টপিকঃ আমার সেণ্টমার্টিন যাত্রার শুরু।

আমরা ক্লাশ থেকে সবাই সেন্টমার্টিন দ্বীপে বেড়াতে গেলাম একদিনের জন্য।মাঝে অনেক বাধা-বিপত্তি ছিল।এর মধ্যে ঐ দিনই কক্সবাজারে হরতাল ছিল বলে বাসের চালক ১ ঘন্টা ধরে কক্সবাজারে বাস বন্ধ করে রাখে।তাকে যতই বুঝানো হত তার একই উত্তর তার ৫০ লক্ষ টাকার বাস এর রিস্ক নিতে হবে নয়তো সে যাবে না।আর এই দিকে আমরা যদি কক্সবাজার থাকি তো আমাদের সেন্টমার্টিন যাওয়া বাদ হবে,কারণ আগে থেকে সব বুক করা আসে এবং একদিন কক্সবাজারে অতিরিক্ত থাকার মত টাকা আমাদের পকেটে ছিল না।

সবাই মিলে আশে-পাশে খোঁজ নিল,টহলরত পুলিশদের সাথে কথা বলল।ড্রাইভার কে বোঝানোর চেষ্টা করল।এক পর্যায়ে সে মানল তো বাসের সুপারভাইজার উলটে গেল!!এবার তাকে বুঝানোর চেষ্টা।
যত বুঝায় সে তত বাঁকায়।যে বুঝতে চায় তাকে তো বুঝানো যায় কিন্তু যে বুঝে না তাকে?

আমাদের এই দিকে ৯ টার সময় জাহাজে উঠার কথা।তখনো ৭ টা বাজে আমরা বাসে বসে বাস চালক আর সুপারভাইজারেকে বুঝানোর চেষ্টা করে যাচ্ছিলাম যে ছাত্রদের বনভোজনের বাসে হরতাল এ কিছুই হবে না,আপনি বাস চালানো শুরু করেন।নাহ সে তো ত্যাড়ার ত্যাড়া!আমরা অনেকেই ভাবলাম বুঝি ট্যুর এখানেই শেষ!!

শেষ মুহূর্তে আর বুঝানোতে কাজ না দেখে রেগে গেল আমাদের কিছু বন্ধু।তারা বলল খালি আপনি আর আপনার বাস এর পড়ে রইছে আর বাস ভর্তি এতগুলো ছাত্র-ছাত্রীদের কিছু না?
রেগে গেলে বাস চালক বাস চালানো শুরু করে!এক বন্ধু এক ফাঁকে জাহাজে লোকের সাথে ফোন করে কথা বলে নেয়।
আমরা হাফ ছেড়ে বাঁচলাম,তারপরও অনিশ্চয়তা ছিল প্রবল ঠিক মত পৌঁছতে পারিব কিনা তা নিয়ে!
মাঝে দুই বার বাস থামায় হরতালকারীরা,কিন্তু আমাদের বন্ধুরা নেমে কথা বললে বাস ছেড়ে দেয়।
আমাদের বাস ৯ঃ১০ এ টেকনাফে পৌছে।তাড়াতাড়ি নাস্তা করে আমরা ৯ঃ৩০ এ সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে জাহাজ কুতুবদিয়াতে যাত্রা শুরু করি।

Re: আমার সেণ্টমার্টিন যাত্রার শুরু।

শুধু যাত্রা করলেন। আর কিছুনা। ভ্রমনটা একটু আগে বাড়ান।

এক জীবনই সম্পূর্ন নয়।..

My e-mail address