টপিকঃ “জ্বির্ণতার কাব্য”

সময়টা ভোর রাত,
এ শহরের অর্ধমৃত রাস্তায় জন্ম নেয়,
কিছু অশরীরী মূল্যবোধ।
কাপুনি দিয়ে কুকুর গোঙ্গায়,
এ শীতে মৃত লাশ গুলোর কষ্ট না হলেও,
আত্মা গুলো কষ্ট পায় ,
তারাও কম্বল চায় ,
জীবিতদের জন্য।
ঘন কুয়াশায় ফ্লাইওভারের ছাদে হাটছে,
একটি অপবিত্র ক্ষুধা।
সে টাকা খাবে,
আবার টাকাও তাকে খাবে।
এই মধ্যরাতে পৃথিবী ক্ষুধার্ত থাকে,
কেউ শোনেনা।
ধুর ছাই আর ভাল্লাগে না,
জ্বির্ণতার কাব্য আর কত দূর ?
আরে বোকা ক্ষুধা তো পেটেনা, মনে।
মনের ক্ষুধা খাবার চায়না,
চায় আশ্বাস !
শেষ রাতে পৃথিবীর তেষ্টায় কাতর,
আমি বলি এবার তাহলে কান্না খাও !!!
কবিতা সমগ্র