সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন মেরাজ০৭ (০২-০৮-২০১৪ ১৫:৪০)

টপিকঃ "Quantum Vacuum Plasma Thrusters" জ্বালানী বিহীন ধাক্কা

http://cdn.phys.org/newman/gfx/news/hires/2014/howwouldeart.jpg

নাসা সম্প্রতি জ্বালানী বিহীন রকেট থ্রাস্টার তৈরী করেছে যাতে মূলত ইলেক্ট্রিসিটি ছাড়া আর কিছু লাগেনা।
সাপোর্টাররা একে মাইক্রোওয়েভ থ্রাস্টার অথবা Quantum Vacuum Plasma Thrusters বলছে। আর অন্যরা একে Anomalous Thrust Device বলে সম্বোধন করছে।

পূর্বের রকেট থ্রাস্টারের জন্য রকেট ফুয়েল লাগতো যা অত্যান্ত ব্যায়বহুল ও ভর ও বেশি। কিন্তু বর্তমানে এই অত্যাশ্চার্য বুস্টারের কারনে সেইসব ভয় নেই। তাছাড়া যেকোনো স্থানে তা রিফিউলিং করা যাবে সোলার প্যানেল দিয়ে। বার বার রিফিউলিং এর ভয় থাকবেনা। সংগে থিওরিটিকালি ইন্টারস্টেলার ট্রাভেল করা সহজ হবে।

নাসা বহু বছর ধরেই এমন সব বুস্টারের ডিজাইন পেয়ে আসছিলো কিন্তু পাত্তা দেয়নি। শেষ পর্যন্ত বিরক্ত হয়ে আমেরিকান Cannae Drive নামক একটি ডিজাইন তারা গ্রহন করে এবং আশ্চার্যজনক ভাবে তা কাজ করিয়ে ফেলতে সক্ষম হয় Law of conservation of momentum (I have no idea wtf is that  worried ) এর বিপরীতে গিয়ে।

http://www.extremetech.com/wp-content/uploads/2014/07/emdrive-21-640x411.jpg

তবে নাসা বর্তমানে বলছেনা ড্রাইভটি কিভাবে কাজ করে। কিন্তু তাদের ভাষ্যমতে এটি ৩০-৫০ মাইক্রো নিউটনের ধাক্কা দিতে পারে যা বর্তমানে ব্যাবহৃত রকেট জ্বালানীর ১০০০ ভাগের এক ভাগ ধাক্কা। তবু্‌ও এটি জ্বালানী ব্যাবহার না করে এই ধাক্কা উৎপাদন করছে। আসল ইন্ভেন্টরের মতে নাসার পরীক্ষায় সমস্যা আছে, তার ইনভেন্টকৃত থ্রাস্টার আরো বেশি ধাক্কা উৎপাদন করতে সক্ষম। ভবিষ্যতে হয়তো আরো বেশি নিউটনের ধাক্কা উৎপাদন করবে এমন থ্রাস্টার উৎপাদন হবে।



নাসার অফিশিয়াল রিপোর্টঃ http://ntrs.nasa.gov/search.jsp?R=20140006052

এম. মেরাজ হোসেন
IQ: 113
http://www.iq-test.cc/badges/4774105_3724.png

Re: "Quantum Vacuum Plasma Thrusters" জ্বালানী বিহীন ধাক্কা

তথ্যটি শেয়ারের জন্য ধন্যবাদ ৷

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন সদস্য_১ (০২-০৮-২০১৪ ২০:৫৫)

Re: "Quantum Vacuum Plasma Thrusters" জ্বালানী বিহীন ধাক্কা

ইলেক্ট্রিক প্রপেলশন সিস্টেম নতুন কিছু না। এটা নিয়ে গবেশনা শুরু হয়েছে ক্যামিক্যল রকেটের সাথেসাথেই। সাইন্সফিকশনে ব্লু রংয়ের থ্রার্স্ট ইঞ্জিন কোথাথেকে আসে বলে মনে করেন  tongue_smile

ইলেক্ট্রিক প্রপেলশন ইঞ্জিন দিয়ে বানানো প্রথম বড় মাপের রকেট ছিল SERT-1 সেই ১৯৬৪ সালে! এই পেপারটার আগামাথা বুঝলামনা। ব্যাপারটা জোক নাকি  thinking অন্যান প্রচলিত ইলেক্টিক প্রপেলশানের থ্রার্স্ট বরং এর চেয়ে হাজার গুন বেশী যেমন আয়ন থার্স্টার, হল ইফেক্ট থ্রার্স্টার ... টিপিকাল হলইফেক্ট থ্রার্স্টারে ধাক্কা প্রায় আধা নিউটন (৫০ মাইক্রোনিউটনের ১০,০০০ গুন!)।

এই সিস্টেমের একমাত্র সমস্যা হল এর থ্রার্স্ট (ঠেলা !) কম। ৩০-৫০ মাইক্রো নিউটন যে কত খানি কম সেটা কি অনুধাবন করতে পারছেন? একটা পাতলা লেটারসাইজ (দেশের জন্য A4 tongue )  কাগজের পাতার মোটামুটি ভর ৫ গ্রাম। অতএব এই পাতাটাকে মাটি থেকে উপরে তুলতে ~ ৫০ মিলি নিউটন থ্রার্স্ট লাগবে। মানে আপনার ছবিতে দেয়া ১০০০ টা ইঞ্জিন দিয়ে এক পাতা কাগজ কে মাটি থেকে উপরে তোলতে পারবেন! এবার স্টারসীপ এন্টারপ্রাইজ... ইন্টারস্টেলার ট্রাভেল! দিল্লি বহু দুর!  kidding

