সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন আহমাদ মুজতবা (২৭-১১-২০১১ ২০:৪৫)

টপিকঃ আমার ন্যু স্কুল জীবন - ৪ (ভূউউউত)

প্রথম পর্ব
দ্বিতীয় পর্ব
তৃতীয় পর্ব
হরর বা ভূত রিলেটেড যে কোনো কিছুই আমাকে সবসময়ই অনেক আকৃষ্ট করে। এজন্য আগে থেকেই আমার একটা ফ্যন্সী ছিলো যে খুব মজা করে হ্যলইন নাইট পালন করবো। দেখতে দেখতে সেই সময় চলে এলো, চারিদিকে হৈ হৈ, কে কি সাজবে এই নিয়ে মাতামাতি। আমিও প্রথমে ভাবছিলাম সিরিয়াস ফ্রিকি লুক দিমু, কিন্তু যেইসব কস্ট্যুম পছন্দ হয় সেগুলার দাম ২০০ ডলারের বেশী  sad এই দু:খ কই রাখি! পরে আমার ফ্রেন্ডদের সাথে ডিসকাস করলাম, ওরা কইলো আরে পোলাপান রা সাজে বাসায় বাসায় চকলেট নিতে যাবার জন্যে তুমি সাইজা কি করবা? আমি তো মহাখুশি, যাক সাজু গুজু করলাম না। এদিকে দেখি আমি কি সাজবো, রাস্তা-ঘাটে, অলিতে-গলিতে বাড়ি-ঘর সবকিছু সুন্দর সাজানো। খালী মিষ্টি কুমড়া দেখা যায় সবখানে যদিও একেকটারে এমন স্টাইলে সাজানো হইছে যে দেইখাই ভয় লাগে। এছাড়াও আস্ত অনেক গুলা কুমড়া আমরা ফ্রি পাইছিলাম রাস্তা ঘাটে, মজা কইরা এইগুলা রাইন্দা কয়েকদিন খাইছি। হায়রে মানুষ জন টাকার অভাবে খাইতে পারে না আর এরা খাওয়ার জিনিস কেমনে নষ্ট করে হাবি জাবি কইরা।

এদের হ্যলইন হলো আমাদের মুসলমানদের ঈদ-উল-ফিতরের মতো। অনেকে ভূতের কস্টুম পড়ে না সাজলেও, নতুন ড্রেস পড়ে নিজেকে একটু ভিন্ন ভাবে সাজায়। তাই হ্যলইনের দিন বের হয়ে আমি প্রথম বারের মত ঈদের একটা ফিলিংস পেলাম। সবচেয়ে মজা লাগে আমার এখানকার ছেলেদের ড্রেসাপ দেখলে। ভয়ানক রকমের হাস্যকর, কোনো কারণে এদের কালার সেন্স এমনই খারাপ যে কটকটা সবুজের সাথে হলুদ, বেগুনী, রংবেরং এর জুতা বা প্যন্ট পড়ে ঘুরা ফিরা করতে এদের মোটেও রুচিতে বাধে না। অন্যদিকে মেয়েদের ড্রেসাপ আবার সেই লেভেলের, যতই সর্ট-কাট মারুক না কেন আপামনিদের ইশমার্ট গেটাপ নজড় কাড়ার মতই।

হ্যলইনের দিন আমাদের এক ইংলিশ প্রফেসর বলে দিলো যে যত অদ্ভুত ড্রেস পড়ে আসতে পারবে তাকে তত মার্কে দেয়া হবে। না এইটা ফাইযলামি না! এই মার্ক ফাইন্যলের সাথে যুক্ত হবে।  roll আমি তখন আফসোস করলাম হায় কেন কস্টুম কিনলাম না। হ্যলইনের রাতের বেলা আমাদের সবাইকে কুমড়া কাটার দাওয়াত দিয়েছিলো এক ম্যম। গিয়া তো দেখি সব স্টুডেন্টরা মহা ব্যস্ত এই কুমড়া কাটা নিয়া। তাদের অবস্থা দেখে ভাবলাম সবাই বুঝি প্রফেশনাল এই ব্যপারে পরে দেখি না ম্যক্সিমামই জীবনের প্রথম এই কাজ করছে। এরপরেও চরম পারদর্শীতা দেখিয়ে সুন্দর সুন্দর ডিজাইনের ভূত বানিয়ে ফেললো, আবার যখন সেই ভূতের ভিতর মোমবাতি জ্বালানো হলো তখনই সেগুলোকে মনে হলো রূপকথার জ্বল-জ্যন্ত মামদো ভূত। 

হ্যলইনে এর পরপরই শুরু হয় সবখানে হান্টিং সেশন। ভূতের সাথে দেখা করার জন্য অথবা বিভিন্ন অদৈব জিনিস দেখার জন্য দল করে বের হয় নানান সব ভূতুড়ে জায়গায়। এদের টিমের সাথে যোগদান করার জন্য আবার বিভিন্ন রকমের পরীক্ষায় আপনাকে উত্তীর্ণ হতে হবে। রাতের বেলা কবরস্থানে একা একা চলাফেরা করতে হবে এটা শুনেই তো আমার আত্না নেই হবার যোগাড়। তাই আর ভূত হান্ট করতে গিয়ে নিজে হান্ট হবার জন্য অগ্রসর হলাম না। এম্রিকানদের মত আমার হরর মুভির সারভাইভর হবার কোনো ইচ্ছা নাই।

