২১

Re: কম্পিউটার সামগ্রীর উপর শুল্ক আরোপ

শামীম লিখেছেন:

অফটপিক
আমান ভাইয়ের মন্তব্য দেখার আগেই উপরের মন্তব্যটা লেখা শুরু করেছিলাম। তারপর পোস্ট করতে গিয়ে অনেক ঝামেলা পার করতে হল।

আর আপনার এই পোস্টটি দেখলে আমি আমার পোস্টটাই দিতাম না smile

“All our dreams can come true if we have the courage to pursue them.” - Walt Disney
http://www.amanpages.com/

২২ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন অয়নবাংলা (১৯-০৬-২০০৭ ২১:৪০)

Re: কম্পিউটার সামগ্রীর উপর শুল্ক আরোপ

আমি প্রোগ্রামিং বলতে Advanced Use বুঝিয়েছিলাম। যেহুতু  confusion হচ্ছে কাজেই আমি অন্য term ব্যবহার করব। আমি কম্পিউটারের উপকারিতা বা অপকারিতা নিয়ে কথা বলছি না।

যার ১০% বেশী  দেওয়ার সামর্থ্য নাই সে কোর্স করে, ঐ বিদ্যা ব্যবহার করে তারপর কিনবে। Graphics আর Programming ছাড়া কোন কিছু শিখতে বেশিদিন লাগার কথা না। আমান ভাই আপনার ঐ আত্মীয়কে জীগেস করে দেখেন, উনি কম্পিউটার না কিনলে তাই করত। ১০%  কেন  ৫০% ও উনাদের আটকাতে পারবে না।

শামীম ভাই, প্রথমত আপনি যেসব ডাটাবেইসের উধারণ দিয়েছহেন (জমি-জমা ইত্যাদি) তা বাংলাদেশে কবে সম্ভব তা বলা যাচ্ছে না, তবে জমি-জমার তথ্য কোন দেশেই publicly disclose করা হয় না। ই-গভর্নেন্স যারা ব্যবহার করে তারা ১০% দিতে পারবে না - এইটা আমি মানতে পারলাম না।

আমাদের প্রায় ৫০% মানুষ দারিদ্রসিমার নীচে। শুধু হারানো রাজস্ব দিয়ে এটা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব?

২৩ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন বিপ্রতীপ (১৯-০৬-২০০৭ ২১:৪২)

Re: কম্পিউটার সামগ্রীর উপর শুল্ক আরোপ

অয়নবাংলা লিখেছেন:

যার ১০% বেশী  দেওয়ার সামর্থ্য নাই সে কোর্স করে, ঐ বিদ্যা ব্যবহার করে তারপর কিনবে। Graphics আর Programming ছাড়া কোন কিছু শিখতে বেশিদিন লাগার কথা না। আমান ভাই আপনার ঐ আত্মীয়কে জীগেস করে দেখেন, উনি কম্পিউটার না কিনলে তাই করত। ১০%  কেন  ৫০% ও উনাদের আটকাতে পারবে না।

অয়ন ভাই ,আপনার কথা মানছি...
নিজের কম্পিউটার না থাকলে কেউ কিছু শিখতে পারবেন না...এটা ঠিক নয় । শিখতে পারবেন...কিন্তু ব্যাপারটা নিজের কম্পিউটার থাকলে যতোটা সহজ হতো ততোটা হবে না। যে কাজটা সহজে হয় তা শুধু শুধু পেঁচিয়ে লাভ কি? প্রযুক্তির প্রধান উদ্দেশ্য তো হচ্ছে জীবনটাকে সহজ করে দেয়া...। তাই একুশ শতকের মানুষ হিসেবে আমরা কম মূল্যে কম্পিউটারের মতো একটি পণ্য কেনার আশা তো করতেই পারি...নাকি?

