সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন community (১৭-০৬-২০১৭ ১৪:০১)

টপিকঃ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে এগিয়ে চলেছে বাংলাদেশ।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে এক অপ্রতিরদ্ধ গতিতে এগিয়ে চলেছে বাংলাদেশ। একসময় দেশের চাহিদা মেটানর জন্য শতকরা ৯৫% ভাগ সফটওয়্যার ও ওয়েবসাইট ডিজাইন আমদানি করা হতো। কিন্তু বর্তমানে বাংলাদেশি আইটি ফার্ম গুলো দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশে সফটওয়্যার রপ্তানি করছে এবং বয়ে আনছে দেশের জন্য অসামান্য গৌরব।

বাংলাদেশের  তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি শিল্প নিয়ে কথা হয়ে গেল বাংলাশের অন্যতম বিখ্যাত ওয়েবসাইট ডিজাইন ফার্ম রূপকারের ক্রিয়েটিভ ডিরেক্টর মুরাদ চৌধুরীর সাথে। "এখন বাংলাদেশের আইটি সেক্টর এক অসাধারণ সময় পার করছে। আমরা Roopokar, গত ৫ বছর আগে দৈনিক একটা বেশি হলে দুইটা ফোন পেতাম দেশিও কাজের জন্য। কিন্তু এখন আমরা দেশিও কাজের জন্য ছয় সাতটির ও বেশি ফোন পাই দৈনিক। এছারা বিদেশি কাজের জন্যও আমাদের দারে ইমেইল ও ফোন আসছে প্রায়েই" - মুরাদ চৌধুরীর।

বেসরকারি খাতের সাথে পাল্লা দিয়ে বাংলাদেশের নিজস্ব সরকারি কর্ম ক্ষেত্রেও আইটির ব্যাবহার বেড়েছে অনেক গুণে। এ বিষয়ে বিষয়েও মুরাদ চৌধুরী বলেন "সবকয়টি মন্ত্রনালয়ের প্রতিটি বিভাগের এখন ওয়েবসাইট রয়েছেয়, আরও রয়েছেয় ইরপি সিস্টেম "

For authenticity of Murad chowdhury visit: http://www.roopokar.com/

Re: তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে এগিয়ে চলেছে বাংলাদেশ।

শুধু তাই নয় বর্অতমানে অনলাইন প্ল্যাটফর্মে নিয়োগকারীদের সাথে ফ্রিল্যান্সারদের যুক্ত করার ডাটা বিশ্লেষণ করে সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অনলাইন শ্রমের সবচেয়ে বড় সরবরাহকারী দেশ ভারত। আর ভারতের পরেই রয়েছে বাংলাদেশ, যুক্তরাষ্ট্র, পাকিস্তান, ফিলিপাইন এবং যুক্তরাজ্য। আর এদের বলা হয় ‘ডিজিটাল গিগ ওয়ার্ক’ অথবা ফ্রিল্যান্স ওয়ার্ক।

গত সপ্তাহে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অক্সফোর্ড ইন্টারনেট ইন্সটিটিউট এই প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। প্রতিবেদনে জুলাই মাসের প্রথম সপ্তাহের ডাটা বিশ্লেষণ করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সফটওয়্যার ডেভলপমেন্ট এবং প্রযুক্তি খাতে অনলাইন শ্রম সরবরাহকারীর অর্ধেকেরও বেশি ভারত থেকে সরবরাহ করা হয়ে থাকে। এছাড়া তথ্য অনুযায়ী আউটসোর্সিং এর গতানুগতিক গন্তব্য হচ্ছে ভারত। এবং এই আউটসোর্স সরবরাহের হার ভারতে ২৬ শতাংশ।

আর এর পরেই আছে বাংলাদেশ যেখানে ১৬ শতাংশ সরবরাহ করে থাকে এবং যুক্তরাষ্ট্র ১২ শতাংশ। তবে বিভিন্ন দেশের কর্মীরা বিভিন্ন পেশার উপর ফোকাস করে থাকে। আর এক্ষেত্রে ৫৫ শতাংশ মার্কেট শেয়ার নিয়ে সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট এবং প্রযুক্তি খাতে বাজার দখল করে আছে ভারতীয় উপমহাদেশ। আবার পেশাগত সেবা ক্যাটাগরিতে অ্যাকাউন্টিং, লিগ্যাল সার্ভিস এবং বিজনেস কনসালটিং বিষয়গুলোতে ২২ শতাংশ মার্কেট শেয়ার নিয়ে যুক্তরাজ্যের দখলে রয়েছে।

ভারতের শীর্ষ খাত সফটওয়্যার এবং প্রযুক্তি সেবা, সৃজনশীল ও মাল্টিমিডিয়া সেবা দ্বিতীয় স্থানে এবং বিক্রয় এবং বিপণন সহায়তা দেশের জন্য তৃতীয় সবচেয়ে জনপ্রিয় অনলাইন শ্রম ছিল।

প্রতিবেদনে চারটি অনলাইন প্ল্যাটফর্ম থেকে ডাটার ভিত্তিতে বিশ্লেষণ করা হয়েছে। আর এই চারটি প্ল্যাটফর্ম হলো- ফিভার, ফ্রিল্যান্সার, গুরু এবং পিপলপারআওয়ার।

IT  বিষয়ে বাংলা ভাষায় নতুন নতুন তথ্য পেতে ঘুরে আসুন>> http://busybeebd.com/

Re: তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে এগিয়ে চলেছে বাংলাদেশ।

সম্প্রতি একটা নিউজপেপারে দেখলাম বাংলাদেশ নাকি দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে।

হবার আগে সবাই পর
সময় থাকতে সাধন কর
Bangla Books PDF

Re: তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে এগিয়ে চলেছে বাংলাদেশ।

সম্প্রতি বাংলাদেশ প্রযুক্তিতে এগিয়ে যাচ্ছে
https://simkothon.com

Re: তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে এগিয়ে চলেছে বাংলাদেশ।

আগের থেকে আরো ভাল দিকে যাচ্ছে বাংলাদেশ ।

Re: তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে এগিয়ে চলেছে বাংলাদেশ।

Bangladesh going ahead and that's great for our technology.
https://www.ongreetings.com