সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন দ্যা ডেডলক (২৪-০৬-২০১০ ০২:৪১)

টপিকঃ জব ইন্টারভিউ - যেসকল প্রশ্নের উত্তর গাইডে থাকে না

http://www.watchmojo.com/blogs/images/jobinterview2.jpg
অসম্ভব ভাল রেজাল্টের অধিকারী সুমন সদ্য পড়াশোনার পাঠ চুকিয়ে চাকরির আবেদন করে চলেছেন বিভিন্ন স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠানে। যোগ্যতার মাপকাঠিতে সুমনের রয়েছে বর্ণিল শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্র। এরই ধারাবাহিকতায় দেশের খুব নামকরা বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানের লোভনীয় পদের ইন্টারভিউতে ডাক পড়ে সুমনের। যখন ইন্টারভিউ এর চিঠিটা তার হাতে পৌঁছায় তার ঠিক ৭ দিন পরে ইন্টারভিউ বোর্ডে সাক্ষাতকারের তারিখ দেখে মনে মনে পুলকিত হয়ে উঠে সুমন। হাতে যথেষ্ট সময়। নিজের মেধা এবং অধ্যাবসায়ের উপর তার যথেষ্ট আস্থা রয়েছে। তাই এক সপ্তাহ ধরে ইন্টারভিউ এর জন্য কঠোর সাধনার মাধ্যমে পড়াশোনা করে চললেন। নিজে নিজেই সন্তুষ্ট তার জ্ঞানের পরিধি আরেকবার ঝালিয়ে নিতে পেরে। ইন্টারভিউ বোর্ডে যখন সুমন উপস্থিত হলো তখন আত্মবিশ্বাসের সাথে নিজের প্রস্তুতি যথেষ্ট বলে মনে হলো । কিন্তু যখনই সে ইন্টারভিউ বোর্ডে উপস্থিত হলো তখন তাকে চাকরি সংশিস্নষ্ট বিভিন্ন বিষয়াদির সাথে সাথে বেশি কিছু শিঙ্গা সংস্লিষ্ট  বিহীন প্রশ্ন করা হয়। চাকরি এবং শিঙ্গা সংশিস্নষ্ট বেশিরভাগ প্রশ্নের উত্তর দিতে সক্ষম হলে অন্যসব প্রশ্নের উত্তর দিতে ব্যর্থ হওয়ায় যোগ্যপ্রার্থী হিসেবে নিজেকে উপস্থাপন করতে ব্যর্থ হন তিনি। ফলে চাকরিটা তার আর হয়ে ওঠে না। সুমনের মতো এমন অনেক প্রার্থী রয়েছে যারা শিক্ষা সংশ্লিস্ট  যে কোন প্রশ্ন সঠিকভাবে উত্তর দিতে সক্ষম হলেও শিক্ষা বহির্ভূত প্রশ্নের উত্তর দেওয়া সম্ভব হয়ে ওঠে না। ইন্টারভিউ বোর্ডে শিক্ষাবহির্ভূত প্রশ্ন করা হয় প্রার্থী সম্বন্ধে বিস্তারিতও ধারণা অর্জন করার জন্য, প্রার্থীকে বিব্রত করার জন্য নয়। চাকরিপ্রার্থীদের উদ্দেশ্যে ইন্টারভিউ বোর্ডে বেশকিছু প্রশ্ন সবসময়ই প্রায় করা হয়ে থাকে। পাঠকদের উদ্দেশ্যে এমন কিছু প্রশ্ন সম্বন্ধে আলোচনা করা হলো:

আপনার সম্বন্ধে কিছু বলুন

এটি খুবই সাধারণ একটি প্রশ্ন, কিন্তু এই প্রশ্নের উত্তর দিতে যেয়ে সবচেয়ে বেশি বিড়ম্বনায় পড়ে যান চাকরিপ্রার্থীরা। তারা মনে করেন, ব্যাক্তিগত জীবনের কোন কথা বলবো? কোন জায়গা হতে শুরু করবো? পরিবারের কথা বলতে হবে কী না? আপনি মনে রাখবেন, আপনার পরিবার সম্বন্ধে ইন্টারভিউ বোর্ডে উপস্থিত ব্যক্তিদের বিন্দুমাত্র আগ্রহ নেই। তারা অবশ্যই আপনার সম্বন্ধে বিস্তারিতও জানতে চাচ্ছেন। সুতরাং আপনি আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা, কোন প্রতিষ্ঠান হতে পাশ করেছেন, বা পূর্বে কোনো অফিসে কাজ করে থাকলে তার কাজের বর্ণনা এবং আপনাকে আপনি কিভাবে মূল্যায়ন করে থাকেন তার বর্ণনা দিন।

আপনার আগের চাকরি কেন ছাড়লেন?