২৪

Re: কম্পিউটার সামগ্রীর উপর শুল্ক আরোপ

অামি অর্থনীতি বুঝি না। তবে এটুকু বুঝি যে, সবাইকে স্কুলে পাঠালেও ভালো ফল করে কিছু করার যোগ্যতা মাত্র কয়েকজনেরই হয়। এটা ঠিক যে, অামার দেখা এ পর্যন্ত যত কম্পিউটার মালিক দেখেছি, তার বেশীরভাগই তেমন কোন কাজে এটাকে ব্যবহার করেন না। কিন্তু সত্যি যারা কাজে ব্যবহার করার যোগ্যতা রাখে, তাদের পক্ষে কম্পিউটার কেনার সামর্থ্য থাকে না। অামি নিজের কথাই বলতে পারি। অামি সিনিয়র প্রোগ্রামার হিসেবে একটা কোম্পানীতে চাকরী করেছি, কিন্তু ওই চাকরীতে ঢোকার অাগেও অামার নিজস্ব কোন কম্পিউটার ছিলো না। বন্ধুদের কম্পিউটার ব্যবহার করেই প্রোগ্রামিং শিখেছি। কোন রকম কর না থাকার পরও অামার কেনার সামর্থ্য ছিলো না। তারপর অফিস থেকে একটা কম্পিউটার পাই ফ্রি। সেটাও ছিলো সেলেরন ৭০০ মে.হা, যখন কিনা বাজারে ১.২ গি.হা. চলছে, বিল্ট-ইন অডিও-ভিডিও, ইত্যাদি। তখনকার সময়ের দাম ২৩,০০০ টাকা। (অফটপিকঃ ওটা এখন অামার ছোট ভাই চালাচ্ছে লিনাক্সে)

যাইহোক, অামার কথা হচ্ছে যারা কম্পিউটার কিনে তারা সবসময় এটাকে কাজে ব্যবহার করবে সেটা অাশা করা যায় না। এর মধ্যে কয়েকজন ভালো কাজ করবে। তাছাড়া, তাদের গরীব বন্ধুরাও এ থেকে উপকৃত হয়। ধনীরাই যে শুধু কম্পিউটার কেনে, এরকম কথা কিন্তু অামি বলছি না। কম্পিউটার সহজলভ্য হওয়াতেই অামার পক্ষে প্রোগ্রামার হওয়া সম্ভব হয়েছে। কম্পিউটারের দাম বেশী হলে, অামার বন্ধুরাও কিনতে পারতো না, অামিও কিছু শিখতে পারতাম না।

২৫

Re: কম্পিউটার সামগ্রীর উপর শুল্ক আরোপ

অয়নবাংলা লিখেছেন:

শামীম ভাই, প্রথমত আপনি যেসব ডাটাবেইসের উধারণ দিয়েছহেন (জমি-জমা ইত্যাদি) তা বাংলাদেশে কবে সম্ভব তা বলা যাচ্ছে না, তবে জমি-জমার তথ্য কোন দেশেই publicly disclose করা হয় না। ই-গভর্নেন্স যারা ব্যবহার করে তারা ১০% দিতে পারবে না - এইটা আমি মানতে পারলাম না।

বক্তব্যের এই ডেটাবেইসগুলোর রেফরেন্স দিলাম:
১. ই-গভর্নেন্স দুরে যাওয়ার দরকার নেই; ভারতের কয়েকটা রাজ্যেই আছে।
২. জমি জমার ডেটাবেস: পত্রিকায় পড়েছি, ভারতের কয়েকটা রাজ্যে আছে। কৃষক সেখান থেকে পর্চার কপি নিতে পারে। যেটার প্রিন্ট-আউট নিয়ে গেলে ব্যাংক থেকে কৃষি ঋণ পাওয়া যায় (অর্থাৎ এটা একটা ভ্যালিড ডকুমেন্ট)।
৩. টেন্ডার: রোডস এন্ড হাইওয়েজ এবং পি.ডব্লিউ.ডির টেন্ডার অনেকটাই অনলাইনে (টেন্ডার ডকুমেন্ট ডাউনলোড করা যায়) ---- হ্যা ভাই, এটা বাংলাদেশেই।
৪. ম্যাপ: গুগলআর্থ ছাড়াও আরও কয়েকটা আছে। চাইলেই সেগুলো আপডেট ও ডিটেইল করা যায়। ভারতের বিভিন্ন অংশের যত ডিটেইলিং আছে, বাংলাদেশের ক্ষেত্রে তা এখনও নেই অবশ্য।
৫. অন্যান্য অফিসিয়াল ফর্ম/তথ্য: যে কোন এমবেসী থেকে ভিসার নিয়মাবলী, আবেদনপত্র সবই পাবেন।  একই ভাবে সরকারের বিভিন্ন দফতরের বিভিন্ন আবেদনপত্র অনলাইনে আছে। গ্রামীনফোনের ইন্টারনেট সেন্টার .. না কি যেন... ওটাতে লিংক পাবেন।
৬. কসমেটিক/পাওয়ার টিলার ইত্যাদি ... মন্তব্য নিষ্প্রয়োজন মনে করছি!

যাদের কথা বলছেন... ১০% কেন, বরং উল্টা আপনি ওদের হয়ে ৫০% দাম দিলেও কিনতে পারবে না... ট্যাক্স দেয়া দুরের ব্যাপার। কিন্তু তাঁরা সাইবারক্যাফে বা কিয়স্ক (ভারতের কয়েকটি রাজ্যের মত, বর্তমানে গ্রামীন ফোনের সেন্টারের মত) জায়গায় গিয়ে ঠিকই ই-গভর্নেন্সের সুবিধা ব্যবহার করতে পারবে। ই-গভর্নেন্স মানে সরকারী কাজ ইন্টারনেটের সাহায্যে করা বলেই মনে করি। আপনার এলাকার একটা কাজে কোন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করা দরকার, সেটা সংশ্লিষ্ট দপ্তরে ই-মেইলে জানালেই তাঁরা ব্যবস্থা নেবে ... ইমেইলটাই দলিল/ ভ্যালিড অভিযোগনামা/রেফারেন্স। কাজেই কারা কম্পিউটার কিনতে পারবে আর পারবে না সেই তুলনার ক্ষেত্রে তাঁদের কোন ভুমিকা নেই। তুলনা করা যাবে, যারা আগেও কিনতো তাদের সাথে।

অয়নবাংলা লিখেছেন:

আমাদের প্রায় ৫০% মানুষ দারিদ্রসিমার নীচে। শুধু হারানো রাজস্ব দিয়ে এটা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব?

আগের পোস্টেই বলেছি। তুলনা দিন। দূর্নীতির কারণে হারানো রাজস্ব বেশি নাকি কম্পিউটার থেকে এক্সপেক্টেড রাজস্ব আয় বেশি? যদি বেশিই না হয় তবে এটার পেছনে ছুটা কেন?

ভাল থাকবেন।

শামীম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

২৬ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন অয়নবাংলা (১৯-০৬-২০০৭ ২৩:২৮)

Re: কম্পিউটার সামগ্রীর উপর শুল্ক আরোপ

জমি জমার ডেটাবেস - বাংলাদেশে তৈরি করতে সময়ের ব্যাপার। India এইটা publicly disclose কেমনে করে জানি না। সিকিউরিটির জন্য করা হয় না।

ই-গভর্নেন্স , টেন্ডার, ম্যাপ: গুগলআর্থ , অন্যান্য অফিসিয়াল ফর্ম/তথ্য, কসমেটিক/পাওয়ার টিলার ইত্যাদি - আপনি ভুল করছেন, আমরা কম্পিউটারের উপকারিতা নিয়ে কথা বলছি না এইটা আমাদের আলোচোনার সাথে irrelevant - আমি বলছি যারা এইগুলো ব্যবহার করছে তারা ১০% ট্যাক্স দিতে পারবে।

শামীম লিখেছেন:

যাদের কথা বলছেন... ১০% কেন, বরং উল্টা আপনি ওদের হয়ে ৫০% দাম দিলেও কিনতে পারবে না... ট্যাক্স দেয়া দুরের ব্যাপার।

তাহলে যারা কিনতে পারবে তারা ১০% ট্যাক্স দিতে পারবে না ?

শামীম লিখেছেন:

আগের পোস্টেই বলেছি। তুলনা দিন। দূর্নীতির কারণে হারানো রাজস্ব বেশি নাকি কম্পিউটার থেকে এক্সপেক্টেড রাজস্ব আয় বেশি? যদি বেশিই না হয় তবে এটার পেছনে ছুটা কেন?

তুলনা আমার মতে দরকার নাই। দুই টাই সমান দরকার। যেকোন একটা দিয়ে হবে না

ধন্যবাদ, আপনি ও ভালো থাকবেন। smile

২৭

Re: কম্পিউটার সামগ্রীর উপর শুল্ক আরোপ

অয়নবাংলা লিখেছেন:

জমি জমার ডেটাবেস - বাংলাদেশে তৈরি করতে সময়ের ব্যাপার। India এইটা publicly disclose কেমনে করে জানি না। সিকিউরিটির জন্য করা হয় না।

আমিও জানিনা এটা কিভাবে সম্ভব। তবে আইডিয়াটা মনে ধরেছিলো।

অয়নবাংলা লিখেছেন:

ই-গভর্নেন্স , টেন্ডার, ম্যাপ: গুগলআর্থ , অন্যান্য অফিসিয়াল ফর্ম/তথ্য, কসমেটিক/পাওয়ার টিলার ইত্যাদি - আপনি ভুল করছেন, আমরা কম্পিউটারের উপকারিতা নিয়ে কথা বলছি না এইটা আমাদের আলোচোনার সাথে irrelevant - আমি বলছি যারা এইগুলো ব্যবহার করছে তারা ১০% ট্যাক্স দিতে পারবে।

দারিদ্র বিমোচন, দুই-বেলা খাবার জোটেনা ---- সবই কিন্তু প্রাসঙ্গিক ভাবেই এসেছিলো। এগুলোও অপ্রাসঙ্গিক হবে যদি দেখেন যে, রেভিনিউ সংগ্রহ আর ব্যায় সম্পুর্ন দুইটা আলাদা ক্ষেত্র (দুটিই অর্থ মন্ত্রনালয়ের অধীনে হলেও, যে সংগ্রহ করছে সে কিন্তু ব্যয় করার অধিকার সংরক্ষণ করে না।)। আর, যেই কর আদায় হচ্ছে, সেটা যে দারিদ্র বিমোচনে ব্যায় হবে তার কি নিশ্চয়তা। বর্তমান বাজেটেই একটু সেনাবাহিনীর বরাদ্দটা খেয়াল করুন। গত বাজেটের তুলনায় প্রায় ২০% বেশী। কিভাবে তবে নিশ্চিত হবেন যে ১০% ট্যাক্সের সামান্য কয়টা টাকা দারিদ্র বিমোচনে ব্যায় হবে?

এখানে আপনি দুটো ক্যাটাগরি দেখছেন - ১.খেতে না পাওয়া গ্রুপ, আর ২. কম্পিউটার কেনা বা সম্ভাব্য ক্রয়কারী। আমি দেখছি কম্পিউটার সম্ভাব্য ক্রয়কারীগণের মধ্যেও দুইটা বড় ক্যাটাগরি আছে।
২-১. বিলাসী
২-২. কাজের জন্য। (এখানেও দুইটা ক্যাটাগরি -ক. উচ্চবিত্ত প্রফেশনাল/ব্যবহারকারী খ. নিম্নবিত্ত প্রফেশনাল/ব্যবহারকারী)

আমার ফোকাসটা সেই খ. নিম্নবিত্ত প্রফেশনাল/ব্যবহারকারীদের জন্য। এই অংশটা বিরাট হতে পারে এবং সামগ্রিক ভাবে দেশের অর্থনীতিতে একটা ভাল অবদান রাখতে পারে (এবং নতুন করদাতা হিসেবে আবির্ভুত হতে পারে), যা কিনা দারিদ্র বিমোচনের জন্য সহায়ক।

অপরপক্ষে যারা বিলাসী কাজের জন্য কিনেন তাঁরা তুলনামূলকভাবে কম - এখানে আপনি বলছেন বেশি .... আমি বলছি কম - কারণ, কয়জনের বাবা গেম খেলার জন্য এক ধাক্কায় কমকরে ৫০হাজার টাকা দিতে পারবে? আর যদি ৩০ হাজার টাকায় কেনে, সেটা নিশ্চয়ই গেম খেলাতে সুখ দিবে না; অপরপক্ষে মধ্যআয়ের কোন বাবাই এরকম গেম খেলার জন্য টাকা দিবে না .... উচ্চবিত্ত পরিবারে অবশ্য অন্য কথা - শপিং করতে সিঙ্গাপুর যায়!! ....দেশে উচ্চবিত্ত খুব বেশি নয়। কাজেই যারা এরকম বিলাসী ব্যবহারের জন্য (গেমিং, এন্টারটেইনমেন্ট!!) যেহেতু তাঁরা নতুন করে করদাতা হবেন না তাই শুধু তাঁদের উপর ট্যাক্স ধার্য করা যেতে পারে। সেটা সেই সকল পেরিফেরিয়ালগুলোর ট্যাক্স ১০০% বাড়িয়ে দিয়ে হলেও (১০% না, ১০০%)। কারণ যে বা যারা শুধু বিলাসের জন্য এ্যাত টাকা (ধরি, ৫০,০০০টাকা) খরচ করতে পারবে তারা সামগ্রিক দামের উপর ১০% (ধরি, ৫০০০টাকা) বা এর চেয়ে বেশি, পেরিফেরিয়ালের উপর ১০০% ট্যাক্স (কম করেও ২০,০০০ টাকা হবে -- এজন্য এরকম বললাম কারণ ধরেছি ৩০,০০০ টাকায় বেসিক মেশিন আর বাকী ২০,০০০টাকার বিলাসী পেরিফেরিয়াল মিলে ৫০০০০টাকা) দিতে পারবে।

সুতরাং এভাবে করলে, কাজের জন্য কম্পিউটার ক্রয়কারী প্রফেশনাল/ব্যবহারকারীগণ কমবে না। আর বিলাসী পন্যকেও নিরুৎসাহিত করা হবে। সরকার আরও আন্তরিকতার পরিচয় দেবে যদি পাইরেসি বন্ধ করার চেষ্টা করে। কারণ নিচু মানসিকতা নিয়ে বড় কিছু করা যায় না। নিচু মানসিকতা বললাম হীনমন্যতাকে, অন্য কিছু না ভাবলেই ভালো। কারণ, পাইরেটেড সফটওয়্যার ব্যবহার করে বিবেকবান কারো মাথা উঁচু করে থাকা সম্ভব মনে হয় না, হীনমন্যতা আসবেই।

ফেরৎ আসি সকলে ১০% ট্যাক্স দিতে পারবে এই কথায়:
বিলাসী ব্যবহারকারীগণেরটা তো উপরে লিখলাম। তাছাড়া কাজের জন্য ব্যবহারকারীগণ যারা উচ্চবিত্ত তাঁরাও ৩০,০০০ টাকায় ৩০০০ টাকা ট্যাক্স দিতে পারবে। কিন্তু সেই নিম্নবিত্ত, যারা সারাদেশের আনাচে কানাচে, মফস্বল শহরে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে, তাঁদের পক্ষে সেই ৩০,০০০ টাকাই অতি কষ্টে ধার করে বা একটু একটু করে জমিয়ে পাওয়া। আরও ৩০০০ টাকার ট্যাক্স দেয়া তাঁদের জন্য কষ্টকর তো বটেই।

পারবে... অবশ্যই পারবে। গলায় পাড়া দিয়ে বিভিন্ন সুদ কম্পানী টাকা নিচ্ছে ... দিচ্ছে তো (গরীব তো আর এমনি হয় নি)। মোবাইলে কথা বলায় ১৫% ট্যাক্স দিচ্ছে না ... ... দিচ্ছে তো। এই ভারবাহী জনগণ আরো ট্যাক্স দিতে পারবে। কিন্তু সেটা কতটুকু যৌক্তিক সেটাই বিবেচ্য। আমি ১০% ট্যাক্স দিতে পারবো ... তারপরেও আমি এটার বিপক্ষে -- সেটা অসামর্থের কারণে নয় - এটা নিশ্চয়ই আপনি বুঝেন।

অয়নবাংলা লিখেছেন:
শামীম লিখেছেন:

যাদের কথা বলছেন... ১০% কেন, বরং উল্টা আপনি ওদের হয়ে ৫০% দাম দিলেও কিনতে পারবে না... ট্যাক্স দেয়া দুরের ব্যাপার।

তাহলে যারা কিনতে পারবে তারা ১০% ট্যাক্স দিতে পারবে না ?

পারবে ... .... কিনতে পারলে তো ট্যাক্স সহ-ই কিনতে পারতে হবে ..... আর বর্ধিত মূল্য দিতে না পারলে তো কিনবেই না ..... কাজেই ট্যাক্স ধার্য করার পরে ১০০% ক্রেতাই ট্যাক্স দিয়ে কিনবে wink

অয়নবাংলা লিখেছেন:
শামীম লিখেছেন:

আগের পোস্টেই বলেছি। তুলনা দিন। দূর্নীতির কারণে হারানো রাজস্ব বেশি নাকি কম্পিউটার থেকে এক্সপেক্টেড রাজস্ব আয় বেশি? যদি বেশিই না হয় তবে এটার পেছনে ছুটা কেন?

তুলনা আমার মতে দরকার নাই। দুই টাই সমান দরকার। যেকোন একটা দিয়ে হবে না

ধন্যবাদ, আপনি ও ভালো থাকবেন। smile

তুলনা দরকার নাই??? ??? ---- আচ্ছা ঠিক আছে ... ... ... ...


