৬১

Re: প্রজন্মে ধর্ম নিয়ে আলাদা উপবিভাগ চাই

স্বপ্নীল লিখেছেন:

আজব একটা ব্যাপার। আমরা কি এখানে কোথাও ঝগড়া করছি?? আলাপ-আলোচনা-তর্ক তো হবেই। সেটাকে খারাপ চোখে দেখার মানেটা কি?


তর্কটাই আমার দৃষ্টিতে সমস্যার উদ্রেক করে। ধর্ম পরিপূর্ণভাবে বিশ্বাসের ব্যাপার, যুক্তিতর্কের বিষয় ধর্ম নয়।

৬২

Re: প্রজন্মে ধর্ম নিয়ে আলাদা উপবিভাগ চাই

মেহেদী৮৩ লিখেছেন:

তর্কটাই আমার দৃষ্টিতে সমস্যার উদ্রেক করে। ধর্ম পরিপূর্ণভাবে বিশ্বাসের ব্যাপার, যুক্তিতর্কের বিষয় ধর্ম নয়।

সহমত  clap

৬৩

Re: প্রজন্মে ধর্ম নিয়ে আলাদা উপবিভাগ চাই

আগন্তুক মিলন লিখেছেন:
মেহেদী৮৩ লিখেছেন:

তর্কটাই আমার দৃষ্টিতে সমস্যার উদ্রেক করে। ধর্ম পরিপূর্ণভাবে বিশ্বাসের ব্যাপার, যুক্তিতর্কের বিষয় ধর্ম নয়।

সহমত  clap

আমিও আপনাদের সাথে একমত neutral

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

৬৪

Re: প্রজন্মে ধর্ম নিয়ে আলাদা উপবিভাগ চাই

নাসিম ভাই এর কোয়েশ্চেন গুলার রিপ্লাই কেউ দিতো পারলো না  roll বুঝাই যাচ্ছে অন্যদের বিশ্বাসের প্রতি কি সম্মান উপ-বিভাগ খুলতে চাওয়ার পক্ষে যারা  smile টপিকটা লক করা উচিৎ মনে হয়   sad

Rhythm - Motivation Myself Psychedelic Thoughts

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

৬৫

Re: প্রজন্মে ধর্ম নিয়ে আলাদা উপবিভাগ চাই

মেহেদী৮৩ লিখেছেন:

তর্কটাই আমার দৃষ্টিতে সমস্যার উদ্রেক করে। ধর্ম পরিপূর্ণভাবে বিশ্বাসের ব্যাপার, যুক্তিতর্কের বিষয় ধর্ম নয়।

thumbs_up
সবচেয়ে সেরা উত্তর মনে হলো আমার কাছে

শ্রাবন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

৬৬ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন জেলাল (০৮-০৮-২০১১ ১২:৩৮)

Re: প্রজন্মে ধর্ম নিয়ে আলাদা উপবিভাগ চাই

আহমাদ মুজতবা লিখেছেন:

নাসিম ভাই এর কোয়েশ্চেন গুলার রিপ্লাই কেউ দিতো পারলো না  roll বুঝাই যাচ্ছে অন্যদের বিশ্বাসের প্রতি কি সম্মান উপ-বিভাগ খুলতে চাওয়ার পক্ষে যারা  smile টপিকটা লক করা উচিৎ মনে হয়   sad

ওনার কোয়েশ্চেনগুলো টপিকের মূল দাবীর পরিপ্রেক্ষিতে অপ্রাসংগিক এবং কোয়েশ্চেনগুলো বা যে দাবীগুলো করেছেন সেগুলো ঠিকও নয়। আমি প্রত্যুত্তর দিতে পারতাম। কিন্তু তাতে বিতর্ক বাড়বে, কোন লাভ হবে না।

এই টপিকটি শুরু হয়েছিল স্বপ্নীলের সহজ ও ইতিবাচক একটি চাওয়ার মধ্য দিয়ে। কিন্তু নেতিবাচকভাবে তার বিরোধিতা করতে গিয়ে আমরা কোথা থেকে কোথায় চলে গিয়েছি আমরা নিজেরাও জানিনা।

এখানে তুলনামূলক ধর্মতত্ত্বের আলোচনা করার জন্য উপবিভাগ খোলার আবেদন করা হয়নি। কিছু টপিকের শিরোনামের উদাহরণ দিচ্ছি:

"নামাজে হাত বাঁধবো কোথায়", "তারাবীর নামাজ কি মসজিদে গিয়ে পড়াটা জরুরী", "প্রতিদিন শেয়ার করি একটি করে কোরআনের আয়াত বা হাদীস", "রমজানের শিক্ষা", "সীরাতুন্নবী (সাঃ)" ইত্যাদি ইত্যাদি। এরকম টপিক ফোরামে হয়েছে এবং এ টপিকগুলোর আলোচনায় অন্য ধর্মের প্রসংগ আসার কি কোন কারণ আছে?

এ টপিকগুলোতে শরীয়াতের বিভিন্ন মাসলা-মাসায়েল নিয়ে আলোচনা হতেই পারে। সেগুলোতে মডারেটারগণের উত্তর বা ফতওয়া দেয়ার যোগ্যতা থাকা না থাকার প্রসঙ্গটি একটি অবান্তর ব্যাপার। এই নিরীহ টপিকগুলোতেও কেউ যদি ব্যক্তিগত আক্রমণ করে বা ফোরামের নিয়মাবলীর বাইরে আচরণ করে তবে সেটার মডারেশন জেনেরিক্যালিই হতে পারে। এজন্য শরীয়াতের বিশেষ জ্ঞান বা যোগ্যতা থাকার প্রয়োজন নেই। সবচেয়ে বড় কথা হলো এ টপিকগুলো এখনোতো হচ্ছে। স্বপ্নীল বা আমরা শুধু একটি উপবিভাগ চেয়েছিলাম যাতে যারা এ বিষয়গুলো জানতে চান তারা সহজে ওই টপিকগুলো পেতে পারেন। ভেরি সিম্পল এ চাওয়ার সমীকরণ, ব্রেড এন্ড বাটার। এখানে অন্য ধর্মকে আক্রমণের ধুয়া তোলা হলো কেন?

