টপিকঃ রেসিপি: মাছের বিরিয়ানি - বাকী অংশটুকু

মাছের বিরিয়ানি

৬. চাল ধুয়ে মিনিট ১৫ ছড়িয়ে রাখুন। এটা জরুরী তা না হলে ভালো ভাত হবে না। এবার হাড়িতে জলপাই তেল গরম করে চাল, মটরশুটি, বীন দিয়ে ৫/১০ মিনিট ভাজুন। বেশি ভাজবেন না খেয়াল রাখবেন।

http://i48.tinypic.com/2mo8j7n.jpg

৭. ওদিকে মাছ হয়েছে কিনা দেখে আসা যাক। মাঝে ঢাকনা সরিয়ে লবনটা চেখে দেখেন। একটু সামান্য বেশি লবন দিলে ক্ষতি নাই। ভাত দিয়ে পুষিয়ে যাবে।

http://i48.tinypic.com/15wgfv9.jpg

৮. ভাজা চালে তিন আঙ্গুল উচ্চতার পানি দিয়ে সিদ্ধ হতে দিন। মনে রাখবেন - পুরো সিদ্ধ কিন্তু হবে না - আধা সিদ্ধ হবে। ওদিকে মাছ সিদ্ধ হয়ে এলে একটু ঝোল ঝোল থাকতে নামিয়ে নেন। খেয়াল রাখবেন যেন মাছের উপর তেলের স্তরটা দেখতে পান। এটার অর্থ রান্না হো গ্যায়া!   ১০/১৫ মিনিট পর ভাত আধা সিদ্ধ হয়ে গেলে আঁচ কমিয়ে দিন। হাড়িতে ভাতের একটা হালকা স্তর রেখে বাকী ভাতটা একটা বৌল -এ রেখে দিন।

http://i45.tinypic.com/29p2l28.jpg

৯. এক স্তর ভাত এবং আরেক স্তরে মাছ এবং মাছের ঝোল - এভাবে পরপর দিন।

http://i50.tinypic.com/27yvkwj.jpg

১০. সবটা দেয়া শেষ হলে ঢেকে দিয়ে অল্প আঁচে আরো ১০/১৫ মিনিট রাখুন। মাঝে একবার খুব সাবধানে (অসুরের শক্তি খাটানো নিষ্প্রয়োজন! লুল ) উল্টিয়ে পাল্টিয়ে দিন। 

http://i46.tinypic.com/nn2yxf.jpg

১১. অবশেষে দেখুন কী বস্তুটা পাকানো হলো। আমার ডেকোরেশান আইডিয়া ভয়াবহ! সো, এই খানে আমাকে মাফ করবেন  tongue_smile

http://i46.tinypic.com/rv8xfa.jpg

দ্যটস্‌ অল ফর নাও। মাছের বিরিয়ানি রেডী big_smile এখন খাইয়া-দাইয়া ঢেকুর তুলুন। তবে, আমার মত ম্লেচ্ছদের দেশে থাকলে ভুলেও শব্দ করে কাজটি করবেন না। যে অপমান হবেন, আজীবন মনে রাখার জন্য যথেষ্ট ! হা আ হা হা। ভালো থাকুন সবাই।

কিছু বাধা অ-পেরোনোই থাক
তৃষ্ণা হয়ে থাক কান্না-গভীর ঘুমে মাখা।

উদাসীন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: রেসিপি: মাছের বিরিয়ানি - বাকী অংশটুকু

চটকদার বর্ননা ও সুন্দর ফটোগুলো ভালো লাগলো । কস্টিত এলাচ দিতে পারলাম না ।

আপনি সম্প্রতি এই সদস্যকে সম্মাননা দিয়েছেন। এই সদস্যকে আবার সম্মাননা দিতে আপনাকে আরও কিছুক্ষণ সময় অপেক্ষা করতে হবে

এই লিখা আসছে hairpull hairpull hairpull

ভালোবাসা উষ্ণতা জাগায় বটে......
তবে এ কাজটি দ্রুততার সাথে করে ভদকা.......

