সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন তাওহিদ (১৯-০৬-২০১০ ০০:৪২)

টপিকঃ প্রতিটি ঘরে ঘরে জন্ম নিক নাসির ভাই...

মাঝে মধ্যে এমন হয় যে কোনো একটি ঘটনা একা একা হজম করতে ইচ্ছে হয় না । মনে হয় জনে জনে ডেকে বলি । জানাই সে গল্পের কথা । আবার এমনো গল্প আছে কিংবা অজানা কাহিনী আছে যা আপনাদের না বলা মানে হচ্ছে এক ধরনের অন্যায় করে ফেলা । অন্যায় মানে ঘোরতর অন্যায় । এই অন্যায় দেশের প্রতি, আপ্নাদের প্রতি, অচেনা সবার প্রতি-ই । তেমন একটা অবাক করা গল্প আপনাদের আজকে শোনাই ।

নাসির ভাই দেশে যাচ্ছেন । তার বিয়ে । বিয়ে নিয়ে এই তরুণের মধ্যে কোনো উচ্ছাস দেখি নি । উনি যখন লন্ডনে আসার আগে সিলেটে ছিলেন তখন ছাতক লাফার্জ সিমেন্টের পাশের রাস্তা থেকে আট কিলোমিটারে এই তরুন সম্পূর্ণ নিজের তাগিদে ও উদ্দীপনায় প্রায় সাড়ে চার হাজার গাছ লাগিয়েছিলেন কিছু মানুষকে সঙ্গী করে । শিক্ষিত এই তরুন সিলেটে যতদিন ছিলেন, সারাটাক্ষণ কাজ করেছেন কৃষকদের সাথে । পড়ালেখার পর অন্যরা যখন খেলতে যেতেন, তিনি যেতেন জমিতে ফসল ফলাতে । এমন না যে নাসির ভাইদের খুব অর্থাভাব, এমন না যে তাকে চাষ করে খেতে হবে । তিনি একজন কৃষক হয়েছিলেন দেশের জন্য । তিনি একজন কৃষক হয়েছিলেন এই দেশে কৃষি আন্দলোনের জন্য । এরপর লন্ডনে উচ্চ শিক্ষার জন্য চলে আসাতে আর সম্পৃক্ত থাকতে পারেন দেশের কৃষি আর কৃষকের সাথে । কিন্তু এই লোক মাটির লোক । লন্ডনে তিনি খুঁজে খুঁজে বের করেছেন কৃষি আর তার সাথে সম্পৃক্ত মানুষের সাথে , বৃটেনের বিভিন্ন চাষাবাদের খোঁজ তিনি নিয়েছেন অভিজ্ঞ মানুষদের কাছ থেকে । জেনেছেন তাদের ফসল ফলাবার গল্প ।

আপনাদের কি মনে হয় ঘটনা এখানে শেষ ?

না ঘটনা এখানে শেষ না । তিনি দেশে বিয়ে করতে যাচ্ছেন । কোনো শপিং করেন নি হবু স্ত্রীর জন্য । মায়ের উপর ছেড়ে দিয়েছেন সেগুলো । তিনি কি করেছেন জানেন? তিনি দেশে কিনে নিয়ে যাচ্ছেন ফসলের বীজ ।যেগুলোর বেশীর ভাগই দেশে দূর্লভ । বৃটিশ কুমড়োর বীজ, বৃটিশ অনিয়ন, ক্যাবেজ, বিভিন্ন জাতের টমেটো, হানি ডিউ এর বীজ, বিভিন্ন রকমের বৃটিশ শবজীর বীজ, স্ট্রবেরী, পিয়ার্স, কিউই ফলের বীজ ইত্যাদি ।

আমি এসব দেখে কিছুক্ষণ চুপ করে রইলাম । তাঁর কাছ থেকে তাঁর অনেক অনেক পরিকল্পনার কথা শুনলাম । মানুষ যেখানে ইন্টেরিয়র ডিজাইন নিয়ে ব্যাস্ত, লক্ষ লক্ষ অর্থ বিনাশ করছে, সেখানে তিনি ভাবছেন নতুন এক পরিকল্পনা । এক্সটেরিয়র ডিজাইন । যেই ডিজাইন হবে ঘরের বাইরের সৌন্দর্য্য । ফলের গাছ আর সব্জির গাছ দিয়ে । শুনলাম তার ক্ষুদ্র ঋণ নিয়ে পরিকল্পনার কথা । যেই ক্ষুদ্র ঋণ সুদ খেকো ইউনুসের মতন নয় । যেই ক্ষুদ্র ঋণ আসলেই মানুষের জন্য ।

আমি আসলে এতটাই বিমুড় হয়ে গিয়েছিলাম নাসির ভাইকে দেখে যে শুধু অপলক তাকেই দেখছিলাম । সুরমা পাড়ের এই ছেলেটিকে দেখে আমি বার বার বিভ্রান্ত হচ্ছিলাম আর লজ্জা পাচ্ছিলাম খুব । আমি যখন গতবার দেশে গেলাম, তখন যাবার আগে কি করেছি ? মা’র জন্য, বাবার জন্য, বোনের জন্য,বন্ধুদের জন্য কত কিছু কিনেছি । কি নিয়ে গেছি দেশের জন্য? কয়টা বার ভেবেছি দেশের কথা ? শুধু ব্লগে ব্লগে দেশপ্রেমিক হয়েই যেন জীবন চলে যাচ্ছে এক পরিপূর্ণ ভন্ডের মত । এক পরিপূর্ণ ও ধূর্ত ভন্ডের মত ।

অথচ দেখেন, এই লোকটি বিয়ে করতে যাচ্ছে দেশে । কিন্তু দেশের জন্য নিয়ে যাচ্ছে ফসলের বীজ । তার প্রেডিকশন হচ্ছে, লন্ডন থেকে পড়ালেখা করে কেউ যদি জমিতে চাষ করতে যায়, তবে তাঁকে দেখে দশটি ছেলেও হয়ত আগ্রহী হবে । এই ভেবেই তার যাত্রা । কোনো কস্মেটিক্স নিয়ে বউকে সাজাতে তিনি কিনেননি লিপ-স্টিক, পাউডার, স্নো, অর্নামেন্টস, কালি-ঝুলি ।

তিনি দেশের মাটির জন্য স্বর্ণের বীজ কিনে নিয়ে যাচ্ছেন । দেশকে সাজাতে । দেশকে রাঙাতে ।

বলেনতো বাংলাদেশের মাটি কাদের জন্য কাঁদে ?


স্বচিত্র প্রতিবেদন পড়ুন @ 'নিঝুম মজুমদারের ব্লগ'

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন সারিম (১৯-০৬-২০১০ ০০:৪৬)

Re: প্রতিটি ঘরে ঘরে জন্ম নিক নাসির ভাই...

হমম।  thumbs_up thumbs_up thumbs_up thumbs_up

Re: প্রতিটি ঘরে ঘরে জন্ম নিক নাসির ভাই...

লেখাটি পড়ে উৎসাহ পেলাম। তাওহিদ ভাইকে শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ এবং নাসির ভাইয়ের জন্য রইল শুভ কামনা।  thumbs_up  thumbs_up

Re: প্রতিটি ঘরে ঘরে জন্ম নিক নাসির ভাই...

অধির ধৈর্য পরীক্ষায় কৃতিত্বের সহীত পাশ করার জন্য আপনাদের উভয়কে স্বাগতম এবং অসংখ্য ধন্যবাদের ধইন্যা পাতা।