এমনকি এ ফোরামে তুলনামূলক ধর্মতত্ত্বের প্রসংগ চলে আসে এমন আলোচনাও হয়েছে অতীতে কয়েকবার। সেখানে টপিকের এক পর্যায়ে দু-একজন সদস্য আহমাদ মুজতবার মত টপিক লক করার আবেদন জানালে মডারেটরগণের মধ্যেই দু' একজন বলেছিলেন- এ সব বিষয় যত আলোচনা হবে ততই ভালো, মানুষ আরো জানতে পারবে। বলাবাহুল্য, ওইসব আলোচনায় যিনি বা যারা ইসলামের পক্ষে বলেছিলেন তাদের অন্য ধর্মকে আক্রমন করার প্রয়োজন হয়নি।

কই, তখনতো সমস্যা হয়নি।

ফোরামিকরা ধর্মীয় আচার পালন করতে গিয়ে অনেক ধরণের অজ্ঞতার সম্মুখীন হতেই পারেন। সেগুলো জানার জন্য ফোরামে পোস্ট করে উত্তর চাইতেই পারেন। যাদের সে উত্তর জানা আছে তারা কন্ট্রিবিউট করতেই পারেন। কন্ট্রিবিউশন একাধিক ফোরামিকের পক্ষ থেকে হতেই পারে। আর উপবিভাগের আদলে এটার ক্যাটেগরাইজেশন হতেই পারে। দিস ইজ ভেরি সিম্পল ইকুয়েশন। নাথিং ফ্যান্সি। ওয়াইম্যাক্স ইন্টারনেট কানেকশনের উপরে ৫-৬টি টপিক হলেই সেটার জন্য উপবিভাগ খুলতে যদি সমস্যা না থাকে, অন্য কিছুর ক্ষেত্রে সেটা সমস্যা কেন হবে বুঝতে পারার কথা নয়।

উপবিভাগের বিরূদ্ধে টপিকের শুরুতে মডারেটর যে যুক্তি দিয়েছেন সেটা আদৌ যুক্তিসংগত না হলেও এটা ধরেই নিয়েছি, বাই এনিওয়ে, মডারেটররা উপবিভাগ খুলবেন না এ ব্যাপারে। এ জন্য এ দাবী নিয়ে আর সোচ্চার হওয়ারও মানে পাচ্ছি না। ঘুমন্ত একজন মানুষকে ডেকে ঘুম থেকে ডেকে তোলা যায়, তবে যে ঘুমের ভান করে পড়ে থাকে তাকে ডেকে তোলা খুবই কঠিন একটি কাজ।

উপবিভাগ না থাকলেও এই টপিকগুলোতে যারা ঝামেলা বাধানোর তারা বাধাবেই। ছবি আপার "প্রতিদিন শেয়ার করি একটি করে কোরআনের আয়াত বা হাদীস" টপিকটির কথাই ধরুন। সুন্দর এই টপিকটিও রেহাই পায়নি "অলোক" নামের ফোরামিকের স্প্যামিং টাইপের পোস্ট থেকে। যারা ওই টপিকটির শুরু থেকেই টপিকটির সাথে ছিলেন তারা বুঝবেন ব্যাপারটি। বলাইবাহুল্য, ফোরামে অলোকের আরো অনেকগুলো বাজে পোস্টের সাক্ষী এ ফোরামের কমবেশি সবাই। কিছু কিছু ক্ষেত্রে মডারেটরগণ হয়তো ব্যবস্থা নিয়েছেন। তবে সেটা কতটুকু ফলপ্রসু তা প্রশ্নসাপেক্ষ।

মেহেদী৮৩ লিখেছেন:
স্বপ্নীল লিখেছেন:

আজব একটা ব্যাপার। আমরা কি এখানে কোথাও ঝগড়া করছি?? আলাপ-আলোচনা-তর্ক তো হবেই। সেটাকে খারাপ চোখে দেখার মানেটা কি?


তর্কটাই আমার দৃষ্টিতে সমস্যার উদ্রেক করে। ধর্ম পরিপূর্ণভাবে বিশ্বাসের ব্যাপার, যুক্তিতর্কের বিষয় ধর্ম নয়।

এটা একটি ভুল ধারণা। ধর্মের মৌলিক বিষয়গুলোর ব্যাপারে তর্কের কথা বলছি না। শরীয়তের অনেক হুকুম-আহকামের বিষয় আছে যেগুলো জেনে-বুঝে ও যথেষ্ট ওয়াকিফহাল হয়ে পালন করা উচিত। জমির উদ্দিন বললো এই জিনিসটা এইভাবে পালন করো, সমির উদ্দিন অমনি দৌড়ে গিয়ে শুধুমাত্র বিশ্বাসের বাতাবরণে বন্দি হয়েই সেটা পালন করা শুরু করলো আর কিছু না জেনেই - তাহলেতো হলোনা। আর সে জানাটার জন্যই এ সব ব্যাপারে সুষ্ঠু তর্ক হতেই পারে, কুটতর্ক নয়। ধন্যবাদ।

৬৭

Re: প্রজন্মে ধর্ম নিয়ে আলাদা উপবিভাগ চাই

জেলাল ভাই, অসাধারণ বলেছেন  thumbs_up

৬৮

Re: প্রজন্মে ধর্ম নিয়ে আলাদা উপবিভাগ চাই

১।
ধর্ম বিষয়টা লিনাক্স-উইন্ডোজের মত যিনি ভাবে উনার চিন্তাভাবনার ফোকাসকে আমি অসম্মান করছি না। হ্যাঁ লিনাক্স উইন্ডোজ নিয়ে ইমোশনাল পোস্ট হয়েছে।

