টপিকঃ গরীব ক্যামেরার ছবি - ০৩ (এক্সপেরিমেন্ট এবং খাদ্য দ্রব্য)

গরীব Samsung Galaxy Young Duos (GT-S6312) এর ৩ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা দিয়ে তোলা ছবি। এই ফোনে ফ্লাশ বলে কিছু নাই। ডিফল্ট যে ক্যামেরা অ্যাপটা দেয়া আছে ওটা দিয়ে বেশ ভালই ছবি তোলা যায়। তবে সেদিন মেহেদীর নোকিয়া লুমিয়ার ঈর্ষনীয় ছবিগুলো দেখে আমি ভাবলাম এই ক্যামেরায় সেরকম অপশন নাই কেন!  crying
.
ঘাটাঘাটি করে Camera FV-5 Lite নামে একটা অ্যাপ (ফ্রী) নামালাম। এটাতে ISO ঠিক করে দেয়া সহ লং এক্সপোজার শট, টাইমল্যপস ইত্যাদি করা যায় বলে ভিডিওতে বলেছে। অবশ্য কিছু ফীচার প্রো ভার্সনের জন্য। যা হোক, প্রথমে দুটো ছবি দেখুন: একই জায়গা থেকে তোলা, রাতে ঘরের ভেতরে।
ডিফল্ট ক্যামেরা (হোয়াইট ব্যালেন্স: ফ্লোরোসেন্ট)(এগুলো অটো হয়েছে: Exposure -1/8, F Number - f/2.6, ISO-200)
https://lh5.googleusercontent.com/-EWrsbocMDco/Un-k2yXHovI/AAAAAAAACT0/U0YyfQTaA0g/w640-h480-no/20131110_194835.jpg
.
Camera FV-5 Lite দিয়ে ISO 100 দিয়ে তোলা। সমস্যা হল এটা ফ্রি ভার্সানে শুধু এই একটা রেজুলুশন সাপোর্ট করে (৬৪০*৪৮০)
https://lh6.googleusercontent.com/-qeE1y1hSzYw/Un-idRJEeXI/AAAAAAAACTY/5pC840sJgpY/w640-h480-no/2013+-+1
.
এবার সকাল বেলা রুমের পর্দা ফেলা অবস্থায় আলো ছায়া ধরার চেষ্টা। ডিফল্ট ক্যামেরাতেই বেটার ছবি পেলাম। নাইট মোডে তুলেছি (Focal Length - 2.79mm; Exposure-0.5s; F Number- f/2.6; ISO-800 )। সম্ভবত ISO বেশি থাকার কারণে গ্রেইন বেশি - কিন্তু ডিফল্ট ক্যামেরায় সেটা কমানোর উপায় খুঁজে পাই নাই। তারপরেও এই ধরণের ছবি এই প্রথম তুললাম দেখে বেশ ভাল লাগলো।
https://lh5.googleusercontent.com/-34N5syCTfGQ/Un-8id6kEiI/AAAAAAAACUU/zoPxur6VvhA/w392-h522-no/IMG_20131110_093613.jpg
পাশের রুমে টিউবলাইট জ্বালিয়েছে, সেই আলো এসে পড়েছে।
https://lh6.googleusercontent.com/-fNsknpr8hAA/Un-9KSOMdYI/AAAAAAAACUk/vvaHgNXg9S4/w696-h522-no/IMG_20131110_094041.jpg
https://lh5.googleusercontent.com/-S0l_uyWLKuw/Un-90PVI6cI/AAAAAAAACU0/Sddx46uXYbU/w696-h522-no/IMG_20131110_093955.jpg
.
রাতে বারান্দা থেকে গেটের দিকে একটা শট নিলাম।
https://lh6.googleusercontent.com/-pFQhpPytlaM/UoExWjjmIvI/AAAAAAAACXs/z7-jVvrk_qA/w392-h522-no/20131111_223421.jpg
পরবর্তীতে অবশ্য Night Camera নামে আরেকটা অ্যাপ টেস্ট করার জন্য নামিয়েছি। এটা পোস্ট প্রসেস করে ছবিতে কিছুটা গ্রেইন কমায়। কিন্তু তারপরেও মনমত হয়নি।
.
দিনে কিন্তু ডিফল্ট ক্যামেরা খুব একটা খারাপ ছবি তুলে না। এটার ISO-100, Exposure-1/33 (অটোমেটিক ভাবেই)
https://lh5.googleusercontent.com/-o9O9VKPaIhQ/Un-8-xcXsCI/AAAAAAAACUc/dw28GbYKES0/w696-h522-no/IMG_20131109_160157.jpg
.
এটার ISO-50, Exposure-1/62 (অটোমেটিক ভাবেই)
https://lh4.googleusercontent.com/-2aVL1aMktgA/Un-9olNxaDI/AAAAAAAACUs/670HWRQhP_M/w696-h522-no/IMG_20131109_160117.jpg
.
এটার ISO-50, Exposure-1/540 (অটোমেটিক)। বদলে যাচ্ছে গুলশান; নিচের অংশটা একটা সিঙ্গেল অভিজাত বাসা, আর সেরকম কোন একটাকে ভেঙ্গেই হয়তো মূল সাবজেক্ট মাল্টিস্টেরিড অ্যাপার্টমেন্ট তৈরী হচ্ছে। হারাচ্ছে আভিজাত্যময় প্রকৃতি। অফিসের টয়লেটের জানালা থেকে তোলা  wink
https://lh6.googleusercontent.com/-4rd62FWbZ20/Un--Mw_2y3I/AAAAAAAACU8/wzg3ItsYHM4/w696-h522-no/20131107_123143.jpg
.
.
.
ইনডোরে লাইটে মনে হল Camera FV-5 Lite বেটার ছবি তুলে। যদিও রেজুলেশন কম, কিন্তু ফেসবুক বা ক্যাজুয়াল শেয়ার করার জন্য ঐটাই যথেষ্ট। তাই এবার ঐ ক্যামেরার ছবি (এটা অবশ্য আলাদা টপিক হতে পারতো)

গতকাল আমাদের (আমি+বউ+বাচ্চা) প্রিয় খাবারের দোকানে গেলাম। এটা বসুন্ধরা সিটির ফুড কোর্টে। লোকেশন হল দেশি দশ এর উপরের জায়গাটায় বিএফসি'র লাইনে ৪ নম্বর দোকান।
https://lh5.googleusercontent.com/-MSnco13LBtU/UoDHzvtBGfI/AAAAAAAACW0/RCSjZ9Uni8k/w640-h480-no/DSC_0012.PNG
.
আগে একজন কোরিয়ান মহিলা বসতো, রান্নাও করতো। আর বাঙালি পোলাপান এসিস্ট করতো। এখন পুরা বাঙালিরাই চালায়। ওদের অবশ্য গুলশান-২ এ আরেকটা শাখা আছে। খাবারের দাম কিন্তু সাধারণ ফাস্ট ফুডের চেয়ে সস্তাই লাগে।
https://lh3.googleusercontent.com/-lsTml7dDqEM/UoEFt3xvgAI/AAAAAAAACXc/PUi9KdQ_pzg/w640-h480-no/20131111_175932.jpg
.
খাবার দাবার: রাইস সুশি এবং সালাদ (এখানে সব আইটেম আলাদা করে নিতে হয়, সেট মেনু দেখেছি বলে মনে পড়ে না)
https://lh6.googleusercontent.com/-Zk88hAPsQQw/UoEFZxPAOLI/AAAAAAAACXE/jWVpzruiz2M/w640-h480-no/DSC_0014.PNG
.
খাবার দাবার: সুশি এবং স্পাইসি নুডলস
https://lh6.googleusercontent.com/-1xrIVMQ1zzM/UoEFqPjTwoI/AAAAAAAACXU/Eu2F27zaARs/w640-h480-no/DSC_0013.PNG
.
খাবার দাবার: ডাম্পলিং (মোমো / গিঁয়োজা)
https://lh5.googleusercontent.com/-lJUMZQRfzv0/UoEFhN5SJ_I/AAAAAAAACXM/mmlBEt2o6Z0/w640-h480-no/DSC_0015.PNG

শামীম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: গরীব ক্যামেরার ছবি - ০৩ (এক্সপেরিমেন্ট এবং খাদ্য দ্রব্য)

ছবির চেয়ে খাবার গুলি বেশি ভাল লেগেছে।  tongue_smile

"সংকোচেরও বিহ্বলতা নিজেরই অপমান। সংকটেরও কল্পনাতে হয়ও না ম্রিয়মাণ।
মুক্ত কর ভয়। আপন মাঝে শক্তি ধর, নিজেরে কর জয়॥"

Re: গরীব ক্যামেরার ছবি - ০৩ (এক্সপেরিমেন্ট এবং খাদ্য দ্রব্য)

কয়েকটা গতকালই দেখলাম। মনে হচ্ছে, দিনের আলো ছাড়া ক্যামেরা বাবাজি ঠিকমতন ফোকাস করতে পারেনা।

রাবনে বানাদি ভুড়ি :-(

Re: গরীব ক্যামেরার ছবি - ০৩ (এক্সপেরিমেন্ট এবং খাদ্য দ্রব্য)

সুন্দর

অন্ধকার ঘরে!! কাগজের টুকো চিরে!
কেটে যায়!! আমার সময়!!

ফেইসবুকে আমি

Re: গরীব ক্যামেরার ছবি - ০৩ (এক্সপেরিমেন্ট এবং খাদ্য দ্রব্য)

দিনের আলো ছাড়া ফোকাস হয় না
খাবার গুলো  big_smile

  Tenacity - Focus - Discipline - Repetition

   Sabbir's Blog 

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: গরীব ক্যামেরার ছবি - ০৩ (এক্সপেরিমেন্ট এবং খাদ্য দ্রব্য)

লো লাইটে শাটার স্পিড কমিয়ে ফেলে বলে ইজিলি ব্লার হয়ে যাচ্ছে। + আইএসও বাড়াচ্ছে অনেক একটু বেশী। তার সাথে সেন্সর বেশী ছোট সম্ভবত। কাজেই লোলাইটে ভাল ছবি তোলা বেশী কঠিন হচ্ছে। ডে লাইটে + রিচ লাইট ছবিগুলাতো অনেক ভাল আসছে দেখি।  thumbs_up

ও! বিল্ডিং এর ছবিটা একটু কোল্ড লাগলো। সেটিংস এ লাইট সেটিংস Daylight করে দিনে ছবি তুলতে পারেন। Warmth একটা ভাব থাকে। ভালই লাগে। সন্ধ্যার দিকেও Day Light mode  এ রেখে ছবি তুলে দেখতে পারেন। wink

Re: গরীব ক্যামেরার ছবি - ০৩ (এক্সপেরিমেন্ট এবং খাদ্য দ্রব্য)

খাবারের ছবিগুলো লোভনীয়  tongue

IMDb; Phone: Huawei Y9 (2018); PC: Windows 10 Pro 64-bit

Re: গরীব ক্যামেরার ছবি - ০৩ (এক্সপেরিমেন্ট এবং খাদ্য দ্রব্য)

আরণ্যক লিখেছেন:

ছবির চেয়ে খাবার গুলি বেশি ভাল লেগেছে।  tongue_smile

big_smile

তার-ছেড়া-কাউয়া লিখেছেন:

কয়েকটা গতকালই দেখলাম। মনে হচ্ছে, দিনের আলো ছাড়া ক্যামেরা বাবাজি ঠিকমতন ফোকাস করতে পারেনা।

cry

তাহমিদ আফসার লিখেছেন:

সুন্দর

smile থ্যাংকু।

টমাটিনো লিখেছেন:

দিনের আলো ছাড়া ফোকাস হয় না
খাবার গুলো  big_smile

sad  big_smile

মেহেদী৮৩ লিখেছেন:

লো লাইটে শাটার স্পিড কমিয়ে ফেলে বলে ইজিলি ব্লার হয়ে যাচ্ছে। + আইএসও বাড়াচ্ছে অনেক একটু বেশী। তার সাথে সেন্সর বেশী ছোট সম্ভবত। কাজেই লোলাইটে ভাল ছবি তোলা বেশী কঠিন হচ্ছে। ডে লাইটে + রিচ লাইট ছবিগুলাতো অনেক ভাল আসছে দেখি।  thumbs_up

ও! বিল্ডিং এর ছবিটা একটু কোল্ড লাগলো। সেটিংস এ লাইট সেটিংস Daylight করে দিনে ছবি তুলতে পারেন। Warmth একটা ভাব থাকে। ভালই লাগে। সন্ধ্যার দিকেও Day Light mode  এ রেখে ছবি তুলে দেখতে পারেন। wink

হুমম ....
ছবি তোলার জন্য আসলে সবচেয়ে বেশি দরকার আগ্রহ। সেটা থাকলে ক্যামেরা ম্যানেজ হয়ে যেতে কতক্ষণ! আমি অন স্পট খাবারের দোকান থেকে পোস্ট দিয়েছি ফেসবুকে - এটা একটা এক্সাইটিং অভিজ্ঞতা বটে! যেহেতু এরকম ইনস্ট্যান্টিনিয়াস ক্যাজুয়াল শেয়ার, তাই খুব অসাধারণ ছবি জরুরী না (আপনারগুলো তবুও ঈর্ষনীয় ট্যাগেই থাকবে ;-) )।

এই যে বিভিন্ন ফ্যামিলি প্রোগ্রামে ছবি তুলি, ওগুলো কিন্তু ম্যাক্সিমাম সেই ফেসবুক অ্যালবামেই যায় -- আর যাওয়ার আগে সর্বোচ্চ ৮০০*৬০০ রেজুলুশন। আমি নিজেও অন্যের দেয়া ছবি দেখতে সর্বোচ্চ ১০ সেকেন্ড ব্যয় করি; খুটিয়ে দেখি বলে মনে পড়ে না - সম্ভবত অন্যরাও তাই (মেয়েরা অবশ্য গয়না, মেকাপ খুঁটিয়ে দেখে  wink )। সেই হিসেবে এই ক্যামেরা ওকে।

তার ছেড়া কাউয়ার মত ভ্রমন থেকে ফিরে বিস্তারিত গল্পসহ বিভিন্ন ছবি খুটিয়ে দেখানোর মজা এই ক্যামেরার ছবিতে হয়তো পাওয়া যাবে না -- বিশেষত কম আলোতে ছবি ঝাঁপসা হলে তো  hairpull

অফটপিক:
ঘাটাঘাটি করতে গিয়ে টাইম ল্যাপসের ব্যাপারটা পছন্দ হয়েছে। এটা যে এভাবে অটোমেটিক প্রোগ্রাম দিয়ে করা হয় সেটা আইডিয়াতে ছিলো না। সামনে এটা কোনো এক্সপেরিমেন্টে কাজে লাগানো যায় কি না সেটা দেখতে হবে। কিন্তু টাইম ল্যাপসের কাজে জরুরী মোবাইল একটা ফ্রেমে আটকে রাখা সম্ভব না, ক্যামেরাতেই করতে হবে।

বোরহান লিখেছেন:

খাবারের ছবিগুলো লোভনীয়  tongue

big_smile

শামীম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: গরীব ক্যামেরার ছবি - ০৩ (এক্সপেরিমেন্ট এবং খাদ্য দ্রব্য)

আমিও করতে চাই কিন্তু ক্যামেরার অভাবে আর হয় না।



http://prattohik.com/en/

১০

Re: গরীব ক্যামেরার ছবি - ০৩ (এক্সপেরিমেন্ট এবং খাদ্য দ্রব্য)

আমি কালকে রাতেই শেয়ার করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু বকা খাওয়ার ভয়ে দেই নাই। রাইত বিরাইতে খাবারের ছবি দেখে লুকজনের খিদা পাবে আর ... ...  big_smile

শামীম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১১

Re: গরীব ক্যামেরার ছবি - ০৩ (এক্সপেরিমেন্ট এবং খাদ্য দ্রব্য)

বাংলাদেশে সুশি!!!! শামীম ভাই জ্যপনিস সুশি খাবার পর বাংলাদেশের সুশি কেমন লাগলো জানাবেন  tongue এই খাবার আমার গলা দিয়েই ঢুকে না কোনো কারণে..  sad

Rhythm - Motivation Myself Psychedelic Thoughts

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১২ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন শামীম (১২-১১-২০১৩ ১৬:১৮)