এই প্রশ্নটির মাধ্যমে আপনার মানসিক অবস্থা সম্বন্ধে ধারণা পেতে চেষ্টা করা হয়। এই প্রশ্নের উত্তর অবশ্যই পজেটিভলি দিতে চেষ্টা করবেন। অর্থাৎ কখনোই পূর্বে কর্মরত প্রতিষ্ঠান সম্বন্ধে নেতিবাচক ধারণা দেবার চেষ্টা করবেন না। সেই সাথে খেয়াল রাখবেন পূর্বেকার প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজমেন্ট অথবা অফিসে যারা আপনার সহকর্মী ছিলেন তাদের সম্বন্ধে খারাপ ধারণা দেওয়া থেকে বিরত থাকুন।

আপনি কি অন্য কোন চাকরিতে আবেদন করেছেন?

এই প্রশ্নের উত্তর অবশ্যই বিশ্বস্ততার সাথে উত্তর দিতে চেষ্টা করবেন। আপনি নিশ্চয়ই একটি ইন্টারভিউ দিয়েই চাকরি পেয়ে যাবেন এই বিশ্বাসে বিশ্বাসী নন। নিশ্চয়ই বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চাকরির আবেদন করেছেন। ইন্টারভিউ বোর্ডে এই বিষয়টি স্বীকার করবেন। তবে এই প্রতিষ্ঠানে চাকরি নিশ্চিত হলে অন্য প্রতিষ্ঠান সম্বন্ধে আপনি আগ্রহী নন বলে জানাতে দ্বিধা করবেন না।

আপনি এই প্রতিষ্ঠানে চাকরি করতে আগ্রহী কেন?

এই প্রশ্নটি আপনাকে বোকা বানানোর জন্যই করা হয়ে থাকে। তাই এই প্রশ্নের উত্তর দেয়ার সময় বুদ্ধিমত্তার সাথে প্রতিষ্ঠান এবং চাকরির ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠানটির ভূমিকার সাথে আপনার জীবনের লক্ষের মধ্যে সামঞ্জস্যের কথা বলতে পারেন।

প্রতিষ্ঠানটি সম্বন্ধে আপনি কতটুকু জানেন?

এই প্রশ্নের উত্তরে কোন ভনিতা করবেন না। আপনি প্রতিষ্ঠানটি সম্বন্ধে যতটুকু জানেন ঠিক ততোটাই বলবেন। সেই সাথে কোথা হতে প্রতিষ্ঠানটি সম্বন্ধে তথ্য পেয়েছেন প্রয়োজনে তাও উল্লেখ করতে পারেন।

চাকরি সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে কোন অভিজ্ঞতা আছে কী?

আপনার যদি আবেদিত পদ সংশ্লিষ্ট কাজ করার অভিজ্ঞতা থাকে তবে বিস্তারিতভাবে উত্তর দিন। নতুবা সংক্ষেপে প্রশ্নের উত্তর দিতে চেষ্টা করবেন।

কত টাকা বেতন আপনি আশা করেন

এই প্রশ্নটি আপনাকে বিব্রত করবে নিঃসন্দেহে। তবে একটি কথা মনে রাখবেন, আপনি যে পদে আবেদন করেছেন তার জন্য পূর্ব থেকেই একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ বেতন এবং সুযোগ সুবিধা ধার্য করা হয়ে থাকে। ফলে বিব্রতকর পরিস্থিতি এড়িয়ে যেতে চাইলে বলতে পারেন যে, প্রতিষ্ঠানটির সংশিস্নষ্ট পদে যে বেতন স্কেল রয়েছে সে অনুযায়ী আপনি কাজ করতে আগ্রহী। নিশ্চিত থাকুন, এই প্রশ্নের উত্তর দিয়ে আপনি ঠকবেন না।

আমাদের প্রতিষ্ঠানে আপনার কোন পরিচিত ব্যক্তি কাজ করে কি?