তবে ধর্ম এমন একটা বিষয়, এর বিশালত্ব এবং গুরুত্ব এ্যাত বেশি, ব্যক্তিগতভাবে আমি এটাকে অন্য কোনো বিষয়ের সাথে তুলনায় যেতে পারছি না। মানুষ মৃত্যূর মুখোমুখি হলেও ধর্ম বিশ্বাস, সৃষ্টিকর্তার উপর ভরসা করে -- মানুষের শেষ আশ্রয়স্থল হল এই বিশ্বাস। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ধর্ম এবং এই সংক্রান্ত বিশ্বাসের উপর মানুষ শেষেই আশ্রয় নেয় --- --- "আমাদের যতদুর সম্ভব আমি করেছি, বাকীটা সৃষ্টিকর্তার হাতে' - ডাক্তারকেও এই কথা বলতে শুনে আমরা অবাক হই না। ..................................................................................................... এই রকম সিরিয়াস যেই বিষয়, সেটাকে লিনাক্স উইন্ডোজ বা অন্য কোনো কাতারে ফেলতে আমি রাজি নাই। আবার বলছি - এটা ব্যক্তিগত মতামত; আপনাদের একমত হতেই হবে এমন কোনো কথা নাই।

অথচ, বিভিন্ন ধর্ম আছে। ধর্ম নিয়ে ক্রুসেড ছাড়াও আরও অনেক যুদ্ধও হয়েছে। রাজনীতি নিয়েও যুদ্ধ হয়েছে -- কিন্তু তারপরেও ধর্ম এ থেকে আলাদা। (জীবনরক্ষাকারী (!) ডাক্তার কিন্তু কখনই বলবে না বাকীটা অমুক নেতা বা দলের উপরে)

ধর্ম আমাদের জীবনজুড়ে ব্যাপ্ত --- শুধু জীবন নয় এর পূর্বে এবং পরের বিষয়েও ব্যাপ্ত। আমার ধারণা, লিনাক্স- উইন্ডোজ বা অন্য কোন বিষয়ের ব্যাপ্তি এর সাথে তুলনীয় নয়।

তারপরেও কেউ যদি ধর্মকে রাজনীতি বা লিনাক্স-উইন্ডোজের সাথে তুলনীয় কাতারে রাখেন সেটা তাঁর ব্যাপার। আমি ওর মধ্যে নাই।

২।
আমার কাছে একটা জীবন দর্শন হলেও ধর্ম বেশিরভাগ মানুষের কাছে শুধুই একটা বিশ্বাস। দর্শন (ফিলোসফিতে) যুক্তি তর্ক থাকতে পারলেও শুধু বিশ্বাসে যুক্তি তর্কের তেমন স্থান নাই বলে আমি মনে করি। কেউ যদি অকাট্য যুক্তি দিয়ে বিবর্তন অথবা নাস্তিকতা প্রমান করে তবুও একজন ধর্ম বিশ্বাস থেকে টলবে না। অনেক ক্ষেত্রেই তাই সংঘর্ষ অনিবার্য।

বিজ্ঞান যুক্তিময়। বিদ্যালয়ের বইয়ে বৈজ্ঞানিক প্রক্রিয়ার চিত্র দেখেছিলাম, ওটা শুরু হয়ই প্রচলিত পদ্ধতিকে প্রশ্ন করে। সন্দেহ করা এখানে বাধ্যতামূলক -- নতুবা আপনি যথার্থ বিজ্ঞানমনষ্কই নন। সন্দেহের ফলেই আগের তত্ব ভেঙ্গে নতুন তত্ব আসছে।

একই ভাবে অন্য বিষয়গুলোও যুক্তি, আবেগ, সামাজিক চাল চলন, কৃষ্টি, ভাষা, সংস্কৃতি ইত্যাদির সাথে সাথে পরিবর্তনশীল। খেয়াল করুন, আপনি ধর্ম বা এর বিশ্বাস এবং বিধিনিষেধ পরিবর্তন করতে পারবেন না  - এটা অনড় একটা বিশ্বাস। বিশ্বাস করাটাই (ঈমান) প্রথম স্তম্ভ ইসলামে। প্রতিষ্ঠিত অন্য ধর্মগুলোর ব্যাপারও প্রায় এমন অনড় বলেই মনে হয়।

৩।
পরিবর্তনশীল বিষয়গুলোর সাথে অপরিবর্তনযোগ্য অনড় একটা বিষয় এক কাতারে কীভাবে থাকে আমি সেটা বুঝিনা; আমাকে বুঝানোর চেষ্টা করেও খুব একটা লাভ হবে না।

৪।
প্রজন্মে ধর্ম বিভাগ থাকলে আমি মডু বা অ্যাডমিন (ইদানিং তাই দেখছি নামের তলে) থেকে এর (=এ্যাত গুরুত্বপূর্ণ ও ভারী বিষয়ের) দায়িত্ব নিতে অপারগ। শুধু সদস্য হিসেবেই থাকবো।

শামীম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

৬৯

Re: প্রজন্মে ধর্ম নিয়ে আলাদা উপবিভাগ চাই

জেলাল লিখেছেন:

ওনার কোয়েশ্চেনগুলো টপিকের মূল দাবীর পরিপ্রেক্ষিতে অপ্রাসংগিক এবং কোয়েশ্চেনগুলো বা যে দাবীগুলো করেছেন সেগুলো ঠিকও নয়। আমি প্রত্যুত্তর দিতে পারতাম। কিন্তু তাতে বিতর্ক বাড়বে, কোন লাভ হবে না।

অপ্রাসঙ্গিক কেন বুঝলাম না?

