টপিকঃ [b] [u]সৈকতে কিছুক্ষনঃ[/u][/b]

সৈকতে কিছুক্ষনঃ
   ২৩/০৪/২০০৫ ইং শুক্রবার। কাবা শরিফে জুমার নামাজ শেষ করে গাড়ীতে উঠে পড়লাম।ডানে বায়ে তাকিয়ে দেখি কোন সিট খালী নেই। গাড়ীর ষ্টাফ একজন আঙ্গল দিয়ে পিছে ইশারা করল। পিছনে দুটো খালি সিট চোখে পড়ল। একদম পিছে। বাস জার্নি আমার খুবই খারাপ লাগে। তার পরেও পিছনে গিয়ে বসলাম বন্ধুর অনুরোধে। ওর নাম ইকবাল। এখানে এসে চাকরির সুবাদে পরিচয় হয়েছে। ইকবালের বাড়ী চাঁদপুর।
    আমাদের পর আর যে দু-একজন উঠে পড়েছিল তাদের বাস কোং একজন অফিসার সুন্দর ব্যবহারের মাধ্যমে নামিয়ে দিল। ৪২ জন যাত্রী নিয়ে বাস গন্তব্যের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিল। আশ্চয্যের বিষয় হলো এই বাসে কোনো হেলপার বা কন্টাকটার নেই। বাসের দরজা সুইজ সিস্টেম। এবং সুইজগুলো ড্রাইভারের পাশে। দুপাশে পাহাড়, মরুভুমি, আর উটের দলগুলো দেখতে দেখতে কখন যে দেড় ঘন্টার বাস জার্নি শেষ হয়ে গেল বুঝতে পারলাম না।
     সহরটির নাম জেদ্দা। এ বন্দর নগরীতে আমার পরিচিত কেউ থাকেনা। আমার বন্ধুর দুজন চাচাত ভাই থাকে। তাদের সাথে সাক্ষাত করে যেতে চেয়েছিলাম সৈকতে কিন্তু তা আর হলোনা। উনারা বললো, কাজ শেষ করে তারাও যাবে। তাই অগত্যা অপেক্ষা করা ছাড়া আর কোনো উপায় ছিলনা।
     রাত ১.৩০ মিনিটে কাজ শেষ করে খেয়ে দেয়ে বেরোতে রাত ৩টা বেজে গেলো। এই শহরে তাত ১২টার পর দোকান খোলা রাখা নেষেধ। এভাবে ৪/৫ জন রাস্তায় বেরোনো বিপদজনক।
     ২০মিনিট অপেক্ষা করার পর ট্যাক্সি পেলাম। মাত্র ১০ রিয়ালের ভাড়া ২০ রিয়াল চেয়ে বসলো। রাত পৌনে ৪ টার সময় সৈকতে পৌছালাম। সৈকত ছিল একেবারে জন-মানব শুন্য। আমরা হাটা আরম্ভ করলাম। ট্যাক্সিতে উঠার সময় মনে মনে ভাবছিলাম, বড় বড় ঢেউ পায়ে এসে আছাড় খাবে, ঢেউয়ের গর্জন শোনা যাবে, ঝড়ো হাওয়া বয়বে। কিন্তু এখানে এসে দেখলাম তার উল্টো। বড় একটা দিঘিতেও এর থেকে বেশি ঢেউ থাকে। আর ঢেউ যেহেতু নেই সেহেতু গর্জনেরতো প্রশ্নই আসেনা। আর বাতাস নেই বললেই চলে। যেটুকু গায়ে এসে লাগলো তাতে ঠান্ডার পরিবর্তে গরম অনুভব করলাম।
     তবে একটা বিষয় আমাদেরকে অবাক করলো আর সেটা হলো এখানকার মাছেদের সাহস। আমাদের খুব কাছে এসে খেলা করতে লাগলো। ভাবতাম সাগরের পানি হয়ত খুব ঘোলা। কিন্তু এখানের পানি খুব সচ্ছ দেখা যাচ্ছিলো। কৌতুহল বসত সামান্য পানি মুখে পুরে দিয়েছিলাম। আমরা যে লবন খাই তার থেকেও তিনগুন বেশি নোনা মনে হলো। সিনেমা-নাটকে, গল্প-উপন্যাসে যে সাগর দেখেছি তা কল্পনাই থেকে গেলো। সারাদিনের জার্নিতে শরীর খুব ক্লান্ত। আমরা ট্যাক্সির জন্যে অপেক্ষা করতে লাগলাম। আস্তে আস্তে আকাশের চাঁদ সমুদ্রের নিচে তলিয়ে গেলো। হঠাত আমরা শো শো শব্দ শুনতে পেলাম। দৌড়ে চলে গেলাম সমুদ্রের কাছে এবং দেখতে পেলাম সেই সিনেমা-নাটকের উত্তাল সমুদ্র। তবে সে ঢেউ বেশিক্ষন স্থায়ী হলোনা। ফলে সমুদ্র দেখার আকাংখা রয়েই গেল।
    এস, এম, শাহানুর
      মক্কা থেকে।

Allah is a better planner... so whenever u'r plan fails, cheer up... Allah has a better plan for you

Re: [b] [u]সৈকতে কিছুক্ষনঃ[/u][/b]

কেমন লাগলো সবার কাছে?

