কারের কাজে গরম পানি ব্যবহার করলে তার আগে আরো কিছু পানি ফেলুন প্যানে। এই পানি ওয়াটার সীলের ইউ-ট্র্যাপ বা পি-ট্র্যাপে জমে থাকা ময়লা এবং গ্যাস মিশানো পানিকে ঠেলে নিষ্কাশন পাইপে (সয়েল পাইপ) পাঠায় দেবে; ফলে গরম পানি মিশার ফলে ওয়াটার সীলের পানি থেকে দ্রবীভুত গ্যাস বাতাসে ছেড়ে দিয়ে (যেহেতু গরম পানিতে গ্যাসের দ্রাব্যতা কম) গন্ধ ছড়ানোর সম্ভাবনাও তিরোহিত হবে।এই কথাটি কমোড ব্যবহারকারিদের জন্যও বেশ কাজের। পরিষ্কারের কাজে গরম পানি ব্যবহার করার আগে একবার ছোট ফ্লাস করে নিন, নাহলে সেই গরম পানি, জমে থাকা পানিতে মিশে ওটাতে দ্রবীভুত গ্যাস বাতাসে ছেড়ে দিবে - গন্ধ হবে।

প্রথমে প্যান বা কমোড ভিজিয়ে নিলে লাভ কী?
সহজ করে বললে এটা প্যান বা কমোডের পৃষ্ঠতলকে (সারফেস) পিছলা করে দেবে, ফলে, সহজে ওতে ময়লা আটকাবে না। কারণ প্রথমে ওটা ভিজা না থাকলে, যদি ময়লা আটকে যায়, পরবর্তীতে তা উঠাতে প্রচুর পানির ধারা দিতে হয়। পিছলা হওয়ার বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা এক্ষেত্রে সম্ভবত পৃষ্ঠটান (সারফেস টেনশন) দিয়ে ব্যাখ্যা করা যায়। ময়লা আর প্যান বা কমোডের মধ্যকার পৃষ্ঠটান বল ময়লা আর পানির মধ্যের পৃষ্ঠটান বলের চেয়ে অনেক বেশী। ফলে পানি দিলে কমোড বা প্যানের পৃষ্ঠটান বলটা পানির উপরে কার্যকর হয়, আর ময়লা পিছলিয়ে চলে যায়।
----------------------
তথ্যসূত্র: কয়েকজনের উপর সফলভাবে প্রয়োগ করে পদ্ধতিটির সফলতার ব্যাপারে নিশ্চিত।(নিজস্ব ডেটা) আর ব্যাখ্যাগুলো বিচ্ছিন্নভাবে আমার বিভিন্ন পাঠ্যবই থেকে বুঝেছিলাম বলেই পদ্ধতিটি সফলভাবে প্রয়োগ করেছিলাম কয়েকজনকে বিপদ থেকে উদ্ধারের জন্য।

শামীম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান: টয়লেটের গন্ধ

মারাত্মক সুগন্ধী পোস্ট!=))
ভালো টিপস্‌! কয়েক জন পরিচিত আছে যাদের জোর করে এটা অনুসরণ করাতে হবে:lol:
কিন্তু 'ময়লা' জিনিস টা বুঝি নাই:P

কিছু বাধা অ-পেরোনোই থাক
তৃষ্ণা হয়ে থাক কান্না-গভীর ঘুমে মাখা।

উদাসীন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান: টয়লেটের গন্ধ

খুবই দূর্গন্ধময় একটা পোস্ট।=)) কিন্তু দরকারীও:)
আপনাকে ধন্যবাদ

Re: দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান: টয়লেটের গন্ধ

শামীম ভাই,
টয়লেট বিশেষজ্ঞের প্যাঁচাল নামে আরেকটি ব্লগ একাউন্ট খুলে ফেলুন...

Re: দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান: টয়লেটের গন্ধ

বিপ্রতীপ লিখেছেন:

শামীম ভাই,
টয়লেট বিশেষজ্ঞের প্যাঁচাল নামে আরেকটি ব্লগ একাউন্ট খুলে ফেলুন...