একসময় ইলেক্ট্রিক প্রপেলশন নিয়ে আমার বিস্তর আগ্রহ ছিল। এই ফিল্ডে কোন উন্নতিই হচ্ছেনা। হবে কোত্থেকে... এই ফিল্ডেতো আমারা টাকাই ব্যায় করছিনা। আমাদের সব টাকাপয়সা আমরা(মানবজাতি) ব্যায় করছি একে অপরকে মারার জন্য (যুদ্ধ)! যতদিন আমাদের এই মানসিকতার পরিবর্তন না হবে ততদিন এন্টারপ্রাইজের কথা ভুলে যান।

Re: "Quantum Vacuum Plasma Thrusters" জ্বালানী বিহীন ধাক্কা

সদস্য_১ লিখেছেন:

স্টারসীপ এন্টারপ্রাইজ

USS Enterprise

সদস্য_১ লিখেছেন:

ইলেক্ট্রিক প্রপেলশন সিস্টেম নতুন কিছু না। এটা নিয়ে গবেশনা শুরু হয়েছে ক্যামিক্যল রকেটের সাথেসাথেই। সাইন্সফিকশনে ব্লু রংয়ের থ্রার্স্ট ইঞ্জিন কোথাথেকে আসে বলে মনে করেন  tongue_smile

ইলেক্ট্রিক প্রপেলশন ইঞ্জিন দিয়ে বানানো প্রথম বড় মাপের রকেট ছিল SERT-1 সেই ১৯৬৪ সালে!

পড়ে তো মনে হলো এই প্রথম বানানো হয়েছে অর সামথিং। সব বড় বড় বিজ্ঞান বিষয়ক সাইটগুলো এই নিউজটি প্রকাশ করছে।

সদস্য_১ লিখেছেন:

ইলেক্ট্রিক প্রপেলশন ইঞ্জিন দিয়ে বানানো প্রথম বড় মাপের রকেট ছিল SERT-1 সেই ১৯৬৪ সালে! এই পেপারটার আগামাথা বুঝলামনা। ব্যাপারটা জোক নাকি  thinking অন্যান প্রচলিত ইলেক্টিক প্রপেলশানের থ্রার্স্ট বরং এর চেয়ে হাজার গুন বেশী যেমন আয়ন থার্স্টার, হল ইফেক্ট থ্রার্স্টার ... টিপিকাল হলইফেক্ট থ্রার্স্টারে ধাক্কা প্রায় আধা নিউটন (৫০ মাইক্রোনিউটনের ১০,০০০ গুন!)।

এই সিস্টেমের একমাত্র সমস্যা হল এর থ্রার্স্ট (ঠেলা !) কম। ৩০-৫০ মাইক্রো নিউটন যে কত খানি কম সেটা কি অনুধাবন করতে পারছেন? একটা পাতলা লেটারসাইজ (দেশের জন্য A4 tongue )  কাগজের পাতার মোটামুটি ভর ৫ গ্রাম। অতএব এই পাতাটাকে মাটি থেকে উপরে তুলতে ~ ৫০ মিলি নিউটন থ্রার্স্ট লাগবে। মানে আপনার ছবিতে দেয়া ১০০০ টা ইঞ্জিন দিয়ে এক পাতা কাগজ কে মাটি থেকে উপরে তোলতে পারবেন! এবার স্টারসীপ এন্টারপ্রাইজ... ইন্টারস্টেলার ট্রাভেল! দিল্লি বহু দুর!  kidding

সেটাতো বলাই হয়েছে। আয়ন থ্রাস্টারের ১০০০ ভাগের ১ ভাগ থ্রাস্ট এটি দিতে পারে মাত্র।

এম. মেরাজ হোসেন
IQ: 113
http://www.iq-test.cc/badges/4774105_3724.png

Re: "Quantum Vacuum Plasma Thrusters" জ্বালানী বিহীন ধাক্কা

ইনভার ভাই কই  tongue

মুইছা দিলাম। আমি ভীত !!!

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন Roadrunner (০৩-০৮-২০১৪ ০০:২৫)

Re: "Quantum Vacuum Plasma Thrusters" জ্বালানী বিহীন ধাক্কা

মেরাজ০৭ লিখেছেন:
সদস্য_১ লিখেছেন:

স্টারসীপ এন্টারপ্রাইজ

USS Enterprise

দুইটাই সঠিক। এটা "স্টারশীপ এন্টারপ্রাইজ" নামেও পরিচিত।

মেরাজ০৭ লিখেছেন:

পড়ে তো মনে হলো এই প্রথম বানানো হয়েছে অর সামথিং। সব বড় বড় বিজ্ঞান বিষয়ক সাইটগুলো এই নিউজটি প্রকাশ করছে।

প্রথম বলতে নাসা এখানে জ্বালানী লাগবে না কিংবা সাশ্রয়ী জ্বালানী লাগবে দাবি করছে।

The central insight here (assuming this isn’t all a big mistake) is that something called quantum vacuum fluctuations will occasionally spontaneously create particles all throughout the vacuum of space, and that these short-lived particles can be put to useful work. Thus, this thruster actually does use fuel — it just finds and uses that fuel as it goes. The thruster essentially turns these virtual particles into a plasma and expels them out the back of the ship, much like a conventional fuel source. The quantum fuel, though, spontaneously appears inside the thruster’s reaction area without even the need for collection or injection hardware. All things considered, that’s more than a little exciting.

http://emdrive.com/