সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন কাজী আলী নূর (০৪-০৫-২০১৫ ০২:৪৭)

টপিকঃ নোংরা মাছির জাত ভাইয়েরা।

অনেক দিন কিছু লেখা হয় না। তেমন বিশেষ কিছু লেখার আইডিয়া মাথাতে আপাতত নেই। আমার সর্বশেষ ফেসবুক স্ট্যাটাসটিই এখানে পোস্ট করলাম।

যাদের চোখে এলার্জি আছে কিংবা যারা সচেতনতামূলক এবং কুরূচিপূর্ণ স্ট্যাটাসের মধ্যে পার্থক্য করতে পারেন না তাদের জন্য এই স্ট্যাটাসটি নয়:

এটি আমাদের চার পাশের চিহ্নিত নোংরামি বিষয়ে একটি সুবিশাল স্ট্যাটাস, ধৈর্য্য থাকলে পড়বেন।

আপনাদের কারও কি কখনো মাছির মল ত্যাগ করার দৃশ্য চোখে পড়েছে? আমি দেখেছি মাছি কিভাবে যত্রতত্র সেটা করে থাকে (খুবই বেপরোয়া ভাবে করে আর সেটা খুবই বিছিরি দেখতে)। তাছাড়াও মাছি যেকোন যায়গায় যায় যেকোন ময়লা আবর্জনার উপরে বসে। দুর্ভাগ্য হলেও সত্য যে সেই মাছিটিই আবার আমাদের খাবারের উপরে এসে বসে এবং সেখানে হাঁটাচড়া করে। তাই আমাদের খাবার দাবার কে মাছির ছোঁয়া থেকে সামলে রাখার জন্য স্বাস্থ্য বিষয়ক সকল তথ্য সম্প্রচারেই আমাদের সতর্ক করা হয়।

ধরুন আপনি হেঁটে হেঁটে কোথাও চললেন তখন দেখতে পেলেন যে পথে কোন ইঁদুর কিংবা অন্য কোন প্রাণী মরে পড়ে আছে। সেখানে মাছি থাকবে না সেটা ১২৫% মিথ্যা একটি ধারণা। কারণ কোথাও ইঁদুর মরেছে তো মাছি আলোর গতিকে যদিও হার মানাতে পারে না তার পরেও তার মোটামুটি কাছাকাছি গতিতে হলেও সে মরা ইঁদুরের কাছে গিয়ে পৌছবে। হউক সেটা একা কিংবা দলবল নিয়ে সে যে সেখানে যাবেই সেটা একেবারে নিশ্চিত। মরা ইঁদুরের যায়গায় মানুষ অথবা অন্য কোন প্রাণির পায়খানা কিংবা বমিও থাকতে পারে।

সুতরাং আপনি ঠিক কী কারণে এই সচেতনতামূলক স্ট্যাটাসটি পড়ছেন, সেটা তো বুঝতেই পারছেন। মাছি যে কতটা অস্বাস্থ্যকর আর আমাদের জন্য কতটা ভয়ানক সেটার উদাহরণ সহ ব্যাখ্যা কি আপনার আরও চাই.....? (চাইলে ব্যক্তিগত উদ্যোগে নিজেই গবেষণা করে নিবেন)

ঘরের বাহিরে থেকে খাবার গ্রহণ করা (হউক সেটা ঘরে বানানো কিংবা ফুটপাথ থেকে কিনে আনা) রোগাক্রান্ত হওয়ার কারণগুলোর মধ্যে অন্যতম প্রধান একটি কারণ। কী? এ বিষয়ে কী আপনাদের আর কোন সন্দেহ আছে? থাকলে বলেন, ভবিষ্যতে এরকমের আরও দু'একটি স্ট্যাটাস লিখবো শুধুমাত্র আপনার কিংবা আপনাদের জন্য।

