টপিকঃ গহীন বান্দরবান: পর্ব-১১

পর্ব-১০ এর লিংক

পর্ব-১১ঃ অমিয়খুম/আমিয়াখুম

অনেক পাহাড় পর্বত পার হয়ে অবশেষে আমরা অমিয়খুম পোঁছালাম, বান্দরবানের একদম গহীনের ওয়াটারফল গুলোর মধ্যে অমিয়খুম একটা। এখানে আসার জন্য এত ভয়ংকর রাস্তা পার হতে হয়েছে চিন্তা করতেই রক্ত ঠান্ডা হয়ে যায়। অমিয়খুম এক নয়নভিরাম জায়গা, পাথরে ভরপুর চারিদিক, একপাশে প্রচন্ড গতিতে পানি পড়ছে। আর চারপাশে পাহাড়, সবুজ আর সবুজ।

এখন তেমন ভারী বৃষ্টি হয়না বলে ঝর্নায় পানি কম, বর্ষাকালে এ ঝর্না এত ভয়ংকর থাকে যে এখানে তখন কেউই আসতে পারেনা। যেখানটায় ঝর্না শুরু হয়েছে তার একটু পরেই সরু হয়ে আছে আর সেখানে বেশ বড় বড় পাথর। পানির পরিমান কম থাকায় পাথর গুলোর পাশ দিয়ে পানির স্রোত বয়ে গেছে।

http://i.imgur.com/Nvzhl7E.jpg
অমিয়খুম চলে এসেছি

http://farm9.staticflickr.com/8839/18563315632_214c72d4ed_b.jpg
অমিয়খুম ঝর্না

http://farm1.staticflickr.com/305/18541201186_cbc9815815_b.jpg
ঝর্নার এপাশ থেকে

অমিয়খুম ঝর্নার পেছনে একদম খাড়া একটা পাহাড় আছে, পাহাড়টা এত উঁচু যে আমার ক্যামেরায় ঝর্না সহ পুরো পাহাড় আসছিল না। পাহাড়ের গায়ে লতা পাতা ঝোপ ঝুলছে, আর মাঝে মাঝে পানি পড়ার দাগের মত তৈরী হয়ে রয়েছে। গাইড বললো বর্ষাকালে পাহাড়ের গা বেয়ে প্রচন্ড গতিতে পানি নিচে পড়ে, এখন পানি নেই বলে দাগ গুলো দেখা যাচ্ছে। আর এ পানি পড়ার শব্দ তখন অনেক দূর থেকে শোনা যায়। উপরের ছবিতে যে  পাথরগুলো দেখা যাচ্ছে, বর্ষাকালে এগুলো সব পানির নিচে থাকে। সেসময় পানির স্রোতের যে কি অবস্থা হয় তাই চিন্তা করছি!

http://i.imgur.com/SI43mNm.jpg
ছবিতে দেখে মনে হচ্ছে শান্ত পানির স্রোত, আসলে অনেক ভয়ংকর আর তীব্র

পানি অল্প থাকায় ভাবছিলাম গোসল করে নিব কিনা, কিন্তু পানির নিচের পাথরগুল অনেক পিচ্ছিল আর পানির স্রোত বেশি (পানিতে পা না দেয়া পর্যন্ত্য বোঝা যায়না এত অল্প পানিতে কি করে এত স্রোত হতে পারে) যে ঠিকমত দাঁড়িয়ে থাকা যায়না, আমরা খালি জায়গা দেখে পানির বোতল ভরে নিলাম। আর ভাল করে হাত পা পানিতে ভিজিয়ে নিলাম।

http://farm1.staticflickr.com/440/18569653321_7f1a678955_b.jpg
পেছনের খাড়া পাহাড় থেকেই অমিয়খুম ঝর্নার উৎপত্তি

অমিয়খুম ঝর্নার পানি যেখান দিয়ে বয়ে গেছে, সে রাস্তা দিয়ে আরেক জায়গায় যাওয়া যায় সেটার নাম হলো সাতভাইখুম। সেখানে যেতে হলে ভেলায় করে যেতে হবে। গাইড বললো আমাদের ভাগ্য যদি ভালো হয় তাহলে অনেকের রেখে যাওয়া ভেলা পাওয়া যেতে পারে, আর না থাকলে নতুন করে ভেলা বানাতে হবে।

আমাদের ভাগ্য খারাপ, কোন ভেলা পাওয়া গেল না। নতুন করে বাঁশ কেটে ভেলা বানাতে গেলে আর তিন চার ঘন্টা সময় লাগবে। আর ভেলা বানানোর মত জোগাড়যন্ত্র আমাদের কাছে নেই। তাই সাতভাইখুম যাবার চিন্তা বাদ দিতে হলো। আগের রাস্তা ধরেই আমরা ফিরে যাব।

ফিরে যাবাটা এত ভয়ংকর হবে ভাবতে পারিনি। সেই একরকম খাড়া পাহাড় পার হতে আগের চাইতে আরো বেশি কষ্ট হচ্ছিল। পুরো শরীর ভিজে একাকার হয়ে গেছে। ফিরে যাবার এক পর্যায়ে আমরা সবাই না পেরে পাহাড়ের উপর সবাই লম্বা হয়ে অনেকক্ষণ শুয়ে ছিলাম, আর পারছিলাম না সামনে এগুতে। গাইডতো আমাদের অবস্থা দেখে হেসে একাকার! কি যে একটা সময় পার করেছিলাম তখন। মনে মনে ভাবছিলাম, আর কখনোই গহীন বান্দরবানে আসার নামও মুখে আনবোনা। এ রকম অবস্থায় ছবি তোলার কথা ভুলেই গিয়েছিলাম।

