সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন উদাসীন (০৫-১১-২০১৩ ১৬:১৬)

টপিকঃ God শব্দটি কি ‘আল্লাহ’র যথার্থ অনুবাদ?

আল্লাহ= আল+ইলাহ:
আরবী ‘আল’ শব্দটির বাংলা অর্থ ‘একমাত্র’ বা ‘সুনির্দিষ্ট’। আর ‘ইলাহ’ শব্দটির অর্থ ‘ইশ্বর’। এই শব্দদ্বয়ের সম্মিলিত রূপ ‘আল্লাহ’র অর্থ দাঁড়ায় ‘একমাত্র ইশ্বর’। এটি এক বচন নির্দেশ করে।

God= ইশ্বর, উপাস্য:
এমনিতে ডিকশনারীতে God এর অনুবাদ উপাস্য, ইশ্বর ইত্যাদির পাশাপাশি ‘আল্লাহ’ ও লেখা থাকে। তবে, আরবী ভাষায় ‘আল্লাহ’ শব্দটির যে মর্যাদা; ইংরেজী ভাষায় God শব্দটির সেই মর্যাদা নেই। যেমন, ‘আল্লাহ’ শব্দটি কোনো নির্দিষ্ট লিঙ্গ নির্দেশ করে না। কিন্তু আপনি God এর সাথে dess যোগ করলে পাবেন ‘Goddess’। যার মানে দেবী। এটা আসলে আল্লাহর সাথে যায় না।
তবে, এখানে প্রশ্ন আসে, ‘আল্লাহ’ শব্দটিকে কমন নাউন হিসেবে বিবেচনা করা যায় কিনা? যেহেতু ইংরেজী ভাষার খৃস্টানরা তাঁদের উপাস্যকে ‘God’ বলে ডাকে; এবং সেই শব্দটি কমন নাউন। একই ধর্ম বিশ্বাসী আরবীয় খৃস্টানরা, মিশরীয় কপটিক খৃস্টান ও মালয়েশিয়া/ ইন্দোনেশিয়ার খৃস্টান সম্প্রদায়ও তাঁদের উপাস্যকে ‘আল্লাহ’ নামে ডাকে। সেক্ষেত্রে ‘আল্লাহ’ শব্দটি ইংরেজী ‘God’ বা বাংলায় ইশ্বর এর সমতূল্য কমন নাউন বা জেনেরিক হিসেবেও গণ্য করা যায় কী? তা ছাড়া ‘আল্লাহ’ শব্দটি শুধুই মুসলিমদের একার সম্পত্তি হবে কেন?
তবে, এখানে এটাও বিবেচনায় রাখা যায়, যে ‘আল্লাহ’ শব্দটি প্রপার ও কমন নাউন উভয় অর্থেই ব্যবহৃত হওয়া সম্ভব কিনা?
সেক্ষেত্রে মুললিমরা যখন তাঁদের উপাস্য ‘আল্লাহ’কে স্মরণ করে, তখন তা প্রপার নাউন (একটি নির্দিষ্ট সত্বাকে নির্দেশ করছে)। কিন্তু আবার অন্যরা যখন একই শব্দ ব্যবহার করে, তখন সেটা কমন নাউন।
এক্ষেত্রে আমাদের দেখতে হবে অন্যরা কী দৃষ্টিকোণ থেকে ‘আল্লাহ’কে ডাকে। সেটা সত্যিই প্রপার নাউন না কমন নাউন। যদি কমন নাউন হয়, তাহলে ‘আল্লাহ’ শব্দটির অনুবাদ হিসেবে ‘God’ বিবেচনা করা যাবে।

