টপিকঃ একদিন ছুটির দিনে

আশরাফ মালয়েশিয়া যাওয়ার পর থেকে পাসপোর্ট করার একটা প্রয়োজনীয়তা পরিলক্ষিত হচ্ছিল। কিন্তু পরীক্ষার কারনে বিগত দুই মাসে ছুটি একদমই পাই নাই। আর মজার বিষয় হচ্ছে এই দুই মাস এ আমার শেষ পাসপোর্টের এর ইস্যু ১২ বছর অতিক্রম করে ফেলে। যাইহোক গত বুধবার পাসপোর্ট করার জন্য অফিস থেকে ছুটি নিলাম  smile

সকাল ৯টায় বাসা থেকে বের হয়ে আগারগাও গেলাম। পৌছাতে পৌছাতে প্রায় ১০ টা বেজে যায়। আব্বু বার বার বলছিল যে কাউকে ধরে লাইনটা অতিক্রম করে আগে আগে টাকা জমা করার। কিন্তু আমি ঠিক করলাম যে না সঠিক পথেই যাই। তো লাইন ক্রস করে টাকা দিতে ১১ টা বেজে যায়

টাকা দেয়ার লাইনে একটা জিনিষ দেখলাম। বোর্ডে লাগানো আছে যে, পাসপোর্ট এর টাকার সাথে ভ্যাট দিতে হবে। তো ভ্যাট এর পরিমান যদি ১৫% হয় তাহলে, ৩০০০ টাকার জন্য লাগবে ৪৫০ টাকা ভ্যাট। কিন্তু ব্যঙ্কে কোনো ভ্যাট নেয়া হচ্ছে না। এ নিয়ে তাদের কোনো মাথা ব্যাথা নেই। অপর দিকে প্রতিজনের কাছ থেকে ১০ টাকা করে ঘুষ নেয়া হচ্ছে। এনিয়ে সবার অনেক অনেক মাথা ব্যাথা। কেন ১০ টাকা ঘুষ দিবো, এটা ঠিক নাকি না  এসব নিয়ে তাদের চিন্তার শেষ নাই। কিন্তু তারা বুঝে না যে তাদের ৪৫০-১০= ৪৪০ টাকা লাভ হচ্ছে আর সরকারের ৪৫০ টাকা ক্ষতি হচ্ছে। তারা শুধু নিজেদের ১০ টাকা ক্ষতিটাই দেখে।

যাইহোক টাকা জমা দেবার পর আবার আবেদন এর কপি ঠিক আছে নাকি জানার জন্য আরেকটা বিরাট লম্বা লাইনে দাঁড়াতে হয়। আমি প্রায় ১০০ জনের পিছনে দাঁড়ালাম। সেই লাইন এ প্রায় ১.১৫ ঘন্টা দাঁড়িয়ে ছিলাম। এরপর অতি কষ্টে যখন এক্সামাইনার এর সামনে দাঁড়ালাম  crying, তখন উনি প্রথমে আমার ছবির সত্যয়ন নিয়ে প্রশ্ন তুললো। একটা ছবির উপর সত্যয়ন করতে গেলে অবশ্যই লেখতে সমস্যা হবে। বিজ্ঞ ব্যক্তির ধারনা আমি ওই ব্যক্তিকেই জানি না। তাই আমি বললাম যে দয়া করে ওনাকে ফোন করে দেখেন যে আমি তাকে বা উনি আমাকে চিনেন নাকি। এই যাত্রায় কিছু করতে না পেরে উনি আরেক রাস্তা ধরলেন। আগেই উল্লেখ করেছিলাম আমার পাসপোর্টের ১২ বছর শেষ হয়ে গিয়েছিল। তো উনি বললো যে এই জন্য আমার আরেক কপি আবেদন লাগবে। এখন আমি সত্যয়ন কোথা থেকে করবো??? তাই আমাকে লাইন থেকে নিরাশ হয়ে বের হয়ে যেতে হল  crying crying

এই দুঃখ ভরা মন নিয়ে আমি আর আমার পাড়াতো বন্ধু মিলে গেলাম বানিজ্য মেলা দেখতে। ক্যামেরাটা যে কেন সকাল বেলা নিলাম না তা নিয়ে আরেক চোট  angry হল। যাইহোক, এরপর আমরা গেলাম ওয়ালটন এর সেট দেখতে। সেট গুলো দেখে মনে হলো ভালই আছে, কিন্তু অতোটা মসৃন না। এরপর গেলাম স্পিড এর স্টল এ। ওখানে বাইরে রাখা ভাঙ্গা গাড়িটা দেখে মায়াই লাগলো।