মানুষ দুই পাতা জানলেই বিশেষজ্ঞ ভাবে ... ghusi

শামীম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান: টয়লেটের গন্ধ

ছোট বেলা থেকেই পড়ায় ফাঁকি মারার অভ্যাস। ছোট বেলায় যখন বাসায় টিউটর আসতো তখন পড়ায় ফাঁকি মারার জন্য বাথরুমে দুর্গন্ধের মধ্যে আধাঘন্টার বেশি ঘাপটি মেরে বসে থাকতাম।:lol:

জোবায়ের সুমন
রক্তের গ্রুপ: B(-)

Re: দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান: টয়লেটের গন্ধ

যাদের ব্যবহৃত কমন টয়লেটে এরকম ঘটনা ঘটে, তাঁরা এটার প্রিন্টআউট টয়লেটের ভিতরে এমন জায়গায় লাগিয়ে দিন যেন কাজ করতে বসলেই চোখে পড়ে। ফন্ট একটু বড় হওয়া চাই, নাহলে কম আলোতে পড়া যাবে না wink

ত্যাগেই সূখ -- কথাটা যেই চিন্তা থেকেই বলা হয়ে থাকুন না কেন, এই ত্যাগেও যে সুখ সেটা গোপাল ভাড়ের একটা জনপ্রিয় গল্প থেকে প্রথম উপলব্ধিতে আসে। আবার, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশও কাম্য নয়। তাই টয়লেটের বিষয়ে সাধারণ বিষয়গুলি জানার প্রয়োজন আছে।


বাসার টয়লেটে কোন সমস্যা হলেই সেটা অনেক আগে থেকেই আমাকে দেখতে হত। বিশেষজ্ঞ হতে পারলে মন্দ হত না। তবে, তা না হয়েও সাধারণ কিছু ব্যাপার স্বাস্থ্যসচেতন সকলের জানা থাকা দরকার।

শামীম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান: টয়লেটের গন্ধ

একবার এক মেসের বাথরুমে লেখা দেখেছিলাম-
ওহে বৎস জ্ঞানী,
হাগিয়া ঢালিও পানি।

lol lol

জোবায়ের সুমন
রক্তের গ্রুপ: B(-)

Re: দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান: টয়লেটের গন্ধ

সুমন লিখেছেন:

ওহে বৎস জ্ঞানী,
হাগিয়া ঢালিও পানি।

lol lol

lol2lol2=))

১০

Re: দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান: টয়লেটের গন্ধ

সেভারাস লিখেছেন:
সুমন লিখেছেন:

ওহে বৎস জ্ঞানী,
হাগিয়া ঢালিও পানি।

lol lol

lol2lol2=))

lol2 lol2lol2=))

১১

Re: দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান: টয়লেটের গন্ধ

lol2 সুমন=))

কিছু বাধা অ-পেরোনোই থাক
তৃষ্ণা হয়ে থাক কান্না-গভীর ঘুমে মাখা।

উদাসীন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১২

Re: দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান: টয়লেটের গন্ধ

পরামর্শটা বোধহয় সুমনের মাথায় ঢুকছে। আজ দেখলাম আমাদের প্যান ফকফকা:D:D

১৩

Re: দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান: টয়লেটের গন্ধ

বাবু লিখেছেন:

পরামর্শটা বোধহয় সুমনের মাথায় ঢুকছে। আজ দেখলাম আমাদের প্যান ফকফকা:D:D

বাবু ভাই, আপনি কি করেন? বেচারা সুমন ভাইয়ের উপর সব কাজ চাপিয়ে নাকে তেল দিয়ে ঘুমান নাকি?=))

১৪

Re: দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান: টয়লেটের গন্ধ

সেভারাস লিখেছেন:
বাবু লিখেছেন:

পরামর্শটা বোধহয় সুমনের মাথায় ঢুকছে। আজ দেখলাম আমাদের প্যান ফকফকা:D:D

বাবু ভাই, আপনি কি করেন? বেচারা সুমন ভাইয়ের উপর সব কাজ চাপিয়ে নাকে তেল দিয়ে ঘুমান নাকি?=))

কে বলছে বাবু নাকে তেল দিয়ে ঘুমায়? ও গুরু মানুষ, এসব ছোট কাজে হাত দেয় না। প‌্যানে যখন ময়লা আটকে জ্যাম হয়ে যায় তখন ওই তো সব ক্লীয়ার করে। ও আমাদের প্রতি খুব যত্নশীল। সব কাজ নিজে হাতেই করে।

