টপিকঃ সরকারি কর্মকর্তা ও মন্ত্রী সচিবদের ৭৫০০০ করে মোবাইল কেনার জন্যে!!

সংবাদ টি আমার কাছে ভালো লেগে তাই শেয়ার করছি????

“মানসম্মত অ্যান্ড্রয়েড ফোন ৭৫ হাজারের কম হলে পাওয়া যায় না, এজন্য এটাকে ৭৫ হাজার টাকা করা হয়েছে।”

আপনি চাকরি করেন , আপনার মাইনা দেয় ওই গরীব কৃষক ; আপনার মাইনা দেয় ওই গরীব শ্রমিক ; আপনার সংসার চলে ওই টাকায় । আমরা গাড়ি চড়ি ওই টাকায় , আমরা বেঁচে থাকি ওদের টাকায় । ওদের সম্মান করে কথা বলেন ; ওদের ইজ্জত করে কথা বলেন ; ওরাই আপনাদের মালিক!!!

তাদের এই বেটা কোত্থেকে আসলি ??? সরকারী কর্মচারীকে বলব, মনে রেখো, এ স্বাধীন দেশ , এ ব্রিটিশ কলোনি নয় , পাকিস্তানি কলোনি নয় । যে লোকরে দেখবা তার চেহারাটা হয়ত বাবার মতো , তোমার ভাই এর মতো। তোমার পকেটে পয়সা ওরই ; ও সম্মান বেশি পাবে ; কারন ওরা নিজে কামাই কইরা খায় ; আর তোমরা কাজ পাইয়া ।

একটা কথা জিজ্ঞাসা করি ; আপনাদের কাছে ; মনে করবেন না কিছু । আমাদের কাছে জিজ্ঞাসা করি , আপনাদের বলব কেন ? আমিতো আপনাদের একজন । আমাদের লেখাপড়া শিখায় সে কেডা ? আমার বাপ মা ? আমরা মনে করি বাপ মা ; আমাদের লেখাপরা শেখায় সে কে ? আমার বাহে ডাক্তারি পাস করায় কে ? আর ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করায় কে ? আর সায়েন্সে পাস করায় কে ? আর বৈজ্ঞানিক করে কে ? আর অফিসার করে কে ? কার টাকায় ?

বাংলার দুঃখী জনগণের টাকায় !

আপনাদের কাছে আমার জিজ্ঞাসা ? শিক্ষিত ভাইরা , যে আপনার লেখাপড়ার খোরপোশ দিয়েছে , শুধু আপনার সংসার দেখার জন্য নয়, আপনার ছেলেমেয়ে দেখার জন্য নয় ; দিয়েছে তাদের আপনি কাজ করবেন , সেবা করবেন; তাদের আপনি কি দিয়েছেন ? কি ফেরত দিচ্ছেন ? কতটুকু দিচ্ছেন ? কার টাকায় ইঞ্জিনিয়ার সাব , কার টাকায় ডাক্তার সাব , কার টাকায় অফিসার সাব , কার টাকায় রাজনীতিবিদ সাব , কার টাকায় মেম্বার সাব , কার টাকায় সব সাব ??

সমাজ যেন ঘুণে ধরে গেছে , এ সমাজকে আমি চরম আঘাত করতে চাই ।। এ আঘাত করতে চাই , যে আঘাত করেছিলাম পাকিস্তানিদের ; সেই আঘাত করতে চাই এই ঘুণে ধরা সমাজ ব্যবস্থাকে ।।

এই যে ; নতুন সিস্টেম (বাকশাল-এ) যাচ্ছি আমি; গ্রামে গ্রামে বহুমুখী co-operative করা হবে ; ভুল কইরেন না , আপনাদের জমি আমি নেব না ; ভয় পাইয়েন না , কারো জমি নিয়া যাবো তা নয় । পাঁচ বছরের প্ল্যানে, বাংলাদেশ এর পঁয়ষট্টি হাজার গ্রামে , একটা করে co-operative হবে প্রত্যেক গ্রামেতে ; এই co-operative জমির মালিক জমির থাকবে , কিন্তু তার অংশ , যে বেকার প্রত্যেকটা মানুষ , যে মানুষ কাজ করতে পারে , তাকে সেই co-operative এর সদস্য হতে হবে । এবং বহুমুখী co-operative হবে । Ultimately পঁচিশ হাজার Village এ একটা করে co-operative করা হবে পাঁচ বছরে প্লান নেয়া হয়েছে। তাদের কাছে পয়সা যাবে, তাদের কাছে Fertilizer যাবে, তাদের কাছে Pesticide যাবে, তাদের কাছে Work Proggrame যাবে; আস্তে আস্তে ইউনিয়ন কাউন্সিল, ওই টাউট এর দল বিদায় দেয়া হবে ; তা নাহলে দেশ কোথাও যাবেনা। এই জন্যে Village এ co-operative হবে। আমি ঘোষণা করছি আজকে যে পাঁচ বছর প্ল্যানে প্রত্যেকটি গ্রামে, ধরেন হাজার ফ্যামিলি থেকে, পাঁচশো থেকে হাজার ফ্যামিলি পর্যন্ত Compulsary Co-operative এর আওতায় আসবে; আপনার জমির ফসল আপনি নিবেন, অংশ যাবে co-operative এ, অংশ যাবে Government এর হাতে।