Re: গরীব ক্যামেরার ছবি - ০৩ (এক্সপেরিমেন্ট এবং খাদ্য দ্রব্য)

@ মুজতবা
এগুলো কোরিয়ান দোকানের একই রকম লাগে। তবে জাপানিজ সুশির ডুবানোর সলিউশনটা একটু টক-মিস্টি টাইপের হয়, কোরিয়ানটা ঝাল। রাইস সুশি ভাল লাগে সবসময়েই। তবে ফিশ সুশি - যেটাতে ভাতের দলার উপরে মাছ বা এই জাতীয় কিছু থাকে, সেগুলো ভাল লাগে না। নিচের স্কেচের বামদিকের উপরেরটা -- ভাল লাগে না। আর সুশি কিন্তু বাসাতেও বানানো যায় -- শুধু ঐ স্পেশাল সী-উইডটা জোগাড় করা কঠিন। ওর বদলে কচু পাতা কিংবা পালং শাকে করার বুদ্ধি মাথায় কিলবিল করে।
http://upload.wikimedia.org/wikipedia/commons/thumb/a/a2/Sushi.svg/438px-Sushi.svg.png

নিচের ছবিটার একেবারে ডান-নিচের কোনার হলুদটা কিন্তু মিষ্টি স্বাদের ডিম ভাজি (তামাগোইয়াকি = এটা ডিম ফেটে সেটাতে চিনি আর ভিনেগার মিশিয়ে তারপর পাতলা স্তরে স্তরে ভাজা হয়। এক স্তর ভেজে রোল করা হয়, প্যানের সাইডে রেখে মূল প্যানে আরেক স্তর ভাজা হয়, তারপর আগের রোলটার উপরে এটাকেও রোল করা হয়, এভাবে পুরাটা ভাজে == আমার খুবই পছন্দের খাদ্য ছিল; মাঝে মাঝে বউ (জাপানি রান্নার সুদীর্ঘ ট্রেনিং আছে) বাসাতে মেয়ের জন্য করে)। আর উপরের কনিকাল আকারের টা পানের মত ঐ সী উইড দিয়ে মোড়ানো ভাত (তেমাকে সুশি -- তে = হাত, মাকে = মোড়ানো)। ভাতে অবশ্য কিছু ভিনেগার+চিনি ইত্যাদি মিশিয়ে টকমিষ্টি স্বাদ করা হয়। আর অবশ্যই বসা-ভাত হতে হবে।
http://upload.wikimedia.org/wikipedia/commons/thumb/9/9c/2007feb-sushi-odaiba-manytypes.jpg/800px-2007feb-sushi-odaiba-manytypes.jpg

আর আমার উপরের শেয়ার করা ছবির সুশিগুলো হল ঐ সী-উইড বিছিয়ে তার উপর সেই প্রসেস করা ভাত বিছিয়ে তার উপর লাইন করে কাটা শশা, গাজর, ডিম ভাজা টুকরা, চিংড়ি ইত্যাদি দিয়ে তারপর একপাশ থেকে মাদুর মোড়ানোর মত করে মোড়ানো হয়। তারপর সেই রোলটাকে ছুরি দিয়ে স্লাইস করে এই সিলিন্ডার আকৃতির সুশি তৈরী হয়।

ঢাকাতেই জাপানি খাদ্যের দোকানেও (সামদাদো) সুশি খেয়েছি অনেকবার। তবে সাথে ক্যামেরা ছিলো না। এর পরেরবার ছবি তুলে আনবোনে।

বাই দা ওয়ে: জাপানে ওনিগিরি অর্থাৎ ভাতের সিঙ্গারা বেশ ভারী খাবার ছিল। কনভিনিতেই পাওয়া যেত। একটা/দুইটা খেলেই পেট ভরে যেত।
http://upload.wikimedia.org/wikipedia/commons/8/82/Onigiri_at_a_convenience_store_by_typester_in_Kamakura.jpg
http://upload.wikimedia.org/wikipedia/commons/c/c5/Onigiri.jpg

শামীম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৩

Re: গরীব ক্যামেরার ছবি - ০৩ (এক্সপেরিমেন্ট এবং খাদ্য দ্রব্য)

ভাত কম খান। ভূঁড়ি কমান। তা সে বাংলা ভাতই হোক, আর জাপানি/কোরিয়ান কারুকার্যময় ঘাস-পাতা মোড়ানো ভাতই হোক।  lol ভাইজান, আপনার কিপটামোটা(!) কমিয়ে একখানা ডিএসএলআর খরিদ করা আশু প্রয়োজন। আপনার আগ্রহ ছিল; এখনও সেটা ফুরিয়ে যায় নি (যতই ভাব ধরেন)। গরিব ক্যামেরা থেকে জবরদস্তি করে যা বের করে আনছেন, তাতে বিস্মিত না হয়ে পারা যায় না!  clap

কিছু বাধা অ-পেরোনোই থাক
তৃষ্ণা হয়ে থাক কান্না-গভীর ঘুমে মাখা।

উদাসীন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৪

Re: গরীব ক্যামেরার ছবি - ০৩ (এক্সপেরিমেন্ট এবং খাদ্য দ্রব্য)

উদাসীন লিখেছেন:

ভাত কম খান। ভূঁড়ি কমান। তা সে বাংলা ভাতই হোক, আর জাপানি/কোরিয়ান কারুকার্যময় ঘাস-পাতা মোড়ানো ভাতই হোক।  lol ভাইজান, আপনার কিপটামোটা(!) কমিয়ে একখানা ডিএসএলআর খরিদ করা আশু প্রয়োজন। আপনার আগ্রহ ছিল; এখনও সেটা ফুরিয়ে যায় নি (যতই ভাব ধরেন)। গরিব ক্যামেরা থেকে জবরদস্তি করে যা বের করে আনছেন, তাতে বিস্মিত না হয়ে পারা যায় না!  clap

রুটি পাইলে আমি কখনই ভাত খাই না।
যাউগ্গা, কিন্তু ক্যামেরা খরিদের সুযোগই দিচ্ছে না এরা। বাসায় এখন কিঞ্চিত নষ্ট ক্যামেরা, আর দুইটা মুবাইল ক্যামেরা সহ ৫টা ক্যামেরা হয়ে গেছে  hairpull

শামীম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৫

Re: গরীব ক্যামেরার ছবি - ০৩ (এক্সপেরিমেন্ট এবং খাদ্য দ্রব্য)

শামীম লিখেছেন:
উদাসীন লিখেছেন:

ভাত কম খান। ভূঁড়ি কমান। তা সে বাংলা ভাতই হোক, আর জাপানি/কোরিয়ান কারুকার্যময় ঘাস-পাতা মোড়ানো ভাতই হোক।  lol ভাইজান, আপনার কিপটামোটা(!) কমিয়ে একখানা ডিএসএলআর খরিদ করা আশু প্রয়োজন। আপনার আগ্রহ ছিল; এখনও সেটা ফুরিয়ে যায় নি (যতই ভাব ধরেন)। গরিব ক্যামেরা থেকে জবরদস্তি করে যা বের করে আনছেন, তাতে বিস্মিত না হয়ে পারা যায় না!  clap

রুটি পাইলে আমি কখনই ভাত খাই না।
যাউগ্গা, কিন্তু ক্যামেরা খরিদের সুযোগই দিচ্ছে না এরা। বাসায় এখন কিঞ্চিত নষ্ট ক্যামেরা, আর দুইটা মুবাইল ক্যামেরা সহ ৫টা ক্যামেরা হয়ে গেছে  hairpull

সব গুলা সেল বাজারে পাঠায় দিয়া এক খানা ডিএসএলআর নিয়া আসেন, তবে বাসা থেকে পারমিশন নেয়ার কথা ভুলে যাইয়েন না আবার  tongue

Pure SSD Web Hosting https://www.adroitssd.com/

১৬

Re: গরীব ক্যামেরার ছবি - ০৩ (এক্সপেরিমেন্ট এবং খাদ্য দ্রব্য)

সুশি দেখে লোভ হচ্ছে, অনেকদিন খাওয়া হয়না। যাই হোক আমার খাবারের ফটোই বেশি পছন্দ হয়েছে। hehe

তাসনিম।মুন্নী