টপিকঃ Computer ব্যবহারকারীগণ জেনে নিন কাজের কিছু টিপস।আশা করি কাজে লাগবে।

কম্পিউটারে ফায়ারফক্স
খুলতে গেলে অনেকসময় দেখা যায় তা না খুলে "I dnt hate
Mozilla but use IE or else…" এরকম মেসেজ আসে।
ফলে ফায়ারফক্স খুলতে সমস্যা হয়।
আবার ইউটিউব সাইটটিতে ঢুকতে
গেলে তা না খুলে "Youtube is banned you fool" মেসেজ আসে। এটি মুলত এর W32.USB
worm কারনে হয়ে থাকে। বেশীরভাগ ক্ষেত্রেই আপনি এন্টিভাইরাসে স্ক্যান
করেও এর সমাধান পাবেন না! কারন এন্টিভাইরাস দিয়ে এই ভাইরাসটি মুছে ফেলতে পারবেন
না। এ থেকে বাঁচতে আপনি নিন্মোক্ত
পদ্ধতি অবলম্বন করতে পারেন।
প্রথমে টাস্ক ম্যানেজার খুলে (Ctrl+Alt
+Del চেপে) Processes ট্যাবে যান এবার
Image name কলাম থেকে svchost.exe (যা
ইউজারে চালু আছে, system, local বা
অন্যকিছুতে নয়) নির্বাচন করে End
Process বাটনে ক্লিক করে বন্ধ করুন।
এবার মাই কম্পিউটারের এড্রেসবারে
C:heap41a লিখে এন্টার করলে heap41a
ফোল্ডার খুলবে এবার এই ফোল্ডারের
সকল ফাইল (svchost.exe, script1.txt, standard.txt,
reproduce.txt এবং একটি অডিও ফাইল)
মুছে ফেলুন। ফোল্ডারসহ মুছে ফেললে আপনার(I mean computer এর) জন্য
ভাল হয়। এরপরে রানে গিয়ে regedit
লিখে এন্টার করুন।তাহলে রেজিষ্ট্রি
এডিটর খুলবে। এখন Edit মেনু থেকে Find এ
ক্লিক করে heap41a লিখে সার্চ করুন। এর
heap41a নামে পাওয়া তথ্যগুলো মুছে
ফেলুন। এবার কম্পিউটার বন্ধ করে পুনরায় চালু
করুনন।আশা করি এবার আর ফায়ারফক্স বা ইউটিউব খুলতে
সমস্যা হবে না।
তবে এ ওয়ার্ম থেকে মুক্তি পেতে
আপনার ইউএসবি ড্রাইভ থেকে autorun
এবং Microsoft Power Point.exe ফাইলটি মুছে
ফেলুন।
<<<<>>>>
শতকরা প্রায় ৭০ ভাগ ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর নিজস্ব Email Address আছে। তারপরেও অনেকে এমন আছেন যারা নিজস্ব
কোন Email Account নেই বা থাকলেও বিশেষ কারণে নিজের Email ব্যবহার করতে চান না বা যাকে Email করবেন তাকে আপনার Email Address দিতে চাচ্ছেন না।চিন্তা করবেন না! আপনার জন্যও সমাধান আছে!!! অবাক হচ্ছেন!!!!