এবারে আপনাদের জন্য ছোট্ট একটি মাছি বিরোধী টিপস:
মাছি ভিনেগার সহ্য করতে পারে না। যেখানে ভিনেগারের ঝাঝ সে আচ করতে পারে সেখান থেকে তার হাতের অনুপাতে কয়েক হাজার হাত দূরে সে অবস্থান নিবে আর তার পরে তার টার্গেট টা যত লোভনীয়ই হউক সে কোন অবস্থাতেই তার কাছে আর ভিরবেও না। তাই খাবার দাবার তৈরি হয় কিংবা খাওয়া হয় এমন কোন যায়গায় যেমন ডাইনিং টেবিল কিংবা রান্নাঘরের কিছু কিছু স্থানে ভিনেগার ছিটিয়ে রাখতে পারেন এবং সেই সাথে একটি ছোট্ট পেয়ালাতে করেও কিছুটা ভিনেগার মুক্তভাবে বরং সেটা না ঢেকে কোথাও রেখে দিতে পারেন (কিন্তু ৬/৭ দিন পরে আবার এই ল্যাইসেন্স নবায়নযোগ্য)। মানে প্রয়োজনে কিছু দিন পর পর এই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটাতে পারেন।

সব শেষে আপনাদের কে জানাচ্ছি আমার স্ট্যাটাস ভাবনা টি কোথা থেকে এলো সেটি:
মাছি যে একটি নোংরা প্রাণী সেটা আপনাদের আমি না বললেও আপনারা সেটি জানতেন। কিন্তু এই নোংরা মাছির সাথে এনালোজিক্যালি মিলে যাওয়া আরও কিছু নোংরার দল কে আমি দেখতে পাই। তারা হলো ঐ সকল কীট যারা যত্রতত্র মাছির ন্যায় মল ত্যাগ করে, তাও কোনরূপ দিধা ব্যতিরেকেই সেটি করে। কেউ দেখলো কি দেখলো না বা শুনলো কি শুনলো না সেটার কোন পরোয়া তারা করতে জানে না কিংবা সেটা ভাবতে তারা শিখেও নি কোন দিন। তারা ঐ মাছির ন্যায় সুস্থ্য পরিবেশকে গিয়ে অসুস্থ্য বানিয়ে ছাড়ে।

আমি ঠিক কাদের কথা ভাবছি বুঝতে চাচ্ছেন তো? তাহলে শুনুন ওনারা হলেন সেই সকল নর্দমার কীট যারা যেখানে সেখানে অকথ্য ভাষায় মানুষ কে গালমন্দ করে, অনৈতিক কাজ, আপত্তিকর কথাবার্তা, ছবি, অঙ্গভঙ্গি, ইভটিজিং, যৌন হয়রানিসহ সার্বিক দৃষ্টি কোণ থেকে যে কোন আপত্তিকর আচরণ ইত্যাদি করা যাদের কাছে নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার। হউক সেটা রাস্তায় বা ফোনে কিংবা সামাজিকসহ অন্য যে কোন যোগাযোগ মাধ্যমে। যেমন বিশেষ বিশেষ ব্যাক্তিবর্গের ফেসবুক স্ট্যাটাস, প্রথম-আলোসহ যেকোন অনলাইন পত্রিকা, ইউটিউব ইত্যাদি সাইটের মন্তব্যগুলো প্রায়শই যখন চোখে পড়ে যায় তখন আমরা মুহূর্তের জন্য ভাবি যে এরা প্রাণিকূলের কোন প্রজাতির অন্তর্ভূক্ত। জেনে রাখেন ঐসকল খবিশের দল মাছির চাইতেও নোংরা। সুন্দর ও সুষ্ঠ সমাজ কে এরা এদের চিন্তা ও কাজের দ্বারা কলূষিত করে যাচ্ছে। এদের জন্য সমাজ ও রাষ্ট্রে সভ্যতার ধ্বংস নেমে আসছে। মাছি যেরূপ আমাদের খাবার কে নষ্ট করে তেমনি ভাবে এরাও আমাদের চারপাশের পরিবেশটা কে নষ্ট করে। আর এরা নিজেরাও যে নষ্ট সেটা তাদের আচরণের দ্বারাই প্রকাশ পেয়ে থাকে। 

কাজী আলী নূর
(৪/৫/২০১৫ ইং)

হে আল্লাহ, তুমি সকলের মঙ্গল কর; তোমার রহমতের আশ্রয়ে আশ্রিত কর..... আমীন
সঠিক পদ্ধতিতে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করুন এবং আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইটটিকে সুরক্ষিত রাখুন