অতিরাম পাড়াতে এসে আমরা বেশ খানিকক্ষন বিশ্রাম নিয়েছিলাম। পাড়ার লোকজনের কাছ থেকে পেয়ারা কিনে খেয়েছি। আর ঐ যে বয়স্ক লোকটা ছিল যে আমাদের বন্ধুরা বন্ধুরা বলেছিল, তার সাথে কথা বলে বুঝতে পারলাম তার কিছু সাহায্য দরকার। তাকে দুইশ টাকা দিয়েছিলাম, টাকাটা হাতে পেয়ে যেন আকাশের চাঁদ হাতে পেয়েছিল, মানুষের চাওয়া যখন অল্প থাকে তখন অল্প পরিমান পাওয়া যেন পাহাড়সম আনন্দ নিয়ে আসে। আমাদের যান্ত্রিক জীবনে চাওয়া পাওয়া এত বেশি যে এরকম ছোট ছোট আনন্দ থেকে আমরা বঞ্ছিত।

চলবে...

You are the one who thinks that i didn't get the point, so do i think of you...what a coincidence!!

Re: গহীন বান্দরবান: পর্ব-১১

বরাবরের মত এই পর্বটা ভাল হয়েছে।

IMDb; Phone: Huawei Y9 (2018); PC: Windows 10 Pro 64-bit

Re: গহীন বান্দরবান: পর্ব-১১

ছবি গুলো চমৎকার। লেখাও বেশ  thumbs_up

আজকাল নিশ্বাস ফেলতেও কষ্ট হয় :-(

Re: গহীন বান্দরবান: পর্ব-১১

অমিয়খুমের আরো কিছু চমৎকার ছবি আশা করে ছিলাম।

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

Re: গহীন বান্দরবান: পর্ব-১১

বোরহান, কাগজের নৌকা আর দস্যু ভাইকে মন্তব্য করার জন্য ধন্যবাদ।

মরুভূমির জলদস্যু লিখেছেন:

অমিয়খুমের আরো কিছু চমৎকার ছবি আশা করে ছিলাম।

ছবি অনেক তুলেছিলাম কিন্তু দুর্ভাগ্যক্রমে ছবিগুলো ঠিকমতো তুলতে পারিনি, তাই আর বেশি ছবি আর এখানে শেয়ার করিনি।
তবে একটা ভিডিও করেছিলাম, খানিকটা ফালতু টাইপের হয়েছে, সাইফুল ভাই এত বেশি এক্সাইটেড ছিল যে আমি তাকে কি জিজ্ঞেস করছিলাম কিছুই না শুনে নিজের মত কথা বলছিলেন, অতি উৎসাহীরা ইচ্ছে করলে নিচের ভিডিওটি দেখতে পারেন।

পুনশ্চঃ ভিডিও এড করতে পারছিনা sad

You are the one who thinks that i didn't get the point, so do i think of you...what a coincidence!!

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন সেজান (০৯-০৬-২০১৫ ১৩:৪৩)

Re: গহীন বান্দরবান: পর্ব-১১

আহ অসাধরন সব ছবি দেখেই চোখ জুড়িয়ে যাচ্ছে smile

faysal_2020 লিখেছেন:


পুনশ্চঃ ভিডিও এড করতে পারছিনা sad

আমি এ্যাড করে দিলাম big_smile

অন্যের কাছ থেকে যে ব্যবহার প্রত্যশা করেন আগে নিজে সে আচরন করুন।

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: গহীন বান্দরবান: পর্ব-১১

faysal_2020 লিখেছেন:

পুনশ্চঃ ভিডিও এড করতে পারছিনা sad

ইউটিউব ভিডিও অ্যাড করার জন্য https দিলে হবে না। http দিতে হবে।

IMDb; Phone: Huawei Y9 (2018); PC: Windows 10 Pro 64-bit

Re: গহীন বান্দরবান: পর্ব-১১

সেজান ভাইকে ভিডিও টা এড করে দেয়ার জন্য আর বোরহান কে টিপস দেয়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।

You are the one who thinks that i didn't get the point, so do i think of you...what a coincidence!!

Re: গহীন বান্দরবান: পর্ব-১১

অনেক সুন্দর জায়গা ঘুরলেন  ,ছবি গুলাও দারুন

এক টুনিতে টুনটুনালো সাত রানির নাক কাঁটালো

১০

Re: গহীন বান্দরবান: পর্ব-১১

জোশ জোশ সব ছবি thumbs_up

ইট-কাঠ পাথরের মুখোশের আড়ালে,
বাধা ছিল মন কিছু স্বার্থের মায়াজালে...

১১

Re: গহীন বান্দরবান: পর্ব-১১

মিলি আপু আর ছায়ামানব কে ধন্যবাদ

You are the one who thinks that i didn't get the point, so do i think of you...what a coincidence!!