টপিকঃ ভাল্ভ থেকে ট্রানজিস্টর

http://forum.projanmo.com/uploads/2008/12/2102_trans.jpg
বিশ্বের প্রথম বেশ বড় আকারের কম্পিউটার ‘এনিয়াক’ তৈরি হয়েছিল দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শেষ হবার কিছু আগে। আর ঠিক সে সময়ই  একটি খুব গুরুত্বপূর্ণ আবিস্কার হলো যার ফলে সমগ্র ইলেকট্রনিক্স প্রযুক্তি, বিশেষ করে কম্পিউটার প্রযুক্তিতে শুরু হলো নতুন বিপ্লবের। সে আবিস্কারটির নাম হলো ট্রানজিস্টর (Transistor)। এটি ছোট্ট একটি ইলেকট্রনিক্স কম্পনেন্ট। ট্রানজিস্টর আবিস্কারের পূর্ব বিভিন্ন ইলেকট্রনিক্স যন্ত্র যেমন রেডিও, টেলিভিশন বিশেষ করে কম্পিউটারে ভাল্ভ নামে এক ধরনের কম্পনেন্ট ব্যবহার করা হত। ভাল্ভ এর মাধ্যমে ইলেকট্রনের প্রবাহকে ইচ্ছে মত নিয়ন্ত্রন করা যায় এবং ইলেকট্রনের মৃদু ওঠা-নামাকে অনেক গুন বারিয়ে তোলাযায়। ইলেকট্রনিক্স সার্কিটে ভাল্ভ ব্যবহার করাহত মূলত দ্রুত গতির সুইচ এবং Amplifier হিসেবে।  একটি ভল্ভ এর সাধারনত তিনটি পা বা সংযোগ প্রান্ত থাকতো। ভল্ভ  গুলো আকারে বেশ বড় হতো ‘এনিয়াক’ কম্পিউটারটিতে এরকম প্রায় ১৮,০০০ ভাল্ভ ব্যবহার কারা হয়ে ছিলো। ঐ কম্পিউটার টি চালাতে দারকার হত প্রায় ১০০,০০০ ওয়াট বিদ্যুত্ শক্তির। আর এ লক্ষ ওয়াট বিদ্যুতের মধ্যে ৪০,০০০ ওয়াট লাগত শুধু মাত্র ভাল্ভ গুলোর জন্য। সেই বিপুল পরিমান বিদ্যুত্ প্রবাহ যখন ভাল্ভ গুলোর ফিলামন্টের মধ্য দিয়ে বইত তখন ভাল্ভ গুলোত বটেই কম্পিউটার কক্ষটি পুরটাই প্রচন্ড গরম হয়ে উঠত। আর  তাপ মাত্রা স্বাভাবিক রাখার জন্য ব্যবহার করা হত হিমায়ক ব্যবস্থার। এ জন্য খরচ হত আরও কিছু বিদ্যুত্। সব মিলিয়ে পুরো কম্পিউটার সিস্টেমটির জন্য আশ্চর্য রকমের বিদ্যুত খরচ হত। এছারাও ভাল্ভ গুলোর ছিল আরও নানা রকমের সিমাবদ্ধতা। ভাল্ভ এর আবরন টি তৈরি করা হত কাঁচ দিয়ে ফলে খুব সহজেই এগুলো ভেঙ্গে যেত। আবার পাওয়ার অন করার পর ভাল্ভ গুলো সক্রিয় হতে বেশ অনেকক্ষন সময় নিত। ভাল্ভ তৈরিতে খরচ পরত বেশি  অথচ একটি ভাল্ভ খুব বেশি দিন ব্যবহার করা যেত না।
এ সকল সমস্যার অবসান ঘটাতে ১৯৪৬ সালে বিখ্যাত বেল ল্যাবরেটরিতে আবিস্কৃত হলো ট্রানজিস্টর। আবিস্কারক হলেন জন বার্ডিন (Jhon Bardeen), উইলিয়াম শক্ লি(William Shockley) এবং  ওয়াল্টার ব্র্যাটেইন (Walter Brattain) নামে তিন  বিজ্ঞানী। প্রকৃতপক্ষে ট্রানজিস্টর আবিস্কারের মধ্য দিয়েই শুরু নতুন ইলেকট্রনিক্স যুগের। ভাল্ভ এর বিকল্প হিসেবে জায়গা করে নেয় ট্রানজিস্টর। ট্রানজিস্টর ব্যবহারের ফলে ইলেকট্রনিক্স যন্ত্র গুলোর যে ব্যাপক পরিবর্তন সাধিত হয় তার মধ্যে সবার আগে যে জিনিসটি চখে পরে তা হলো আকার। অর্থত্ ভাল্ভ এর বদলে ট্রানজিস্টর ব্যবহারের ফলে যন্ত্রপাতির আকার বেশ ছোট হয়ে যায়। ছোটত হবেই, কারন একটি  ভাল্ভ বসাতে যে পরিমান জায়গা লাগে সে পরিমান যায়গায় প্রায় দু’তিনশ ট্রানজিস্টর অনাআয়াশে বাসানো সম্ভব। আর বিদ্যুত্ খরচ? সেত একেবারেই অল্প। একটি ভাল্ভ সক্রিয় করতে যেখানে প্রায় ১০০০ভোল্ট (1KV) বিদ্যুত্ প্রয়োজন সেখানে একটি ট্রানজিস্টরের প্রয়োজন মাত্র কয়েক মিলি ভোল্ট। আর তাপ উত্পাদন হয় না বল্লেই চলে। একটি ট্রানজিস্টরের উত্পাদন খরচও খুবই সামান্য এবং বহুদিন পর্যন্ত তা ব্যবহার করা যায়।
১৯৪৬সালো ট্রানজিস্টর আবিস্কার হওয়ার পর খুব অল্পদিনের মধ্যেই বানিজ্যিক ভাবে এর  ব্যবহার শুরু হয়ে যায়। সর্ব প্রথম জাপানের ‘সোনি’(Sony)  কম্পানী ট্রানজিস্টর ব্যবহারের লাইসেন্স নিয়ে খুব ছোট আকারের একটি রেডিও সেট বাজারে ছাড়ে এবং বিক্রিও করে প্রচুর। ঐ সময় ট্রানজিস্টর ব্যবহার করে ছোট আকারের বিভিন্ন ইলেকট্রনিক্স যন্ত্র তৈরির হিড়িক পরে যা। সে সময় ভাল্ভ এর পাশাপাশি ট্রানজিস্টর ব্যবহার করে বিভিন্ন মডেলের বেশ কিছু কম্পিউটার তৈরি করা হয়। তবে ১৯৫৯ সালে আইবিএম (IBM) কোম্পানী সম্পুর্ন ট্রানজিস্টর নির্ভর ১০৯০ মডেলের বেশ ছোট আকারের একটি কম্পিউটার বাজারে ছেড়ে বেশ সারা ফেলে দেয়। এর ঠিক তিন বসর পর  আইবিএম এর প্রতিযোগী কোম্পানী স্পেরি-রেন্ড (পূর্বের নাম ছিল  রিমিংটন- রেন্ড) ইউনিভ্যাক-৩ মডেলের একটি কম্পউটার বাজারে ছরে। যদিও এটি ইউনিভ্যাক-১ এবং ইউনিভ্যাক-২ এর তুলনায় বেশ দ্রুত গতির ছিল তার পরেও তা বাজার হারায়। তার করান ইউনিভ্যাক-৩ এর দাম বেশি ছিল। মূলত সেসময় আইবিএম এর তৈরি কয়েক টি কম্পিউটাই একচিটিয়া ভাবে বাজার দখল করে ফলে। এ সময় আইবিএম বুঝতে পারল ট্রানজিস্টর ব্যবহার করে কম্পউটারকে আরও অনেক উন্নত করে তোলা যাবে ; তাই তারা এ বিষয়ে গবেষনার জন্য বিপুল পরিমান অর্থ ঢালতে শুরু করল। আর এভাবেই চলতে থাকল ট্রানজিস্টরের ক্রমান্নতি।

লেখক: নিজামউদ্দিন আহাম্মেদ (মিন্টু)   

আমাকে মেসেজ পাঠাতে লিখুন skytouch <space> Your message তারপর সেন্ড করুন 7171 নাম্বারে যে কোন অপারেটর থেকে।

www.skytouch2u.com

Re: ভাল্ভ থেকে ট্রানজিস্টর

ট্রানজিস্টর যা ইলেকট্রনিক্স জগৎ টাকেই পাল্টে দিয়েছে তাই না?

আমাকে মেসেজ পাঠাতে লিখুন skytouch <space> Your message তারপর সেন্ড করুন 7171 নাম্বারে যে কোন অপারেটর থেকে।

www.skytouch2u.com

Re: ভাল্ভ থেকে ট্রানজিস্টর

অনেক সুন্দর লিখেছেন big_smile

মেধাকে ভালবাসি

Re: ভাল্ভ থেকে ট্রানজিস্টর

আপনাকে ধন্যবাদ

আমাকে মেসেজ পাঠাতে লিখুন skytouch <space> Your message তারপর সেন্ড করুন 7171 নাম্বারে যে কোন অপারেটর থেকে।

www.skytouch2u.com

Re: ভাল্ভ থেকে ট্রানজিস্টর

ভালো লিখেছেন। ট্রানজিস্টর , ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক্স সম্বন্ধে বিস্তারিত পড়তে পারেনঃ http://blog.voltagelab.com

Re: ভাল্ভ থেকে ট্রানজিস্টর

দারুন লিখেছেন ।