কাজী আলী নূর'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: নোংরা মাছির জাত ভাইয়েরা।

বেশ ভালো লিখেছেন। ভিনেগারের ব্যপারটা জানা ছিলনা।

IMDb; Phone: OnePlus 8T; PC: Windows 10 Pro 64-bit

Re: নোংরা মাছির জাত ভাইয়েরা।

দারুন সচেতনতামূলক পোষ্ট ! সম্মাননা রইল।

Re: নোংরা মাছির জাত ভাইয়েরা।

খুব ভাল টপিক

অনেক ভাল লাগা রইল

আরো লিখে যাও ভাইয়া সাথেই আছি :

জাযাল্লাহু আন্না মুহাম্মাদান মাহুয়া আহলুহু......
এই মেঘ এই রোদ্দুর

Re: নোংরা মাছির জাত ভাইয়েরা।

যেহেতু নোংরা মানুষকে নিয়ে লেখা, তাই জানতে চাচ্ছি অরজিনাল মাছি না হয় ভিনিগার দিয়ে দূর করলাম কিন্তু মানুষ মাছি কি দিয়ে দূর করবো?

আমাকে কোথাও পাবেন না।

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন কাজী আলী নূর (০৪-০৫-২০১৫ ১১:৩০)

Re: নোংরা মাছির জাত ভাইয়েরা।

পলাশ মাহমুদ লিখেছেন:

যেহেতু নোংরা মানুষকে নিয়ে লেখা, তাই জানতে চাচ্ছি অরজিনাল মাছি না হয় ভিনিগার দিয়ে দূর করলাম কিন্তু মানুষ মাছি কি দিয়ে দূর করবো?

অতি উত্তম প্রশ্ন। মানুষ মাছি দূর করার জন্য প্রতিটি বিদ্যালয়ে "শীলবাবু স্যার" এর মত শিক্ষক থাকার দরকার।

হে আল্লাহ, তুমি সকলের মঙ্গল কর; তোমার রহমতের আশ্রয়ে আশ্রিত কর..... আমীন
সঠিক পদ্ধতিতে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করুন এবং আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইটটিকে সুরক্ষিত রাখুন

Re: নোংরা মাছির জাত ভাইয়েরা।

কাজী আলী নূর লিখেছেন:
পলাশ মাহমুদ লিখেছেন:

যেহেতু নোংরা মানুষকে নিয়ে লেখা, তাই জানতে চাচ্ছি অরজিনাল মাছি না হয় ভিনিগার দিয়ে দূর করলাম কিন্তু মানুষ মাছি কি দিয়ে দূর করবো?

অতি উত্তম প্রশ্ন। মানুষ মাছি দূর করার জন্য প্রতিটি বিদ্যালয়ে "শীলবাবু স্যার" এর মত শিক্ষক থাকার দরকার।

এতে কি আপনি মনে করছেন সমাজ থেকে যারা অন্যায় করছে তারা বেড়ে উঠতো না। বাস্তবতার নিরিক্ষে বলি- আমার প্রায় স্কুল বন্ধু ৮০% এখন সন্ত্রাস/ত্রাস করে বেড়ায় এলাকাতে। আমি আর আমার মতো কয়েকটা হাবা গোবা পাবলিক জব করে বেড়াই আর আমাদের চেয়েও যারা বেশি হাবা গোবা তারা নিজ পাখায় বাতাস লাগিয়ে ঘুরে বেড়ায় শ্বশুর বাড়ি নিজের বাড়ি।

এখন আপনি যে শিক্ষকের কথা বলেছেন- তার থেকেও ডেনঞ্জারাস টিচার ছিলেন আমাদের। উদাহরন স্বরুপ আমাদের জ্ঞান স্যার। উনি যখন তখন যেভাবে খুশি সেভাবে হাত পা চালাতে পারতেন, কতোজনকে যে ফ্লাইন কিক মেরে কুপোকাত করে ফেলেছেন তার হিসাব নেই। উনার কিক দেখলে চাইনিজ ছবির নায়কও ফেল।
আরেকজন টিচার ছিলেন নাম করা, নামটা মনে পরছে না। উনি মারা শুরু করলে কখন থামতেন তার কোন ঠিক নাই। উনার মারামারির উদাহরন দেই-
আমি একবার ক্লাশে একটু কথা বলেছিলাম আর সেইদিনই আমার নাম ক্লাশের ক্যাপ্টেন লিখে টিচারের হাতে দিলেন। এমনিতে আমি শান্ত ছিলাম, কখনও হইচইয়ে ছিলাম না। টিচার আমার নাম দেখে তো হুংকার ছেড়ে আমাকে ডাকলেন। জানতে চাইলেন আমি কথা বলেছি কিনা। আমারও রগ তেরা ছিল, ক্যাপ্টেনের উপর রাগ করে আমি চুপ করে রইলাম। মনে মনে বললাম শালা দুই নম্বরি করছে, ইচ্ছে করে আমার নামটা দিয়েছে।
টিচার যতই আমাকে কথা বলতে বলে আমি মাথা নিচু করে চুপ করে থাকি। ঐ দিন আমাকে পুরো ক্লাশ আইমিন চল্লিশ মিনিট বেত্রাঘাত করা হল। তাও কেমন স্টাইলে জানেন। কান ধরে উঠ বস করতে হচ্ছিল, স্যার হুট করেই হাত ধরে টান দিচ্ছিলেন, হাত ছুটে গেলে বেতের বাড়ি দ্বিগুন আকারে পরতে ছিলো শরিরে। পুরো চল্লিশ মিনিট আমি বেতের বারি খেয়েই গিয়েছি কিন্তু একটা টু শব্দও করি নাই। পরবর্তিতে এক সপ্তাহ জ্বরের ঘোরে কেটেছিলো।

যাই হোক কেন বললাম এই কাহিনী। কারন হচ্ছে- শুধু মাত্র আঘাত করে, ভয় দেখিয়ে কাউকে আপনি কখনও মানুষ করতে পারবেন না, যে মানুষ হবার সে এমনিতেই হবে। মানুষ হবার মনুষত্ব অনেকটাই ফ্যামিলি থেকে আসে, কিছুটা পরিবেশ থেকে আসে। যেই বংশের ফ্যামিলি আজ সন্ত্রাস করে বেড়াচ্ছে তার পোলাপানও সন্ত্রাসই হবে, হয়ত কিছুটা কম নয়ত কিছুটা বেশি। এখানে আপনি জল্লাদ টাইপের টিচার রেখে দিলেও কোন লাভ নাই।

আমাকে কোথাও পাবেন না।

Re: নোংরা মাছির জাত ভাইয়েরা।

পলাশ মাহমুদ লিখেছেন:

যাই হোক কেন বললাম এই কাহিনী। কারন হচ্ছে- শুধু মাত্র আঘাত করে, ভয় দেখিয়ে কাউকে আপনি কখনও মানুষ করতে পারবেন না, যে মানুষ হবার সে এমনিতেই হবে। মানুষ হবার মনুষত্ব অনেকটাই ফ্যামিলি থেকে আসে, কিছুটা পরিবেশ থেকে আসে। যেই বংশের ফ্যামিলি আজ সন্ত্রাস করে বেড়াচ্ছে তার পোলাপানও সন্ত্রাসই হবে, হয়ত কিছুটা কম নয়ত কিছুটা বেশি। এখানে আপনি জল্লাদ টাইপের টিচার রেখে দিলেও কোন লাভ নাই।

স্কুলের শিক্ষার আগে যে পরিবারের ব্যাপারটিই প্রধান সে বিষয়ে আমিও সহমত আপনার সহিত। তবে একটি বিষয় আমার মতে এমন শিক্ষক থাকারও প্রয়োজন রয়েছে। আমাদের আগের প্রজন্মের লোকেরা যখন স্কুলে যেতেন তখন তারা তাদের গুরুজনদের শ্রদ্ধা করতেন। কেননা তারা জানতেন কীভাবে গুরু/শিক্ষকদের মান্য করতে হয়। আর সেটা তারা পরিবার হতেই শিখে আসতেন। শেখার শুরুটা পরিবার থেকেই হয়। কিন্তু এই শিক্ষার উন্নয়নটি আবার সেই বিদ্যালয়ে শিক্ষকের হাতেই হয়ে থাকে। বিদ্যালয়ে বহু প্রকৃতির ছাত্র/ছাত্রী থাকতে পারে কিন্তু শিক্ষক সবাইকে আদর্শ গড়তে এবং সঠিক নৈতিক শিক্ষা লাভে সহায়ক ভূমিকা পালন করতেন। আর বর্তমান যুগের কথা চিন্তা করেন তেমন মান্য গোন্য হবার মত আদর্শ শিক্ষকের সংখ্যাটাই কত আর এটি বিবেচনা করেন যারা মান্য করবে তাদের অবস্থাটি বর্তমানে কেমন। এখন আর আগের সেই দিন নেই রে ভাই। যায় দিন ভালো, আসে দিন খারাপ। আর এটাই স্বাভাবিক।

হে আল্লাহ, তুমি সকলের মঙ্গল কর; তোমার রহমতের আশ্রয়ে আশ্রিত কর..... আমীন
সঠিক পদ্ধতিতে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করুন এবং আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইটটিকে সুরক্ষিত রাখুন

কাজী আলী নূর'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: নোংরা মাছির জাত ভাইয়েরা।

কাজী আলী নূর লিখেছেন:

তবে একটি বিষয় আমার মতে এমন শিক্ষক থাকারও প্রয়োজন রয়েছে।

আমার মতে মারামারি কাটাকাটি করবার মত শিক্ষক থাকার প্রয়োজন নেই। আবারও উদাহরন দেব- আমাদের রহমান স্যার ছিলেন, যাকে আমরা বাঘের মত ভয় পেতাম, পিতার চেয়েও বেশি সম্মান করতাম কিন্তু উনি কখনও আমাদের ক্লাশে বেত নিয়ে প্রবেশ করতে না কাউকে বেত্রাঘাতও করতেন না। তবে স্যার যখন ক্লাশ করতেন তখন সবাই মনোযোগি, যখন উনি হাসির কথা বলতেন তখন পুরো ক্লাশ রম রম পরিবেশ বিরাজ করত।
এখন বলেন কেন তাহলে স্যারকে আমরা বাঘের মত ভয় পেতাম? স্যারতো আমাদের মারতেন না, বেত নিয়ে ঘুরঘুরও করতে না? এই প্রশ্নটা থাকল আপনার প্রতি।  tongue

এবার আসেন এখনকার দিনের কথা বলি, এখনও ছাত্র শিক্ষককে সম্মান করছে। কোন শিক্ষকের সামনে মাথা নিচু করে ঠক ঠক করে কাপতে কাপতে দাড়িয়ে থাকাটা যদি আপনি মনে করেন সম্মান করা তাহলে ভিন্ন কথা। শিক্ষকের সামনে বসে একত্রে ছাত্র-শিক্ষক যদি চা খেতে খেতে গল্প করে আর আপনি যদি মনে করেন এতে করে ছাত্র শিক্ষককে সম্মান করছে না তাহলে আমার কিছুই বলার নাই।
আগের দিনের ভয়ে ভীত হয়ে ঠক ঠক করে কাপতে থাকা সম্মান এর চেয়ে এখন সম্মানটা অনেকটা বন্ধুত্ব সূলভ হয়ে গিয়েছে এবং আমার মতে একজন ভালো শিক্ষক একজন ভালো বন্ধু, একজন ভালো অভিভাবকের ভূমিকায়ই থাকা উচিত।

কাজী আলী নূর লিখেছেন:

এখন আর আগের সেই দিন নেই রে ভাই। যায় দিন ভালো, আসে দিন খারাপ। আর এটাই স্বাভাবিক।

আগের দিন থাকবে না এটাই স্বাভাবকি, নিত্য নতুন প্রযুক্তির আবিস্কার হচ্ছে, আমরা নিত্য নতুন অনেক কিছু শিখছি। যারা বর্তমানে শিশু তারা যেই জ্ঞান জন্মগত ভাবেই লাভ করে আসে তা আমরা পনের ষোল বছরেও লাভ করি নাই। আমাদের প্রজন্ম বর্তমান শিশুদের চেয়েও অনেক জ্ঞানি থাকবে এটাই তো স্বাভাবিক তাই নয়। সুতরাং যতো দিন যাবে ততোই প্রযুক্তি গত, প্রকৃতি গত পরিবর্তন আসবেই তাই বলে পুরনো দিন ভালো ছিলো নতুন দিন ভালো নয় তা ঠিক নয়।

আমাকে কোথাও পাবেন না।

১০ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন কাজী আলী নূর (০৪-০৫-২০১৫ ১২:৩৪)

Re: নোংরা মাছির জাত ভাইয়েরা।

পলাশ মাহমুদ লিখেছেন:

সুতরাং যতো দিন যাবে ততোই প্রযুক্তি গত, প্রকৃতি গত পরিবর্তন আসবেই তাই বলে পুরনো দিন ভালো ছিলো নতুন দিন ভালো নয় তা ঠিক নয়।

যতই দুনিয়ার বয়স বেড়ে যাচ্ছে সেই সাথে এর বাসিন্দারাও আরও বয়স প্রাপ্ত হচ্ছে। দুনিয়া আস্তে আস্তে এর ক্রান্তির দিকে এগুচ্ছে আর মানবজাতি সভ্য থেকে অসভ্যতার দিকে অর্থাৎ ধ্বংসের দিকে ধাবিত হচ্ছে। তাহলে কী আমি অতিতের দিনগুলো কে ভবিষ্যতের তুলনায় ভালো বলতে পারি না?

হে আল্লাহ, তুমি সকলের মঙ্গল কর; তোমার রহমতের আশ্রয়ে আশ্রিত কর..... আমীন
সঠিক পদ্ধতিতে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করুন এবং আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইটটিকে সুরক্ষিত রাখুন

১১

Re: নোংরা মাছির জাত ভাইয়েরা।

কাজী আলী নূর লিখেছেন:

দুনিয়া আস্তে আস্তে এর ক্রান্তির দিকে এগুচ্ছে আর মানবজাতি সভ্য থেকে অসভ্যতার দিকে অর্থাৎ ধ্বংসের দিকে ধাবিত হচ্ছে। তাহলে আমি অতিতের দিনগুলো কে ভবিষ্যতের তুলনায় ভালো বলতে পারি না?

অতিতের দিন বলতে কত অতিত বুঝাচ্ছেন? মানুব ইতিহাস ঘেটে দেখেন অতিতে আরো অসভ্যতার ইতাহাসও আছে। সেই দিনের সাথে তুলনা দিলে অবশ্যই আপনি অতিতের চেয়ে বর্তমানকে ভালো বলতে বাধ্য হবেন  tongue

এবার আসেন মূল কথায়- আপনি তো প্রযুক্তিগত উন্নয়নকে ঠেকিয়ে রাখতে পারবেন না, যেই মানুষটি প্রথম আগুন আবিস্কার করে, আগুনে হাত পুরে যাবার পর কি আগুন জ্বালানো বন্ধ হয়ে গিয়েছে?
আজ আপনি প্রোগ্রামিং করছেন, নিত্য নতুন আবিস্কার করবার জন্য নিত্য নতুন জিনিস শিখতেছেন। কেন শিখছেন? কেন এগুলো বন্ধ করে দিচ্ছেন না? আপনার আবিস্কারও তো সামান্য হলেও একটু উন্নয়ন করছে আর ধাবিত করছে মানব জাতিকে অসভ্যতার দিকে।

আমাকে কোথাও পাবেন না।

১২

Re: নোংরা মাছির জাত ভাইয়েরা।

পলাশ মাহমুদ লিখেছেন:

অতিতের দিন বলতে কত অতিত বুঝাচ্ছেন? মানুব ইতিহাস ঘেটে দেখেন অতিতে আরো অসভ্যতার ইতাহাসও আছে। সেই দিনের সাথে তুলনা দিলে অবশ্যই আপনি অতিতের চেয়ে বর্তমানকে ভালো বলতে বাধ্য হবেন