জেলাল লিখেছেন:

এখানে তুলনামূলক ধর্মতত্ত্বের আলোচনা করার জন্য উপবিভাগ খোলার আবেদন করা হয়নি। কিছু টপিকের শিরোনামের উদাহরণ দিচ্ছি:

"নামাজে হাত বাঁধবো কোথায়", "তারাবীর নামাজ কি মসজিদে গিয়ে পড়াটা জরুরী", "প্রতিদিন শেয়ার করি একটি করে কোরআনের আয়াত বা হাদীস", "রমজানের শিক্ষা", "সীরাতুন্নবী (সাঃ)" ইত্যাদি ইত্যাদি। এরকম টপিক ফোরামে হয়েছে এবং এ টপিকগুলোর আলোচনায় অন্য ধর্মের প্রসংগ আসার কি কোন কারণ আছে?

সেই একই প্রশ্ন আবার - তাহলে ধর্ম নামে কেন? সরাসরি শুধু সুন্নী-মূলধারা-ইসলাম নয় কেন?

জেলাল লিখেছেন:

ভেরি সিম্পল এ চাওয়ার সমীকরণ, ব্রেড এন্ড বাটার। এখানে অন্য ধর্মকে আক্রমণের ধুয়া তোলা হলো কেন?

কারণ, অতীতে আক্রমণ করা হয়েছে। কাদিয়ানীদের পোস্ট সরানো হয়েছে।

জেলাল লিখেছেন:

এমনকি এ ফোরামে তুলনামূলক ধর্মতত্ত্ব নিয়েও আলোচনা হয়েছে অতীতে বহুবার। সেখানে টপিকের এক পর্যায়ে দু-একজন সদস্য আহমাদ মুজতবার মত টপিক লক করার আবেদন জানালে মডারেটরগণের মধ্যেই দু' একজন বলেছিলেন- এ সব বিষয় যত আলোচনা হবে ততই ভালো, মানুষ আরো জানতে পারবে। বলাবাহুল্য, ওইসব আলোচনায় যিনি বা যারা ইসলামের পক্ষে বলেছিলেন তাদের অন্য ধর্মকে আক্রমন করার প্রয়োজন হয়নি।

কই, তখনতো সমস্যা হয়নি।

ডারউইন সমর্থকদের বান্দরের বংশধর বলে গালাগালি করা হয়েছে। এই টপিকেই একজন উদাহরণ দিয়েছেন। ঐ টপিকগুলোতে গেলে আক্রমণের আরও উদাহরণ পাবেন। আমি নিজেও ঐ আক্রমণে পড়েছি (এবং ভুলবশতঃ আমিও প্রতি-আক্রমণ করেছিলাম)।

জেলাল লিখেছেন:

ফোরামিকরা ধর্মীয় আচার পালন করতে গিয়ে অনেক ধরণের অজ্ঞতার সম্মুখীন হতেই পারেন। সেগুলো জানার জন্য ফোরামে পোস্ট করে উত্তর চাইতেই পারেন। যাদের সে উত্তর জানা আছে তারা কন্ট্রিবিউট করতেই পারেন। কন্ট্রিবিউশন একাধিক ফোরামিকের পক্ষ থেকে হতেই পারে। আর উপবিভাগের আদলে এটার ক্যাটেগরাইজেশন হতেই পারে। দিস ইজ ভেরি সিম্পল ইকুয়েশন। নাথিং ফ্যান্সি। ওয়াইম্যাক্স ইন্টারনেট কানেকশনের উপরে ৫-৬টি টপিক হলেই সেটার জন্য উপবিভাগ খুলতে যদি সমস্যা না থাকে, অন্য কিছুর ক্ষেত্রে সেটা সমস্যা কেন হবে বুঝতে পারার কথা নয়।

দিস ইজ নট ভেরি সিম্পল। দিস ইজ ভেরি ভেরি কমপ্লেক্স। আমার নানা পৃথিবীর অন্যতম একজন ভাল মানুষ। অথচ, এক ভন্ড পীর তার মগজ এমন ধোলাই দিয়েছেন যে তিনি মাজার-পুজারী হয়েছেন এবং শুধুমাত্র দুই ওয়াক্ত নামাজ পড়েন।তাকে সঠিক পথে ফেরানোর বহু চেষ্টা করা হয়েছে। কিন্তু কোন লাভ হয়নি। যাকে মুখোমুখি আলেম-ওলামা-কোরআন-হাদীস দিয়ে তার বিশ্বাস থেকে নড়ানো যায়নি, তাকে কি ইন্টারনেটের এক আড্ডাবাজির ফোরামের লেখা পরিবর্তন করতে পারবে?

জেলাল লিখেছেন:

উপবিভাগ না থাকলেও এই টপিকগুলোতে যারা ঝামেলা বাধানোর তারা বাধাবেই। ছবি আপার "প্রতিদিন শেয়ার করি একটি করে কোরআনের আয়াত বা হাদীস" টপিকটির কথাই ধরুন। সুন্দর এই টপিকটিও রেহাই পায়নি "অলোক" নামের ফোরামিকের স্প্যামিং টাইপের পোস্ট থেকে। যারা ওই টপিকটির শুরু থেকেই টপিকটির সাথে ছিলেন তারা বুঝবেন ব্যাপারটি। বলাইবাহুল্য, ফোরামে অলোকের আরো অনেকগুলো বাজে পোস্টের সাক্ষী এ ফোরামের কমবেশি সবাই। কিছু কিছু ক্ষেত্রে মডারেটরগণ হয়তো ব্যবস্থা নিয়েছেন। তবে সেটা কতটুকু ফলপ্রসু তা প্রশ্নসাপেক্ষ।

একদম আমার মনের মত একটা উদাহরণ দিয়েছেন। আলাদা উপবিভাগ খুলে এই ধরণের কর্মকাণ্ডকে আরও উৎসাহিত-ই করা হবে। বিশেষ করে যখন নামটা হবে 'ধর্ম'।

জেলাল লিখেছেন:

এটা একটি ভুল ধারণা। ধর্মের মৌলিক বিষয়গুলোর ব্যাপারে তর্কের কথা বলছি না। শরীয়তের অনেক হুকুম-আহকামের বিষয় আছে যেগুলো জেনে-বুঝে ও যথেষ্ট ওয়াকিফহাল হয়ে পালন করা উচিত। জমির উদ্দিন বললো এই জিনিসটা এইভাবে পালন করো, সমির উদ্দিন অমনি দৌড়ে গিয়ে শুধুমাত্র বিশ্বাসের বাতাবরণে বন্দি হয়েই সেটা পালন করা শুরু করলো আর কিছু না জেনেই - তাহলেতো হলোনা। আর সে জানাটার জন্যই এ সব ব্যাপারে সুষ্ঠু তর্ক হতেই পারে, কুটতর্ক নয়। ধন্যবাদ।

আমার উপরের উদাহরণটি আবার লক্ষ্য করুন।

৭০ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন জেলাল (০৮-০৮-২০১১ ১৩:২২)

Re: প্রজন্মে ধর্ম নিয়ে আলাদা উপবিভাগ চাই

শামীম লিখেছেন:

১।
-------------------------
তারপরেও কেউ যদি ধর্মকে রাজনীতি বা লিনাক্স-উইন্ডোজের সাথে তুলনীয় কাতারে রাখেন সেটা তাঁর ব্যাপার। আমি ওর মধ্যে নাই।

আমার জানামতে এ টপিকে ধর্মীয় উপবিভাগ চেয়েছেন তাঁদের কেউই লিনাক্স-উইন্ডোজের সাথে ধর্মকে গুলিয়ে ফেলেননি বা তুলনা করেননি।

শামীম লিখেছেন:

২।
-------------------------
একই ভাবে অন্য বিষয়গুলোও যুক্তি, আবেগ, সামাজিক চাল চলন, কৃষ্টি, ভাষা, সংস্কৃতি ইত্যাদির সাথে সাথে পরিবর্তনশীল। খেয়াল করুন, আপনি ধর্ম বা এর বিশ্বাস এবং বিধিনিষেধ পরিবর্তন করতে পারবেন না  - এটা অনড় একটা বিশ্বাস। বিশ্বাস করাটাই (ঈমান) প্রথম স্তম্ভ ইসলামে। প্রতিষ্ঠিত অন্য ধর্মগুলোর ব্যাপারও প্রায় এমন অনড় বলেই মনে হয়।

অনড় বিশ্বাসের ব্যাপারে কোন মতভেদ নেই আপনার সাথে। এটা অনড় না হলেতো ধর্ম প্রসঙ্গটাই আসতো নারে ভাই। এখানে একটি উপবিভাগ থাকাটাকে প্রেফার করা হয়েছে ধর্মীয় বিশ্বাসের ব্যবচ্ছেদ করার জন্য নয়, ধর্মীয় ইবাদাত-বান্দেগী ও প্রায়োগিক যে দিকগুলো আছে সেগুলোর আলোচনা একটি নির্দিষ্ট সাব-ফোরামের অধীনে জানা ও জানানোর জন্য।

শামীম লিখেছেন:

৩।
-------------------------
পরিবর্তনশীল বিষয়গুলোর সাথে অপরিবর্তনযোগ্য অনড় একটা বিষয় এক কাতারে কীভাবে থাকে আমি সেটা বুঝিনা; আমাকে বুঝানোর চেষ্টা করেও খুব একটা লাভ হবে না।

পয়েন্ট ১। ও ২। দ্রষ্টব্য।

শামীম লিখেছেন:

৪।
-------------------------
প্রজন্মে ধর্ম বিভাগ থাকলে আমি মডু বা অ্যাডমিন (ইদানিং তাই দেখছি নামের তলে) থেকে এর (=এ্যাত গুরুত্বপূর্ণ ও ভারী বিষয়ের) দায়িত্ব নিতে অপারগ। শুধু সদস্য হিসেবেই থাকবো।

আপনি এডমিন বা সদস্য যেই হোন আপনি সব সময়ই আমাদের প্রিয় শামীম ভাই।

৭১ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন স্বপ্নীল (০৮-০৮-২০১১ ১৩:২৯)

Re: প্রজন্মে ধর্ম নিয়ে আলাদা উপবিভাগ চাই

স্বপ্নীল লিখেছেন:

আর ক্যাচালের কথা যখন আসলই, তখন তো বলতে হয় উইন্ডোজ-লিনাক্স নিয়ে ভয়ংকয় লেবু কচলাকচলি, ঝগড়া-ঝাটি এত এত হবার পর সেটাই সবার আগে বন্ধ করে দেয়া উচিত ছিল।

এই হচ্ছে আমার কমেন্ট। সম্ভবত এটা নিয়েই ভুল বোঝাবুঝি হচ্ছে। এখানে ক্যাচালের কথা বলা হয়েছে, ধর্ম আর উইন্ডোজ-লিনাক্সকে এক কাতারে ফেলে দেয়া হয়নি। যদি উপরের কথাটাই দুইটাকে সব দিক দিয়ে এক কাতারে ফেলে দেয়া হয়ে যায়, তাইলে তো কোডার ভাইয়ের লেখাটাও এই দোষে দুষ্ট। দেখেন:

হাঙ্গরিকোডার লিখেছেন:

আমরা এখানে ধর্ম বিষয়ক কাঁদা ছোড়াছুড়ি চাইনা, চাইনা পাইরেসি'র প্রসার; চাই মুক্ত সফটওয়্যারের জনপ্রিয়তা ইত্যাদি। এমনকি রাজনৈতিক বিষয়ক বিভাগও রাখা-না রাখা নিয়ে আমরা ভাবছি।