খুব সাধারণ আবার জটিল প্রশ্ন। এই প্রশ্নের উত্তর অবশ্যই সততার সাথে দিতে হবে আপনাকে। নইলে প্রতিষ্ঠানে চাকরি পেলেও ভবিষ্যতে বিপদে পড়তে পারেন।

আপনি নিজেকে টীম প্লেয়ার মনে করেন কী?

এই প্রশ্নের উত্তরটি আপনাকে অবশ্যই পজেটেভলি দিতে হবে। সেই সাথে উল্লেখ করতে পারেন টীমের অন্য সদস্যদের সহায়তার মাধ্যমে নিজেকে মানিয়ে চলতে আপনি অভ্যস্ততা। সবচেয়ে ভাল হয় যদি আপনি পূর্বেকার কোন কাজের অভিজ্ঞতা বর্ণনা করতে পারেন যেখানে আপনার টীম প্লেয়ার হিসেবে যথেষ্ট ভূমিকা রাখার সুযোগ হয়েছিল।

আপনি কখনও কোন প্রতিষ্ঠান হতে বরখাস্ত হয়েছেন?

এই প্রশ্নের উত্তরটি কিন্তু আপনাকে বেশ সিরিয়াসলি বুদ্ধিমত্তার সাথে দিতে হবে। কেননা, কোন প্রতিষ্ঠানই পূর্বে কোন প্রতিষ্ঠান বরখাস্তও হওয়া কর্মীকে নিজের প্রতিষ্ঠানে কাজ দিতে আগ্রহী নয়।

আমাদের কাজের প্রয়োজনে আপনি কতক্ষণ অফিস করতে পারবেন?

এই প্রশ্নটির মাধ্যমে আপনার মানসিক সহ্যক্ষমতা মূল্যায়ন করার চেষ্টা করে থাকেন ইন্টারভিউ বোর্ডের কর্মকর্তারা। এই ক্ষেত্রে আপনার মনে রাখা উচিত অফিসের প্রয়োজন ব্যতিত তারা আপনাকে অফিসে শুধু শুধু বসিয়ে রাখতে আগ্রহী নয়। এই ক্ষেত্রে কৌশলী উত্তর দিতে হবে আপনাকে।

চাকরিরত অবস্থার অন্য কোন প্রতিষ্ঠানে ভাল চাকরির সুযোগ পেলে আপনি কি করবেন?

এই প্রশ্নটি তখনই করা হয় যখন ইন্টারভিউ বোর্ডের কর্মকর্তারা প্রাথমিক ভাবে আপনাকে তাদের প্রতিষ্ঠানের জন্য মনোনীত করেন। এই প্রশ্নের মাধ্যমে তারা আপনার কাজের প্রতি বিশ্বসভ্যতার ব্যাপারে বিসারিত জানতে চান। এক্ষেত্রে আপনার উত্তর হতে পারে খুব ভাল কোন প্রতিষ্ঠান হতে অফার আসলে ভেবে দেখবো, তবে কখনই সমমানের কোন প্রতিষ্ঠানে নিজেকে সম্পৃক্ত করার কোন আগ্রহ নেই। তবে যা কিছুই করবো না কেন, তা অবশ্যই আপনার প্রতিষ্ঠানের নিয়মনীতি এবং অনুমোদন সাপেড়্গে।

১০ বছর পরে নিজেকে কিভাবে দেখতে চান?

এই প্রশ্নের মাধ্যমে ইন্টারভিউ বোর্ডে উপস্থিত কর্মকর্তারা আপনার আত্মবিশ্বাস এবং জীবনের লক্ষ সম্বন্ধে জানতে আগ্রহী। সুতরাং ভেবে চিন্তে পজেটিভলি উত্তর দিতে চেষ্টা করবেন।

আপনি কি নিজেকে এই পদে যোগ্য মনে করেন?

আপনাকে অবশ্যই এই প্রশ্নের উত্তর আত্মবিশ্বাসের সাথে দিতে হবে। আপনি দৃঢ়ভাবে বলবেন। আপনি এই পদের বিপরীতে অবশ্যই যোগ্য ব্যক্তি হিসেবে নিজেকে মূল্যায়ন করে থাকেন।


আপনার নিকট টাকা অথবা কাজ কোনটি বেশি মূল্যবান?

