টপিকঃ রেস্টুরেন্টের খাবার

১. শুক্রবার রাত্রে স্টকহোমের রেস্টুরেন্টগুলাতে সেইরকম ভীড় থাকে। কিছু উপরি ট্যাকা পয়সা কামানের ধান্দায় সেরকমই কোন একটা রেস্টুরেন্টে কাম করছিলাম এক মাস। মালিক জনৈক সিলেটি আঙ্কেল। তিনি নিজেই কুক-ওয়েটার-ক্যাশিয়ার। আর আমি শুধু কিচেনে কাজ করি কারণ আমি সুইডিশ ভাষা না জানায় অর্ডার নিতে পারি না, বিলও নিতে পারি না। শুক্রবার রাতগুলাতে তাই উনার মাথা বিশেষ রকমের গরম থাকে কাস্টমারের প্রেশারে।

কোন এক শুক্রবার রাত্রে কাস্টমারের চাপে হিমশিম খাইতেছেন তিনি। আমারে তিনটা নানরুটি সহ একটা প্লেট ধরায়া বললেন, তিন নম্বর টেবিলোতো দিয়া আসবায়।
কিচেন থিকা যাওনের পথে বাম পাশে বাথরুম। সামনে একটু ভেজা ভেজা থাকায় ধপাস কইরা পইড়া গেলাম নান রুটি সহ। তাড়াতাড়ি বাথরুমের দরজার সামনে পইড়া যাওয়া হালকা ভিজা ভিজা নানরুটি তুইলা নিয়া কিচেনে ফিরা গিয়া কইলাম, আঙ্কেল, আরো তিনটা নানরুটি লাগবো।
উনি মহা চেইত্তা গিয়া কইলেন, খ্যানে? ইগুলার খিতা অইছে? ফ্রবলেম খিতা?
আমি কইলাম, আমি বাথরুমের সামনে পইড়া গেছিলাম, এইগুলাও পড়ছে।
তিনি আমার দিকে চোখ বড় বড় কইরা কিছুক্ষণ তাকায়া থাইকা জিগাইলেন, খেউ দেখছে নি রে বা?
আমি বললাম, জ্বী না। কেউ দেখে নাই।
উনি নানরুটি গুলার ভিজা জায়গায় দ্রুত কিছু মাখন মাখায়া দিয়া কইলেন, ছুপছাপ খাস্টমারর টেবিলোতো দিয়া আস। এতকিছু দেখলে ব্যবসা খরা যাইতো নায়।

২. অন্য আরেক শুক্রবার। সেইদিনও তিনি বিশাল গরম। একসাথে ছয়টা পার্সেলের অর্ডার নিলেন তিনি টেলিফোনে, যারা বিশ মিনিটের মাঝে রেস্টুরেন্টে এসে নিয়ে খাবার নিয়া যাবে। আর সাথে রেস্টুরেন্টে বসা কাস্টমাররা তো আছেই।
উনি মহানন্দে উনার ছয়টা চুলায় একসাথে রান্না করতে লাগলেন। আর আমি পার্সেলের বক্সগুলা সাজাইতে থাকলাম। উনি রান্নায় ব্যাপক পারদর্শী। চউক্ষের পলকে সবগুলান রান্না শেষ কইরা বক্সগুলায় খাবার রাখতে লাগলেন একটার পর একটা।
তারপর আমারে কইলেন, এইবার খাবার গুলা নিয়া আস। আমি বুঝলাম না উনি কি কইতেছেন। কারণ, ছয়টা রান্নাই তো শেষ। এখন আবার কোন খাবার আনুম?
আমি কইলাম, আঙ্কেল, কুন খাবার আনুম?
উনি চেইত্তা ফায়ার হয়া কইলেন, আরে বাবা, খাবার আনতে বলছি তোমারে।
আমি আরো বেশি কনফিউজড হয়া কইলাম, আঙ্কেল, খাবার তো বক্সে রাখা অলরেডি!

উনার স্ক্রু আগেই ঢিলা ছিল, এইবার উনার মাথার তারও ছিঁড়া গেল পুরাই। উনি সিলেটি ভাষায় গজ গজ করতে করতে শেলফ থিকা পার্সেলগুলার কাভার (ঢাকনা) আইনা আমার চোখের সামনে ধইরা বিকট চিৎকার দিয়া কইলেন, খাবার.... খাবার.... খাবার....

Gentlemen, you can't fight in here, this is the war room!

Re: রেস্টুরেন্টের খাবার

বড় বড় রেস্তোরায় এই কারণেই কিচেনের সামনের দিকে গ্লাস দেওয়া থাকে ।  lol

মজা লাগল পড়ে !  big_smile

Re: রেস্টুরেন্টের খাবার

মজাদার লেখনি !  smile

Re: রেস্টুরেন্টের খাবার

হাহাহাহাহাহহা দারুন মজার মাত আমরা হগল সিলটির
মনটাই ভাল হয়ে গেল লেখা পড়ে ।

জাযাল্লাহু আন্না মুহাম্মাদান মাহুয়া আহলুহু......
এই মেঘ এই রোদ্দুর

Re: রেস্টুরেন্টের খাবার

স্যরি টু সে, এক নম্বরটা খুবই বিশ্রি লাগলো। অন্তত হাসির বাক্সের উপযোগী না। sad

তবে দ্বিতীয়টা পুরাই  lol

আমার সকল টপিক

কোনো কিছু বলার নেই আজ আর...

Re: রেস্টুরেন্টের খাবার

হে হে হে  lol lol lol

নিবন্ধিতঃ১১/০৩/২০০৯ ,নিয়মিতঃ১০/০৩/২০১১, প্রজন্মনুরাগীঃ১৯/০৫/২০১১ ,প্রজন্মাসক্তঃ২৬/০৯/২০১১,
পাঁড়ফোরামিকঃ২২/০৩/২০১২, প্রজন্ম গুরুঃ০৯/০৪/২০১২ ,পাঁড়-প্রাজন্মিকঃ২৭/০৮/২০১২,প্রজন্মাচার্যঃ০৪/০৩/২০১৪।
প্রেম দাও ,নাইলে বিষ দাও

Re: রেস্টুরেন্টের খাবার

মজার হয়েছে  thumbs_up

"We want Justice for Adnan Tasin"

Re: রেস্টুরেন্টের খাবার

খাবার! খাবার! খাবার!  ghusi

thumbs_up

Re: রেস্টুরেন্টের খাবার

চরম লাগল। ঠিকই আছে এত কিছু দেখে ব্যবসা করা যায় না।
আর 'খাবার' -তো পুরাই টাস্কি লাগায়া দিল। অসাম  thumbs_up  clap

...Finding...

১০

Re: রেস্টুরেন্টের খাবার

হা হা হা.................

১১

Re: রেস্টুরেন্টের খাবার

আমারো স্ক্রূ একটু ঢিলা তাই ২ নাম্বার টি ঠিক মতো বুঝলাম না !!

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

১২

Re: রেস্টুরেন্টের খাবার

কণিষ্ক লিখেছেন:

বড় বড় রেস্তোরায় এই কারণেই কিচেনের সামনের দিকে গ্লাস দেওয়া থাকে ।  lol

মজা লাগল পড়ে !  big_smile

এই রেস্টুরেন্টেও ছিল, তবে কাঁচ না, পানির গ্লাস।  big_smile

ইলিয়াস লিখেছেন:

মজাদার লেখনি !  smile

ধইন্না  big_smile big_smile big_smile

ছবি-Chhobi লিখেছেন:

হাহাহাহাহাহহা দারুন মজার মাত আমরা হগল সিলটির
মনটাই ভাল হয়ে গেল লেখা পড়ে ।

ঠ্যাংকু আফা।  big_smile

গৌতম লিখেছেন:

স্যরি টু সে, এক নম্বরটা খুবই বিশ্রি লাগলো। অন্তত হাসির বাক্সের উপযোগী না। sad

তবে দ্বিতীয়টা পুরাই  lol

সরি ভাই, ব্যাপার নাহ, তবে বাস্তব ঘটনা এইরকম "বিশ্রি"ই হয়। এই জন্যই দুই নম্বরটা দিছি। এক নম্বরের বিশ্রি জিনিসটার উপরে দুই নম্বরটারে মাখন হিসাবে ধইরা নেন।

Jemsbond লিখেছেন:

হে হে হে  lol lol lol

big_smile big_smile big_smile

আউল লিখেছেন:

মজার হয়েছে  thumbs_up

কোনডা? নানরুটি? খাইয়েন না ভাই, কি না কি মাখানো আছে ক্যাডায় জানে!!!  dontsee dontsee dontsee

Jol Kona লিখেছেন:

খাবার! খাবার! খাবার!  ghusi thumbs_up

big_smile big_smile big_smile

তিতাস লিখেছেন:

চরম লাগল। ঠিকই আছে এত কিছু দেখে ব্যবসা করা যায় না।
আর 'খাবার' -তো পুরাই টাস্কি লাগায়া দিল। অসাম  thumbs_up  clap

shame shame shame

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

আমারো স্ক্রূ একটু ঢিলা তাই ২ নাম্বার টি ঠিক মতো বুঝলাম না !!

সিলেটি এক্সেন্টে "ক" এর উচ্চারণ অনেকটা "খ" এর মত হয়। আবার "ভ" এর উচ্চারণ অনেকটাই "ব" এর মত হয়।
পার্সেলগুলো ঢেকে দেবার জন্য ঢাকনা বা কাভার ব্যবহার করা হয়। আংকেল আমাকে সেই কাভারগুলা আনতে কইছিলেন। সেটাকেই আমি শুনছিলাম "খাবার"!
notlistening notlistening notlistening

Gentlemen, you can't fight in here, this is the war room!

১৩

Re: রেস্টুরেন্টের খাবার

lol2 lol2 lol2 lol2 lol2 lol2 lol2 lol2 lol2 lol2 lol2 lol2 lol2 lol2 lol2 lol2 lol2 lol2 lol2 lol2

খাবার খাবার... হাহাহাহাহাহাহাহাহাহাহা হোহোহোহোহোহোহোহোহোহোহো...

ইমরান তুষার'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৪

Re: রেস্টুরেন্টের খাবার

ফাতলা করিয়া হাসিয়া গেলাম  lol lol তুহিনে, জোক কররায়, আর আমরা হাসি হাসি খুটিখুটি হইয়া যাই  lol2 lol2

রাবনে বানাদি ভুড়ি :-(

১৫

Re: রেস্টুরেন্টের খাবার

lol2

লেখাটি CC by-nc-nd 3. এর অধীনে প্রকাশিত