এক্ষেত্রে আপনাকে সাহায্য করবে
http://www.note2email.com এই ওয়েব ঠিকানাটি।
ইমেইল না খুলেও এই ওয়েব সাইট থেকেও দ্রুত অন্যকে ইমেইল
করতে পারবেন। এজন্য http://www.note2email.com
সাইটে ঢুকে ফরমের Email Address এ
প্রাপকের ইমেইল ঠিকানা, Title এ
ইমেইলের বিষয়, Note এ মূল মেইল লিখে
নিচের যেকোন একটি লোগো নির্বাচন
করুন আর send it বাটনে ক্লিক করুন তাহলে
সরাসরি প্রাপকের কাছে ইমেইল
যাবে। এক্ষেত্রে প্রাপক এর কাছে
প্রেরক হিসাবে note@note2email.com
ঠিকানা দেখাবে। এছাড়াও এখানে
নির্দিষ্ট কী ব্যবহার করে মেইল Encrypt
করে পাঠানোর সুবিধা রয়েছে।
<<<<>>>>>
আমরা যখন কম্পিউটারে একাধিক ফোল্ডার খুলি তখন
তা ভিন্ন ভিন্ন উইন্ডোতে খোলে।
কিন্তু এগুলো যদি ফায়ারফক্স বা
ওপেরা ব্রাউজারের মত একই
উইন্ডোতে ভিন্ন ভিন্ন ট্যাব বারের
মাধ্যমে খুলতো তাহলে টাস্কবার
যেমন পরিস্কার থাকতো তেমনই
কাজেরও সুবিধা হতো। এমন
ট্যাব বারের জন্য ৫০০ কিলোবাইটের
কিউটি ট্যাববার ইনষ্টল করলেই হবে।
http://qttabbar.wikidot.com সাইট থেকে আপনি
বিনামূল্যে ডাউনলোড করতে পারবেন। ডাউনলোড করে ইনষ্টল করে
নিন। তবে এজন্য আপনার প্রয়োজন হবে "Windows Vista" অপারেটিং সিস্টেম। তবে
"Windows XP"তে চলাতে হলে "Dot net Framework 2.0" ইনষ্টল করতে হবে।
সফটওয়্যারটি ইনষ্টল শেষে লগআউট করে
নতুন করে লগইন করুন। এবার যেকোন
ফোল্ডার বা ড্রাইভ খুলে View/Tool bars/
QT Tab bar নির্বাচন করুন এবং
স্বাভাবিক টুলবার হিসাবে ব্যবহার
করুন। এখন Ctrl+N চাপলে নতুন ট্যাবে
আরেকটি একই উইন্ডো আসবে। আর
প্রত্যেকটি ফোল্ডারের উপরে মাউস
রাখলে একটি "Down Erro" আসবে যার
উপরে ক্লিক করলে উক্ত ফোল্ডারের
অধিনে থাকা সাবফোল্ডার এবং
ফাইল দেখাবে যা ক্লিক করে সহজে
খোলা যাবে। এভাবে ইন্টারনেট
এক্সপ্লোরারেও ট্যাব ব্যবহার করা
যাবে। আর এক ট্যাব থেকে আরেক
ট্যাবে যেতে হলে চেপে Ctrl+Tab
চেপে
যাওয়া যাবে।
<<<<>>>>>>
ভিডিও শেয়ারিং সাইটগুলো এখন
বেশ জনপ্রিয়। এর মধ্যে গুগলের ইউটিউব হলে তো কথাই নেই।কারণ ইউটিউব থেকেই সবচেয়ে বেশি ভিডিও ডাউনলোড হয় এবং
আপলোড হয় সবচেয়ে বেশী। কিন্তু
অনলাইনের এই সব ভিডিওগুলো "Flash based" হওয়াতে এগুলোর রেজ্যুলেশন
বেশী থাকে না।ফলে পুরো পর্দা জুড়ে
দেখলে ভাল দেখায় না। আবার অন্য
ফরম্যাটে কনভার্ট করলেও একই অবস্থা
থাকে। সাধারণত ইউটিউব থেকে আমরা যে
ভিডিওগুলো ডাউনলোড করি সেগুলো
320×240 রেজ্যুলেশনের হয়ে থাকে।
কিন্তু আপনি নতুন ভিডিও ডাউনলোড
করতে চান তাহলে তা আরো উচ্চ
রেজ্যুলেশনে ডাউনলোড করতে
পারেন। আপনি যদি http://youtube.com/
watch?v=E2s14T6x5AM ঠিকানার ভিডিও
ডাউনলোড করেন তাহলে তা 320×240
রেজ্যুলেশনে ডাউনলোড হবে। আর
উপরোক্ত ভিডিওএর ঠিকানার শেষে
&fmt=6 যুক্ত করে ডাউনলোড করলে তা
448×336 রেজ্যুলেশনে ডাউনলোড হবে।
আর যদি শেষে &fmt=18 যুক্ত করে
ডাউনলোড করলে তা 480×360
রেজ্যুলেশনে ডাউনলোড হবে। উচ্চ
রেজ্যুলেশনে ভিডিও ডাউনলোড
পুরাতন ভিডিওর ক্ষেত্রে নাও হতে
পারে তবে নতুন আপলোড করা ভিডিও
এভাবে উচ্চ রেজ্যুলেশন ডাউনলোড
হবে।
<<<<<<>>>>
যারা মোবাইল বা মডেম
দ্বারা ইন্টারনেট ব্যবহার করেন তারা