ক্যাচালের বা কাঁদা ছোড়াছুড়ি কারণেই ধর্মের পাশাপাশি রাজনৈতিক বিষয়ক বিভাগ না রাখা নিয়েও ভাবা হচ্ছে বলেছেন কোডার ভাই। এখন তাহলে বলেন, উনি কি ধর্ম আর রাজনীতি এক কাতারে ফেলেছেন? দুইটাকে তুলনা করেছেন? আমিও ঠিক ক্যাচালের বা কাঁদা ছোড়াছুড়ির ভিত্তিতেই কথাগুলো বলেছি। আর কিছুই না।

৭২ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন জেলাল (০৮-০৮-২০১১ ১৪:৩২)

Re: প্রজন্মে ধর্ম নিয়ে আলাদা উপবিভাগ চাই

স্বপ্নচারী লিখেছেন:

অপ্রাসঙ্গিক কেন বুঝলাম না?

মূল টপিকের পোস্টটা দ্রষ্টব্য। এরপরেও অপ্রাসঙ্গিক হওয়ার কারণটি বোধগম্য না হলে সেটা বোধগম্য করাটার যোগ্যতা আমার নেই, সরি।

স্বপ্নচারী লিখেছেন:

সেই একই প্রশ্ন আবার - তাহলে ধর্ম নামে কেন? সরাসরি শুধু সুন্নী-মূলধারা-ইসলাম নয় কেন?

নামের ব্যাপারে বিতর্কতো হচ্ছে না। যে কোন উপযুক্ত নামেই হতে পারে। যদি ভুল না বলে থাকি, বিতর্কটা ছিল উপবিভাগ রাখা না রাখা নিয়ে।

স্বপ্নচারী লিখেছেন:

কারণ, অতীতে আক্রমণ করা হয়েছে। কাদিয়ানীদের পোস্ট সরানো হয়েছে।

কাদিয়ানীদের পোস্টটি দেখিনি। সেটা সরানো হয়েছে, তার মানে সরানোর মত পোস্ট ছিল সেটা। সরানোর দায়িত্বটাতো আর সাধারণ সদস্যের হাতে নেই।

স্বপ্নচারী লিখেছেন:

ডারউইন সমর্থকদের বান্দরের বংশধর বলে গালাগালি করা হয়েছে। এই টপিকেই একজন উদাহরণ দিয়েছেন। ঐ টপিকগুলোতে গেলে আক্রমণের আরও উদাহরণ পাবেন। আমি নিজেও ঐ আক্রমণে পড়েছি (এবং ভুলবশতঃ আমিও প্রতি-আক্রমণ করেছিলাম)।

যতদুর জানি ডারউইন নিজেই বানরের বংশধর হওয়ার কনসেপ্টটা এনেছিলেন সামনে। সেটা গালাগালি কিনা বুঝতে পারছিনা। তবে, ডারউইনিজম সম্পর্কিত মতবাদগুলো পরিবর্তিত হয়েছে ওভার টাইম। আর সেটার বেশির ভাগই হয়েছে সম্ভবত ডারউনিজম সমর্থকদের হাত ধরে।

কিন্তু কথা হলো, এটাও এখানে অপ্রাসংগিক। কারণটি আমার পোস্টেই বলেছি।

স্বপ্নচারী লিখেছেন:

দিস ইজ নট ভেরি সিম্পল। দিস ইজ ভেরি ভেরি কমপ্লেক্স। আমার নানা পৃথিবীর অন্যতম একজন ভাল মানুষ। অথচ, এক ভন্ড পীর তার মগজ এমন ধোলাই দিয়েছেন যে তিনি মাজার-পুজারী হয়েছেন এবং শুধুমাত্র দুই ওয়াক্ত নামাজ পড়েন।তাকে সঠিক পথে ফেরানোর বহু চেষ্টা করা হয়েছে। কিন্তু কোন লাভ হয়নি। যাকে মুখোমুখি আলেম-ওলামা-কোরআন-হাদীস দিয়ে তার বিশ্বাস থেকে নড়ানো যায়নি, তাকে কি ইন্টারনেটের এক আড্ডাবাজির ফোরামের লেখা পরিবর্তন করতে পারবে?

আনফরচুনেটলি, দিস কমপ্লেক্সিটি ইজ আর্টিফিশিয়ালি ইমপোজ্‌ড ওয়ান। যার মগজ ভন্ড পীরের হাতে ধোলাইকৃত হয় তিনি কখনোই ফোরামে এসে কিছু জানতে চাইবেন না। ইন ফ্যাক্ট, তার ফোরামটাই হলো ওই ভন্ড পীরের আস্তানা।

আবার কোন ভন্ড পীর এসে এই ফোরামে কারো মগজ ধোলাই করতে পারবে এটাও আমি বিশ্বাস করিনা।

স্বপ্নচারী লিখেছেন:

একদম আমার মনের মত একটা উদাহরণ দিয়েছেন। আলাদা উপবিভাগ খুলে এই ধরণের কর্মকাণ্ডকে আরও উৎসাহিত-ই করা হবে। বিশেষ করে যখন নামটা হবে 'ধর্ম'।

নাম যাই হোক তাতে ওই ধরণের কর্মকান্ডের হোতাদের কিছু যায় আসে না। তারা টপিকের গন্ধ খুঁজে আসবে। ইউ কান্ট রেস্ট্রিক্ট দেম।

স্বপ্নচারী লিখেছেন:

আমার উপরের উদাহরণটি আবার লক্ষ্য করুন।

সেই উদাহরণটির প্রত্যুত্তর লক্ষ্য করুন প্লিজ আমার এই পোস্টে।

@শামীম ভাই ও স্বপ্নচারী ভাই, আমার মনে হয় আমাদের মধ্যে খুব একটা শক্ত মতবিরোধ নেই আলোচ্য ব্যাপারগুলোতে। স্বপ্নীল যেমনটি বলেছিলেন আগের একটি পোস্টে, আমিও সেরকমই বলছি। একটি সংগত উপবিভাগ থাকাকে আমরা প্রেফার করছি শুধুমাত্র, সেটা হতেই হবে এরকম দাবী করছি না। আপনারা দুজনই বয়সে খুব বেশি না হলেও সিনিয়র। তাই আপনাদের সাথে মুখে মুখে (পোস্টের মাধ্যমে) তর্ক করতে খারাপ লাগছে। আপনারা কোনরকম কষ্ট পেয়ে থাকলে আমি আন্তরিকভাবেই দুঃখিত। এই টপিক থেকে বিদায় নিচ্ছি।

৭৩ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন হৃদয় (০৮-০৮-২০১১ ১৪:৪৩)

Re: প্রজন্মে ধর্ম নিয়ে আলাদা উপবিভাগ চাই

জেলাল লিখেছেন:

যতদুর জানি ডারউইন নিজেই বানরের বংশধর হওয়ার কনসেপ্টটা এনেছিলেন সামনে। সেটা গালাগালি কিনা বুঝতে পারছিনা।

গালাগালির ক্ষেত্রে এটাকে সেভাবে ব্যবহার করা হয় না। "ডারউইনের বান্দর দেখি এখন "অমুক জায়গাতেও" এসে পড়েছে, কলা কিনার জইন্যে লোক পাঠানোর ব্যবস্থা করেন" অথবা "আপনার চেহারাখানা একবার দেখার খায়েশ হইছে, দেখি ডারউইনের তত্ত্বের সঙ্গে আপনার মিল কতটুকু"- এইগুলো নিশ্চই অরিজিন অফ স্পিসিসে লেখা ছিল না।

এবং এই টপিকে অংশ নিয়েছিলেন (বেশ জোর গলায়) এমন একজন ব্যক্তিই এই কথাগুলো বলেছিলেন, এবং আমাকেই বলেছিলেন। আমি এগুলো উল্লেখ করার পর আর তাঁকে দেখা গেলো না!!!

আমি আবারও পুরানো পয়েন্টে ফিরে আসছি, কয়েকজন ধর্মীয় বিভাগের নামটা শুনলেই এইসব কাজ করতে ছুটে আসে, অন্যান্য যেসব জায়গায় ধর্মীয় ফোরাম আছে সেখানে তাঁদের অ্যাক্টিভিটি দেখলেই বোঝা যায় তাঁরা কি ধরণের টপিক দেন। এইসব ধর্মীয় ট্রল দের জন্য অত্যন্ত আকর্ষনীয় জায়গা হল ধর্মীয় বিভাগ। এবং যখন তাঁরা টপিক গুলো দিতে থাকবেন তখন ধর্মীয় বিভাগ থেকে সেগুলোকে নিয়ন্ত্রণে রাখা হবে অত্যন্ত কঠিন, কিন্তু দৈনন্দিন বিভাগে যেটা ভালভাবেই করা যেত।

তথ্য বিকৃতি জিনিসটার স্বরূপ যারা বোঝেন না তাঁদের জন্য বলে রাখা ভালো, ডারউইন বলে গেছিলেন বহুকাল ধরে বানর থেকে বিবর্তনের মাধ্যমে মানুষ এসেছে, "এইটা বলেননি যে আমার-আপনার বাবা-মা বানর ছিলেন"

ইংরাজিতে কয়েকটা কথা আছে খুব সাধারণ অর্থ। কিন্তু বাংলায় সেগুলো হয় ভয়ানক গালি। আমি যদি এখন সেই ইংরাজি কথা গুলো কাউকে বলে তারপর এই অজুহাত দেই যে "তুমি ইংরাজি শেখোনি নাকি? জানো না এগুলোর মানে কি?" তাহলে কি সে আমাকে উত্তম-মধ্যম দেওয়া থেকে বিরত থাকবে?

[প্রসঙ্গত, আমার এই কমেন্ট অফটপিক বা অপ্রাসঙ্গিক নয়, কি ধরণের আক্রমণ হতে পারে এবং আক্রমণ গুলো কি ধরণের অজুহাতে করা হয় তার উদাহরণ দিলাম, এবং এগুলো ধর্মীয় টপিকে নয়, ধর্মীয় বিভাগেই হয়। আপনারা সকলেই অভিজ্ঞ ব্যক্তি, আমি ফোরামে নতুন, ক্রমাগত এতো তর্ক করার জন্য আন্তরিক ভাবে দুঃখিত।
                                                 মডারেশান প্যানেলের সিদ্ধান্তের উপর আমার আস্থা আছে, এবং তাঁদের সুচিন্তিত সিদ্ধন্তের সাথে আমি সর্বদাই একমত থাকব।]

"No ship should go down without her captain."

হৃদয়১'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

৭৪

Re: প্রজন্মে ধর্ম নিয়ে আলাদা উপবিভাগ চাই

শামীম লিখেছেন:

তারপরেও কেউ যদি ধর্মকে রাজনীতি বা লিনাক্স-উইন্ডোজের সাথে তুলনীয় কাতারে রাখেন সেটা তাঁর ব্যাপার। আমি ওর মধ্যে নাই।

মানুষ যখন একটা জিনিস বোঝাতে গিয়ে আরেকটার তুলনা দেয় তখন এটা জরুরি না যে দুইটা জিনিস ১০০% মিল থাকবে। তাহলে 'দেশ' ও 'মা'এর মিল দেখান, অথবা 'চাঁদ' আর 'প্রেয়সী'র মিল দেখান। নাকি বলতে চান এই ধরনের তুলনার মধ্যেও আপনি নেই।

স্বপ্নচারী লিখেছেন:

কারণ, অতীতে আক্রমণ করা হয়েছে। কাদিয়ানীদের পোস্ট সরানো হয়েছে।

বাংলাদেশের সংবিধান অনুযায়ী উচ্চ আদালতের রায় মানা বাধ্যতামূলক। আপনি মানেন তো??

৭৫

Re: প্রজন্মে ধর্ম নিয়ে আলাদা উপবিভাগ চাই

ধর্ম নিয়ে একটা  আলাদা উপবিভাগ চাই, এইটা নিয়া এত ছিপাছিপি, যুক্তি-তর্ক, বিতর্ক- জাতাজাতি বুজলাম না।
উপবিভাগে সবাই নিজেদের ধর্ম নিয়া আলোচনা করলে নিজেদের ধর্ম সম্পর্কে কিছু শিখলো, একে অন্যের ধর্ম নিয়া
তিরষ্কার-মষ্করা ও সমালোচনা ন করে নিজেদের ধর্ম নিয়া আলো চনা করলেইতো হবে।
প্রয়োজনে এর জন্য উপবিভাগের জন্য কিছু রোল-নীতি বা নির্দেশনা প্রনয়ন করা হবে।

শামীম লিখেছেন:
তারপরেও কেউ যদি ধর্মকে রাজনীতি বা লিনাক্স-উইন্ডোজের সাথে তুলনীয় কাতারে রাখেন সেটা তাঁর ব্যাপার। আমি ওর মধ্যে নাই।

তা হবে কেন লিনাক্স-উইন্ডোজের এর শিক্ষা আমরা লিনাক্স-উইন্ডোজে বিষয়ক বই পড়ে নিতে পাড়ি
আবার ধর্ম বিষয়ক শিক্ষাও বই পড়ে নিতে পাড়ি, দু'টুই গ্রন্থ তাই বলে লিনাক্স-উইন্ডোজের ও ধর্ম এক হয়ে যাবে।

এই টপিকের অবস্তা দেখে মনে হল ধর্ম নিয়ে আলাদা উপবিভাগ যেন বিতর্ক আর জগড়ার জন্যই খোলার আবেদন হচ্ছে।
মনে হচ্ছে মডুবাইদের জন্য বড় কথা উপবিভাগটা খুলবেন  কিনা তা নয়, বড় কথা এই টপিকের জাতাজাতি অবসন করা।

কোনখানে আছি আল্লাই মালুম..........

আমার মৃত্যু নেই কারণ আমি মানুষ।
আল্লাহ মানুষকে অমর বানিয়েছেন তবে এ দেহের মৃত্যু হবে।

facebookকে

৭৬

Re: প্রজন্মে ধর্ম নিয়ে আলাদা উপবিভাগ চাই

আল্লাহ আমাদের সকল কে হেদায়াত দান করুক যেন আমরা ইসলাম কে না ভয় পাই।

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

৭৭

Re: প্রজন্মে ধর্ম নিয়ে আলাদা উপবিভাগ চাই

উপরের সবগুলো লেখা পড়লাম না। আমি পক্ষে ভোট দিলাম। আমি মনে করি ধর্মীয় টপিকগুলো শুধুমাত্র সাজিয়ে একটি সাবফোরামে রাখার জন্য ধর্ম বিষয়ক একটি সাবফোরাম খোলা যাতেই পারে। isee

ইমরান তুষার'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

৭৮ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন মাহমুদ রাব্বি (০৮-০৮-২০১১ ২১:১৬)

Re: প্রজন্মে ধর্ম নিয়ে আলাদা উপবিভাগ চাই

আমার কাছে মনে হয় 'ইসলাম ও জীবন' এই নামে ধর্মীয় উপ-বিভাগ করা যেতে পারে কারন শুধু 'ধর্ম ও জীবন' এই ধরনের নামের বিভাগ খুললে সব ধর্মের লোক একে অপরের সাথে কথা কাটাকাটি শুরু করে দিবে রাজনীতি বিভাগের মতো। এর চেয়ে ভালো হচ্ছে 'দৈনন্দিন' বিভাগে 'ইসলাম ও জীবন' নামে উপ-বিভাগ খোলা।

ফোরামের সবচেয়ে বিতর্কিত বিভাগ হচ্ছে রাজনীতি বিষয়ক বিভাগটা। আমার মতে রাজনীতি বিভাগ সম্পূর্ন বন্ধ করে দেয়া উচিত। আগে আমিও এই বিভাগটায় পোষ্ট দিতাম কিন্তু এখন সম্পূর্ন বন্ধ করে দিয়েছি। খুব বাজে একটা বিভাগ।

কেউ যদি রাজনীতি বিষয়ক টপিক খুলতে চায় এখন থেকে তবে 'বিবিধ' বিভাগে পোষ্ট দিতে পারে এমন নিয়ম করা উচিত এবং 'সংবাদ বিশ্লেষন' বিভাগে রাজনীতির সাথে সরাসরি সম্পর্কিত নয় শুধু এমন টপিক খোলা যেতে পারে।


সর্বোপরি প্রজন্ম ফোরাম সব ধরনের বিতর্ক ও কাদা ছোড়াছুড়ির উর্ধে থাকুক এটাই কাম্য।  smile

৭৯

Re: প্রজন্মে ধর্ম নিয়ে আলাদা উপবিভাগ চাই

দ্যা ডেডলক লিখেছেন:

আল্লাহ আমাদের সকল কে হেদায়াত দান করুক যেন আমরা ইসলাম কে না ভয় পাই।


"আমীন"

আমার মৃত্যু নেই কারণ আমি মানুষ।
আল্লাহ মানুষকে অমর বানিয়েছেন তবে এ দেহের মৃত্যু হবে।

facebookকে