দ্বিতীয় ধাপ: থানায়;  থানায় একটা করে কাউন্সিল হবে; এই কাউন্সিল এ রাজনৈতিক কর্মী, সর্ব কর্মচারী যে হয় একজন তার Chairman হবে, এই জায়গাতে থাকবে ওই Department এর কৌশলকারী কর্মচারী; আর তার হাওলাদে কৃষক শ্রমিক আওয়ামীলীগ এর প্রতিনিধি থাকবে; যুবক প্রতিনিধি থাকবে; কৃষক প্রতিনিধি থাকবে, তারা থানাকে চালাবে।

আর সমস্ত মহকুমা জেলা হয়ে যাবে। প্রত্যেকটা মহকুমা কে জেলা করব, সেই মহকুমায় একটা করে ADMINISTRATIVE COUNCIL হবে, তার একজন Chairman থাকবে, সব কর্মচারী একসঙ্গে তার মতে থাকবে; এর মধ্যে PEOPLE REPRESENTATIVE থাকবে, PARTY REPRESENTATIVE থাকবে, তারা সেখানে সরকার চালাবে। এইভাবে একটা সিস্টেম আমি চিন্তা করেছি এবং করব বলে ইনশাআল্লাহ আমি ঠিক করেছি ।

আমি আপনাদের সাহায্য, সহানুভূতি চাই। আমার পাট এর দাম নাই, আমার চা এর দাম নাই ; আমি বেচতে গেলে অল্প পয়সায় বিক্রি করতে হয়? আর আমি যখন কিনে আনি, যারা বড় বড় দেশ তাদের জিনিসের দাম অনেক বাড়ায়ে দেয়; আমরা বাঁচতে পারিনা।

আমরা বলি, এইজন্যই আমারা বলি, যে তোমরা মেহেরবানি করে যুদ্ধ যুদ্ধ মনোভাবটা বন্ধ করো, ওই সম্পদ দুনিয়ার দুঃখী মানুষকে বাঁচাবার জন্য ব্যয় করো; এই দিন থাকবেনা; আমরা বাংলাদেশ এর মানুষ, আমার মাটি আছে, আমার সোনার বাংলা আছে, আমার পাট আছে, আমার গ্যাস আছে, আমার চা আছে, আমার ফরেস্ট আছে, আমার মাছ আছে, আমার Livestock আছে; যদি Develop করতে পারি ইনশাআল্লাহ; এই দিন আমাদের থাকবেনা। ভাই আরবদের সঙ্গে আমার একাত্মবোধ; আজ PALESTINE এ আমি তাদের দাবী; আরব ভাইদের ন্যায্য দাবি সমর্থন করে বাংলার মানুষ; আরবভাইদের পেছনে থাকব PALESTINE কে উদ্ধার করার জন্য; কেউ আমাদের পরে যেখানে নির্যাতিত দুঃখী মানুষ, সেখানে আমরা যাবো।

শ্রমিক ভাইরা, আমি জানি, আমি শ্রমিক প্রতিষ্ঠান করতেছি; আপনাদের প্রতিনিধি নিয়ে , INDUSTRY DEPARTMENT , LABOR DEPARTMENT, শ্রমিক প্রতিনিধিরা বসে একটা প্লান করতে হবে , সেই প্লান অনুযায়ী কি করে আপনারা বাঁচতে পারেন তার একটা বন্দোবস্ত করতে হবে।

ছাত্র ভাইরা; লেখাপড়া আপনারা শেখেন, আমি খুশি হয়েছি; আপনারা নকল-টকল বন্ধ করেছেন; কিন্তু একটা কথা বলব, যে আপনারা অনেকে আমি দেখেছি পেপার এ, আবার খবর ও পাই, এক পারসেন্ট পাস, দুই পারসেন্ট পাস, তিন পারসেন্ট পাস।

শিক্ষক সম্প্রদায়ের কাছে আমার একটা আকুল আবেদন; ফেল করাবেন? নকল বন্ধ করতেছি। ঠিক ? আপনাদের একটা কর্তব্য আছে। ওইরকম এর তো বলতে পারি দুই পারসেন্ট পাস করালাম!আপনার কর্তব্য আছে, যে ছেলেদের মানুষ করতে হবে।

রাগ কইরেন না , রাগ কইরেন না, আপনারা আবার আমার উপর রাগ করেন; না না বুদ্ধিজীবীদের আমি কিচ্ছু বলিনা, উনাদের আমি সম্মান করি। শুধু এইটুকু বলি যে বুদ্ধিটা একটু জনগণের খেদমতে আপনারা ব্যয় করেন। সেইটুকুই চাই। এটা মনে রাখবেন; এর বেশি আমি আপনাদের বলব না; বাবা বলে কি মারা যাব? আবার কোন সময় বই লেইখা বসবেন! আপনাদের শ্রদ্ধা করি; কিন্তু চাই, ন্যায্য কাজটা করেন; খালি রক্ষা কইরা লাভ হবেনা। কতটুকু কাজটা করলেন, এইটাও অনেক বড় ব্যাপার!

