টপিকঃ বিপিএলএ স্পট ফিক্সিংয়ের অভিযোগ

১২.২ ওভারের সময় ক্যামেরন বরগ্যাসের যে রান আউটটি ছিল সেটি হতে পারে না। কারণ সেই সময় তাকে একজন ফিল্ডার আটকে দিয়েছিলেন। আর আম্পায়ার সেই আউটটি কিভাবে দিয়েছে বোঝাই যায়। শুধু তাই না, ম্যাচ চলাকালে স্কোর বোর্ড অচল হওয়া, কম্পিউটার নষ্ট হওয়া সর্বোপরি চ্যানেল-৯ ম্যাচটি রাতে পুনঃপ্রচার না করায় আমার সন্দেহ আরও ঘনীভূত হয়েছে - এইসব কারন দেখিয়ে রংপুর রাইডার্সের মালিক মোস্তফা রফিকুল ইসলাম সরাসরি অভিযোগ তুলেছেন স্পট ফিক্সিংয়ের

Manobjamin

নানা অব্যবস্থাপনা নিয়ে এগিয়ে চলছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ (বিপিএলে)’র দ্বিতীয় আসর। তবে প্রথম আসরে শুরু থেকে ফিক্সিং শব্দটি উঠে এসেছিল এবার আড়ালে ছিল এই ভয়াবহ শব্দটি। কিন্তু শেষরক্ষা হলো না। রংপুর রাইডার্সের মালিক মোস্তফা রফিকুল ইসলাম সরাসরি অভিযোগ তুলেছেন স্পট ফিক্সিংয়ের। ২৫শে জানুয়ারি খুলনার বিপক্ষে রংপুরের পরাজয়কে তিনি দেখছেন স্পট ফিক্সিং হিসেবেই। ২৫ তারিখ দিবাগত রাতে প্রথম গণমাধ্যমকে বিষয়টি জানান তিনি। আর গতকাল রফিকুল ইসলাম মানবজমিনকে বলেন, ‘খুলনার বিপক্ষে রংপুর স্পট ফিক্সিংয়ের শিকার হয়েছে। ১২.২ ওভারের সময় ক্যামেরন বরগ্যাসের যে রান আউটটি ছিল সেটি হতে পারে না। কারণ সেই সময় তাকে একজন ফিল্ডার আটকে দিয়েছিলেন। আর আম্পায়ার সেই আউটটি কিভাবে দিয়েছে বোঝাই যায়। শুধু তাই না, ম্যাচ চলাকালে স্কোর বোর্ড অচল হওয়া, কম্পিউটার নষ্ট হওয়া সর্বোপরি চ্যানেল-৯ ম্যাচটি রাতে পুনঃপ্রচার না করায় আমার সন্দেহ আরও ঘনীভূত হয়েছে। আমি মনে করি এই ফিক্সিংয়ের সঙ্গে আম্পায়ার ও খুলনার কর্মকর্তারা জড়িত। আমি এর মধ্যে বিসিবিকে জানিয়েছি। এখন আইসিসিকেও জানাবো।’ এই বিষয়ে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিক বলেন, ‘আমরা বিষয়টি জেনেছি। এখানে আইসিসির অ্যান্টিকরাপশন টিম (আকসু) আছে তারাও বিষয়টা দেখবেন। আর চ্যানেল নাইন কেন ম্যাচ রিপ্লে করেনি তা ওদের কর্তৃপক্ষই বলতে পারবে।’ শুক্রবার রংপুরের বিপক্ষে আবারও শাহরিয়ার নাফীসের ফিফটিতে ভর করে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৫০ রানের টার্গেট ছুড়ে দেয় রংপুরকে। জবাবে নাসির হোসেনের অপরাজিত ৭০ রানও বাঁচাতে পারেনি রংপুর রাইডার্সের দ্বিতীয় হার। আর এখানেই অভিযোগ তুলেছেন রংপুরের মালিক রফিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘তিন ম্যাচ হারার পর খুলনা এমন একটি দুর্বল দলকে নিয়ে পর পর দুই ম্যাচ জিতে যায় কিভাবে? আমার সেখানেও সন্দেহ আছে। আমরা ঢাকার বিপক্ষে চেজ করে ১৬৭ করেছি। চিটাগাং কিংস ও বরিশালের মতো শক্তিশালী দলের বিপক্ষে জয় তুলে নিয়েছি। আর সেখানে এভাবে হেরে যাওয়া মানতে পারি না। আমি মনে করি এটা প্ল্যান করেই আমাদের হারানো হয়েছে।’
এছাড়াও তিনি আরও অভিযোগ করেন, ‘ধামি ভোর পাঁচটা পর্যন্ত অপেক্ষা করেছি। কিন্তু চ্যানেল নাইন ঢাকার ম্যাচটি পুনঃপ্রচার করলেও আমাদের ম্যাচটি করেনি। আমার সেখানে কিছুটা ‘কিন্তু’ মনে হয়েছে। কি কারণে তারা এমন করলেন?’ তবে ম্যাচের পুনঃপ্রচারের বিষয়টিকে চ্যানেল-৯ এর একান্ত নিজস্ব বিষয় বলেই উল্লেখ করেন মল্লিক। তিনি বলেন, ‘ধামরা তো ব্রডকাস্টার না। তারা কোন ম্যাচ কখন দেখাবেন সেটা তাদের বিষয়।’ এছাড়াও ফিক্সিংয়ের অভিযোগ নিয়ে মল্লিক বলেন, ‘আমরা ফিক্সিং রোধে আইসিসির এন্টি করাপশন টিম আকসুকে ৩ কোটি টাকা খরচ করে বিপিএলের সঙ্গে সম্পৃক্ত করেছি। আশা করি বিষয়টি আকসু ভালভাবে অনুসন্ধান করবে। আর তাদের কাছে ভিডিও ফুটেজ আছে, ইচ্ছা করলে তারা যত বার ইচ্ছা সেই ফুটেজ দেখে সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন। আর রংপুর রাইডর্সের মালিকপক্ষও যে কোন সময় সেই ম্যাচের ফুটেজ সংগ্রহ করতে পারবেন।’ রংপুর রাইডার্সের মালিক রফিকুল ইসলাম বলেছেন, ‘আমি জানি এই অভিযোগের কারণে আমি ও আমার দল আজীবন নিষিদ্ধ হতে পারে। যদি ভুল প্রমাণ হয়। তবুও আমি চাই বিপিএল হোক স্বচ্ছ একটি আসর। কারণ আমার দেশকে আমি ভালবাসি। আর দেশের সবকিছু ভাল হোক তা আমি চাই। অন্যদিকে এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত খুলনা রয়েল বেঙ্গলের ম্যানেজারকে অনেকবার চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি। আর তাই বিষয়টি নিয়ে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত খুলনার কোন প্রতিক্রিয়াও জানা যায়নি।

