টপিকঃ রহস্য ধাঁধাঃ জাহাজে চোর

একটা বাংলাদেশি জাহাজ আটলান্টিক পাড়ি দিচ্ছিল। জাহাজের ক্যাপ্টেন কবির সাহেব সব ঠিকঠাক দেখে ভাবলেন, এই ফাঁকে গোসলটা সেরে ফেলবেন। বাথরুমে ঢোকার আগে তিনি তার রোলেক্স ঘড়ি, সোনার ব্রেসলেট আর মোবাইল ফোনটা টেবিলের ওপর রেখে গেলেন। গোসল শেষে তিনি দেখলেন মোবাইল বাদে বাকি দুটো জিনিস আর নেই।

পাঁচজন কর্মীকে সন্দেহের তালিকায় নিয়ে তিনি জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করলেন।

রাঁধুনি (হাতে বিশাল এক চাকু)—আমি রান্নাঘরে মাংস রান্না করছিলাম।

ইঞ্জিনিয়ার (হাতে কয়েকটা তার)—আমি জেনারেটর ঠিক করছিলাম।

ক্লার্ক (হাতে পতাকা)—আমি উল্টো করে লাগানো পতাকাটা সোজা করছিলাম।

রেডিও অফিসার (হাতে হেডফোন)—আমি আমেরিকান কোম্পানির সঙ্গে কথা বলছিলাম, যাদের কাছে আমরা আগামী দুই দিনের মধ্যে পৌঁছে যাব।

নাইট গার্ড (খালি হাতে)—সারা রাত জাগতে হবে বলে আমি ঘুমাচ্ছিলাম।

কবির সাহেব বুঝে ফেললেন কাজটি কে করেছে। বলতে হবে কে চুরি করেছে? আর কবির সাহেব বুঝলেন কীভাবে?


উত্তর

ক্লার্ক। কারণ, বাংলাদেশের পতাকা উল্টো করে লাগানো থাকলেও সেটা বোঝা যাওয়ার কোনো কারণ নেই।


#সংগৃহীত

"We want Justice for Adnan Tasin"