Re: রেসিপি: মাছের বিরিয়ানি - বাকী অংশটুকু

ধন্যবাদ কোথাও কেউ নেই ভাই! আজকে একটা দিয়েছেন তো..আগামীকাল ছাড়া আর দিতে পারবেন না। সে যাক, ব্যাপার না। পরে সময় করে দিয়ে দিবেন। এইমাত্র খেলাম - ভালোই হয়েছে বলতে হবে...আপনাদের খাওয়াতে পারলে ভালো লাগতো! sad

কিছু বাধা অ-পেরোনোই থাক
তৃষ্ণা হয়ে থাক কান্না-গভীর ঘুমে মাখা।

উদাসীন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: রেসিপি: মাছের বিরিয়ানি - বাকী অংশটুকু

আপনি আর কি কি পারেন বলুন তো? সর্ব গুণে গুনান্বিত দেখছি৷ যদি মাছটা বাদ দিতেন তবে বেশ কিছুটা সাবাড় করে দিতাম৷ কিন্তু মাছ-এর গন্ধ যে সহ্য করতে পারি না৷

গল্প-কবিতা - উদাসীন - http://udashingolpokobita.wordpress.com/
ছড়া - ছড়াবাজ - http://chhorabaz.wordpress.com/

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন ফায়ারফক্স (১৩-১০-২০১২ ০৬:৪৬)

Re: রেসিপি: মাছের বিরিয়ানি - বাকী অংশটুকু

ছবি আর্ধেক আর্ধেক কেন  আসে??

ঊত্তর পাইছি টিনিতে আপ্লোড করলেই এই ঝামেলা প্লিজ দাদা imgur  এ আপলোড করেন।
আমরা রান্না খেতে না পারি কিন্তু ছবি থেকে কিছুতেই বঞ্চিত করবেন না............... sad sad sad

Re: রেসিপি: মাছের বিরিয়ানি - বাকী অংশটুকু

ধন্যবাদ সবাইকে। ফায়ারফক্স ভাই, ছবিগুলোর আকার অনেক বড় তো...ইমগারে দিলেও আপলোড হতে সময় লাগবে  sad

কিছু বাধা অ-পেরোনোই থাক
তৃষ্ণা হয়ে থাক কান্না-গভীর ঘুমে মাখা।

উদাসীন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: রেসিপি: মাছের বিরিয়ানি - বাকী অংশটুকু

উদাসিন'দা দেশে আসবেন কবে ? আপনার মাছের বিরিয়ানি আপনার হাতের রান্না খেতে হবে । ।  clap

Re: রেসিপি: মাছের বিরিয়ানি - বাকী অংশটুকু

যাক, অনেকদিন পর প্রজন্মে ভালো একখান খানা-পিনা হইল। উদাসীন ভাইয়ের জন্য:

http://www.crafts4kids.co.uk/prodzoomimg4788.jpg

Re: রেসিপি: মাছের বিরিয়ানি - বাকী অংশটুকু

উদাসীন লিখেছেন:

আমার মত ম্লেচ্ছদের দেশে থাকলে ভুলেও শব্দ করে কাজটি করবেন না। যে অপমান হবেন, আজীবন মনে রাখার জন্য যথেষ্ট ! হা আ হা হা। ভালো থাকুন সবাই।

শব্দ করে খাওয়াটা আমিও একেবারেই সহ্য করতে পারি না। অনেকে আছেন খাবার সময় চাকুস চাকুম শব্দ করেন। sad

১০

Re: রেসিপি: মাছের বিরিয়ানি - বাকী অংশটুকু

অঃটঃ - আচ্ছা এত পরিস্কার পরিচ্ছন্নভাবে নিজেই পুরো কাজটা সম্পন্ন করেছেন নাকি বোনের সাহায্য নিয়েছেন?  smile

গল্প-কবিতা - উদাসীন - http://udashingolpokobita.wordpress.com/
ছড়া - ছড়াবাজ - http://chhorabaz.wordpress.com/

১১

Re: রেসিপি: মাছের বিরিয়ানি - বাকী অংশটুকু

উদাসীন ভাইয়ের শরীর খারাপ মনে হয়, ১১ তারিখের পরে আর কোন পোস্ট নেই। sad

১২

Re: রেসিপি: মাছের বিরিয়ানি - বাকী অংশটুকু

Arun লিখেছেন:

অঃটঃ - আচ্ছা এত পরিস্কার পরিচ্ছন্নভাবে নিজেই পুরো কাজটা সম্পন্ন করেছেন নাকি বোনের সাহায্য নিয়েছেন?  smile

ছেলেরা "চাইলে" সব কিছু পরিষ্কার করেই করতে পারে। আর মেয়েরা চাইলেও রান্না করে রান্নাঘর অপরিষ্কার  রাখতে পারে না।
প্রথমজনের আছে ডিটারমিনেশন। আর পরের জনের অভ্যেস।

Feed থেকে ফোরাম সিগনেচার, imgsign.com
ব্লগ: shiplu.mokadd.im
মুখে তুলে কেউ খাইয়ে দেবে না। নিজের হাতেই সেটা করতে হবে।

শিপলু'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

১৩

Re: রেসিপি: মাছের বিরিয়ানি - বাকী অংশটুকু

শিপলু লিখেছেন:

আর মেয়েরা চাইলেও রান্না করে রান্নাঘর অপরিষ্কার  রাখতে পারে না।

  ভুল কথা। অনেকের জন্য সত্য হলেও প্রত্যেকের জন্য না।

"সংকোচেরও বিহ্বলতা নিজেরই অপমান। সংকটেরও কল্পনাতে হয়ও না ম্রিয়মাণ।
মুক্ত কর ভয়। আপন মাঝে শক্তি ধর, নিজেরে কর জয়॥"

১৪

Re: রেসিপি: মাছের বিরিয়ানি - বাকী অংশটুকু

মানুষ যে কেন খাবারদাবারের লোভনীয় সব ছবি দেয়!

আমার সকল টপিক

কোনো কিছু বলার নেই আজ আর...

১৫

Re: রেসিপি: মাছের বিরিয়ানি - বাকী অংশটুকু

আরণ্যক লিখেছেন:
শিপলু লিখেছেন:

আর মেয়েরা চাইলেও রান্না করে রান্নাঘর অপরিষ্কার  রাখতে পারে না।

  ভুল কথা। অনেকের জন্য সত্য হলেও প্রত্যেকের জন্য না।

অনেকের জন্য সত্য হলেও প্রত্যেকের জন্য না। এই কথা কিন্তু আরো অসংখ্য ক্ষেত্রে বলা যায়। যেমন

মেয়েদের চুল লম্বা।
ছেলেরা শক্ত সমর্থ।
বাঙালি আলসে।
প্রজন্মে সবাই বাংলায় লেখে।
প্রোগ্রামিং করা সহজ বা কঠিন।
রান্না করা মেয়েদের জন্য সহজ।
যে রাধে সে চুলও বাধে।
বাংলাদেশের রাজধানীর নাম সবাই জানে।
বাঙালী সচেতন না।
বাঙালী হুজুগে।
মানুষের পাহাড়ে হাঁটতে কষ্ট লাগে বেশি।

কিন্তু কেন মেয়ে, ধর্মের ক্ষেত্রে এটা উল্লেখ করা হয়?  আর কথা বলার সময় কেন বার বার "বেশির ভাগ" উল্লেখ করতে হবে? সবসময় যদি সবাই বুঝতেই পারে যে এটা "বেশির ভাগের" জন্য বলা হচ্ছে, তাহলে নারী ও ধর্মের ক্ষেত্রে এই একটা ব্যাপার ধরতে সমস্যা কোথায়?  angry
"বাঙালি আলসে" বললে তো ঠিকই ভাববেন "বেশির ভাগ বাঙালী আলসে"। মেয়েদের ক্ষেত্রে কেন "বেশির ভাগ" শব্দ যুগল ধরতে পারছেন না?

Feed থেকে ফোরাম সিগনেচার, imgsign.com
ব্লগ: shiplu.mokadd.im
মুখে তুলে কেউ খাইয়ে দেবে না। নিজের হাতেই সেটা করতে হবে।

শিপলু'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

১৬

Re: রেসিপি: মাছের বিরিয়ানি - বাকী অংশটুকু

মানুষের পাহাড়ে হাঁটতে কষ্ট লাগে বেশি।

এটার চেয়ে এটা কেমন লাগে-

মানুষের পাহাড়ে হাঁটতে কষ্ট লাগে বেশি লাগবেই।

আর মেয়েরা চাইলেও রান্না করে রান্নাঘর অপরিষ্কার  রাখতে পারে না।

কিছু কিছু শব্দ নির্দিষ্ট অর্থ বহন করে।

"সংকোচেরও বিহ্বলতা নিজেরই অপমান। সংকটেরও কল্পনাতে হয়ও না ম্রিয়মাণ।
মুক্ত কর ভয়। আপন মাঝে শক্তি ধর, নিজেরে কর জয়॥"

১৭

Re: রেসিপি: মাছের বিরিয়ানি - বাকী অংশটুকু

আরণ্যক লিখেছেন:

মানুষের পাহাড়ে হাঁটতে কষ্ট লাগে বেশি লাগবেই।

এই বাক্যটাকে মনে হয় একটু রি-ফ্রেজ করা দরকার।
এই বাক্যে "বেশির ভাগ" ইউজ করলে এমন দাড়াবে।

বেশির ভাগ মানুষের পাহাড়ে চড়তে কষ্ট লাগে। এটা সবার জন্য সত্য হলেও প্রত্যেকের জন্য না। কারণ পাহাড়ীদের পাহাড়ে হাঁটতে কোন কষ্টই লাগে না।

আরণ্যক লিখেছেন:

আর মেয়েরা চাইলেও রান্না করে রান্নাঘর অপরিষ্কার  রাখতে পারে না।
কিছু কিছু শব্দ নির্দিষ্ট অর্থ বহন করে।

এটার সাথে এই উদাহরণটাও একটু মিলিয়ে নিন। ধুমপায়ীরা চাইলেও সিগারেট ছাড়তে পারে না। কারণ অভ্যেস।
দুটো ক্ষেত্রেই "চাইলেও" এর একটা নির্দিষ্ট অর্থ আছে। আমি সেই নির্দিষ্ট অর্থই ব্যবহার করেছি।

Feed থেকে ফোরাম সিগনেচার, imgsign.com
ব্লগ: shiplu.mokadd.im
মুখে তুলে কেউ খাইয়ে দেবে না। নিজের হাতেই সেটা করতে হবে।

শিপলু'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

১৮

Re: রেসিপি: মাছের বিরিয়ানি - বাকী অংশটুকু

শিপলু লিখেছেন:


এটার সাথে এই উদাহরণটাও একটু মিলিয়ে নিন। ধুমপায়ীরা চাইলেও সিগারেট ছাড়তে পারে না। কারণ অভ্যেস।
দুটো ক্ষেত্রেই "চাইলেও" এর একটা নির্দিষ্ট অর্থ আছে। আমি সেই নির্দিষ্ট অর্থই ব্যবহার করেছি।

এই কথাটাও তো ভুল। যাই হোক আপনার ইচ্ছা হলে বা ঠিক মনে হলে ব্যবহার করেন। আমি শুধু আমার যা মনে হয়েছে বলেছি। যুক্তিযুক্ত মনে না হলে গুরুত্ব দেওয়ার কিছু নেই।

"সংকোচেরও বিহ্বলতা নিজেরই অপমান। সংকটেরও কল্পনাতে হয়ও না ম্রিয়মাণ।
মুক্ত কর ভয়। আপন মাঝে শক্তি ধর, নিজেরে কর জয়॥"

১৯

Re: রেসিপি: মাছের বিরিয়ানি - বাকী অংশটুকু

আপনে রান্নাও পারেন? খাইছে আমারে!!!!
আই মিন্‌, আমি খাইতে চাইছি আপনার রান্না বিরিয়ানীরে...

গর্ব এবং আশায় ভরা বুক! কাঁধে কাঁধ, হাতে হাত, সমুন্নত শির!
আমি তুমি সবাই মিলে এক, একই লাল সবুজের কোলে সবার নীড়।