টপিকঃ নতুন নতুন কৃষি যন্ত্র উদ্ভাবন

এর বাইরে আরও অনেক যন্ত্রপাতি তৈরি হচ্ছে। যার মধ্যে আছে ড্রাম সিডার উইডার, আলু উত্তেলন যন্ত্র, আলু গ্রেডিং যন্ত্র, রাইস গ্রেডার, মাছ ও মুরগীর খাবার তৈরি যন্ত্র, রাইস পলিশার, অটো ক্রাশার মেশিন, অটো মিক্সচার মেশিন, চিড়া মুড়ি তৈরি মেশিন, ওয়েল মিল, ধান ভাঙানো যন্ত্র, ইট মিক্সিং মেশিন, ড্রায়ার মেশিন ইত্যাদি। বগুড়ায় তৈরি এসব যন্ত্রপাতি দেশের মোট চাহিদার ষাট ভাগ মেটাচ্ছে। বগুড়ার ইঞ্জিনিয়ারিং শিল্প গড়ে উঠেছে সম্পূর্ণ ব্যক্তি উদ্যোগে। উদ্যোক্তারা নিজস্ব তহবিল দিয়ে গড়ে তুলেছেন এসব প্রতিষ্ঠান। এসব শিল্পে ব্যাংক ঋণ বা সরকারি সহযোগিতার পরিমাণ খুবই কম। শ্রমিকদের দক্ষতা উন্নয়নে প্রশিক্ষণেরও যথেষ্ট অভাব রয়েছে। আবার যন্ত্রপাতি তৈরিতে আধুনিক মেশিনারির অভাবও রয়েছে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানে। অব্যবস্থাপনার কারণে অনেক প্রতিষ্ঠান লোকসানি প্রতিষ্ঠানে পরিণত হচ্ছে। অথচ এসব প্রতিষ্ঠানের ওপর নির্ভর করছে লক্ষাধিক মানুষের কর্মসংস্থান। কৃষি প্রধান উত্তরাঞ্চলে বগুড়া যন্ত্রের শৈলীর মাধ্যেমে কৃষিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। আরও এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য প্রয়োজন সরকারী পৃষ্ঠপোষকাতা। এবং তা করা হলে বগুড়ার এই শিল্প শুধু দেশের অভ্যন্তরীণ চাহিদাই মেটাবে না, বিদেশে রপ্তানির মাধ্যেমে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনও করতে সক্ষম হবে।

(............শেষ)