Allah is a better planner... so whenever u'r plan fails, cheer up... Allah has a better plan for you

Shahanur79'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: [b] [u]সৈকতে কিছুক্ষনঃ[/u][/b]

খুব ভাল লেগেছে ভাই ধন্যবাদ শেয়ার করার জন্য।

কাইটস এর থিম পুরা আমার লাইফের থিম.  yusuf_afzal2000@yahoo.com

Re: [b] [u]সৈকতে কিছুক্ষনঃ[/u][/b]

আমি কখনো সমুদ্র দেখি নাই বাংলাদেশে ও না.  তাই একদিন আমিও ঠিক করলাম কুয়েতের সমুদ্র দেখতে যাবো.... দিনে অনেক গরম তাই রাতে বেরুলাম রাত বাজে ২.১৫ এর কাছা কাছি.. সমুদ্রতে ঢুকার গেইটে খাইলাম ধরা... এখানের পুলিশ মামুরা অনেক পাশান ঢুকতে তো দিব দূরে থাক... আমাকে   এবং আমার এক বন্ধু কে হাজতে নিয়া গেল এই গরমে...  sad আমি আমার আব্বুর কাছে বলে আসিনি তাই ভয় লাগছিল অনেক ... পরে মামুরা আমাদের ফজরের আজানের সময় ছেরে দেয়.. পরে সকালের সমুদ্র দেখলাম শারা রাত যেগে থাকার পরে সমুদ্র এর কাছে যেয়ে বসার মজাই আলাদা...

(আমি গুছিয়ে লিখতে পারিনা বুঝলে তো বুঝলেন ই না বুঝলে কি করবো ? )  brokenheart

নাবালক'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: [b] [u]সৈকতে কিছুক্ষনঃ[/u][/b]

অনেক দিন পড়লাম তো । নতুন কীছু লিখেন।

Re: [b] [u]সৈকতে কিছুক্ষনঃ[/u][/b]

shemul70 লিখেছেন:

অনেক দিন পড়লাম তো । নতুন কীছু লিখেন।

খুব তাড়াতাড়ি মদিনার একটা কাহিনী লিখব। আশা করছি সবার কাছে ভাল লাগবে। লেখা প্রায় শেষের দিকে।

Allah is a better planner... so whenever u'r plan fails, cheer up... Allah has a better plan for you

Shahanur79'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: [b] [u]সৈকতে কিছুক্ষনঃ[/u][/b]

অনেক ধন্যবাদ, শেয়ার করার জন্য।

লেখাটি by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: [b] [u]সৈকতে কিছুক্ষনঃ[/u][/b]

ভাল লাগল আপনার সৈকত ভ্রমণের লিখা। 
সিনেমা-নাটকের উত্তাল সমুদ্র দেখতে হলে মনে হয় আমাদের কক্সবাজারে ই আপনাকে আসতে হবে।  smile

Shahanur79 লিখেছেন:

আস্তে আস্তে আকাশের চাঁদ সমুদ্রের নিচে তলিয়ে গেলো।


এই মুহূর্ত গুলো ক্যামেরা বন্দি করতে পারলে ভাল হত (নাকি করে রেখেছেন?)

Shahanur79 লিখেছেন:

খুব তাড়াতাড়ি মদিনার একটা কাহিনী লিখব। আশা করছি সবার কাছে ভাল লাগবে। লেখা প্রায় শেষের দিকে।

অপেক্ষায় থাকলাম।

অফ টপিকঃ এই টপিকে শাহানুর ভাইয়া পরপর দুবার পোস্ট করতে পেরেছেন।  isee

Re: [b] [u]সৈকতে কিছুক্ষনঃ[/u][/b]

সেলিম রাজ লিখেছেন:

অফ টপিকঃ এই টপিকে শাহানুর ভাইয়া পরপর দুবার পোস্ট করতে পেরেছেন।  isee

22nd May 2010 5:12:09 pm
25th Jun 2010 1:01:50 am

১০

Re: [b] [u]সৈকতে কিছুক্ষনঃ[/u][/b]

দারুন লিখেছেন!

আল্লাহ আপনি মহান

১১

Re: [b] [u]সৈকতে কিছুক্ষনঃ[/u][/b]

হ্যা ভাই সাগরে গেলে মন যেন কেমন কেমন করে ! বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকেই বলছি ।
আপনার এই ভ্রমণের ছবিগুলো থাকলে শেয়ার করতে পারেন । We can't wait to see .

IMDb; Phone: Huawei Y9 (2018); PC: Windows 10 Pro 64-bit

১২

Re: [b] [u]সৈকতে কিছুক্ষনঃ[/u][/b]

সাদাত হাসান লিখেছেন:
সেলিম রাজ লিখেছেন:

অফ টপিকঃ এই টপিকে শাহানুর ভাইয়া পরপর দুবার পোস্ট করতে পেরেছেন।  isee

22nd May 2010 5:12:09 pm
25th Jun 2010 1:01:50 am


হুমম সেটা দেখিছি! কিন্তু আমি তো জানি "এক জনের" পর "আরেক জন" মন্তব্য না করলে সেখানে আগের মন্তব্যদাতা মন্তব্য করতে পারবেনা না!