টপিকঃ সঞ্চারিকা

https://upload.wikimedia.org/wikipedia/commons/f/f1/Curvy_surasundari_in_barely-there_saree_writes_love_letter_%286559182205%29.jpg

হঠাত করেই কয়েকটি ঘটনার কারণে ইদানি একটি বিশেষ পেশার কথা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে খুব আলোচিতো হচ্ছে। পেশাটি আদি এবং অতি প্রাচীন। সেই রামায়ন-মহাভারতেযুগ থেকে সেটি চলে আসছে। এখনো আছে- আগামীতেও থাকবে। শুধু সময় আর কিছু আলাদা বৈশিষ্ট্যের কারণে পেশাটির নাম পরিবর্তণ হয়। আগেও এর বহু নাম ছিলো, আমার মনে হচ্ছে খুব শিঘ্রই এর নতুন কোনো নামকরণ করা হবে। যাইহোক, সেই প্রাচীন পেশাটির নাম হচ্ছে বেশ্যাবৃত্তি। সেই সময় বেশ্যাবৃত্তি ৫টি ভাগে ভাগ করা হয়েছিলো। যথা-
১। রাজবেশ্যা - রাজার অনুগৃহীতা বেশ্যা।
২। নাগরী - নগরবাসিনী বেশ্যা।
৩। গুপ্তবেশ্যা - সৎবংশজাত নারী যে গোপনে অভিসার করে।
৪। দেববেশ্যা - মন্দিরের দেবদাসী।
৫। তীর্থগ বা ব্রহ্মবেশ্যা - যে নারী তির্থস্থানে বেশ্যাবৃত্তিতে নিয়োজিত।

আভিধান বা আইন বলে, যে নারী অর্থের বিনিময়ে বিনাবিচারে একাধিকজনকে যৌনসম্ভোগে দেহদান করেন সেই বেশ্যা।

আপনি জেনে অবাক হবেন এই বেশ্যা শব্দটির অনেকগুলি সমার্থক শব্দ মানুষ যুগেযুগে তৈরি করেছে। বেশ্যা শব্দটি যদি আপনার অপছন্দ হয় বা বাজে শোনায় তাহলে আপনি নিচের যেকোনো নামে তাকে ডাকতে পারেন।

অজ্জুকা, অবিদ্যা, ইত্বরী, কসবি, কামরেখা, কামলেখা, কুচনি, কুট্টিনি, কুলটা, কুম্ভা, ক্ষুদ্রা, ***, খেরেলি, গণিকা, গণেরু, গণেরুকা, গস্তানি, গােসর্পিকা, ঘুষ্কি, ছুটো, ছেনাল, ছিনাল, জনপদবধূ, ঢেমনি, দারী, দেহপসারিণী, দেহােপজীবিনী, ধর্ষকারিণী, ধর্ষিণী, ধুমড়ি, নগরকূলবধূ, নগরবধূ, নগরনটী, নগরনটিনী, নগরশােভিনী, নটিনী, নটিদারী, পতিতা, পরপুষ্টা, পণাঙ্গনা, পণ্যাঙ্গনা, পেশাকর, পেশাকার, পুংশ্চলী, পুংস্কামা, প্রেষণী, বৰ্ণদাসী, বাজারের মেয়ে, বারনারী, বারবনিতা, বারবধূ, বারবিলাসিনী, বারস্ত্রী, বারাঙ্গনা, বারােযােষিৎ, মঞ্জিকা, ****, রতায়নী, রণ্ডা, রাণ্ডি, রাড়, রেণ্ডি, রুণ্ডিকা, রূপাজীবা, রূপােপজীবিনী, লজ্জিকা, লম্পটি, সঞ্চারিকা, সন্ধিজীবক, স্পর্শা, হট্টবিলাসিনী এবং আধুনিকতম নাম যৌনকর্মী।


এইতো দেখলেন বেশ্যার সমার্থকশব্দের সমাহার। বেশ্যার পাশাপাশি প্রাচীন এই পেশা বেশ্যাবৃত্তিরও অনেকগুলি সমার্থক নাম মানুষেরা তৈরি করে রেখেছে। যেমন-

খানকিগিরি, খানকিপনা, গণিকাবৃত্তি, গাণিক্য, ছেনালি, ছেনালিপনা, নাগরালি, পতিতাবৃত্তি, বেশ্যাগিরি, বেশ্যাপনা, বেশ্যাবৃত্তি এবং আধুনা যৌনকর্ম।


প্রতিটি পেশা বা ব্যাবসায়ের নির্দিষ্ট স্থান থাকে। এই আদিমতম ব্যবসারও নির্দিষ্ট স্থান রয়েছে এবং তার নামের বাহারও কম নায়। যেমন-

খানকিটোলা, খানকিপাড়া, খানকিবাড়ি, গণিকাপল্লী, গণিকালয়, নিষিদ্ধপল্লী, নিষিদ্ধপাড়া, পতিতাপল্লী, পতিতালয়, বেশ্যাপটি, বেশ্যাপল্লী, বেশ্যাপাড়া, বেশ্যালয়, মাগিপাড়া, মাগিবাড়ি, রাঁড়ের বাড়ি।

এইতো গেলো আদি নামের সম্ভার, তবে বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় সম্ভবতো আরো কিছু নতুন নাম যুক্ত হয়ে যেতে পারে।

তথ্য সূত্র : বেশ্যাসংগীত বাইজিসংগীত - দেবজিত বন্দ্যোপাধ্যায়।
ছবি : উইকি

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।