টপিকঃ এ ঘাট ও ঘাট

এ ঘাট ও ঘাট
গিনি
নদীর মোহনায় খালের মুখে, কাশ বন ঘেরা পারের ধারে বেদে দের নৌকা গুলি সারি দিয়ে বাঁধা। সবে আঁধার ঘনায়েছে।ভোগেন চান, দল নেতার পুঁথি শোনার জন্য সকল পুরুষ বেদে ভিড় করে নৌকার গুলুয়ে বসে। হারকেনের বাতিতে পুঁথি পাঠ চলে। ভোগেন চান জলকন্যার কাহিনি সুর করে পড়ে চলে। পাশের নৌকায় বেদেনিরা গরম ভাত, মাছ ভাজা আর কবুতরের মাংস ঝোল করে। পুথির শেষাংশে খাবার ও শেষ হয়। ধ্নু ভোগেনের কানের কাছে এসে বলে," গুরু, কন্যা ডাঙর হয়িছে। বিয়া দেওয়া চাই।" গুরু," এখন ঘুমা কাল ভোরে যোগেনের ছাওয়ালের সাথে কথা হবে।"
নৌকা বহরের শেষ হারিকেনটা নিভে যায়।
শান্ত জলের স্রোতের নৌকার তলে জলের এক প্রকার কল্ক কল্ক শব্দ নিদ্রা কে গভীর করে।
কিছুক্ষন পড়ে অতি নিকটে এক ডোবায় অজানা পাখির তীক্ষ্ণ চিৎকার শুনা যায়। ভোগেন চান জেগে উঠে। বল্লমটা চেপে ধরে। হাঁক ছারে," জাগড়ে জোয়ান, জাগ।"
ভয়ে শরীর থর থর কাঁপে। এই ভেজা অঞ্চলে রাতে ডাকাত পরে। যুবতী কন্যা নিয়া যায়। কিছুক্ষন সজাগ থাকে। আর কোন কিছু নাই।
আবার সব নিরব। এই আম্যাবসায় চারি দিকে নিকোষ আঁধার।
ভূগেন নীচুতে বলে," এখন ঘুমাও। কাল আলো ফুটার পূর্বেই নৌকা ছাড়বে।"