এদিকে বড়োরা যেখানে ভূত হান্টিং নিয়ে ব্যস্ত সেখানে বাচ্চা পোলাপানরা কিউটি কিউটি এইনজেল সাইজা দেখি বের হয়েছে বাসায় বাসায় চকলেট হান্টিং করার জন্য। বাসার দরজায় সুন্দর নক করবে তারপর একটা ঝুড়ি এগিয়ে বলবে 'ট্রিক অর ট্রিট'। এত কিউট বাচ্চা দেখে বড়োরাও খুশির ছলে এদের ঝুড়ি ভরিয়ে দেন নানান ধরনের চকলেট আর উপহার দিয়ে। ইশ আমি বাচ্চা হইলেই মনে হয় বেশী মজা হতো। চামে চামে কত কিছু dream

সারাদিনের মজা শেষে খিদে লাগতে না লাগতেই টিফনি'র ফোনে পেলাম হাডল হাউসে ডিনারের দাওয়াত। টিফনি ওর ১৭ বছরের হাসবেন্ডের সাথে রিসেন্টলি ডিভোর্সড, ওরা নাকি একটু ব্রেক নিচ্ছে। কিন্তু এটা সাময়িক নাকি ইনফিনিট ব্রেক দ্য ডোন্ট ইভেন নো! আমাদের সেদিনের ডিনারে ওর হাসবেন্ড ব্রায়ানও ইনভাইটেড ছিলো। এটা আমার কাছে অবাক লাগল যে কি করে ডিভোর্সের পরেও এদের সবকিছু অনেক ফ্রেন্ডলি এবং নরমাল থাকে। দুইজনকে একসাথে দেখলে এখনও কাপলই মনে হয়। আবার একজন আরেকজনের জন্য পার্টনারও খুজে দিচ্ছে খুশি মনে। এইসব কি এম্রিকানদের উপর দিয়ে দেখানো সুখ নাকি ভিতরে জমে থাকা কষ্টের বহি:প্রকাশ কে জানে?!!

http://i.imgur.com/Faz2Kl.jpg
http://i.imgur.com/40Dcol.jpg
http://i.imgur.com/31bIWl.jpg
http://i.imgur.com/2Vzqcl.jpg
http://i.imgur.com/dKhQtl.jpg

Rhythm - Motivation Myself Psychedelic Thoughts

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: আমার ন্যু স্কুল জীবন - ৪ (ভূউউউত)

হ্যলইন একেবারেই জানতাম না sad আপনার লেখা পড়ে জানতে পারলাম। লেখাটাও বেশ গোছানো হয়েছে। ছবিগুলা লেখাটাকে প্রাণবন্ত করে তুলেছে।  thumbs_up

Re: আমার ন্যু স্কুল জীবন - ৪ (ভূউউউত)

মজাক পাইলাম। thumbs_up

seeming is being

Re: আমার ন্যু স্কুল জীবন - ৪ (ভূউউউত)

ইলিয়াস লিখেছেন:

হ্যলইন একেবারেই জানতাম না sad আপনার লেখা পড়ে জানতে পারলাম। লেখাটাও বেশ গোছানো হয়েছে। ছবিগুলা লেখাটাকে প্রাণবন্ত করে তুলেছে।  thumbs_up

থেংকু কষ্ট করে পড়ার জন্যে,

রণ_এথিক্যাল হ্যাকার লিখেছেন:

মজাক পাইলাম। thumbs_up

  আমি আরো ভাবলাম সবাই বোরড হবে hehe

Rhythm - Motivation Myself Psychedelic Thoughts

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: আমার ন্যু স্কুল জীবন - ৪ (ভূউউউত)

দারুন লাগলো  thumbs_up

One can steal ideas, but no one can steal execution or passion. - Tim Ferriss

Re: আমার ন্যু স্কুল জীবন - ৪ (ভূউউউত)

হ্যালোউইন নিয়ে আমারো আগ্রহ অনেক। শুনেছি অনেক মজা হয়, এখন আপনার লেখা পড়ে ঠিক তাই-ই হয় দেখছি। smile

ধন্যবাদ এত সুন্দর উপস্থাপনের জন্য। hug hug

ইমরান তুষার'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: আমার ন্যু স্কুল জীবন - ৪ (ভূউউউত)

বেশ মজা পেলাম big_smile । বেশ থ্রিলিং ও বটে । কিন্তু আমি ভিতুর ডিম । খুবই ভিতু ।  smile

Re: আমার ন্যু স্কুল জীবন - ৪ (ভূউউউত)

দেখে তো মনে হচ্ছে প্লাস্টিকের কুমড়া  tongue

http://i.imgur.com/dKhQtl.jpg
লেফটের দুই নাম্বার(সবুজ জামা পরা) আন্টি কি আপনার ক্লাসমেট ?