এই প্রশ্নটি আপনাকে বিপদে ফেলার জন্যই করা হয়ে থাকে। নার্ভাস না হয়ে বুদ্ধিমত্তার সাথে পরিস্থিতি বুঝে উত্তর দিতে চেষ্টা করবেন। জীবনে অবশ্যই টাকার প্রয়োজন আছে। সুতরাং কাজের মাধ্যমে অর্জন করা টাকাই আপনার নিকটে বেশি মূল্যবান বলতে পারেন।

ইন্টারভিউ বোর্ডে আপনাকে বিভিন্নভাবে মূল্যায়ন করার উদ্দেশ্যেই শিক্ষা এবং পদ বহির্ভূত বিভিন্ন প্রশ্ন করা হয়ে থাকে। উপরে উল্লেখিত প্রশ্নগুলো সাধারণত ইন্টারভিউ বোর্ডে করা হয়ে থাকে। ঘরে থেকেই নিজে নিজে প্রশ্নগুলোর উত্তর তৈরি করে নিলে ইন্টারভিউ বোর্ডে অন্যদের থেকে নিজেকে যোগ্যপ্রার্থী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে পারবেন নিঃসন্দেহে।
http://josh-wyxl.itmblog.com/files/2010/03/job20interview-saidaonline.jpg


=================================
কুইজঃ

বলতে হবে এই লেখাটি কোথা হতে নেওয়া হয়েছে (লেখাটি গত এক সপ্তাহের মধ্যে প্রকাশ করা হয়েছে) ? আমি মূলত দেখতে চাই সেই সূত্রটা কেমন জনক প্রিয় ? কেউ মূল সূত্রটা না দিতে পারলে আগামী ২৪ ঘন্টা পর সূত্রটি প্রকাশ করবো ।

Re: জব ইন্টারভিউ - যেসকল প্রশ্নের উত্তর গাইডে থাকে না

ধন্যবাদ আপনাকে। লেখাটা চাকুরী প্রার্থীদের জন্য বেশ উপকারী হবে আশা করি।

Re: জব ইন্টারভিউ - যেসকল প্রশ্নের উত্তর গাইডে থাকে না

পাগল ছেলে লিখেছেন:

ধন্যবাদ আপনাকে। লেখাটা চাকুরী প্রার্থীদের জন্য বেশ উপকারী হবে আশা করি।


একমত

জানার চেষ্টা করছি

Re: জব ইন্টারভিউ - যেসকল প্রশ্নের উত্তর গাইডে থাকে না

পরশ লিখেছেন:
পাগল ছেলে লিখেছেন:

ধন্যবাদ আপনাকে। লেখাটা চাকুরী প্রার্থীদের জন্য বেশ উপকারী হবে আশা করি।


একমত

কাজে লাগলে ভাল

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

Re: জব ইন্টারভিউ - যেসকল প্রশ্নের উত্তর গাইডে থাকে না

এই প্রশ্নটি আপনাকে বিব্রত করবে নিঃসন্দেহে। তবে একটি কথা মনে রাখবেন, আপনি যে পদে আবেদন করেছেন তার জন্য পূর্ব থেকেই একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ বেতন এবং সুযোগ সুবিধা ধার্য করা হয়ে থাকে। ফলে বিব্রতকর পরিস্থিতি এড়িয়ে যেতে চাইলে বলতে পারেন যে, প্রতিষ্ঠানটির সংশিস্নষ্ট পদে যে বেতন স্কেল রয়েছে সে অনুযায়ী আপনি কাজ করতে আগ্রহী। নিশ্চিত থাকুন, এই প্রশ্নের উত্তর দিয়ে আপনি ঠকবেন না।

সম্প্রতি প্রান আরএফএল গ্রুপ তাদের মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ পোস্টে বিবিএ পাস ফ্রেশ গ্রাজুয়েট চেয়ে বিজ্ঞাপন দেয়। তারা সাথে বেতনের বিষয়টি উল্লেখ করেছিল। এবং ফিগারটি ছিল 10k। আপনার পরামর্শ অনুযায়ী বেতন এক্সপেক্টেশন সম্পর্কে উত্তর দিলে ধরা খাওয়ার চান্স আছে। কারন অনেক প্রতিষ্ঠানই বেতন ও অন্যান্য সুবিধাদির বেলায় কর্পরেট কালচার মেনে চলে না। তাই, আমার সাজেশান হলো, ইন্টারভিউ দিতে যাওয়ার আগে সেই প্রতিষ্ঠানের বেতন কাঠামো সম্পর্কে জেনে গেলেই ভাল হবে।