এরপর খাওয়ার সময় এসে পড়লো। আমি অবশ্য পাসপোর্ট অফিস থেকে বের হয়েই একদফা খেয়ে নিয়েছিলাম। ভুনা খিচুরি আর সিপির চিকেন ব্রেস্ট খেতে খরচ হয়েছিল ২৫০ টাকা। তারপরও সঙ্গে থাকা বন্ধুকে বললাম যে কোথায় খাবেন, হাজীর বিরিয়ানি নাকি অন্য কোথাও। তো সে হাজীর বিরিয়ানির কথাই বললো। আমি বললাম, দেইখেন গলা কাঁটবে। যাইহোক, এরপর আমরা খাবার এর তালিকায় কিঞ্ছিত চোখ ভুলিয়ে ঢুকে পড়লাম প্যাভিলিয়নে। অর্ডার করলাম কাচ্চি বিরিয়ানি। সাথে ওরা দিল পানি আর সালাদ। আর হাত ধুয়ার ব্যবস্থা করলো একটা গামলায়। হাফ প্লেট কাচ্চি বিরিয়ানি খাওয়ার পর বিল দেখে চক্ষু আর চক্ষু থাকলো না। বিল এমনঃ
বিরিয়ানি ৬৪০
সালাদ ৭০
পানি ২০
ভ্যাট ৮০
সার্ভিস চার্জ ৭০
মোট বিল ৮৮০
ভুলবশত আমরা কেউ কাচ্চির দাম দেখে প্যাভিলিয়নে ঢুকি নাই। তো যেহেতু ভ্যাট নিবে ৮০ টাকা, তাই আমি বললাম ভ্যাট চালান দিতে, উনারা একটা নীল কাগজে ৮৮০ টাকা লিখে দিল। আমি ফেরত পাঠালাম দোকানের নাম লিখে দেয়ার জন্য। এদিকে ওনাদের কটমট চাহনি। শুধু নাম লিখে ফেরত পাঠালো। এইবার বললাম ভ্যাট নাম্বার কই। ওরা কেউ জানে না ভ্যাট নাম্বার কতো। কোথা থেইকা একজন রে ধইরা আনলো। উনি কিসব নাম্বার বললো। তখন আর কিছু না বলে বিল দিয়ে বের হলাম মেলা থেকে। এদিকে ৪৪০ টাকার বিরিয়ানি খাইসে শুইনা সাথের বন্ধুর মাথা পুরাই আউট। আমি বাকি রাস্তা তাকে শুধু মনে করায় দিসি যে বিরিয়ানি খাইসে তাও ৪৪০ টাকার  tongue_smile

মেলা থেকে বের হয়ে কোনো যানবাহন না পেয়ে, প্রায় এক কিলো হেঁটে গেলাম সোরওয়ার্দীর সামনে। সেখান থেকে ৫০ টাকা ভাড়া দিয়ে রিক্সা নিয়ে বাসায় ফিরলাম।

এই ছিল আমার ছুটির দিন  hairpull

Re: একদিন ছুটির দিনে

আপনার দিন তো দারুণ গেছে  big_smile
আমি সবসময় বিল নিই..... রাগ হলে স্ক্যান করে ঠিক জায়গায় পাঠিয়ে দেব ....  big_smile

গল্প-কবিতা - উদাসীন - http://udashingolpokobita.wordpress.com/
ছড়া - ছড়াবাজ - http://chhorabaz.wordpress.com/

Re: একদিন ছুটির দিনে

কিছু কিঝু বিষয়ে সেভারাস ভাইয়ের সাথে আমার মিল আছে।

Re: একদিন ছুটির দিনে

সুন্দর একটা লেখা প্লাস নেন।

শুধু এক হাফ প্লেট কাচ্চির দান বিরিয়ানি ৬৪০ ?? নাকি হয় হাফ ??

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

Re: একদিন ছুটির দিনে

সুন্দর লিখছেন সেভারাস ভাই......

আসলেই কষ্ট লাগে স্বার্থপরতা দেখলে দেশের মানুষগুলোর
ভ্যাট ফাকি কেন যে দেয় ওরা

ভ্রাম্যমান আদালত গেল কই ?........ মাঝে মাঝে ওদের ধরা উচিত

জাযাল্লাহু আন্না মুহাম্মাদান মাহুয়া আহলুহু......
এই মেঘ এই রোদ্দুর

Re: একদিন ছুটির দিনে

বাণিজ্য মেলায় কখনই দাম না করে কোন খাবার দোকানে ঢুকে খাবে না। তাহলেই গলা কাটবে। বরং আপনি আগেই যদি দাম করেন তাহলে বারগেইন করে দাম অনেক কমাতে পারবেন। আমি একবার ১০ টা ফুচকা খেয়েছিলাম ১০০ টাকা খরচ করে। এরপর আরেকবার ৮ টা ফুচকা ৪০ টাকায় খেয়েছিলাম বারগেইন করে। তাই এখন থেকে সবসময়ই দামাদামি করে নিই। পছন্দ হলে ঢুকি না হলে ঢুকি না। প্রতিটা দোকানই দামাদামি করলে ১০-৫০ টাকা কমিয়ে রফা করা যায়। ভাগ্য ভাল হলে আরও বেশি।