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

Re: আমার ন্যু স্কুল জীবন - ৪ (ভূউউউত)

কুমড়ো দেখে কবিতাটা মনে পড়ে গেলো...
"কুমড়ো ফুলে ফুলে
নুয়ে পড়েছে লতাটা..."

যাই হোক, অনেক সুন্দর লিখেছেন, অনেক অজানা জিনিস জানতে পারলাম

You are the one who thinks that i didn't get the point, so do i think of you...what a coincidence!!

১০

Re: আমার ন্যু স্কুল জীবন - ৪ (ভূউউউত)

লেখায় মউজ আছে ।মুজ ভাই   hmm বাংলাদেশ এ হেলইন পালন করলে কেমন হয়  thinking






.

মুইছা দিলাম। আমি ভীত !!!

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১১

Re: আমার ন্যু স্কুল জীবন - ৪ (ভূউউউত)

ফারহান খান লিখেছেন:

লেখায় মউজ আছে ।মুজ ভাই   hmm বাংলাদেশ এ হেলইন পালন করলে কেমন হয়  thinking






.

  আস্তে আস্তে আপনি শুরু করেন আমি বাংলাদেশ গেলে আপনার লগে জয়েন করুম নে

faysal_2020 লিখেছেন:

কুমড়ো দেখে কবিতাটা মনে পড়ে গেলো...
"কুমড়ো ফুলে ফুলে
নুয়ে পড়েছে লতাটা..."

যাই হোক, অনেক সুন্দর লিখেছেন, অনেক অজানা জিনিস জানতে পারলাম

থেংকু পড়ার জন্যে

ত্রিনিত্রির রাশিমালা লিখেছেন:

বেশ মজা পেলাম big_smile । বেশ থ্রিলিং ও বটে । কিন্তু আমি ভিতুর ডিম । খুবই ভিতু ।  smile

আমিও সামটাইমস ভিতু দুই ভিতু মিল্লা সাহসী হয়া যাবো সমস্যা নাই আপনিও চলে আসেন

ইমরান তুষার লিখেছেন:

হ্যালোউইন নিয়ে আমারো আগ্রহ অনেক। শুনেছি অনেক মজা হয়, এখন আপনার লেখা পড়ে ঠিক তাই-ই হয় দেখছি। smile

ধন্যবাদ এত সুন্দর উপস্থাপনের জন্য। hug hug

হু মজা হয়। খালী বেশী লিকার কনসিউম না করলেই hehe

অপরিচিত লিখেছেন:

দারুন লাগলো  thumbs_up

  থেংকু ভাই!!

ডেড ভাইয়া উনি একজন জার্মান সুন্দরী, আমার ক্লাস মেইট না তবে এমনি ভালা বন্ধু। নাম ক্যথলিন, যদিও ইংরেজী বলতে উনার বেপুক কষ্ট হয় কিন্তু যা পারে কোনোমতে কথা কওন যায়।

Rhythm - Motivation Myself Psychedelic Thoughts

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১২

Re: আমার ন্যু স্কুল জীবন - ৪ (ভূউউউত)

দারুণ লাগছে এই সিরিজটা dancing dancing তবে জার্মান সুন্দরীর ঘোলা ছবিটা না দিলেই ভাল হত nailbiting

১৩

Re: আমার ন্যু স্কুল জীবন - ৪ (ভূউউউত)

দক্ষিণের-মাহবুব লিখেছেন:

দারুণ লাগছে এই সিরিজটা dancing dancing তবে জার্মান সুন্দরীর ঘোলা ছবিটা না দিলেই ভাল হত nailbiting

  আসলে ভূত গুলারে নিয়া পুলাপানদের ছবি বলতে এই একটাই ছিলো তাই  roll

Rhythm - Motivation Myself Psychedelic Thoughts

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৪

Re: আমার ন্যু স্কুল জীবন - ৪ (ভূউউউত)

কুমড়ার উপর জুলুম করে Halloween পালন!  lol
তবে, design গুলো আসলেই দেখার মত।
লেখা পড়ে ভালো লাগলো।  thumbs_up

মনের সাথে মগজের যুদ্ধ আমার সবসময়ই কারণ মগজ নিজের স্বার্থ ছাড়া আর কিছুই বুঝে না। তাই তাকে ঘুম পাড়িয়ে রেখে আপন মনের খেয়ালেই চলি। কোন বিষয়ে আমার মগজ খাটাতে বাধ্য হওয়া মানেই সেটার ইতি টানা।

১৫

Re: আমার ন্যু স্কুল জীবন - ৪ (ভূউউউত)

শশী লিখেছেন:

কুমড়ার উপর জুলুম করে Halloween পালন!  lol
তবে, design গুলো আসলেই দেখার মত।
লেখা পড়ে ভালো লাগলো।  thumbs_up

থেনকু পড়ার জন্যে। অভর্থ্যনা কক্ষে আপনার পরিচয় টা দিয়ে আসলে আরো ভালো হয়  smile

Rhythm - Motivation Myself Psychedelic Thoughts

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত