টপিকঃ পর্দা যখন আকর্ষনীয়তার অন্যতম মাধ্যম

পর্দা কিংবা শালীনতা, নারীত্ব রক্ষার্থের ক্ষেত্রে একটি বিশেষ খুঁটি স্বরুপ।
ইসলামে নারীদের পর্দাকে ফরজ/বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।
এর একমাত্র কারন হচ্ছে অন্য পুরুষদের কু-দৃষ্টি থেকে নিজেদের হেফাজাত করা। কারন ইসলামের দৃষ্টি কোন থেকে একজন নারীকে শুধুমাত্র একজন পুরুষের জন্যই নির্ধারতি করা হয়েছে। অর্থ্যাত্, একজন নারীর সৌন্দর্য এবং সম্ভ্রমের উপর শুধুমাত্র একজন পুরুষেরই অধিকার আছে। যে হল তার স্বামী। সেটা বিবাহিত কিংবা অবিবাহিত সকল নারীর ক্ষেত্রে প্রযোজ্য যে, নিজের সৌন্দর্য এবং সম্ভ্রমকে শুধু মাত্র তার স্বামীর জন্য বরাদ্দ এর একমাত্র কারন হচ্ছে অন্য পুরুষদের কু-দৃষ্টি থেকে নিজেদের হেফাজাত করা। কারন ইসলামের দৃষ্টি কোন থেকে একজন নারীকে শুধুমাত্র একজন পুরুষের জন্যই নির্ধারতি করা হয়েছে। অর্থ্যাত্, একজন নারীর সৌন্দর্য এবং সম্ভ্রমের উপর শুধুমাত্র একজন পুরুষেরই অধিকার আছে। যে হল তার স্বামী। সেটা বিবাহিত কিংবা অবিবাহিত সকল নারীর ক্ষেত্রে প্রযোজ্য যে, নিজের সৌন্দর্য এবং সম্ভ্রমকে শুধু মাত্র তার স্বামীর জন্য বরাদ্দ রাখা।

কিন্তু বর্তমানে নারীদের পর্দা করার ধরন নিয়ে বলতে গেলে অনেক কথা।যা হয়ত বলে শেষ করা যাবেনা।
বিশেষত আমরা যখন মুসলীম নারীদের হিজাব কিংবা পর্দা করার ধরন দেখি,রীতিমত চমকে যাই।
এই যেমন,
আঁট-সাট জামা কিংবা বোরকা ব্যবহার করা, মুখমন্ডল খোলা রাখা আর সাথে আকর্ষনীয় ভাবে সাজ-গোজ করা।তাছাড়া এটা বর্তমানে আধুনিক পর্দা করার স্টাইল হয়ে দাঁড়িয়েছে।
যে পর্দা কিনা নিজেকে অন্য পুরুষের লোলালুপ দৃষ্টির হাত থেকে রক্ষা করবে, সাহায্য করবে নিজের নারীত্ব রক্ষায়! সেই পর্দা'ই যদি হয় নিজের প্রতি পর পুরুষের আকর্ষন বৃদ্ধি আর নারীত্ব হননের অন্যতম মাধ্যম, তাহলে এরকম পর্দার প্রয়োজনীয়তা কতটুকু? সেটা দয়া করে শ্রদ্ধেয় আপুরাই বলবেযে পর্দা কিনা নিজেকে অন্য পুরুষের লোলালুপ দৃষ্টির হাত থেকে রক্ষা করবে, সাহায্য করবে নিজের নারীত্ব রক্ষায়! সেই পর্দা'ই যদি হয় নিজের প্রতি পর পুরুষের আকর্ষন বৃদ্ধি আর নারীত্ব হননের অন্যতম মাধ্যম, তাহলে এরকম পর্দার প্রয়োজনীয়তা কতটুকু? সেটা দয়া করে শ্রদ্ধেয় আপুরাই বলবেন।
বিশ্ব নবী হযরত মুহাম্মদ (সঃ) বলেছেন, "যে নারী তার সারা শরীর ঢেকে রেখে তার মুখ খোলা রাখল,সে যেন ঘরের জানালা বন্ধ রেখে দরজা খোলা রাখলবিশ্ব নবী হযরত মুহাম্মদ (সঃ) বলেছেন, "যে নারী তার সারা শরীর ঢেকে রেখে তার মুখ খোলা রাখল,সে যেন ঘরের জানালা বন্ধ রেখে দরজা খোলা রাখলো।"

মাঝে মাঝে কিছু যুক্তিবাদী ব্যক্তি প্রশ্ন করে থাকেন যে, "নারী পর্দা করেও কেন ধর্ষনের হাত থেকে রক্ষা পায়না?"
তাদের বলছি, নারীদের সঠিক পর্দা করার অভাবের কারনেই অর্থ্যাত্, আকর্ষনীয় পর্দা করার কারনে বর্তমানে তারা আজ পর্দা করার পরও ধর্ষনের হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছে না। তবে এখানে আমি ভুল পর্দা করার পদ্ধতিকে একক ভাবে দায়ী করছিনা,এর জন্য যথেষ্ঠ ভাবে দায়ী হচ্ছে আমাদের নৈতিকতার অবক্ষয়।
আর আমাদের নৈতিকতার অবক্ষয়ের জন্য দায়ী হচ্ছে আমাদের সামাজিক অবক্ষয়। যার প্রেক্ষিতে নারীদের বেপর্দার আর আধুনিক পর্দা করার প্রাদুর্ভাব বৃদ্ধি পাচ্ছে। আর এরই প্রেক্ষিতে,অর্থ্যাত্ নারীদের আধুনিক পর্দা করার স্টাইল এবং বেপর্দার প্রভাব পড়ছে আমাদের নৈতিকতার উপর।আর অবক্ষয় হচ্ছে আমাদের নৈতিকতার।
আশা করি বুঝতে পেরেছেন।
 
কিছু কিছু আপু বলে থাকেন, "পর্দা করা নাকি তাদের ব্যক্তিগত ব্যপার কিছু কিছু আপু বলে থাকেন, "পর্দা করা নাকি তাদের ব্যক্তিগত ব্যপার।"
তাদের বলছি,
"যেহেতু পর্দা করা আপনাদের ব্যক্তিগত ব্যপার,তাহলে আপনাদের বেপর্দা কিংবা আধুনিক পর্দা করা কেন আমাদের নৈতিকতার অবক্ষয়ের পাশা-পাশি সামাজিক অবক্ষের কারন হয়ে দাঁড়ায়"যেহেতু পর্দা করা আপনাদের ব্যক্তিগত ব্যপার,তাহলে আপনাদের বেপর্দা কিংবা আধুনিক পর্দা করা কেন আমাদের নৈতিকতার অবক্ষয়ের পাশা-পাশি সামাজিক অবক্ষের কারন হয়ে দাঁড়ায়?
যখন অসম্মানিত হন, তখন কেন নিজেদের ব্যক্তিগত ব্যপার গুলোকে দায়ী করেন যখন অসম্মানিত হন, তখন কেন নিজেদের ব্যক্তিগত ব্যপার গুলোকে দায়ী করেন না?
এই সমাজকে কেন দায়ী করেন?
আমাদের এই সামাজিক অবক্ষয়ের আসল কারন যে আপনাদের ব্যক্তিগত ব্যপার গুলো, তা আশা করি বুঝতে পেরেছআমাদের এই সামাজিক অবক্ষয়ের আসল কারন যে আপনাদের ব্যক্তিগত ব্যপার গুলো, তা আশা করি বুঝতে পেরেছেন।

পরিশেষে বলতে চাই,
অন্য ধর্মের নারীদের শালীনতা অবলম্বন এবং ইসলাম ধর্মের নারীদের সঠিক ভাবে পর্দা অবলম্বন করা বদলে দিবে সবার মন-মানসিকতা, বদলে যাবে আমাদের সামাজিক ব্যবস্থা। নিজেদের সম্মান রক্ষার ক্ষেত্রে প্রথমত নিজেদেরই তত্পর হতে হবে।

হয়তো একদিন হারিয়ে যাবো.........পারলে খুজে নিও !!!

Re: পর্দা যখন আকর্ষনীয়তার অন্যতম মাধ্যম

প্রথমে ভাবলাম বাবর ভাই, পরে মনে হলো শাহো ভাই এরপর দেখি নিউ কামা

  “যাবৎ জীবেৎ সুখং জীবেৎ, ঋণং কৃত্ত্বা ঘৃতং পিবেৎ যদ্দিন বাচো সুখে বাচো, ঋণ কইরা হইলেও ঘি খাও.

Re: পর্দা যখন আকর্ষনীয়তার অন্যতম মাধ্যম

এর একমাত্র কারন হচ্ছে অন্য পুরুষদের কু-দৃষ্টি থেকে নিজেদের হেফাজাত করা। কারন ইসলামের দৃষ্টি কোন থেকে একজন নারীকে শুধুমাত্র একজন পুরুষের জন্যই নির্ধারতি করা হয়েছে। অর্থ্যাত্, একজন নারীর সৌন্দর্য এবং সম্ভ্রমের উপর শুধুমাত্র একজন পুরুষেরই অধিকার আছে। যে হল তার স্বামী। সেটা বিবাহিত কিংবা অবিবাহিত সকল নারীর ক্ষেত্রে প্রযোজ্য যে, নিজের সৌন্দর্য এবং সম্ভ্রমকে শুধু মাত্র তার স্বামীর জন্য বরাদ্দ এর একমাত্র কারন হচ্ছে অন্য পুরুষদের কু-দৃষ্টি থেকে নিজেদের হেফাজাত করা।

এখানে একটা কথা বলার আছে। নারীর সৌন্দর্য এবং সম্ভ্রমের উপর যেমন শুধুমাত্র একজন পুরুষেরই অধিকার আছে তেমনি পুরুষের সৌন্দর্য মানে পৌরষত্ব এবং সম্ভ্রমের উপরও একজন নারীর অধিকার থাকা উচিত এবং সে হচ্ছে নিজের স্ত্রী। সমাজে এমন অনেক পুরুষ আছে যারা ঘরে বউ রেখে বাইরে অন্য নারীদের সাথে সম্পর্ক রাখে কিন্তু নিজ বউকে রাখে বোরখার ভিতরে। এটা অনুচিত।

আপনার উপর কোন নারী যদি কু-দৃষ্টি দেয় তবে কি আপনি বোরখা পড়ে ঘুরবেন? নিজে যেটা করতে পারবেন না সেটা অন্যকে বলবেন না। আগে নিজে আমল করুন।

http://4.bp.blogspot.com/_QfVWU-2pVL4/SyGX3axL5TI/AAAAAAAAKXo/w_XO2YO5CqQ/s1600/The%2Boriginal%2Bphoto%2B%E2%80%93%2Bstudent%2Bleader%2BTavakoli.jpg

Re: পর্দা যখন আকর্ষনীয়তার অন্যতম মাধ্যম

http://i.imgur.com/nDgaGV1.png

লেখা কপি-পেষ্ট করাও খানিকটা আর্ট। সেইটুকু না পারলে জামাই আদরটা যে খুব ভাল হবে না সেটাই কাম্য।

পি:এস:  এই ব্যাপারে ফায়ারফক্স ভায়ের কাছে একটা ছোটখাট কোর্স করে আসা যেতে পারে।

Re: পর্দা যখন আকর্ষনীয়তার অন্যতম মাধ্যম

নিয়াজ মূর্শেদ লিখেছেন:

আপনার উপর কোন নারী যদি কু-দৃষ্টি দেয় তবে কি আপনি বোরখা পড়ে ঘুরবেন? নিজে যেটা করতে পারবেন না সেটা অন্যকে বলবেন না। আগে নিজে আমল করুন।

ভায়া আপনি কি বোরখা পরে ঘুরেন? কারণ কোন না কোন মেয়েতো আপনার দিকেও তাকায়।
বিঃদ্রঃ মানুষগুলান দিন দিন সব লুল হইয়্যা যাইতাছে big_smile