আমার যুবক ভাইরা; আমি যে Co-operative করতে যাচ্ছি গ্রামে গ্রামে; এর উপর বাংলার মানুষের বাঁচা নির্ভর করবে। আপনাদের ফুল্-প্যান্ট টাকে একটু হাফ-প্যান্ট করতে হবে; একটু পায়জামা ছেড়ে একটু লুঙ্গি পরতে হবে; আর গ্রামে গ্রামে গিয়ে এই Co-operative কে সাকসেসফুল করার জন্য কাজ করতে হবে। যুবক ও চাই; ছাত্রও চাই; সকলকেই চাই।

আর একটা কথা বলতে চাই। বিচার ; বিচার। বাংলাদেশ এর বিচার , ইংরেজ আমলের বিচার। আল্লাহর মর্জি যদি সিভিল কোর্টে কেস পড়ে, সে মামলা শেষ হতে লাগে ২০ বছর; আমি যদি উকিল হই, আমার জামাইরে উকিল বানায়া কেস টা দিয়া যাই। ও মামলা আর ফয়সালা হয়না। আর যদি CRIMINAL CASE হয় চার বছর , তিন বছরের আগে শেষ হয়না। এই বিচার বিভাগ কে নতুন করে এমন করতে হবে যে থানায় TRIBUNAL করার চেষ্টা করছি আমরা। এবং সেখানের মানুষ একা এক বছর দেড় বছরের মধ্যে বিচার পায় তার বন্দোবস্ত করতেছি। আশা করি সেদিকেই হবে ।

ভাইরা আমার একটা কথা জানতে চাই? আপনাদের কাছে জানতে চাই একটা কথা।

এই যে আমি ৪ টা প্রোগ্রাম দিলাম; এইযে আমি Co-operative করবো; থানা Council করবো; আর আমি যে আপনাদের কাছ থেকে ডাবল ফল চেয়েছি ; জমিতে যে ফসল হয় তার ডাবল; কলে-কারখানায় কাজ; এইযে কথাগুলা আমি বললাম; আপনারা আমাকে সমর্থন করেন কি না? আমার উপর আপনাদের আস্থা আছে কি না?

আমাকে দুহাত তুইলা আপনারা দেখায়া দেন; ইনশাআল্লাহ আবার দেখা হবে, আপনারা বহু দূর থেকে কষ্ট করে আসছেন; গ্রামে গ্রামে যান; যাইয়া বলবেন;  দুর্নীতিবাজ দের খতম করতে হবে। খেতে-খামারে , কলে-কারখানায় PRODUCTION বাড়াতে হবে। সকল কর্মচারী ভাইরা আপনারা কৃষক শ্রমিক আওয়ামীলীগ এর সদস্য হবেন; আপনারা প্রাণ দিয়া কাজ করেন।

ইনশাআল্লাহ বাংলাদেশ আসছে , বাংলাদেশ থাকবে , জয় বাংলা…

http://egiye-cholo.com/seventy-five-tho … roid-govt/

*

নিজে শিক্ষিত হলে হবে না- প্রথমে বিবেকটাকে শিক্ষিত করতে হবে

Re: সরকারি কর্মকর্তা ও মন্ত্রী সচিবদের ৭৫০০০ করে মোবাইল কেনার জন্যে!!

কিছুই করবার নেই,,,আম জনতা সারাজীবন আঙ্গুল চুষেই যাবে,মধু খেতে আর পারবে না neutral

ডিজিটাল বাংলাদেশে ত আর সাক্ষরের নিয়ম চালু নাই।সবটায় দেখি বায়োমেট্রিক।তাই আর সাক্ষর দিতে পারলাম না।দুঃখিত।

Re: সরকারি কর্মকর্তা ও মন্ত্রী সচিবদের ৭৫০০০ করে মোবাইল কেনার জন্যে!!

যে দেশে এখনও যাকাত  ইফতার জাকাত ও একবেলা খাওবার জন্য এর জন্যে পায়ের নিচে পিষ্ট হয়ে মানুষ মারা যাচ্ছে, চালের দাম বৃদ্ধির ফলে ৫ লাখ ২০ হাজার লোক নতুন করে দরিদ্র হয়েছে, প্রায় ২৮ লাখ মানুষ বেকার, পোশাক কারখানায় ৪৪ লাখ লোক,  গৃহহীন কোটি মানুষ, সে দশে এরকম বিলাসিতা মানায় না। এতে করে তাদের সাথে সাথে অন্য দের লোভের মাত্রা টাও বাড়িয়ে দেওয়া হবে।

নিজে শিক্ষিত হলে হবে না- প্রথমে বিবেকটাকে শিক্ষিত করতে হবে