মজার ব্যাপার হল বাণিজ্য মেলার বাইরের চটপটি ফুচকার দোকানে প্রতি প্লেটের দাম মাত্র ৩০ টাকা। এবং এরা ভাল ফুচকা বানায়। অথচ ভেতরে গলা কাটা দাম নেয়।

Feed থেকে ফোরাম সিগনেচার, imgsign.com
ব্লগ: shiplu.mokadd.im
মুখে তুলে কেউ খাইয়ে দেবে না। নিজের হাতেই সেটা করতে হবে।

শিপলু'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: একদিন ছুটির দিনে

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

সুন্দর একটা লেখা প্লাস নেন।

শুধু এক হাফ প্লেট কাচ্চির দান বিরিয়ানি ৬৪০ ?? নাকি হয় হাফ ??

দুটি হাফ প্লেট কাচ্চি

শিপলু লিখেছেন:

বাণিজ্য মেলায় কখনই দাম না করে কোন খাবার দোকানে ঢুকে খাবে না। তাহলেই গলা কাটবে। বরং আপনি আগেই যদি দাম করেন তাহলে বারগেইন করে দাম অনেক কমাতে পারবেন। আমি একবার ১০ টা ফুচকা খেয়েছিলাম ১০০ টাকা খরচ করে। এরপর আরেকবার ৮ টা ফুচকা ৪০ টাকায় খেয়েছিলাম বারগেইন করে। তাই এখন থেকে সবসময়ই দামাদামি করে নিই। পছন্দ হলে ঢুকি না হলে ঢুকি না। প্রতিটা দোকানই দামাদামি করলে ১০-৫০ টাকা কমিয়ে রফা করা যায়। ভাগ্য ভাল হলে আরও বেশি।
মজার ব্যাপার হল বাণিজ্য মেলার বাইরের চটপটি ফুচকার দোকানে প্রতি প্লেটের দাম মাত্র ৩০ টাকা। এবং এরা ভাল ফুচকা বানায়। অথচ ভেতরে গলা কাটা দাম নেয়।

দরদাম দেখেই ঢুকেছিলাম, শুধু কাচ্চিটা মিস করসিলাম  sad

ইলিয়াস লিখেছেন:

কিছু কিঝু বিষয়ে সেভারাস ভাইয়ের সাথে আমার মিল আছে।

যেমন?

ছবি-Chhobi লিখেছেন:

আসলেই কষ্ট লাগে স্বার্থপরতা দেখলে দেশের মানুষগুলোর
ভ্যাট ফাকি কেন যে দেয় ওরা
ভ্রাম্যমান আদালত গেল কই ?........ মাঝে মাঝে ওদের ধরা উচিত

সরকারী ব্যাঙ্ক এ কি আর ভ্রাম্যমান আদালত আসে?

Re: একদিন ছুটির দিনে

ছবি-Chhobi লিখেছেন:

ভ্যাট ফাকি কেন যে দেয় ওরা

আপনি কিচ্ছু ফাঁকি দেন না বুঝি ?  lol
আমি ট্যাক্স ফাঁকি দিই...... বৈধ ভাবে.......  yahoo

শিপলু লিখেছেন:

মজার ব্যাপার হল বাণিজ্য মেলার বাইরের চটপটি ফুচকার দোকানে প্রতি প্লেটের দাম মাত্র ৩০ টাকা। এবং এরা ভাল ফুচকা বানায়। অথচ ভেতরে গলা কাটা দাম নেয়।

এর একটা কারণ হল বাইরের দোকানা, বা ফুটপাথের স্টলকে কিন্তু মেলার স্টলের মত রীতিমত ভাড়া গুনে দিতে হয় না সম্ভবত কয়েকটি দিনের জন্য. খাবারের দামের সাথে স্টল ভাড়ার একটা অংশ প্লাস সার্ভিস চার্জ ও ভ্যাট ধরতেই হয়. রাস্তার দোকান বা স্টলগুলি কিন্তু ভ্যাট বা সার্ভিস ট্যাক্স দেয় না, তাই সস্তা...... smile

গল্প-কবিতা - উদাসীন - http://udashingolpokobita.wordpress.com/
ছড়া - ছড়াবাজ - http://chhorabaz.wordpress.com/