আমি অবশ্যই বর্বর যুগের কথা বা প্রাচীন সভ্যতার কথা বলছি না। আমার আগের কয়েক জেনারেশন এবং ভবিষ্যতের কয়েক জেনারেশনের মধ্যেই আমার এই চিন্তাটি সীমাবদ্ধ।

পলাশ মাহমুদ লিখেছেন:

এবার আসেন মূল কথায়- আপনি তো প্রযুক্তিগত উন্নয়নকে ঠেকিয়ে রাখতে পারবেন না, যেই মানুষটি প্রথম আগুন আবিস্কার করে, আগুনে হাত পুরে যাবার পর কি আগুন জ্বালানো বন্ধ হয়ে গিয়েছে?
আজ আপনি প্রোগ্রামিং করছেন, নিত্য নতুন আবিস্কার করবার জন্য নিত্য নতুন জিনিস শিখতেছেন। কেন শিখছেন? কেন এগুলো বন্ধ করে দিচ্ছেন না? আপনার আবিস্কারও তো সামান্য হলেও একটু উন্নয়ন করছে আর ধাবিত করছে মানব জাতিকে অসভ্যতার দিকে।

আবিষ্কার কিংবা উদ্ভাবনে বিপ্লব যে সব ক্ষেত্রেই কল্যাণকর সেটাও কিন্তু ভাবলে চলবে না। আগ্নেয়াস্ত্র, ড্রোন, মিসাইল বা ক্ষেপণাস্ত্র, পারমাণবিক বোমা, মিলিট্যান্ট রোবোট ইত্যাদির আবিষ্কার কে আপনি অবশ্যই সভ্যতার ইতিবাচক আগ্রগতি কিংবা কল্যাণ ভাবতে পারেন না, গবেষণাগারে আবিষ্কৃত মরণ ব্যাধির সৃষ্টিকারী ভাইরাস ছড়ানো এবং এই রোগে আক্রান্ত হয়ে হাজার হাজার লোকের মৃত্যুর পরিসংখ্যান তৈরির পরে মাল্টিন্যাশনাল ঔষধ কোম্পানির ধূর্ত মার্কেটিং পরিকল্পনা নিয়ে পূর্বাবিষ্কৃত ভ্যাকসিনের আত্মপ্রকাশ, নিকট ভবিষ্যতের তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের আশঙ্কা ইত্যাদি প্রযুক্তির আবিষ্কারের অন্যতম প্রধান অভিশাপ যেটাকে আপনি ভবিষ্যতের আশীর্বাদ ভাবতে পারেন না।

প্রযুক্তিগত পরিবর্তন ছাড়াও মানুষের নৈতিক গুণাবলি, জীবনযাত্রার মান, আর্থ-সামাজিক পরিস্থিতি সব নিয়েই আমাদের ভাবা উচিৎ।

হে আল্লাহ, তুমি সকলের মঙ্গল কর; তোমার রহমতের আশ্রয়ে আশ্রিত কর..... আমীন
সঠিক পদ্ধতিতে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করুন এবং আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইটটিকে সুরক্ষিত রাখুন

কাজী আলী নূর'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

১৩

Re: নোংরা মাছির জাত ভাইয়েরা।

আপনি কি বলতে চাচ্ছেন ক্লিয়ার করে বলেন তো? আমি এখনও পর্যন্ত ক্লিয়ার না  tongue প্রথমে বললেন শিক্ষক দরকার জাদরেল টাইপের, তারপর বললেন অতিত ভাল ছিলো বর্তমান ভালো না। এখন আবার বোমা টোমা নিয়ে হাজির হয়েছেন। আসলে আপনি কি বলতে চাচ্ছেন তা বলেন তো, নির্দিষ্ট করে বলেন যে আপনি কোন বিষয় নিয়ে কথা বলবেন, প্রতিনিয়ত সাবজেক্ট পরিবর্তন করতে ইচ্ছে করছে না  tongue

আমাকে কোথাও পাবেন না।

১৪

Re: নোংরা মাছির জাত ভাইয়েরা।

আসলে এভাবে ভাবিনি কখনও।
ভাল লাগল পড়ে।
ধন্যবাদ।

আল্লাহ এক, অদ্বিতীয় ও সর্ব শক্তিমান।