টপিকঃ ইভ্যালির লকার ভেঙে কি পাওয়া গেছে?

লকার খোলা হবে। টান টান উত্তেজনা। যাতে আইনের কোনো ব্যত্যয় না হয়, সে জন্য একজন সরকারি লোকও আছেন। কর্তৃপক্ষ আমন্ত্রণ জানিয়েছেন সাংবাদিকদেরও। তাঁরাও ভিড় করে আছেন। লকারের কম্বিনেশন জানলে অবশ্য সুবিধা হতো, ভাঙার আর দরকার পড়ত না। কারাগারে থাকা ইভ্যালির প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ রাসেল নাকি কম্বিনেশন জানাচ্ছেন না। সন্দেহ, লকার দুটিতে নিশ্চয়ই কাঁড়ি কাঁড়ি অর্থ বা মহামূল্যবান কিছু রাখা আছে। তা না হলে মোহাম্মদ রাসেল জানাচ্ছেন না কেন?

প্রথম লকারটি ভাঙা শুরু হয় বেলা সোয়া তিনটার দিকে। লকারটি কাটতে গিয়ে একে একে নষ্ট হয় পাঁচটি ব্লেড। ছয় নম্বর ব্লেডে অবশেষে কাজ হয়। দ্বিতীয় লকারটি কাটতে অবশ্য আর ব্লেড নষ্ট হয়নি।

ইভ্যালির কার্যালয়ে থাকা লকার ভেঙে তাহলে কী কী পাওয়া গেল?

আইনের ভাষায় জব্দ তালিকা বলতে একটি কথা আছে। আসুন, আমরা যা যা পাওয়া গেল, তা নিয়ে একটি জব্দ তালিকা বা সিজার লিস্ট তৈরি করে ফেলি।

১. পাঁচটি বই। যেমন—ক. ‘দ্য পঞ্জি বুক: আ লিগ্যাল রিসোর্স ফর আনর‌্যাভেলিং পঞ্জি স্কিমস’, লেখক ক্যাথি বাজোয়াইন ও স্টিভেন রোডস; খ. ‘পঞ্জি স্কিম: দ্য ট্রু স্টোরি অব আ ফিন্যান্সিয়াল লিজেন্ড: দ্য বার্নি ম্যাডফ পঞ্জি স্কিম’, লেখক মাইকেল জুকফ; গ. ‘ইজি মানি: দ্য গ্রেটেস্ট স্কিম এভার অ্যান্ড হাউ ইট ইজ সেট টু ডেস্ট্রয় দ্য গ্লোবাল ফিন্যান্সিয়াল সিস্টেম’, লেখক বিবেক কউল, ঘ. ‘অ্যানাটমি অব আ পঞ্জি: স্ক্যামস, পাস্ট অ্যান্ড প্রেজেন্ট’, লেখক কলিন ক্রস এবং ঙ. ‘ডেসটিনি: দ্রুত কোটিপতি হওয়ার উপায়’, লেখক মো. রফিকুল আমীন।

২. ফেসবুক লাইভের স্ক্রিনশট ও ৪,৩৩৮টি ফেসবুক আইডির তালিকা।

৩. পাঁচটি ছবি ও পেপার কাটিং।

৪. একটি পেপার কাটিং ও একটি বিশেষ নথি। পেপার কাটিংটি প্রথম আলোর। প্রকাশ-২০২০ সালের ২৪ আগস্ট। শিরোনাম—‘ডিজিটাল ব্যবসার নতুন ফাঁদ ই-ভ্যালি’।

মন্তব্য: লকারে এটি বেশ যত্ন করে রাখা। ধারণা করা হচ্ছে, সঙ্গে থাকা বিশেষ নথিটির জন্যই সংবাদটির একটি অনুলিপি বা কপি আলাদা করে রেখে দেওয়া হয়েছে। বিশেষ নথিটি খরচের।


https://qph.cf2.quoracdn.net/main-qimg-3373767fc4eeef7f7f52196d5c0ab7c3-lq


এই যুগে যাঁরা ভেবেছিলেন কাঁড়ি কাঁড়ি অর্থ লকারে রেখে দেবেন মোহাম্মদ রাসেল, তাঁদের জন্য সমবেদনা। তবে চার হাজার টাকার ব্লেড ভেঙে লকারে মাত্র ২ হাজার ৫৩০ টাকা পাওয়ার সংবাদে হতাশ হওয়ার কিছু নেই। যেসব বই, ছবি ও পেপার কাটিং পাওয়া গেল, সেগুলোর গুরুত্ব কম কিসে?

#সংগৃহীত

"We want Justice for Adnan Tasin"