সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন হাঙ্গরিকোডার (০৫-০২-২০০৯ ১৮:০৮)

টপিকঃ ইনস্পায়ার্ড হোন

আজকে একটা ক্যারিয়ার বিষয়ক সেমিনার এ অংশগ্রহণ করেছিলাম। সেখানে এই ভিডিওটি দেখানো হয়েছিল। ইউটিউব খুঁজে বের করলাম। এই ভিডিও'র লিঙ্কে গেলে অবশ্য আরও কিছু এরকম ভিডিও'র সাজেশন পাবেন যেগুলোও ভাল লাগতে পারে।

http://www.youtube.com/watch?v=WEqdr_Awdak

ধন্যবাদ।

[img]http://twitstamp.com/thehungrycoder/standard.png[/img]
what to do?

Re: ইনস্পায়ার্ড হোন

দারুন ভিডিও!
এখানে একটা জিনিস দেখলাম- ''দ্য ল' এভ এট্রাকশন''!! এটা দেখে বেশ কিছুদিন আগে দেখা একটা ভিডিও চিত্রের কথা মনে পড়ল। 'দ্য সিক্রেট' নামের ঐ ডকিউমেন্টরিতেও আকর্ষণ সূত্র সম্পর্কে বলা হয়েছিল। মানুষ আসলে যা চিন্তা করে সেটাই কাজে পরিণত হয়। কোনোকিছু চাওয়ার মত চাইলে অনাদি কাল হতে সর্বত্র বিস্তৃত অব্যখ্যেয় ঐশ্বরিক শক্তি আকর্ষিত হয়। এই মিথষ্ক্রিয়ার(interaction) ফলাফল যথাযোগ্য ভাবে গ্রহণ করতে পারলেই ইচ্ছে বাস্তবে রুপান্তরিত হয়।
যাহোক, ক্যারিকার ব্যাপারটা কী???

কিছু বাধা অ-পেরোনোই থাক
তৃষ্ণা হয়ে থাক কান্না-গভীর ঘুমে মাখা।

উদাসীন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: ইনস্পায়ার্ড হোন

উদাসীন লিখেছেন:

দারুন ভিডিও!
এখানে একটা জিনিস দেখলাম- ''দ্য ল' এভ এট্রাকশন''!! এটা দেখে বেশ কিছুদিন আগে দেখা একটা ভিডিও চিত্রের কথা মনে পড়ল। 'দ্য সিক্রেট' নামের ঐ ডকিউমেন্টরিতেও আকর্ষণ সূত্র সম্পর্কে বলা হয়েছিল। মানুষ আসলে যা চিন্তা করে সেটাই কাজে পরিণত হয়। কোনোকিছু চাওয়ার মত চাইলে অনাদি কাল হতে সর্বত্র বিস্তৃত অব্যখ্যেয় ঐশ্বরিক শক্তি আকর্ষিত হয়। এই মিথষ্ক্রিয়ার(interaction) ফলাফল যথাযোগ্য ভাবে গ্রহণ করতে পারলেই ইচ্ছে বাস্তবে রুপান্তরিত হয়।
যাহোক, ক্যারিকার ব্যাপারটা কী???

হুম.....বানান ভুল!

আসলেই তাই। আমি গত এক বছরে বিভিন্ন সেমিনার, এধরণের প্রেজেন্টেশন/ভিডিও দেখে সত্যিই অনেক বেশি কনফিডেন্ট হয়েছি। এই গ্রোথটা থাকলে আশা করা যায় পাবলিক স্পিকিংএর ভিতিও টাও অনেক কেটে যাবে আর যে কোন কাজ অনেক সহজেও ও নির্ভরতার সাথে করতে পারব। এখন খালি বাকি আছে মেডিটেশন wink। এক প্রজন্ম গুরু আমাকে তো মেডিটেশন করার জন্য কর্জে হাসানা দিতে চাইছে।:P

[img]http://twitstamp.com/thehungrycoder/standard.png[/img]
what to do?

Re: ইনস্পায়ার্ড হোন

ভিডিওটা এখনও দেখিনি। লিনাক্সে ফ্লাশ কনফিগার করা হয় নি। তাই দেখা হয়নি।
আমার মনে হয়, যে কেউ যা চায় তা করতে পারে।  তবে সব ধরনের কাজ না। যেমন, মাইক্রোসফটএর চেয়ারম্যান হওয়া, আমেরিকার প্রেসিডেন্ট হওয়া, অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট টিমের ক্যাপ্টেন হওয়া। আমার ধারণা এসব করা যায় না কারণ অপর পক্ষের অসংখ্য মানুষ/মন কে প্রভাবিত করতে হবে। এবং সে সংখ্যাটা আসলেই অনেক বেশি। তবে স্বল্প পরিসরের কিছু অবশ্যই করা যাবে।  যেমন, সেমিনারে বক্তব্য দেয়া,  শয়ে শয়ে বন্ধু বানানো এবং তাদের নিজের অনুগত করা, সম্পুর্ণ অপরিচিত ছেলে/মেয়ে পটানো,  নিজের কমিউনিটিতে লিডিং পজিশনে থাকা ইত্যাদি। বলে আসলে শেষ করা যাবে না।
সমস্যা হল, আমি এসবে এক্সপার্ট হলাম। আমি এসব করতে পারি। কিন্তু আমি আসলে এমন না। আমি যখন ওসব করি তখন আমার ফেক (Fake) রুপটাই এসব করে। আমি করি না। আমি তো নিজে পরিবর্তিত হইনি। আমি কিছু আচার আচারণ শিখেছি যার কারণে এসব করছি বা কিছু মূল টেকনিক শিখেছি যার কারণে আচার আচরণে ওসব করতে পারছি। আমার কি পরিবর্তন হয়েছে? না হলে ফেক থাকার কোন মানে নেই।  আমি আমার মত (be myself) থাকতে না পারলেতো আমি আর আমি নেই। আমি অন্য কেউ।

মাত্র ভিডিওটা দেখলাম। (অন্য ট্যাবে ডাউনলোড হচ্ছিল)। উপরের কথাগুলো মনে হয় অপ্রাসঙ্গিক হয়ে গেল। worried ধুর! এত কষ্ট করে লিখলাম, কে মুছে?
ভিডিওটার একটা কথা খুব ভাল লাগল,

Whatever your dream is, go for it. you'll inspire others

Feed থেকে ফোরাম সিগনেচার, imgsign.com
ব্লগ: shiplu.mokadd.im
মুখে তুলে কেউ খাইয়ে দেবে না। নিজের হাতেই সেটা করতে হবে।

শিপলু'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত