টপিকঃ পোস্টের মন্তব্য সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব [সাম্প্রতিক একটি বিষয়ের আলোকে]

ফোরাম থেকে আমার অনেক প্রিয় প্রিয় মানুষকে সরে সরে যেতে দেখে আমার আর ভালো লাগছে না।

এর পেছনে কিছু সাম্প্রতিক এবং কিছু কিছু উল্লেখযোগ্য কারণ থাকলেও প্রধান একটি কারণ আমি এই টপিকে বলতে এসেছি।
আমাদের প্রজন্মে অনেকেই আগ্রহ করে টপিক লিখেন। এক একটি টপিক এক একটি পরিকল্পনায় এবং প্রতিটি টপিক জীবনের মূল্যবান সময়ের ব্যয়ে রচিত হয়। কিন্তু টপিকে মন্তব্যের জন্যে তীর্থের কাকের ন্যায় বসে থাকতে হয় সেই সকল টপিক দাতাদের। অথচ যারাই এক সময় এই আড্ডাকে জমিয়ে রেখেছেন এবং মাতিয়ে তুলেছেন বিভিন্ন সময়ে প্রজন্মকে তাদের লিখা টপিকই খালি পরে রয়।

তাদের টপিকে যদি দুই একটি মন্তব্য পড়ে তবে তারা উৎসাহী হয়ে পরে আরও টপিক দিতে আগ্রহী হন। যদিও পজেটিভ : নেগেটিভ মন্তব্যের রেশিও সবসময়েই কাছাকাছি থাকে এবং নেগেটিভ কথাবার্তা বলাই অধিকাংশ মানুষের বৈশিষ্ট্য। তাই পজেটিভ নেগেটিভের বিষয়টিও গুরুত্বপূর্ণ। যেখানে মন্তব্য করেনই না সেখানে যদি মন্তব্য কখনও লিখেনও সেটি সব সময় যথার্থ প্রাসঙ্গিক কিংবা যৌক্তিক হয়না। কারণ মন্তব্য প্রদানে অধিকাংশই যথেষ্ট আন্তরিক কিংবা যত্নবান হন না। সিংহভাগ মন্তব্যই অমূলক এবং উৎসাহের বদলে নিরোৎসাহমূলক।

ফোরামের বিভিন্ন বিভাগে টপিক লিখা হচ্ছে তবে সকল বিষয়ে সমান তালের অগ্রগতি এবং সমান গতি সাধারণত আশা করাও ঠিক না। তবে লক্ষ্য করলেই দেখা যাবে অনেক ক্ষেত্রে হাতে গোনা কিছু বিভাগেই নিয়মিত হারে বেশি বেশি টপিক পরছে। অার বাকি বিভাগগুলো খালি পরে আছে। কিন্তু এর পেছনে কারও হাত আছে বললে আমি ব্যক্তিগতভাবে সেটির সাথে একমত হতে পারবো বলে মনে হয় না। কারণ বিভাগ অনুযায়ী বিভিন্ন বিভাগের টপিকে পাঠক এবং প্রাজন্মিকেরা ভিন্ন ভিন্ন স্বাধ উপভোগ করেন। আর সবার জন্য সকল বিভাগ সমভাবে প্রযোজ্য সেটিও নয়। যার যার ব্যক্তিগত পছন্দ এবং মতানুসারে তিনি সেই বিভাগের নিয়মিত পাঠক কিংবা সেই নির্দিষ্ট বিভাগে নিয়মিত লিখে যাচ্ছেন।

কিন্তু বিষয়টা দুঃখ্যজনক হলেও সত্য যে এমন অনেক লেখক রয়েছেন যাদের লিখার মান অনেক ভালো এবং তারা বেশি বেশি লিখতেও আগ্রহী কিন্তু তাদের টপিকে কেউ মন্তব্য লিখতে আগ্রহী হয়না সাধারণত। তারা তাদের বিভাগ নির্বাচনের ক্ষেত্রে নিজের স্বাধ এবং আগ্রহের বিষয় সংশ্লিষ্ট বিভাগকে সমৃদ্ধি দানে সচেষ্ট ভূমিকা রাখতে চান। কিন্তু তাই বলে মন্তব্যের জন্য তারা এভাবে কখনো ভাবেন বলে আমার মনে হয় না যে টপিক লিখার আগে একবার দেখে নিই যে কোন বিভাগগুলোতে বেশি বেশি মন্তব্য এবং বেশি পাঠকের ভিড় পরে।

তাই তাদের মতো লেখকেরা হাজার আগ্রহ, প্রচুর সময় ও শ্রম ফোরামে দিয়ে থাকলেও সেটির সেই মানের তো দূর কোনরূপ কদরই হয়না অধিকাংশ ক্ষেত্রে অবমূল্যায়ণ ছাড়া। তারা তাদের নিজেদের লিখা এবং মনোভাবকে তুচ্ছ ভাবতে শুরু করেন। মান থাকা সত্বেও কদর না পেলে আশাহত হবেন সেটিই কী সাভাবিক নয়? তারা আগ্রহ হারিয়ে বসাটা কি খুব বেশি অস্বাভাবিক? এই সমস্ত কারণ আজ কিছু কিছু নিয়মিত এবং অন্যতম পুরাতন সদস্যদের ফোরামে আসার আগ্রহ হারাতে সাহায্য করছে। ফলে তারা অনিয়মিত হয়ে যাচ্ছেন।

বিষয়টি এত একটা স্পর্শকাতর হত না যদিনা সবার ক্ষেত্রে এমনটিই শুধু ঘটতো তাহলে। কারণ সত্যি বলতে সব সময় উপরোক্ত পরিস্থিতির ন্যায় মন্তব্যের অভাবে টপিক খালি পড়ে থাকে না। হাতে গোনা স্বল্পসংখ্যক লোক রয়েছেন যারা টপিক লিখা মাত্রই তাদের টপিকে মন্তব্য, লাইক এর ঢল নেমে যেতে থাকে। বিষয়টা কিন্তু এমন নয় যে তারা সৌভাগ্যবান আর বাকিরা হলেন হতভাগা/হতভাগিনী। বিষয়টা হচ্ছে এমন যে মন্তব্য প্রদানের ক্ষেত্রেও মানুষের মাঝে আগ্রহের যথেষ্ট ঘাটতি বিদ্যমান। এরও বহু যৌক্তিক/অযৌক্তিক কারণ রয়েছে যেগুলো এখানে কতটা প্রাসঙ্গিক হবে সেটি বুঝতে পারছি না তাই আমার আসল কথা বাদ দিয়ে ফাও প্যাচাল দীর্ঘায়িতও করতে চাইনা।

মোদ্দা কথা হলো সকল বিভাগের সকল লেখকের পোস্টে মন্তব্যের হার আমাদের প্রতিবেশী দেশের জনগণের ধনী/দরিদ্রের হারের মত। যিনি খেতে পাচ্ছেন তার এতটাই প্রাচুর্য্য যে তিনি খেয়ে শেষই করতে পারছেন না। আর যিনি খেতেই পাননা তিনি অনাহারে মরেন।

জানিনা আমি কি বিষয়ে কতখানি কি বলতে পারলাম এবং কার কাছে বষয়টা কতখানি গুরুত্বপূর্ণ? এটাও বুঝে উঠতে পারছি না আমার কথাবার্তা সবার কাছে কেমন দেখাচ্ছে। আমি নিজেও আসলে জানিনা এই টপিক কতটা আজাইরা বা কতখানি প্রাসঙ্গিক। আমার ব্যক্তিগত কিছু মতামতের সংগ্রহ এখানে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি মাত্র। কারণ আমার কাছে মনে হয় মানুষের মাঝে মন্তব্য প্রদানের আগ্রহ জন্মানোর প্রয়াসে প্রজন্মের সেই সকল সদস্য যারা দূরে সরতে বসেছেন তাদেরকে আবারও ফিরিয়ে এনে আরও মজবুত বন্ধনীর দ্বারা শক্ত বন্ধনে আক্রে ধরে রাখাটা সম্ভব হবে।

প্রজন্মতে নিজের অভিজ্ঞতায় আমার এমন মনে হয় যে অনেকেই আছেন যারা মন থেকে মনের কথা লিখে যাচ্ছেন এবং অকৃপণ ও অকৃত্রিম মৌলিক মন্তব্যের দ্বারা পাঠক হিসেবে লেখককে উৎসাহ দিয়ে যাচ্ছেন। আবার এমন অনেকেই আছেন শুধু অন্যকে হেয় প্রতিপন্ন কিংবা তুচ্ছ তাচ্ছিল্য করে যেতেই ভালোবাসছেন। আমি সত্য বলছি কিছু কিছু উদার এবং খোলা মনের নিরহংকার মানুষও আছেন যারা এমন এমন মন্তব্য করেন যাদের মন্তব্য পড়ে অনেকেই শিখি যে মন্তব্য কেমন হতে পারে বা কেমন হওয়া উচিৎ।

যদি আমি একটি কথা না বলি তাহলে সত্যিই নিজের প্রতি অবিচার করা হবে। কারণ আমার সম্পর্কে সবার ধারণা সব সময়েই একই রবে। সেটি হলো প্রজন্মতে টপিকদাতার চেয়ে ঝগরাটে পরিচয়েই আমি বেশি পরিচিত এবং সব বিষয়েই খুব বেশি সিরিয়াস। কিন্তু তা সত্বেও হাতে গোনা কিছু টপিক আমি লিখেছি যেগুলোতে একই সাথে পজেটিভ এবং নেগেটিভ ফিডব্যাক আমি একই টপিকে পেয়েছি। তখন সত্যিই খুব ভালো লাগে যখন কেউ সত্য কথাটি বলে। আর সেটি যদি নেগেটিভও হয় সেটি মেনে নেয়া খুব বেশি কঠিন কাজ হয় না। কিন্তু এমন অনেক মন্তব্য থাকে যেটিতে দারুণভাবে উৎসাহী হই আর সেগুলো মনে গেথে যায় চিরস্থায়ীভাবে। স্মৃতি থেকে সেই সকল অমূল্য মন্তব্য কখনো মুছে যাবে বলে কখনোই আমার মনে হয় না।


তাই সাম্প্রতিক আলোচ্য প্রজন্মের সেরা নির্বাচন - ২০১৩ তে এমন কোন কিছুর সংযোজন করা যায় কিনা যাতে করে টপিক লিখার পাশাপাশি মানুষজন টপিকে মন্তব্য লিখতেও সমভাবে আগ্রহী হবে এবং মন্তব্য প্রদানের ক্ষেত্রে আরও বেশি আন্তরিক, সৎ,  আরও বেশি যন্তবান হয়ে অকৃত্রিম এবং মৌলিক মন্তব্য প্রদানে আগ্রহী হবে। মন্তব্য প্রদানে কার্পণ্যতার হ্রাস ঘটবে। প্রজন্মে সকল বিভাগে পাঠক ও প্রাজন্মিকের সমাগম বৃদ্ধি পাবে। প্রজন্ম আগের চেয়ে কিংবা বর্তমানের চেয়ে কয়েকগুণ বেশি জমজমাট হবে।

[বিঃ দ্রঃ আমার মত একই বিষয়ে এমন কোন প্রস্তাব কিংবা ধারণার অতীতে উল্লেখ থাকলে আমার এই টপিকটি কে অতিরিক্ত এবং বন্ধ কিংবা পরিত্যক্ত বিবেচনা করা হউক]

হে আল্লাহ, তুমি সকলের মঙ্গল কর; তোমার রহমতের আশ্রয়ে আশ্রিত কর..... আমীন
সঠিক পদ্ধতিতে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করুন এবং আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইটটিকে সুরক্ষিত রাখুন

কাজী আলী নূর'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: পোস্টের মন্তব্য সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব [সাম্প্রতিক একটি বিষয়ের আলোকে]

আপনার সাথে একমত।

Re: পোস্টের মন্তব্য সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব [সাম্প্রতিক একটি বিষয়ের আলোকে]

আমার মনের সব কথা তুমি লিখে ফেললে দেখি ।
এর বাইরে আমার আর বলার কিছু নাই । আমি নিজেই ফেডাপ ........
ফোরামে আসি গোটা কয়েকজনের ভালবাসার জন্য......

লেখা অনেক সুন্দর করে লিখেচ এবং ভালও লেগেছে smile

জাযাল্লাহু আন্না মুহাম্মাদান মাহুয়া আহলুহু......
এই মেঘ এই রোদ্দুর

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন শামীম (১৭-১২-২০১৩ ১৩:২২)

Re: পোস্টের মন্তব্য সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব [সাম্প্রতিক একটি বিষয়ের আলোকে]

মানুষ বৈচিত্রের খোঁজে থাকে এবং নিজের সুবিধা খোঁজে। বৈচিত্রের অভাবে এক সময়ে হামলে পড়া পোলাও কোর্মাতেও সেই মজাটা পরবর্তীতে আর পায় না। আবার, নিজে ঠিকই পোস্টটি পড়ে আনন্দিত হবে কিন্তু একটু ফেরত দিতে আলস্য বোধ করে। এছাড়া মোবাইল ইন্টারনেটের যুগও এর পেছনে আরেকটা কারণ। কষ্ট করে লগ ইন করতে হবে বলে লাইক বাটনেও ক্লিক করে না ...

পাশাপাশি আরেকটা কারণ আছে -- সেটা হল মানুষের ব্যস্ততা। আমার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতাই বলি: ২ বছর আগেও আমি যত ফ্রী সময় পেতাম এখন তা পাই না -- অফিসেও স্বাভাবিক মাস্টারির অতিরিক্ত দায়িত্ব মডারেটরগিরি (প্রক্টর) করতে হয় বলে দৌড়ের উপর থাকতে হয়। একই ভাবে ফোরামে যাঁরা একটিভ ছিলেন তাঁদের ইনঅ্যাকটিভ হওয়ার কারণও ব্যস্ততা। খেয়াল করলে দেখবেন, আগে যাঁরা খুব অ্যাকটিভ ছিলেন তাঁরা ব্যক্তিগত জীবনে আরও ব্যস্ত হয়ে উঠেছেন (এটা উন্নতির লক্ষন :-) )। আপনিও হয়তো কিছুদিনের মধ্যেই এমন ব্যস্ত হয়ে উঠবেন, প্রজন্ম ফোরামের নামও হয়তো সপ্তাহে একদিন কোনরকমে স্মরণ করতে পারবেন।

এখন বেশি বেশি রেসপন্স পাওয়ার উপায় হল স্পেসিফিক নাম উল্লেখ করে কিছু লেখা (গুরু ডেডলকের কাছ থেকে শিখছি) কিংবা মানুষের কোমল অনুভুতিকে আহত করে কিছু লেখা।

সেরা ফোরামিক নির্বাচনের ক্রাইটেরিয়াটাই সেরকম ছিল বলে মনে পড়ছে - যে তেমন মৌলিক টপিক না দিলেও সারাবছর ফোরামকে মাতিয়ে রেখেছিলো ... ... অর্থাৎ ফোরামিস্ট, সকলের সাথে ইন্টারেকশন ...

Re: পোস্টের মন্তব্য সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব [সাম্প্রতিক একটি বিষয়ের আলোকে]

কাজী আলী নূর লিখেছেন:

প্রজন্মের সেরা নির্বাচন - ২০১৩ তে এমন কোন কিছুর সংযোজন করা যায় কিনা যাতে করে টপিক লিখার পাশাপাশি মানুষজন টপিকে মন্তব্য লিখতেও সমভাবে আগ্রহী হবে ]

পুরস্কার মূলত টপিকের জন্য দেওয়া হয় না। পোস্টের জন্যই দেওয়া হয়। হতে পারে সেটা টপিকের প্রথম পোস্ট। আমাদের ইনব্রা তো পোস্টের কারণেই বেশী পুরস্কার জিতেছেন।

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

Re: পোস্টের মন্তব্য সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব [সাম্প্রতিক একটি বিষয়ের আলোকে]

নূর ভাইয়ের কথার যর্থাততা সম্পর্কে কারো কোন দ্বিমত নেই, আবার সমস্যা সমাধানের কোনো পথও নেই।

এখনো অনেক অজানা ভাষার অচেনা শব্দের মত এই পৃথিবীর অনেক কিছুই অজানা-অচেনা রয়ে গেছে!! পৃথিবীতে কত অপূর্ব রহস্য লুকিয়ে আছে- যারা দেখতে চায় তাদের নিমন্ত্রণ।