টপিকঃ হা! হা! হি! হি! - ৫২

সি.আই.এ এজেন্ট -১ : গুপ্তচর ধরা পড়ছে।
সি.আই.এ এজেন্ট -২ : হমম।
সি.আই.এ এজেন্ট -১ : ইন্টারোগেট শুরু করবো?
সি.আই.এ এজেন্ট -২ : ইয়াপ। ইশটার্ট।
এক ঘন্টা পর-
সি.আই.এ এজেন্ট -১ : গুপ্তচর খুবই টাফ।
সি.আই.এ এজেন্ট -২ : কেন
সি.আই.এ এজেন্ট -১ : এক ঘন্টা গরম রুমের ভিতরে আটকায় রাখছি।
সি.আই.এ এজেন্ট -২ : আউটপুট?
সি.আই.এ এজেন্ট -১ : নাই। মিচকা হাসি দিতাছে।
সি.আই.এ এজেন্ট -২ : নেক্সট লেভেলে যাও।
আধা ঘন্টা পর-
সি.আই.এ এজেন্ট -১ : কাহিনী খারাপ।
সি.আই.এ এজেন্ট -২ : কেন?
সি.আই.এ এজেন্ট -১ : দুই ঘন্টা কেমিক্যাল মিশানো পানি তে চুবাইছি।
সি.আই.এ এজেন্ট -২ : আউটপুট?
সি.আই.এ এজেন্ট -১ : পানি থেকে উঠানোর পর এক গ্লাস ঐ পানি খাইতে চাইছি।
সি.আই.এ এজেন্ট -২ : নেক্সট লেভেল।
দুই ঘন্টা পর-
সি.আই.এ এজেন্ট -১ : টাফেস্ট এজেন্ট আই এভার সিন... অমানসিক ধৈর্য।
সি.আই.এ এজেন্ট -২ : কেন!
সি.আই.এ এজেন্ট -১ : মাথার কাছে একই প্রশ্ন কয়েক হাজার বার করলাম।
সি.আই.এ এজেন্ট -২ : দেন?
সি.আই.এ এজেন্ট -১ : পিটাইলাম। পায়ে চাপ দিলাম বুট দিয়ে। আঙুলে চাপ দিলাম। সারা রাত বাইরে জঙ্গলে মসকিউটোর ভিতরে ফেলে রাখছি। নো স্লি, নো বাথ। নো আউটপুট।
সি.আই.এ এজেন্ট -২ : তাকে আমার কাছে নিয়ে আসো।
সি.আই.এ এজেন্ট: তুমি কিভাবে নিজেকে এভাবে ট্রেইন করছো।
গুপ্তচর: লোল। আই এম ফ্রম বাংলাদেশ।
সি.আই.এ এজেন্ট: !!!
গুপ্তচর: একঘন্টা লোডশেডিং এ থাকা পানিভাত, আমরা এক কালে এক ঘন্টা পর পর লোডশেডিং এ থাকতাম ৪৫ ডিগ্রি তাপমাত্রায়।
আমরা ছোটবেলা থেকেই ফরমালিনে অভ্যস্ত। আমরা হেন কোন জিনিষ নাই যাতে ক্যামিকেল মিশাই না। চুন, ইটের গুড়া সব খেয়ে অভ্যস্ত। দুধ থেকে মদ সব কিছুতে আমরা ভেজাল মিশাই। আমার মনে হয় ফরমালিনেও ভেজাল মিশাবো কিছুদিন পর।
আর ধৈর্য ব্রেক করার জন্য একই প্রশ্ন করা? আমরা উত্তরা থেকে ধানমন্ডি পৌছাই সাড়ে তিন ঘন্টার জ্যামে। তোমরা এক গিগা মুভি নামাও চার-পাচ মিনিটে। আমরা নামাই পুরা রাইতে, তাও আটকায় আটকায়। সো আমাদের ধৈর্য নিয়া প্রশ্ন করার অবকাশ নাই।
আর বাই দ্য ওয়ে, আমি তুরাগ এবং ছয় নম্বর বাসের নিয়মিত যাত্রী। বুটের গুতা কিংবা কনুই এর গুতা ইভেন বাসের হাতল ধরতে গিয়া উষ্টা খাইয়া রাস্তায় প্রায় অন্য গাড়ির চাক্কার নীচে পড়া অহরহ। দুই তিন ঘন্টা জ্যামে বাসে দাড়ায় থাকা ওয়ান টুর মামলা।
এন্ড, মশার ভিতরে ফেলে রেখে আমাকে আবেগতাড়িত করে ফেলেছো। আমার তখন দেশের কথা মনে পড়েছে।
তোমাদের এক এজেন্ট বারবার নৃশংসতার হুমকি দিতেছিলো। আমাদের বাসে আগুন দিলে কয়েকজন মরে যায় চোখের সামনে, আমরা রাতে ভাতে খেয়ে পরের দিন অপিসে যাই। ককটেল গ্রেনেড ফাটে, টিয়ার শেলে ধুয়া ধুয়া চারদিক, বিকালে আমরা সিনেপ্লেক্সে মুভি দেখি।
সি.আই.এ এজেন্ট: হু আর ইউ রিয়েললি
- সাধারন বাংলাদেশী। যাকে তোমরা গুপ্তচর ভেবে ভুল করেছো।
সি.আই.এ এজেন্ট: ফিল আপ দিস ফর্ম।
- কিসের ফর্ম?
সি.আই.এ এজেন্ট: তোমারে আজ থিকা সিআইএ'র ট্রেইনার হিসাবে নিয়োগ দিলাম।

সুত্রঃসিডাটিভ হিপনোটিক্স

ঝামেলা'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: হা! হা! হি! হি! - ৫২

বেপক মজাক পাইলাম  lol2

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।

Re: হা! হা! হি! হি! - ৫২

ঝামেলা লিখেছেন:

সি.আই.এ এজেন্ট: ফিল আপ দিস ফর্ম।
- কিসের ফর্ম?
সি.আই.এ এজেন্ট: তোমারে আজ থিকা সিআইএ'র ট্রেইনার হিসাবে নিয়োগ দিলাম।

খুব একচোট হাসলাম  lol

এম. মেরাজ হোসেন
IQ: 113
http://www.iq-test.cc/badges/4774105_3724.png

Re: হা! হা! হি! হি! - ৫২

মজারু ! তবে আগেই পড়া ছিল। smile

Re: হা! হা! হি! হি! - ৫২

দারুন মজার
প্রথম পড়লাম
ধন্যবাদ

জাযাল্লাহু আন্না মুহাম্মাদান মাহুয়া আহলুহু......
এই মেঘ এই রোদ্দুর

Re: হা! হা! হি! হি! - ৫২

roll thinking
কোন লাইনের উপর যে হাসা উচিত ঠিক বুঝতেছি না ghusi
উম্ম!!!  blushing blushing

Re: হা! হা! হি! হি! - ৫২

একটু বেশিই মজা পেলাম ।

মামা চিন্তায় আর ঘুম আসছে না।