ইসলাম পূর্ববর্তী সময়ে আল্লাহ:
ইসলাম আসার আগে থেকেই মক্কাবাসী পৌত্তলিকরা ‘আল্লাহ’কে সৃষ্টিকর্তা হিসেবে মানত। তাঁরা ছিল মূলত আব্রাহাম (ইব্রাহিম) এর দুই পূত্রের (আইজ্যাক এবং ইসমাইল) মধ্যে ইসমাইল এর বংশধর। আর তাঁরা তাঁদের আদি পিতা আব্রাহাম এর মাধ্যমেই এই নামটি পেয়েছিল। কারণ আব্রাহাম এর উপস্যও ‘আল্লাহ’ই ছিলেন। তবে, এক্ষেত্রে সমস্যা ছিল; কালের পরিক্রমায় তাঁরা ‘আল্লাহ’কে আব্রাহামীয় ধারা অনুযায়ী একক মানলেও; পুরোপুরি অদ্বিতীয় মনে করত না। তাঁরা বিশ্বাস করত তিনি দেবতাদের মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী এবং তিনিই সৃষ্টি করেছেন পৃথিবী। তা ছাড়া তিনি বৃষ্টিও দান করেন। একই সাথে তাঁরা আরো মনে করত ‘আল্লাহ’র অনেক সঙ্গী-সাথী আছে। ফলে তাঁদেরও দেবতা জ্ঞানে পূজা করত। আঞ্চলিক দেবতা লা’ত-উজ্জা-মানাতকে তাঁরা ‘আল্লাহ’র কন্যা ধরে নিয়েছিল। তবে, এতসবের পরও ‘আল্লাহ’ মানে তাঁদের কাছে একবচনের একটা শব্দই ছিল।

ইহুদী ধর্মে আল্লাহ:
এটি বহুল প্রচলিত মতামত যে ‘আল্লাহ’র মূল শব্দ ‘ইলাহ’। আর যেহেতু আবরী এবং হিব্রু খুবই সেমেটিক ভাষা, তাই এই ‘ইলাহ’ শব্দটি এবং বাইবেলে বর্ণিত ‘ইলোহিম’ শব্দটির আদিশব্দ একই। ইহুদি ধর্মগ্রন্থে ‘ইলোহিম’ হলো ইশ্বরের একটি বর্ণনামূলক নাম। সেটাকে ইহুদীরা ইয়াওহে বা জেহোবা’ও বলে থাকে। তবে, সেটা এক বচন।
ইহুদীদের পবিত্র ধর্মগ্রন্থে এ সম্পর্কে উল্লেখ আছে, ডিটরনমি: অধ্যায় ৬, অনুচ্ছেদ ৪: “(মুসা বলছেন) হে ইস্রারায়েল বাসী, আমাদের প্রভু মাত্র একজন”।
তারপর আরো উল্লেখ আছে, ডিটরনমি: অধ্যায় ৫, অনুচ্ছেদ ৭-৮: “(ইশ্বর বলছেন) আমার পাশাপাশি তোমরা আর কারো ইবাদত করবে না। তোমরা মহান ইশ্বরের কোনো প্রতিমূর্তি বানাবে না। যাঁকে তুলনা করা যায়, আকাশের ওপরের কিছুর সাথে, নিচের পৃথিবীর কিছুর সাথে অথবা পানির তলের কিছুর সাথে। তোমরা তাঁদের সামনে নতজানু হবে না। তাঁদের সেবা করবে না। কারণ তোমাদের প্রভু খুবই প্রতিহিংসা পরায়ন”।

খৃস্টান ধর্মে আল্লাহ:
অ্যারামাইক ভাষায় ইশ্বর বা সৃষ্টিকর্তার নাম Elaha বা Alaha। খৃস্টান এবং ইহুদী সহ আব্রাহামীয় সকল ধর্মের আরবী ভাষাভাষি লোকজন, ইশ্বরকে বুঝাতে ‘আল্লাহ’ শব্দটি ব্যবহার করে। আর আরবী বংশোদ্ভুত মাল্টাবাসী রোমান ক্যথলিকরা ইশ্বরকে বুঝাতে Alla (আল্লা) শব্দ ব্যবহার করে। আরব খৃস্টানরা অনেক সময়ই তাঁদের ত্রিত্ত্ববাদ অনুযায় সৃষ্টিকর্তা বুঝাতে Allah al-ʾab বা পিতা ইশ্বর, ইসা Allah al-ibn বা পূত্র ইশ্বর এবং জিব্রাইল Allah ar-ruḥ al-quds বা ইশ্বর, পবিত্র আত্মা কথাগুলো ব্যাবহার করে। তবে, এই ত্রিত্ত্ববাদ চার্চের তৈরী। বাইবেলে এ নিয়ে কোনো আলোচনা নেই। যদি কেউ এর সাথে দ্বিমত পোষণ করে তবে, তাঁকে আমার পূর্ববর্তী পোষ্ট ‘যীশু খৃস্ট কী সর্বশক্তিমান ইশ্বর’ পড়ার কথা বলব। কারণ এ নিয়ে ইতিমধ্যে লিখেছি এবং সেটা শুধু মাত্র বাইবেলের নিউ টেষ্টামেন্টকে ভিত্তি ধরেই। যদিও আমি জানি খৃস্টানদের কাছে বাইবেলের ওল্ড টেষ্টামেন্টও পবিত্র ধর্মগ্রন্থের অংশ। যদি তাই হয়, তাহলে তো কোনো কথাই থাকে না। তারপরও ইশ্বর কতজন এ নিয়ে আমরা বাইবেলের নিউ টেষ্টমেন্ট থেকে অন্তত একটা অনুচ্ছেদ নিতে পারি। সেটার উল্লেখ আছে, ম্যাথিও: অধ্যায় ৪, অনুচ্ছেদ ১০: “তখন যীশু তাঁকে বললেন, দূর হও শয়তান। পাক কিতাবে লেখা আছে-প্রভু যিনি তোমার ইশ্বর, তাঁকে তুমি সেজদা করবে। তাঁরই কেবল সেবা করবে”।
এখানে বুঝাই যাচ্ছে কতজন ইশ্বরকে নির্দেশ করা হয়েছে। যিনি, তাঁকে, তাঁরই-এসব শব্দ কোনো বিচারেই বহুবচন নয়; বরং একবচন বলেই বিবেচিত।

ইসলাম ধর্ম:
ইসলাম ধর্মে ‘আল্লাহ’ নামটিকে একবচন হিসেবে দেখা হয়। ইসলাম ধর্মের বিশ্বাস অনুযায়ী এই নামটি স্রষ্টার একত্ববাদকে তুলে ধরে। মানে একজনই সর্বশক্তিমান সৃষ্টিকর্তা। একজনই উপাস্য। তাঁর কোনো লিঙ্গ নেই। তিনি নারী না পুরুষ এসব ভাবা অযৌক্তিক। তিনি কেমন তারও ধারণা মানুষের কল্পনার বাইরে।
পবিত্র কোরআনে ‘আল্লাহ’র সংজ্ঞায় যা বলা হয়েছে, তার উল্লেখ আছে, সুরা ইখলাস: আয়াত ১-৪: “বলুত, তিনি আল্লাহ এক ও অদ্বিতীয়। আল্লাহ কারো মূখাপেক্ষী নন। তিনি কাউকে জন্ম দেননি, কেউ তাঁকে জন্ম দেয়নি। এবং তাঁর সমতুল্য কেউ নেই”।

উপরোক্ত আলোচনায় এটাই প্রতীয়মান হয় যে, ‘আল্লাহ’ শব্দটির অনুবাদ কোনোভাবেই God হতে পারে না।

Re: God শব্দটি কি ‘আল্লাহ’র যথার্থ অনুবাদ?

সুবহান আল্লাহ। সবই আল্লাহার কুদরত।

Re: God শব্দটি কি ‘আল্লাহ’র যথার্থ অনুবাদ?

দারুন এ লেখাটা,
পড়ে লাগে ভালো বেশ,
আলো ভরা চারিদিকে,
ভালোর কি আছে শেষ।
http://upload.wikimedia.org/wikipedia/commons/thumb/0/01/Borassus_flabellifer.jpg/400px-Borassus_flabellifer.jpg

ছড়াবাজ'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: God শব্দটি কি ‘আল্লাহ’র যথার্থ অনুবাদ?

আমার যত সমস্যা লিখেছেন:

সুবহান আল্লাহ। সবই আল্লাহার কুদরত।

হুম, ধন্যবাদ।

ছড়াবাজ লিখেছেন:

দারুন এ লেখাটা,
পড়ে লাগে ভালো বেশ,
আলো ভরা চারিদিকে,
ভালোর কি আছে শেষ।
http://upload.wikimedia.org/wikipedia/commons/thumb/0/01/Borassus_flabellifer.jpg/400px-Borassus_flabellifer.jpg

ধন্যবাদ।

Re: God শব্দটি কি ‘আল্লাহ’র যথার্থ অনুবাদ?

চায়ের কাপে ঝড় তোলার মতো এই টপিকে কি আছে  hmm

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

Re: God শব্দটি কি ‘আল্লাহ’র যথার্থ অনুবাদ?

বিশ্লেষনী টপিক, ধন্যবাদ

Re: God শব্দটি কি ‘আল্লাহ’র যথার্থ অনুবাদ?

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

চায়ের কাপে ঝড় তোলার মতো এই টপিকে কি আছে  hmm

উনি ধরেই নিয়েছেন ধর্মীয় যে কোনো টপিকে এখানে ঝড় তুলা যাবে হয়তো  hehe

Rhythm - Motivation Myself Psychedelic Thoughts

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: God শব্দটি কি ‘আল্লাহ’র যথার্থ অনুবাদ?

আহমাদ মুজতবা লিখেছেন:
দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

চায়ের কাপে ঝড় তোলার মতো এই টপিকে কি আছে  hmm

উনি ধরেই নিয়েছেন ধর্মীয় যে কোনো টপিকে এখানে ঝড় তুলা যাবে হয়তো  hehe

তাহলে পোষ্টটা আমি কোন বিভাগে পোষ্ট করব? হাসির বাক্সে? কর্তৃপক্ষ যদি ধর্মীয় কোনো বিভাগ রাখত, সেক্ষেত্রে অন্য কথা ছিল। ভাল না লাগলে পড়ার দরকার নাই। আরো অনেক পোষ্ট আছে তো; সেগুলো পড়েন। আর আমি মনে করি, এটা আলোচনার বিষয়। কারণ সবাই সবজান্তা নয়। কেউ যদি একটু ভাল জানে, তো তাঁর কাছ থেকে আমার শিখতে অসুবিধা নাই।

Re: God শব্দটি কি ‘আল্লাহ’র যথার্থ অনুবাদ?

ফয়সল সাইফ লিখেছেন:

তাহলে পোষ্টটা আমি কোন বিভাগে পোষ্ট করব?

এটা বিবিধে হওয়া উচিত ছিল, আপনি অভিযোগ বাটনে ক্লিক করে রিকোয়েস্ট করলে বিবিধ বিভাগে সরিয়ে নেয়া হবে বর্তমান উপবিভাগ থেকে।

১০

Re: God শব্দটি কি ‘আল্লাহ’র যথার্থ অনুবাদ?

সহজ কথাটা সবাই সহজভাবেই বলুন। ফয়সল নতুন এসেছেন। ফোরামের নিয়ম-কানুন পুরোপুরি না জানাটাই স্বাভাবিক। উনাকে ভালভাবে দিকনির্দেশনা দেবেন সবাই। এটা ফোরামের বর্ষীয়ান সদস্যদের কাছ থেকে নূন্যতম কাম্য। এটা চায়ের কাপের ঝড় হতে কোন বাধা দেখছি না, যদি লেখক সেরকম মনে করেন। নিজ নিজ দৃষ্টিকোণকে পরম মনে করবেন না দয়া করে। ধন্যবাদ।

কিছু বাধা অ-পেরোনোই থাক
তৃষ্ণা হয়ে থাক কান্না-গভীর ঘুমে মাখা।

উদাসীন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১১

Re: God শব্দটি কি ‘আল্লাহ’র যথার্থ অনুবাদ?

অফটপিকঃ পুরানোদের সাথে সাথে নতুন সদস্যদেরও কথাবার্তায় আরেকটু সংযমী হওয়া উচিত বলে মনে করি। একেবারে পিনপয়েন্ট করে উল্লেখ করে দেয়া সত্ত্বেও (অন্য টপিকে) কোন একটা ভুল বিষয় নিয়ে কারও সাথে কুতর্ক করাটা খুবই দৃষ্টিকটু।

রাবনে বানাদি ভুড়ি :-(

১২

Re: God শব্দটি কি ‘আল্লাহ’র যথার্থ অনুবাদ?

জানি

এম. মেরাজ হোসেন
IQ: 113
http://www.iq-test.cc/badges/4774105_3724.png

১৩

Re: God শব্দটি কি ‘আল্লাহ’র যথার্থ অনুবাদ?

উদাসীন লিখেছেন:

সহজ কথাটা সবাই সহজভাবেই বলুন। ফয়সল নতুন এসেছেন। ফোরামের নিয়ম-কানুন পুরোপুরি না জানাটাই স্বাভাবিক। উনাকে ভালভাবে দিকনির্দেশনা দেবেন সবাই। এটা ফোরামের বর্ষীয়ান সদস্যদের কাছ থেকে নূন্যতম কাম্য। এটা চায়ের কাপের ঝড় হতে কোন বাধা দেখছি না, যদি লেখক সেরকম মনে করেন। নিজ নিজ দৃষ্টিকোণকে পরম মনে করবেন না দয়া করে। ধন্যবাদ।


ভাই আপনাকে ধন্যবাদ। এই ধরণের লেখা তৈরী করা খুব কষ্টসাধ্য ব্যাপার। অনেক সময় দিতে হয়। অবশ্য আমি আমার নিজের জন্যই লেখাগুলো তৈরী করে রাখছি। তো লেখাটা তৈরী হওয়ার পর মনে হয়; ব্লগ যেহেতু আছে দিয়ে দেই। যে পড়ার পড়ল। আর যেহেতু ধর্মীয় পোষ্ট রাখার কোনো জায়গা নেই, তাই বিবিধ আর চায়ের কাপে ঝড়; যেকোনো একটাতে দিলেই হলো। মানে আমি সেটা মনে করি আর কি। আপনাকে আবারো ধন্যবাদ।

১৪

Re: God শব্দটি কি ‘আল্লাহ’র যথার্থ অনুবাদ?

আমি ঠিক বুঝলাম না এখানে নতুন, পুরাতন এই ব্যপারটা কেন আসলো। এখানে কেউই ফয়সল ভাইয়ের টপিকের ভুল ধরেন নাই বা উনাকে ক্রিটিক করেন নাই। ডেডু ভাইয়ের কোয়েশ্চেন ছিলো যে টপিকে ঝড় তোলার মতো পয়েন্টটা কি আসলে। যেটা এক্সপ্লেইন চাইলেই করা যায়। আমি শুধু উনার কোয়েশ্চেন এর কারণে একটা প্লসিবল এক্সপ্লানেশন দিয়েছি। উনাকে ছোটো করার জন্য কোনো ইন্টেনশন কারো ছিলো বলে আমার মনে হয়না। তাও উনি কষ্ট পেয়ে থাকলে দুঃখিত, আপনার টপিক গুলো ভালই। এত ব্যস্ততার মধ্যেও সময় করে কমেন্ট করছি শুধু এই ধরনের টপিক হবার কারণে। অন্য পোস্টে আমার সমাগম আজকাল খুবই কম দাদা। মূর্খ্য মানুষ কি লিখতে কি লিখে বসি  smile

Rhythm - Motivation Myself Psychedelic Thoughts

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৫

Re: God শব্দটি কি ‘আল্লাহ’র যথার্থ অনুবাদ?

আহমাদ মুজতবা লিখেছেন:

আমি ঠিক বুঝলাম না এখানে নতুন, পুরাতন এই ব্যপারটা কেন আসলো। এখানে কেউই ফয়সল ভাইয়ের টপিকের ভুল ধরেন নাই বা উনাকে ক্রিটিক করেন নাই। ডেডু ভাইয়ের কোয়েশ্চেন ছিলো যে টপিকে ঝড় তোলার মতো পয়েন্টটা কি আসলে। যেটা এক্সপ্লেইন চাইলেই করা যায়। আমি শুধু উনার কোয়েশ্চেন এর কারণে একটা প্লসিবল এক্সপ্লানেশন দিয়েছি। উনাকে ছোটো করার জন্য কোনো ইন্টেনশন কারো ছিলো বলে আমার মনে হয়না। তাও উনি কষ্ট পেয়ে থাকলে দুঃখিত, আপনার টপিক গুলো ভালই। এত ব্যস্ততার মধ্যেও সময় করে কমেন্ট করছি শুধু এই ধরনের টপিক হবার কারণে। অন্য পোস্টে আমার সমাগম আজকাল খুবই কম দাদা। মূর্খ্য মানুষ কি লিখতে কি লিখে বসি  smile

ধন্যবাদ ভাই। আমিও এজন্য এখানে টপিকগুলো দেই। বাস্তবে কারো সাথে এসব নিয়ে খুব একটা আলোচনা করি না।