টপিকঃ সুতা ও কাপড় উৎপাদনে পাট

দেশে উৎপাদিত পাটকে প্রক্রিয়াকরণের মাধ্যমে কাপড় উৎপাদন করে তৈরী পোশাক খাতে ব্যবহারের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। দেশের বাইরে থেকে তুলা ও সুতা আমদানিনির্ভরতা কমাতে এবং পাটচাষকে আবার উদ্বুদ্ধ করতেই এই পরিকল্পনা। ৫০ শতাংশ পাট ও ৫০ শতাংশ তুলা ব্যবহারের মাধ্যমে সুতা উৎপাদন করা হবে। ৫৪১ কোটি ১৮ লাখ ৫৭ হাজার টাকা ব্যয়ে ডেমরাতে কম্পোজিট জুট টেক্সটাইল ও গার্মেন্টস ইউনিট স্থাপন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। বিশ্বের বৃহত্তম প্রাকৃতিক তন্তু হলো পাট। উষ্মমণ্ডলীয় দেশ হিসেবে প্রকৃতির আশীর্বাদপুষ্ট বাংলাদেশে প্রচুর পরিমাণে পাট উৎপাদনের সুযোগ রয়েছে। একসময় পাট উৎপাদনে বাংলাদেশ শীর্ষে ছিল। কিন্তু উৎপাদনকারী কৃষক পাটের মূল্য না পাওয়ায় তা আর চাষ করে না। পাট হলো বহুমুখী, পুনঃব্যবহার উপযোগী, টেকসই, পরিবেশবান্ধব ও স্বাস্থ্যঝুঁকিমুক্ত কৃষিপণ্য। তুলা এবং পাট ব্যবহার করে বহুমুখী পাটজাত পণ্য ডেনিম গার্মেন্টস, ট্রাউজার ও টেক্সটাইল উৎপাদন করা সম্ভব। আগামী জানুয়ারিতে প্রকল্পটি অনুমোদন পেলে ২০১৯ সালের জুনে সমাপ্ত করা যাবে। পাটপণ্যের বহুমুখী ব্যবহার ও বাজার সম্প্রসারণের লক্ষ্যে বাংলাদেশ পাট গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিজেআরআই) উদ্ভাবিত প্রযুক্তি ও পণ্য হস্তান্তর এবং বাণিজ্যিক ভিত্তিতে বিজেএমসির মিলগুলোতে উৎপাদনের সিদ্ধান্ত হয়। দেশে ও বিদেশে পাটপণ্যের চাহিদা দিন দিন ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে।  প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে ৫০ শতাংশ পাট ও ৫০ শতাংশ তুলা ব্যবহার করে তৈরী সুতা দিয়ে ডেনিম গার্মেন্টস, ট্রাউজার, কোট বা ব্লেজার, শার্ট, পর্দার কাপড়, ডোরমেট এবং হোমটেক্সটাইল তৈরি করা সম্ভব হবে। এই প্রকল্পের আওতায় পর্যায়ক্রমে স্পিনিং, উইভিং এবং গার্মেন্টস, এই তিনটি ইউনিট স্থাপন করা হবে।

Re: সুতা ও কাপড় উৎপাদনে পাট

শম্পা লিখেছেন:

দেশে উৎপাদিত পাটকে প্রক্রিয়াকরণের মাধ্যমে কাপড় উৎপাদন করে তৈরী পোশাক খাতে ব্যবহারের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে

এমনিতেই দেশের তৈরী পোশাক শিল্প ধ্বংশের মুখে, অনেক প্রতিষ্টান বন্ধ হয়ে গেছে গত কয়েকদিনে

"We want Justice for Adnan Tasin"