(ইয়া.....ঢিসুম; ঢিসুম....................... ঢিসুম)@বাবুb-(

জোবায়ের সুমন
রক্তের গ্রুপ: B(-)

১৫

Re: দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান: টয়লেটের গন্ধ

বিষয়টি সত্যই দারুন।(y)

১৬

Re: দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান: টয়লেটের গন্ধ

সুমন লিখেছেন:
সেভারাস লিখেছেন:

বাবু ভাই, আপনি কি করেন? বেচারা সুমন ভাইয়ের উপর সব কাজ চাপিয়ে নাকে তেল দিয়ে ঘুমান নাকি?=))

কে বলছে বাবু নাকে তেল দিয়ে ঘুমায়? ও গুরু মানুষ, এসব ছোট কাজে হাত দেয় না। প‌্যানে যখন ময়লা আটকে জ্যাম হয়ে যায় তখন ওই তো সব ক্লীয়ার করে। ও আমাদের প্রতি খুব যত্নশীল। সব কাজ নিজে হাতেই করে।

(ইয়া.....ঢিসুম; ঢিসুম....................... ঢিসুম)@বাবুb-(

cryingcrying--(

১৭

Re: দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান: টয়লেটের গন্ধ

mmrony লিখেছেন:

বিষয়টি সত্যই দারুন।(y)

আপনার কাছে কি হাত দিয়ে পরিস্কার করাটা দারুন লাগে !!:-O বাবু ভাই, দেখেন রনি ভাইকে পান কিনা tongue_smile

“All our dreams can come true if we have the courage to pursue them.” - Walt Disney
http://www.amanpages.com/

১৮

Re: দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান: টয়লেটের গন্ধ

বাবু লিখেছেন:

পরামর্শটা বোধহয় সুমনের মাথায় ঢুকছে। আজ দেখলাম আমাদের প্যান ফকফকা:D:D

lol2kiddinghehe

রংধনু দেখতে হলে বৃষ্টিকেও হাসিমুখে বরণ করতে হয়। বৃষ্টি নিজেই তখন রূপান্তরিত হয় আনন্দের উৎসে।

রুমন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৯

Re: দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান: টয়লেটের গন্ধ

সুমন লিখেছেন:
সেভারাস লিখেছেন:

বাবু ভাই, আপনি কি করেন? বেচারা সুমন ভাইয়ের উপর সব কাজ চাপিয়ে নাকে তেল দিয়ে ঘুমান নাকি?=))

কে বলছে বাবু নাকে তেল দিয়ে ঘুমায়? ও গুরু মানুষ, এসব ছোট কাজে হাত দেয় না। প‌্যানে যখন ময়লা আটকে জ্যাম হয়ে যায় তখন ওই তো সব ক্লীয়ার করে। ও আমাদের প্রতি খুব যত্নশীল। সব কাজ নিজে হাতেই করে।

(ইয়া.....ঢিসুম; ঢিসুম....................... ঢিসুম)@বাবুb-(

lol2lol2=))=))=))

২০

Re: দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান: টয়লেটের গন্ধ

আজকের ইত্তেফাকে এই খবরটা এসেছে:

বাথরুম ফিটিংসে জাপানীজ প্রযুক্তি

আমাদের দৈনন্দিন জীবনে প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়তে বাড়তে এখন বাথরুম পর্যন্ত পৌঁছে গিয়েছে। জাপানীজ টয়লেট মেকার টোটো লিমিটেড (৫৩৩২. টি) এমন কিছু বাথরুম ফিটিংস তৈরি করছে যা বিশ্বব্যাপী ক্রেতাদের মধ্যে আলোড়ন তুলেছে। ব্যাপারটি একজন ইন্টেরিয়র ডিজাইনারের কাছ থেকেই জানা যাক। ইন্টেরিয়র ডিজাইনার তিমথি করিগান বলেন, আমি কখনও ওয়াশলেট নামক কমোডের নাম শুনিনি। যখন আমার একজন ক্লায়েন্টের কাছ থেকে নামটি প্রথম শুনলাম তখন আমি সিদ্ধান্ত নিলাম এই জিনিষটি আমি আগে ব্যবহার করে দেখব। দু’পাশে পা ঝুলিয়ে এতে আরাম করে বসা যায়। সাথে আছে হালকা গরম পানির স্প্রে। অন্যান্য ফাংশনের মাধ্যমে কমোড পরিষ্কার করা ও স্ফুটনাংকের নিচের তাপমাত্রার পানিতে পশ্চাদেশ পরিষ্কার করার ব্যবস্থা রয়েছে। আমি সত্যিই অভিভূত। যা হোক, তার আরো অনেক ক্লায়েন্টের কাছ থেকে এ ব্যাপারে কল আসে। অধিকাংশই মাল্টি-মিলিয়ন ডলারের বাড়ির মালিকরা এই আভিজাত্যের স্বাদ নিতে চান। জাপানীজ এই টয়লেট মেকার কোম্পানী এখন চাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের বেশিরভাগ বাথরুমে জায়গা করে নিতে। এজন্য তারা প্রচারণার মহাযজ্ঞও শুরু করে দিয়েছে। তারা কাস্টমারদের এ কথা বলছে এই পদ্ধতিতে কমোড ব্যবহার করার ফলে টয়লেট পেপার ব্যবহার করতে হবে না। কারণ এ ব্যাপারটি আরো স্বাচ্ছন্দকর। টোটো কোম্পানি হচ্ছে ওয়াশলেট এর মালিক। কিন্তু এই নামটি জাপানের প্রায় সকল হাইটেক টয়লেটের সাধারণ নামের ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়। অধিকাংশ ওয়াশলেটে রয়েছে উষ্ণ টয়লেট সীট। এতে সীটের নীচ থেকে উষ্ণ পানির একটি স্প্রে ছড়িয়ে পড়ে। তারপর শুকিয়ে যায়। একটি রিমোট কন্ট্রোলের মাধ্যমে টয়লেটের সিট এবং পানির তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করা যায়। প্রায় ৬০ শতাংশ জাপানী বাড়িওয়ালার টয়লেটে ওয়াশলেট রয়েছে বলে ধারণা করা হয়। টোটো যুক্তরাষ্ট্রে ১৯৯০ সাল থেকেই তার ব্যবসা বাড়ানোর চেষ্টা করছে। অধিকাংশ ক্রেতাই এর মধ্যে ধনী। আর আছে কিছু অভিজাত হোটেল। যেমন নিউইয়র্কের টাইমস স্কয়ারে ডাব্লিউ হোটেল। কর্পোরেট কাস্টমার যেমন গুগল (জিওওজি.ও) হেডকোয়ার্টার। একটি ব্যাপার এখানে অবশ্যই লক্ষণীয়। আর তা হচ্ছে মূল্য। একটি বেসিক ওয়াশলেট যা অন্য টয়লেট কস্ট থেকে কয়েক হান্ড্রেড ডলার বেশি। যেখানে টোটো’র সেরা প্রোডাক্ট নিওরেস্ট ৬০০ মডেল লিস্টে রয়েছে ৫০০০ ইউএস ডলারের বেশি হতে। কিন্তু কি আছে এতে? নিওরেস্ট ৬০০ মডেল অফার করছে স্প্রে ম্যাসেজ এবং বাতাস দুর্গন্ধমুক্ত করার অনুঘটক। এর সাথে থাকবে সেন্সর যা টয়লেটের ঢাকনা অটোমেটিকালি খোলা বা বন্ধ হবার কাজ করবে। এবং যখন ব্যবহারকারী হেটে যাবে তখন ফ্ল্যাশ করবে। এটি একটি এনার্জি সেভিং সিস্টেম যার মাধ্যমে পানিও সাশ্রয় হবে। ওয়াশলেট এর পরবর্তী পদক্ষেপ হচ্ছে হেলথ কেয়ার ডিভাইস। ভবিষ্যত মডেলে গ্লুকোজ লেভেল পরিমাপ করা এমনকি প্রেগনেন্সি টেস্টেরও ব্যবস্থা থাকবে।

জহির উদ্দিন মাসুম

ইউনিকোডে পরিবর্তনের জন্য কৃতজ্ঞতা: মুর্শেদের ইউনিকোড লেখনী ও পরিবর্তক ১.৭.২ (এপ্রিল ২৫, ২০০৭)

শামীম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত