সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন আউল (২৯-০৭-২০২১ ১১:২০)

টপিকঃ জুলাই ২৯ শিক্ষার্থী দীয়া-করিম আন্দোলন

২০১৮ সালের রমিজুদ্দিন কলেজ শিক্ষার্থী দীয়া_করিম হত্যাকাণ্ডের বিচারের দাবিতে আন্দোলন করে, তখন সংসদে সড়ক আইন ২০১৮ পাশ করে, এতে পরিবহণ ঘাতক ক্রোধ, আক্রোশে জেব্রাক্রসিং এর উপর শিক্ষার্থী পোশাকে ঐ একই স্থানে মেধাবী শিক্ষার্থী আদনান তাসিনকে ঠান্ডা মাথায় হত্যা করে, বুক ফুলিয়ে চলে যায়, আজৌ ঘাতকদের ধরাই হলোনা,
২০১৮ সালের রমিজ উদ্দিন কলেজ শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের "প্রথম শহীদ শিক্ষার্থী আদনান তাসিন"

২০১৮ সালের সড়ক আইন পাশ করার পর ঘাতকরা সারাদেশে শিক্ষার্থীদের হত্যা শুরু করে, সিলেটে ওয়াসিম, সাভারে শিল্পি, গাজিপুরে সালাহউদ্দিন, চট্রগ্রামে আরিফকে চলন্ত বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে হত্যা করে, এছাড়া ফাইজা, আবরার, লাবন্য, তানজিলা, আরিফ, সাব্বির, আবির, কত নিম না জানা শিক্ষার্থীদের একে একে হত্যা করে, কিন্তু আন্দোলন না হলে মিডিয়ায় আসেনা, ঘাতকদের ধরাও হয়না,

অথচ ২০১৮ সালে পাশকৃত সড়ক আইন ২০২১ সাল শেষ হয়ে আসলেও বাস্তবায়ন করা হলো না বরং সরকার আইনটিকে আরো নমনীয় করছে, সম্ভবত মে মাসের ২৫ তারিখের পরে!

সড়কহত্যা এখন যেন উৎসব, ঘাতক হায়না আর শকুনদের কাছে, প্রতিদিন গড়ে ৬৪ জনের অধিক প্রান হারায় সড়কে করোই কোন মাথা ব্যথা নেই - যেন সড়ক হত্যা কোন বৈধ হত্যাকাণ্ড ! আর হত্যাকাণ্ডের ২/৪ তি খবর মিডিয়ে এলেও বাকিগুলোর কোন হদিস নেই - আর প্রতিটি ঘটনার একই কথা, "ঘাতক চালক ও তাঁর সহকারী পলাতক" - এটা কি ব্যর্থতা নাকি স্বার্থের আফিম , নাকি উপরের নির্দেশ "ঘাতক ধরা নিষেধ "

"We want Justice for Adnan Tasin"