সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন RubaiyaNasreen(Mily) (১০-১২-২০১৭ ১৯:৪২)

টপিকঃ আগ্নেয় দ্বীপ বালি ( পর্ব #৬/ শেষ পর্ব )

ঢেউ এর মাতামাতি দেখতে দেখতে কখন যে গায়ের ভিজা কাপড় শুকিয়ে গেছে টেরই পাইনি । যাক এবার ফেরার পালা । একই পথ দিয়ে হাঁটতে হাঁটতে আর দোকান গুলোতে ঢুঁ মারতে মারতে এগিয়ে চলছি ,যেহেতু একেকজনের প্রায়োরিটি একেক রকম তাই আমরা কেনাকাটার জন্য দুই/তিনটা ভাগে অটো ভাগ হয়ে গেলাম ।

https://i.imgur.com/f7NFrAe.jpg

আমি ভাই আর রুনিয়া আপু শুরুতে একসাথে ছিলাম কিন্তু মাঝে হঠাত রুনিয়া আপু আমাদের ছেড়ে এগিয়ে গেলেন । আমরা টুকটাক কেনাকাটা করলাম ।



https://i.imgur.com/bt7atf2.jpg

এখানে ফ্লিপফ্লপ গুলা দারুন কিউট দেখতে । আগেই সময় নির্দিষ্ট করা ছিল যে কতক্ষণ পর গাড়িতে ফিরব তাই অনিচ্ছা সত্ত্বেও পা বাড়ালাম গাড়ির দিকে ।

গাড়িতে একজন আগেই বসা ছিল আর দুজন ও আমাদের পিছন পিছন হাজির কিন্তু রুনিয়া আপু নাই। ভাবলাম উনি হয়ত এখনি এসে পড়বেন কিন্তু না সে আশায় গুড়ে বালি । প্রায় আধা ঘন্টা অপেক্ষা করার পর একটু একটু করে মেজাজ হারাতে লাগলাম  সবাই । আমরা চার জন দুই দলে ভাগ হয়ে উনাকে খুজতে বের হলাম আর জেসমিন আপা বসে রইলেন গাড়িতে । কোথাও নাই উনি তাই মাইকে উনার নাম আর দেশ উল্লেখ করে দুই দুই বার ঘোষণা করা হল তারপর ও কোন হদিস নাই ।   এবার রাগ  আর বিরক্তির  সাথে সাথে একটু খানি চিন্তা আর ভয় ও যোগ হল। জেসমিন আপা বললেন দেখ  কোথায় ঘাপটি মেরে বসে আছে । বেশ কিছুক্ষন পর কেয়াপু উনাকে খুজে পেলেন ,একটা দোকানের সামনে বসে ছিলেন আর ভাবছিলেন নাকি যে আমরা উনাকে ছেড়েই চলে গেলাম । মেজাজ আগেই বিগড়ে ছিল আমি একটু কঠোর ভাষাই বলে ফেললাম ।

পুরো পরিবেশটাই  থমথমে   রুনিয়া আপা ফিচ ফিচ করে কাঁদছেন ,গাড়ি ছুটে চলছে লেক ব্রাতান /বেরাতান এর দিকে । সবাই চুপচাপ বসে আছি । গাড়ি এসে থামল লেকের উলটা পাশের এক চমৎকার রেস্তরাঁর সামনে ।

https://i.imgur.com/2eoLvB0.jpg

ধীরে ধীরে খানাপিনা শেষ করলাম আর তারপর যথারীতি ছবি তোলার পালা ,মন ভার করা ব্যাপার গুলো আস্তে আস্তে স্বাভাবিক হচ্ছে ।

https://i.imgur.com/E5ghla9.jpg


জায়গাটা অনেক সুন্দর আর নিরিবিলি ।


https://i.imgur.com/kbJtjtf.jpg

এরপরে যেখানে যাবার কথা ছিল সেখানে যেতে পারলাম না ল্যান্ড স্লাইড এর জন্য তাই চলে গেলাম সোজা পুরা উলুন দানু ব্রাতান মন্দিরে ।

https://i.imgur.com/LgL7P3w.jpg

টিকেট কেতে ভিতরে ঢুকে দেখি চারপাশে প্রচুর সুভেনির শপ আর চমৎকার বাগান ,হরেক রকম ফুলের মেলা।

https://i.imgur.com/yUbRKdO.jpg

মনটাই ভাল হয়ে গেল ।বাগান পেরিয়ে আরও ভিতরে যেতেই দেখি ছবির মত সুন্দর সেই মন্দির ।

https://i.imgur.com/VPvNwxe.jpg


অনেক খন থেকে ছবি তুলে কেনাকাটা করে বেরিয়ে পড়লাম ।


https://i.imgur.com/PSbB7oL.jpg

এবার সোজা শপিং মল এ। আগামী কাল চলে যাব তাই আর সময় নাই ।

https://i.imgur.com/GebxF1A.jpg

শপিং মলটা বেশ চমৎকার ব্র্যান্ড এর পাশাপাশি ওদের হ্যান্ডি ক্র্যাফটস এর প্রচুর দোকান ,এর মাঝে এক ভদ্রলোক একটা মায়া হরিন নিয়ে দাড়িয়ে .

https://i.imgur.com/npkyDV2.jpg

যার যার মত কেনাকাটা করে ফিরে এলাম হটেলে।আটটার মাঝে ফ্রেশ হয়ে বেড়িয়ে পরলাম ডিনারে,আজ গারুপা ছাড়িয়ে চলে এলাম বালিনিক মাত এ।

https://i.imgur.com/TIt87aW.jpg


এখানকার খাবার ও অনেক মজার ।

https://i.imgur.com/2ociSth.jpg

খাবার শেষে হোটেলে ফিরে আমরা চারজন অনেকক্ষণ আড্ডা দিলাম লবিতে, ভাই আর ভাগ্নি আগেই চলে গেছে যার যার রুমে। রুমে ফিরে ব্যাগপ্যাক করে ঘুমিয়ে পড়লাম ,কাল ঘরে ফেরার পালা ।

সকাল বেলা নাস্তা সেরেই রওয়ানা দিলাম এয়ারপোর্ট ,কুয়ালালামপুর হয়ে ঢাকা ।

https://i.imgur.com/i6st0k9.jpg

টক ঝাল মিষ্টি ... একগাদা স্মৃতি নিয়ে ফিরে এলাম বাড়ি আর এখানেই আপাতত শেষ হল আমাদের বালি ভ্রমন । ..................... (সমাপ্ত)

এক টুনিতে টুনটুনালো সাত রানির নাক কাঁটালো

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: আগ্নেয় দ্বীপ বালি ( পর্ব #৬/ শেষ পর্ব )

খাবারগুলা দেখে তো লোভ লাগে  lol

Re: আগ্নেয় দ্বীপ বালি ( পর্ব #৬/ শেষ পর্ব )

ছবিগুলো দেখে মনে হল চলে যাই এক্ষুনি....................................

Re: আগ্নেয় দ্বীপ বালি ( পর্ব #৬/ শেষ পর্ব )

sudiptabiswas লিখেছেন:

খাবারগুলা দেখে তো লোভ লাগে  lol

হুম কি আর করা ,খাবার গুলো আসলেই লোভনীয়  smile smile

এক টুনিতে টুনটুনালো সাত রানির নাক কাঁটালো

Re: আগ্নেয় দ্বীপ বালি ( পর্ব #৬/ শেষ পর্ব )

মিলন লিখেছেন:

ছবিগুলো দেখে মনে হল চলে যাই এক্ষুনি....................................

সুন্দর মন্তব্বের জন্য থ্যাংকস  smile

এক টুনিতে টুনটুনালো সাত রানির নাক কাঁটালো