টপিকঃ জীবনান্তে নাম

জীবনান্তে নাম
গিনি
কোথা থেকে সে এসেছে কেউ জানেনা।
সরকারি কোর্ট ঘরের বারনাদায় দেখা যায় সারাদিন,
রাতেও ওখানে ঘুমিয়ে থাকে।
ওর নিজের কি আছে? শুধু পরনের জামা টুকু।
দলিল লেখক যখন ব্যস্ত হয়,
চা -পানি আনার জন্য ওকে ডাকে ,” মনু”।
সেই থেকে ওকে সবাই চেনে মনু বলে।
এই অল্প বিস্তর কাজ করে কিছু পয়সা পায়।
তা দিয়ে কখনও কখনও খাওয়া চলে।
আজ দলিল লেখকের বড় কাজ এসেছে, কোনো এক জমিদার এসেছেন
অনেক বড় দলিল হবে। টাকাও পাওয়া যাবে প্রচুর। মনু কে বলে সদরঘাটের বিরিয়ানি নিয়ে আয়।
রিক্সায় যাবি আর আসবি এই আরও ২০ টাকা নে।
মনু অতি উৎসাহে ছোটে আজ তাহলে বিরিয়ানি খাওয়া যাবে।
রিক্সার বেপরোয়া চলায় এক ভাঙ্গা বাসের নিচে পরে। এখানেই মনুর জীবনাবসন ঘটে।
পুলিশের খাতায় নাম উঠে “ বেওয়ারিশ”।
কিছু পরে আঞ্জুমানের গাড়ি নিয়ে যায়।
সর্বহারা এই কিশোর, জীবনান্তে
সরকারি  স্বীকৃতি পায় এক নামে “বেওয়ারিশ”।