চাইলে অনান্য লোকাল কম্পিউটারে
ইন্টারনেট শেয়ার করে ব্যবহার করতে
পারেন। ধরুন আপনার কম্পিউটারটি
আরো দুটি কম্পিউটারের সাথে
Lan'র সাহায্যে সংযোগ স্থাপন
করা আছে। আপনি আপনার
কম্পিউটারে এডজ মডেম দ্বারা
ইন্টারনেটের সংযোগ নিয়েছেন। এখন
আপনি চাইলে অনান্য
কম্পিউটারগুলোতেও ইন্টারনেটের
সংযোগ দিতে পারেন শেয়ার করে।
এতে অবশ্য গতি কিছুটা কমে যাবে।
এজন্য আপনি আপনার লোকাল এরিয়া
নেটওয়ার্কের আইপি এড্রেস দেখে
নিন। ধরি আপনার লোকাল এরিয়া
নেটওয়ার্কের আইপি এড্রেস হচ্ছে
১৯২.১৬৮.১.১২।
প্রথমে আপনি আপনার কম্পিউটারে
এডজ মডেম দ্বারা ইন্টারনেটের
সংযোগ স্থাপন করুন। এরপরে সিস্টেম
ট্রেতে থাকা উক্ত সংযোগের
আইকনের উপরে মাউসের ডান বাটন
ক্লিক করে Status এ ক্লিক করুন। অথবা
Control Panel থেকে Network Connections এ
গিয়ে উক্ত সংযোগের আইকনের উপরে
মাউসের ডান বাটন ক্লিক করে Status এ
ক্লিক করুন একটি স্টেটাস উইন্ডো
আসবে। এবার General ট্যাবে থেকে
Properties বাটনে ক্লিক করুন তাহলে
প্রোপার্টিস উইন্ডো আসবে। এবার
Advance ট্যাবে ক্লিক করে Internet
Connection Sharing অংশে Allow other network
users to connect through this computer’s internet
connection চেক (যদি আপনার একাধিক
লোকাল এরিয়ার সংযোগ থাকে
তাহলে একটি ম্যাসেজ আসবে যে
আপনি কোন লোকাল এরিয়াতে
ইন্টারনেট শেয়ার দিবেন, আপনি
আপনার পছন্দেরটি নির্বাচন করবেন।)
করে Ok করুন। তাহলে Network Connections
এর পরপর তিনটি ম্যাসেজ আসবে
যেগুলোতে ধারাবাহিক ভাবে Ok
Yes Ok করুন। এখন দেখুন আপনার
কম্পিউটারের লোকাল আইপি
পরিবর্তন হয়ে ১৯২.১৬৮.০.১ হয়েছে।
এখন আপনি লোকাল এরিয়ার Status এ
গিয়ে Properties বাটনে ক্লিক করে
General ট্যাবে থেকে This connection uses
the following items অংশের Internet Protocol
(TCP/IP) নির্বাচন করে Properties বাটনে
ক্লিক করুন। এবার আইপি ১৯২.১৬৮.০.১
পরিবর্তন করে পূর্বের আইপি
১৯২.১৬৮.১.১২ দিন এবং Ok করুন।
এবার যে কম্পিউটারে আপনি
ইন্টারনেট সংযোগ পেতে চান সেই
কম্পিউটারের লোকাল এরিয়ার Status
এ গিয়ে Properties বাটনে ক্লিক করে
General ট্যাবে থেকে This connection uses
the following items অংশের Internet Protocol
(TCP/IP) নির্বাচন করে Properties বাটনে
ক্লিক করুন। এবার Default gateway এর আইপি
এড্রেস হিসাবে ১৯২.১৬৮.১.১২ লিখুন।
এরপরে Use the flowing DNS server addresses
অপশন বাটন চেক করে Preferred DNS server
এর আইপি এড্রেস হিসাবেও
১৯২.১৬৮.১.১২ লিখে Ok করুন।
এবার দেখুন আপনার এই কম্পিউটারে
ইন্টারনেটের সংযোগ এসেছে।
এভাবে আপনি অন্য আরেকটি
কম্পিউটারে সংযোগ নিতে পারনে।
ব্রডব্যান্ডের সংযোগও এভাবে
শেয়ার করে ব্যবহার করা যাবে।

Photoshop Creative, HTML, Graphics Diploma Engineers and Technologist Association-গ্রাফিক্স এসোসিয়েশন, Computer Programming (কম্পিউটার প্রোগ্রামিং)কম্পিউটার & মোবাইল টেকনোলজি, টেকনোলোজিস গ্রাফিক্স ডিজাইন

mdyeasinarafat015'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: Computer ব্যবহারকারীগণ জেনে নিন কাজের কিছু টিপস।আশা করি কাজে লাগবে।

দরকারী পোষ্ট।সবার কাজে লাগবে।