টপিকঃ মেধাবী শিক্ষার্থী আদনান তাসিনকে সড়কে হত্যার সুবিচারের জন্য আবেদন

তারিখ ঃ ২৪/০৯/২০১৯

মাননীয় মেয়র মহোদয়
নগর ভবন
ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন
গুলশান সেন্টার পয়েন্ট
প্লট ২৩-২৬ , রোড ৪৬ 
গুলশান ২, ঢাকা ১২১২

বিষয়ঃ    মেধাবী শিক্ষার্থী আদনান তাসিনকে সড়কে হত্যার সুবিচারের জন্য আবেদন

জনাব,
নগরের পিতা হিসাবে ও এক সময়ে বিজিএমইএ সভাপতি ও গার্মেন্টস শিল্পের অভিভাবক হিসাবে নিবেদন এই যে, আহসানুল্লাহ টুটুল, দীর্ঘ ২৫ বছর পোশাক শিল্প প্রতিষ্ঠানে অনেক নামি দামি প্রতিষ্ঠানে কাজ করে আসছে, পোশাক শিল্প প্রতিষ্ঠানে তার অবদান অনেক, তিনি পোশাক কারখানায় (অনুপম ফ্যাশন লিঃ) কর্মরত অবস্থায় ২০১৭এর সেপ্টেম্বর ১৩ তারিখে হটাত করে দুরারোগ্য জিবিএস ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে পুরোপুরি পারাল্যসিস হয়ে যায়,দীর্ঘ ১৭ মাস ব্যয়বহুল চিকিৎসা ও ফিজিওর পর হাঁটতে পারে তবে এখনো তার শরীরে ভারসাম্য আসেনি, ২০১৭ সাল থেকে তিনি কর্মহীন বেকার তার উপর ব্যয়বহুল চিকিৎসা ও ফিজিওর খরচ, তার দুই সন্তান দু জনই ভীষণ মেধাবী, তার বড় ছেলে আদনান সামিন (১৮)  – নটরডেম কলেজ – ইংলিশ ভার্সন সায়েন্স থেকে ২০১৯ সালে এইচএসসি তে এ+ জিপিএ৫ পায়, সে বারিধারা স্কলারস ইংলিশ ভার্সন  এর ছাত্র ছিল, সে এসএসসি, জেএসসি, পিএসসি তে জিপিএ৫ পায়, তার ছোট্ট ছেলে আদনান তাসিন (১৭) – সেন্ট জোসেফ কলেজ – ইংলিশ ভার্সন সায়েন্স এইচএসসি প্রথম বর্ষের ছাত্র ছল,  সেও বারিধারা স্কলারস ইংলিশ ভার্সন  এর ছাত্র ছিল, সে এসএসসি, জেএসসি, পিএসসি তে জিপিএ৫ পায়, টাকা পয়সা বিত্ত, বাড়ি, গাড়ি, সম্পদ, না থাকেলেও, সুখী পরিবার ছিল তার, তার কর্ম জীবন ও বাক্তি জীবনে তিনি সৎ  সহজ সরল জীবনযাপন করতেন।   

গত ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯,রোজ সোমবার, প্রায় দুপুর ২টার দিকে কলেজ থেকে বাসায় ফেরার পথে বিমানবন্দর সড়কে শেওড়া রেলগেট নামক স্থানে জেব্রা ক্রসিং দিয়ে রাস্তা পারাপারের সময়, তাকে দ্রুতগামী উত্তরা পরিবহনের বাস ঢাকা মেট্রো ব- ১১ ৪৫৮৪ চাপা দিয়ে সড়কে ফেলে চলে যায়, পথচারীরা তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় স্থানীয় সরকারি কুর্মিটোলা হাসপাতালে নিলে সেখানে তারা সড়কে আহত রোগীর চিকিৎসা করতে অপারগতা প্রকাশ করেন এবং বলেন ঢাকা মেডিক্যালে নিয়ে যেতে, বনানী এলাকায় গাড়ির তীব্র যানজট, রোগীর অবস্থা আশংখাজনক দেখে তাকে ঢাকা সিএমএইচ হাসপাতালে নিয়ে আনা হয়, কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত্যু ঘোষণা করে ( ইন্নালিল্লাহে ওয়া ইন্নালিল্লাহি রাজাউন)

এখানে উল্লেখ্য যে,স্থানীয় সরকারি কুর্মিটোলা হাসপাতালে তাৎক্ষনিক তার চিকিৎসা করলে এবং ঢাকা মেডিক্যালে পাঠানোর সময়ে তাকে অক্সিজেন বা লাইফ সাপোর্ট দিলে তাকে নির্মম ভাবে কষ্ট পেয়ে মরতে হত না- প্রশাসনের গাফিলতিতে এই স্থানে বিকল্প ব্যবস্থা  না করে ফুটওভারব্রিজ অপসারণ করা হয় এবং জেব্রাক্রসিঙ্গ রঙ দেয়া থাকলেও – কোন স্পীড ব্রেকার বা ট্র্যাফিক পুলিশ বা ট্র্যাফিক সিগন্যাল নাই, সড়কের এই অব্যবস্থাপনা / অবহেলার জনিত কারনে ছেলেটা নির্মমভাবে হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছে । তার মৃত্যুতে খিলখেত থানায় পরিবহন আইন ২০১৮/ ১০৫ ধারায় একটি মামলা হলেও এখনও কোন ঘাতককে ধরা হয়নি বা আদৌও ধরা হবে বলেও তার পরিবার সন্দিহান মানে তাদের কাছে মনে হচ্ছে না ঘাতকদের আদৌ ধরা হবে বা বিচার হবে- মামলাটিকে স্থানিয় থানা গুরুত্বর সাথে দেখছেন না, অন্যদিকে গাড়ির মালিক এসে গাড়িটিও নিয়ে যায়,

অসুস্থ হওয়া স্বত্বেও তিনি আপনার সঙ্গে (ঢাকা উত্তর মেয়র মহোদয়) দেখা করে আপনার কাছে প্রতিকার চায়, তারপর গুলশান পুলিশ  কমিশনারসহ অনেকের কাছে বিচার চেয়ে আবেদন করে, কিন্তু কোন প্রতিকার পায়নি,

তার সন্তানের হত্যাকাণ্ডের পর কোন আন্দোলন হইনি, বা আন্দোলন বা প্রতিবাদ করেনি তার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা, বন্ধুরা- তাই তার হত্যাকাণ্ডের খবর কোন মিডিয়ায় আসেনি,  আলোচিত হয়নি, হৈ চৈ হয়নি তাই তার পাশে কেউ নেই, প্রশাসনের কেউ এগিয়েও আসেনি,  কেউ সান্তনা বা আশ্বাসও দিতে আসেনি, তার অর্থনৈতিক শক্তি বা প্রভাব বা প্রতিপত্তি কোনটাই নেই যা দিয়ে তিনি তার নিস্পাপ সন্তানের নির্মম হত্যাকাণ্ডের বিচারের জন্য লড়বে, হত্যাকারী ঘাতক বাস চালক, হেল্পার, মালিক কে আটক করে দ্রুত বিচারে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত ও  সড়কে অব্যবস্থাপনার জন্য দায়ি বাক্তি ও প্রতিস্থানের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত কল্পে আপনার হস্তক্ষেপ প্রার্থনা করছি।

এলাকাবাসি, বিভিন্ন সংস্থা , মেধাবী শিক্ষার্থী আদনান তাসিন হত্যাকাণ্ডের বিচার ও দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে দেশের বিভিন্ন অংশে মানব্বন্ধন, প্রতিবাদ সভা করেন, তারমধ্যে উল্লেখযোগ্য

(ক) মার্চ ২০১৯ - ( শেওড়া বাস স্ট্যান্ড) আদনান চত্বরে - #মানব্বন্ধন নিরাপদ সড়ক চাই  প্রতিষ্ঠাতা ইলিয়াস কাঞ্চন সহ স্থানিয় গণ্যমান্য ব্যাক্তি , স্থানিয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী শিক্ষক, সামাজিক সংগঠনের সংগঠক

(খ) মে ২০১৯ - জাতিয় প্রেসক্লা্ক্লাব - #মানব্বন্ধন যাত্রী কল্যাণ সমিতির মোজ্জামেল হক , নিরাপদ সড়ক আন্দলন(নিসআ) সংগঠকবৃন্দ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, সামাজিক সংগঠনের সংগঠক

(গ) জুলাই ২০১৯- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় টি এস সি - #সংলাপ - বিশিষ্ট সাংবাদিক সহিদুল আলম, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় ও বিশ্ব বিদ্যালয়ের নেত্রীবৃন্দ, ২০১৮ , ২৯শে জুলাই শিক্ষার্থী আন্দলনের নির্যাতিত ছাত্র নেত্রীবৃন্দ ও সড়ক পরিবহণ শ্রমিক নেতা

(ঘ) অগাস্ট ২০১৯ - ( শেওড়া বাস স্ট্যান্ড) আদনান চত্বরে - #মানব্বন্ধন নিরাপদ সরক চাইয়ের প্রতিষ্ঠাতা ইলিয়াস কাঞ্চন এর পুত্র জয়, আজাদ ভাই সহ, স্থানিয় গণ্যমান্য ব্যাক্তি , স্থানিয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী শিক্ষক, সামাজিক সংগঠনের সংগঠক
 
এইসব মানব্বন্ধনে মেধাবী আদনান তাসিন হত্যার সুবিচার সহ নিম্ন লিখিত দাবি পেশ পেশ করে
১) আদনান তাসিনকে হত্যাকারী ঘাতকবাস চালক- হেল্পার - মালিককে আটক করে দ্রুতবিচারে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।
২) আদনান তাসিনের পরিবারকে ক্ষতিগ্রস্থদের মত আর্থিক ক্ষতিপূরণ প্রদান করতে হবে।
৩) আদনান তাসিনের নামে শেওড়ারেলগেট অঞ্চলস্থ ফুটওভারব্রিজের নামকরণ করতে হবে।
৪) সড়কে অব্যবস্থাপনার জন্য দায়ি বাক্তি ও প্রতিস্থানের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।

অতএব,মহোদয়ের নিকট আমাদের আকুল আবেদন এই যে, সড়কে মেধাবি শিক্ষার্থী  আদনান তাসিনের হত্যার সুবিচার নিশ্চিত করতে মামলাটি ডিবি তে হস্তান্তরের ব্যবস্থা করতে আপনার একান্ত মর্জি হয় ও দোষীদের শাস্তি প্রদানে আপনার আশু হস্তক্ষেপ প্রার্থনা করছি

নিবেদক,


(মাশুক রাহমান )
যুগ্মআহ্বায়ক
বাইং অ্যান্ড গার্মেন্টস এমপ্লয়ি ফোরাম
জোয়ার সাহারা বাজার,
১৭ নং ওয়ার্ড, ভাটার্‌ ঢাকা ১২২৯
ফোন ঃ ০১৫৩ ২৫৩ ০৯ ০০
৮৮০৯৬৩৮৭৮৯৪২৫

"We want Justice for Adnan Tasin"

Re: মেধাবী শিক্ষার্থী আদনান তাসিনকে সড়কে হত্যার সুবিচারের জন্য আবেদন

এখান থেকে কি তাদের চোখে পড়বে  roll