"We want Justice for Adnan Tasin"

Re: বিপিএলএ স্পট ফিক্সিংয়ের অভিযোগ

অভিযোগটি কি সত্য? যদি সত্য হয় তাহলে যথাযথ তদন্ত করে দেখা হোক। প্রথম আসরেও স্পট ফিক্সিং কালোছায়া ফেলেছিল, আমরা চাইনা এবারের আসরটিও বিতর্কিত হোক।

মুক্ত অভি'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন shitol69 (২৮-০১-২০১৩ ১৬:৩৭)

Re: বিপিএলএ স্পট ফিক্সিংয়ের অভিযোগ

আজাইরা.

আউল লিখেছেন:

রংপুরের মালিক রফিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘তিন ম্যাচ হারার পর খুলনা এমন একটি দুর্বল দলকে নিয়ে পর পর দুই ম্যাচ জিতে যায় কিভাবে?

এই লোক ক্রিকেট বুঝেনা.
বুঝলে এই কথা বলতোনা.

বর্গাস কে কি ফিল্ডার ইচ্ছা করে আটকে রেখেছিল?
অবশ্যই না. আর একটা ডিসিশন বিপক্ষে গেলেই খেলা হারতে হবে?
লেম এক্সকিউজ.

আর এমন ঘটনাকে স্পট ফিক্সিং বলেনা.

লেখাটি CC by-nd 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: বিপিএলএ স্পট ফিক্সিংয়ের অভিযোগ

অঃটঃ

এছাড়াও তিনি আরও অভিযোগ করেন, ‘ধামি ভোর পাঁচটা পর্যন্ত অপেক্ষা করেছি।
ধামরা তো ব্রডকাস্টার না। তারা কোন ম্যাচ কখন দেখাবেন সেটা তাদের বিষয়।’

বোল্ড করা অংশগুলোতে মনে হয় যথক্রমে আমি ও আমরা বসবে ।

Re: বিপিএলএ স্পট ফিক্সিংয়ের অভিযোগ

স্কোরবোর্ড কাজ না করার সাথে ম্যাচ ফিক্সিং এর মিল??? উনি কি চাচা চৌধুরী নাকি???নাকি শার্লক হোমস!!!