অফটপিক
ওয়াটারলু শুনলেই মনটা কেমন করে, দেখতে যেতে ইচ্ছে করে। আচ্ছা উইলফ্রেড লরিয়ের ইউনিভার্সিটি থেকে কত দুরে থাকেন? ওটা কেমন? .... .... আমার বাবা ওটাতে বিজনেস এডমিনিস্ট্রেশনের ছাত্র ছিলেন (১৯৬৮-৬৯, দুই বছর - তখন অবশ্য ওয়াটারলু লুদেরান ইউনিভার্সিটি নামে পরিচিত ছিল); তাই ওনার স্মৃতিময় জায়গাগুলোকে নিজের চোখে দেখতে ইচ্ছা করে খুব।

শামীম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

২৮ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন অয়নবাংলা (২০-০৬-২০০৭ ১২:১৫)

Re: কম্পিউটার সামগ্রীর উপর শুল্ক আরোপ

শামীম ভাই , আপনি আর আমি আসলে দুই জন ২ view থিকে দেখছি - যদিও আমি আপনার view কে  respect করি। এটা সত্য আমরা জানি না দারিদ্র বিমোচনে সরকার কি পদখ্খেপ নিবে। ট্যাক্স টা যাতে তাদের কাজে লাগে সেটা আশা করতে কোন অসুবিধা নাই।

লরিয়ে আমাদের থেকে ১০ মিন দুরে। আইসে ঘুইরে যান, ৬৮' এ  বিজনেস এডমিনিস্ট্রেশনের - hats off to him   smile

২৯ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন শামীম (২০-০৬-২০০৭ ১২:১৮)

Re: কম্পিউটার সামগ্রীর উপর শুল্ক আরোপ

আসলেই তাই @ অয়নবাংলা।

অফটপিক
দেশটাকে নিয়ে প্রত্যাশার শেষ নেই। কিন্তু এখনও দুরে রয়ে গেলাম। কাছে থাকলেই সমস্যাগুলো চোখে পড়ে বেশি করে। গত ৩.৫ বছরে অন্তত ১২ বার দেশে যেতে হয়েছে কাজের জন্য। ইদানিং ভাল লাগে যখন দেখি মোবাইল ফোন থেকে ইন্টারনেট ব্যবহার করা যায়। কবে যে সরাসরি ফিল্ড থেকে অফিসের কাজ করতে পারবো। ফিল্ডের লোকজনের কাছেও থাকবে সস্তা ধরনের কিন্তু কার্যকর কম্পিউটার। সরাসরি সেখান থেকে ওয়েবক্যাম দিয়ে পরিস্থিতি দেখে  দুরে থেকেও আলোচনা/সমাধান দিতে পারবো।  রিয়েলটাইমে সব করলে কাজের গতি যে কত বাড়বে! ভীষন অভাব বোধ করি এই যোগাযোগটার। একজন সেই গ্রামে গিয়ে ডিজিক্যামে ছবি তুলে সেটাকে অফিসে এসে পাঠিয়ে দেয় ... তারপর সেটা দেখে একটা সমাধান দেই ... আবার একদিন পরে ফিল্ডে যায়। আটকে গেলে আবার কমকরে দুই দিনের ধাক্কা। ... ইত্যাদি। অবশ্য এখনকার মোবাইলফোন থেকে সম্ভবত সেই কাজ করা যাবে - তবে সুবিধাটা একটু কম হবে। দেখি ... ... ফিল্ড অফিসে মোবাইল ইন্টারনেট/ফোন নেয়ার ব্যবস্থা করতে হবে। ল্যাপটপ তো আছেই ... শুধু ফান্ডের ব্যবস্থা করা লাগবে। আবার, এজ মডেম সেটআপের ঝামেলাটাও সমাধান হওয়া দরকার (গরীবের লিনাক্সের জন্য)।


আমান ভাইয়ের পোস্টটা সরিয়ে নিয়ে ই-গভর্নেন্স নামে একটা টপিক খুলে দিব। সেখানে সকলের মতামত আসলে একটা স্বচ্ছতর ধারণা হবে সকলের। ফোরামের তরুণ সদস্যগণই তো আগামী দিনের দেশের চালিকা শক্তি - তাই মনে করি এই ব্যাপারটা সকলের মাথায় থাকা দরকার।

শামীম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত