টপিকঃ বিচারহীনতার ৩০০তম দিন !

৮ই ডিসেম্বর ২০১৯ সকাল ১০টায়, জাতীয় প্রেস ক্লাব এর সামনে  এ নিরাপদ সড়ক আন্দোলন (নিসআ),আদনান তাসিন মঞ্চ, সড়কে সন্তান স্বজনহারা অভিভাবক ফোরাম ও জোয়ার সাহারা এলাকাবাসী এর উদ্যোগে,”সড়কে মেধাবী শিক্ষার্থী আদনান তাসিনসহ সকল হত্যাকাণ্ডের ঘাতকদের গ্রেফতার বিচার ও সড়কে নিরাপত্তার” দাবিতে, শান্তিপূর্ণ মানব্বব্ধন অনুষ্ঠিত হয়, আপনার/আপনাদের সমর্থন এই নিষ্পাপ শিশুর নির্মম হত্যাকাণ্ডের বিচার প্রাপ্তিতে সহায়তা করবে

উল্লেখ্য মেধাবী শিক্ষার্থী আদনান তাসিন,বারিধারা স্কলার্স থেকে ২০১৮ সালে ইংলিশ ভার্সন সায়েন্স থেকে জিপিএ-৫ পেয়ে এসএসসি পাশ করে, সেন্টযোসেফ কলেজে একদশ শ্রেণিতে ভর্তি হয়। গত ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, রোজ সোমবার, দুপুর আনুমানিক ২টার দিকে কলেজ থেকে বাসায় ফেরার পথে বিমানবন্দর সড়কে জোয়ারসাহারা বাস স্ট্যান্ড (প্রস্তাবিতঃ আদনান তাসিন চত্বর) নামক স্থানে, জেব্রা ক্রসিং দিয়ে রাস্তা পারাপারের সময়, একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী আদনান তাসিনকে শিক্ষার্থীর পোশাকে দেখে ক্রোধের বশবর্তী হয়ে দ্রুতগামী উত্তরা পরিবহনের বাস ঢাকা মেট্রো ব- ১১ ৪৫৮ তাকে ধাক্কা দিয়ে সড়কে ফেলে ঠাণ্ডা মাথায় হত্যা করে চলে যায়।

আদনান তাসিন হত্যার দীর্ঘদিন অতিবাহিত হলেও এখনো ঘাতকদের ধরা হয়নি-বরং হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত বাসটি বাসের মালিকের কাছে হস্তান্তর করে, আদনান তাসিনের অসুস্থ বাবা প্রশাসনের বিভিন্ন মহলে শরণাপন্ন হওয়ার পরেও কোন ধরনের বিচার,সহানুভুতি বা বিচারের আশ্বাসও পায়নি! আজ যদি আদনান তাসিন আপনার সন্তান, ভাই বা আন্তিয় হত? আপনি কি পারতেন নিস্পাপ এই শিশুটির নির্মম হত্যাকাণ্ড মেনে নিতে? পারতেন কি মেনে নিতে এই হত্যাকাণ্ডের বিচার ঢাকা পড়ে যাক? আদনান তাসিন আপনার এলাকার নিস্পাপ সন্তান –    আপনাদের দিকে তাকিয়ে আছে - অন্তত তার হত্যার বিচার হোক, ঘাতকের সাজা হোক, নিস্পাপ শিশুটি পৃথিবীতে নেই,  তাকে হত্যা করা হয়েছে, সে আর ফিরে আসবেনা। আদনান তাসিনের মত সড়কে কোন ঘাতক চালকের হাতে আর কেউ যেনো খুন না হয় আর কারো মায়ের বুক যেনো খালি না হয়।

আপনারা জানেন যে, এখানে (জোয়ারসাহারা বাস স্ট্যান্ড -প্রস্তাবিতঃ আদনান তাসিন চত্বর) ফুটওভার ব্রিজ ছিল, কিন্তু বিকল্প ব্যবস্থা না করে ফুটওভার ব্রিজ সরিয়ে ফেলে, এত ব্যাস্ত সড়কে রাস্তার ডিভাইডার কেটে মানুষের চলাচলের জন্য জেব্রাক্রসিং করা হয় কিন্তু সামনে পিছনে কোন স্পীড ব্রেকার নাই, সিগন্যাল নাই, ট্র্যাফিক পুলিশ নাই, এটা মৃত্যুফাঁদ করা হয়, এই একই স্থানে ইতিমধ্যে আরো অনেকেই দুর্ঘটনার শিকার হয়ে পঙ্গুত্ব ও মৃত্যুবরণ করেছেন।শিক্ষার্থী আদনান তাসিন হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছে শেষমেশ। আপনি বা আপনার আত্মীয়-স্বজন, সন্তান, শিক্ষার্থীর যেনো এমন করুণ পরিণতি না হয় সেজন্য সকলকে সচেতন করুন এবং সেই সবাইকে সাথে নিয়ে মানবন্ধনে শামিল হোন। আদনান তাসিনসহ সড়কে হত্যাকাণ্ডের শিকার সবার ঘাতকের সর্বোচ্চ শাস্তি ফাঁসি চাই। আসুন আমরা সড়কে হত্যা খুনের বিরুদ্ধে গণজাগরণ সৃষ্টি করে ঐক্যবদ্ধ হই। শিক্ষার্থী রাজিব, দীয়া-করিম, হিমেল, ফাইযা, আরিফ, আদনান তাসিন, আবরার, লাবণ্য, তাঞ্জিলা,  ওয়াসিম, সালাউদ্দিন, শিল্পী, সাব্বির তার পর কে? আপনি বা আপনার সন্তান নয় তো? ওদের থামান !! বিচারহিনতা ও প্রশ্রয় অপরাধ প্রবণতাকে আনুপ্রানিত করে

সড়কে সন্তান স্বজনহারা অভিভাবক ফোরাম ও নিরাপদ সড়ক আন্দোলন (নিসআ)

"We want Justice for Adnan Tasin"