টপিকঃ ব্যডমিন্টন

শীত আসতে না আসতেই পাড়া মহল্লায় শুরু হয়ে গেছে ব্যডমিন্টন খেলার ধুম। ছোট বড় সবাই, যে যার মতো মেতে উঠেছে ব্যডমিন্টন খেলায়। তবে খেলার জন্য কোর্ট কাটা কিংবা কোন নিয়ম কানুন, এত্ত কিছুর বালাই নেই, মহা উৎসাহে খেলতে উৎসাহী হয়ে ওঠে ছোটবন্ধুরা।

তবে ছোটরা যেমনই থাকুক একটু বড়রা কিন্তু আয়োজন নিয়ে রীতিমতো কোমড় বেধে নেমেছে। আর সেই আয়োজনটাও বেশ আনন্দের।

সববয়সী শিশুদের কাছে শীতের এই খেলার রয়েছে বাড়তি একটা আকর্ষন। সবাই মিলে সন্ধ্যে থেকে রাত পর‌্যন্ত ব্যডমিন্টনের এই সময়টা যেন খুব তাড়াতাড়িই কেটে যায়।

খেলা যেমন হোক, শীতের মাঝে শহরের পাড়া মহল্লা, কিংবা একটুকরো মাঠ, একটুখানি ফাঁকা জায়গা আর কজন বন্ধু থাকলে যেন আর কথাই নেই। যারা খেলছে তারা তো বটেই, ব্যডমিন্টনে উৎসাহ দেন যারা খেলছেন না তারাও। সবাই মিলে মজা করে ব্যডমিন্টন খেলা এখন যেন উৎসব আর অসম্প্রীতিরই একটা অংশ।

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন সমালোচক (০৪-০১-২০১৬ ১৫:০৫)

Re: ব্যডমিন্টন

শীতে অনেক বিদ্যুৎ অপচয় হয়। বেশীরভাগ বিদ্যুতের সংযোগ অবৈধভাবে নেওয়া হয়
বিদ্যুৎ বিভাগ আন্তরিক হলে ও বৈধভাবে সংযোগ দিলে সবার জন্য ভালো হতো

আমি জেলা শহর এবং গ্রামের দিকের কথা বলছি, ঢাকার খবর জানিনা

  “যাবৎ জীবেৎ সুখং জীবেৎ, ঋণং কৃত্ত্বা ঘৃতং পিবেৎ যদ্দিন বাচো সুখে বাচো, ঋণ কইরা হইলেও ঘি খাও.

Re: ব্যডমিন্টন

shahhinurr লিখেছেন:

উৎসব আর অসম্প্রীতিরই একটা অংশ।

"সম্প্রীতি" হবে।