২১

Re: বিশ্বকাপ প্রাক-বাছাই ফুটবলঃ বাংলাদেশ (৩) - পাকিস্তান (০)

এটা আবার নতুন কি ? পাকিস্তান আর ভারত কে দেখলেই বাংলাদেশের পুরোনো বন্য ভাবটা জেগে উঠে !  বাঙ্গালী বলে কথা !

শ্রাবন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

২২

Re: বিশ্বকাপ প্রাক-বাছাই ফুটবলঃ বাংলাদেশ (৩) - পাকিস্তান (০)

নির্ঝর লিখেছেন:

কোচ মনে হয় বিশাল অভিমানী...  lol
আবার দুইদিন পরে যদি বলে বসে যে, সে পদত্যাগ করতে চায় নাই(হাজার হোক... পাকিস্তানীই ত? wink ), তাইলেও ত কিসু বলার থাকবে না।  hehe

একদম ঠিক বলছেন।

আহারে দেশের রাজনীতিবিদ, পুলিশ... যদি এই কোচের হাজার ভাগের একভাগ হইত। dream হাতি-ঘোড়া তল হওয়ার মত ঘনটা ঘটে যায় তার দ্বায়িত্ব নিয়ে কাউকে পদত্যাগ করতে শোনা যায় না।

২৩

Re: বিশ্বকাপ প্রাক-বাছাই ফুটবলঃ বাংলাদেশ (৩) - পাকিস্তান (০)

বাংলাদেশ অপরাজিত থেকে ২য় পর্বে উঠে গেছে

"We want Justice for Adnan Tasin"

২৪

Re: বিশ্বকাপ প্রাক-বাছাই ফুটবলঃ বাংলাদেশ (৩) - পাকিস্তান (০)

আউল লিখেছেন:

বাংলাদেশ অপরাজিত থেকে ২য় পর্বে উঠে গেছে

পরের খেলা কার সাথে ?

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

২৫

Re: বিশ্বকাপ প্রাক-বাছাই ফুটবলঃ বাংলাদেশ (৩) - পাকিস্তান (০)

গতকাল বাংলাদেশ ০-০ গোলে ড্র করেছে

২৬ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন আউল (০৪-০৭-২০১১ ১৯:৫৩)

Re: বিশ্বকাপ প্রাক-বাছাই ফুটবলঃ বাংলাদেশ (৩) - পাকিস্তান (০)

প্রাক-বাছাইয়ের দ্বিতীয় পর্বের খেলায় ২৩ জুলাই বাংলাদেশ মোকাবেলা করবে শক্তিশালী লেবানন দলের বিরুদ্ধে।খেলাটি হবে লেবাননে। আর ম্যাচ ফিকশ্চার অনুযায়ী ২৮ জুলাই লেবানন খেলতে আসবে ঢাকায়।

"We want Justice for Adnan Tasin"

২৭

Re: বিশ্বকাপ প্রাক-বাছাই ফুটবলঃ বাংলাদেশ (৩) - পাকিস্তান (০)

আউল লিখেছেন:

প্রাক-বাছাইয়ের দ্বিতীয় পর্বের খেলায় ২৩ জুলাই বাংলাদেশ মোকাবেলা করবে শক্তিশালী লেবানন দলের বিরুদ্ধে।খেলাটি হবে লেবাননে। আর ম্যাচ ফিকশ্চার অনুযায়ী ২৮ জুলাই লেবানন খেলতে আসবে ঢাকায়।

লেবানন আমাদের তুলনায় অনেক স্ট্রং হলেও আশা করছি আমরা ভালো কিছু করে দেখাতে পারবো ! thumbs_up

   নেই, আছে এবং নৈবচ নৈবচ . . . . .
   দেশ, দশ, দুনিয়া তথা বিশ্ব ব্রম্মান্ড হইতে নহে ষাইফ ঋাষেল আপাতত ফেসবুক হইতে আনা গাইয়েবুন

২৮

Re: বিশ্বকাপ প্রাক-বাছাই ফুটবলঃ বাংলাদেশ (৩) - পাকিস্তান (০)

কিন্তু দেশের ফুটবলের অবস্থা কি তা নীচের রিপোর্ট হতে বুঝা যাচ্ছে

জাতীয় দলের জন্য অভিশাপ সুপার কাপ!
জাতীয় দলের সাফল্যও সমস্যায় ফেলে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনকে! পাকিস্তানকে হারিয়ে বাংলাদেশ দল বিশ্বকাপ প্রাক-বাছাইয়ের প্রথম ধাপ পেরোনোয় বাফুফে গুরুতর সমস্যায় পড়েছে। তারা যাবে কোনদিকে_জাতীয় দল না সুপার কাপ? কাল সিদ্ধান্ত হয়েছে, তারা দুই কূলই রক্ষা করে চলবে। তবে বাস্তবতা হলো দুই কূল রক্ষা করে চলা কঠিন, তাই সুপার কাপের কারণে জাতীয় দল আবার উপেক্ষার শিকার হতে যাচ্ছে!
গত ২৯ জুন ঢাকায় পাকিস্তানিদের নাকের পানি, চোখের পানি এক করে দিয়ে বাংলাদেশ ৩-০ গোলে জেতার পরপরই সামনে চলে আসে সমস্যাটা। পরের ম্যাচে লাহোরে গিয়ে বাংলাদেশ বিশ্বকাপ প্রাক-বাছাইয়ের প্রথম ধাপ উতরে গেলে কী হবে? পরের ধাপে লেবাননের মুখোমুখি হওয়ার জন্য কি পর্যাপ্ত প্রস্তুতির সময় পাবে? রুবচিচের মতো ইলিয়েভস্কিও কি দল নিয়ে কাজ করার সুযোগ পাবেন না? ৮ জুলাই থেকে সুপার কাপ শুরুর ঘোষণাই প্রশ্নগুলোকে সামনে নিয়ে এসেছিল। গতকাল সুপার কাপ কমিটির সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে সুপার কাপ ৮ তারিখ থেকেই হচ্ছে এবং সদ্য সমাপ্ত লিগের শীর্ষ ছয় দল নিয়েই হচ্ছে। সভা শেষ করে টুর্নামেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান হারুনুর রশিদ জানিয়েছেন, 'যেকোনোভাবেই এই সময়ের মধ্যে সুপার কাপটা আমাদের করতে হবে। কারণ আগস্টে শুরু হয়ে যাচ্ছে রমজান তারপর আর্জেন্টিনা-নাইজেরিয়া ম্যাচের জন্য মাঠ প্রস্তুতির ব্যাপার আছে।'
শোনা যায়, স্পন্সর গ্রামীণফোনের পক্ষ থেকেও একটা চাপ আছে সুপার কাপের জন্য। আর রমজান ও সেপ্টেম্বরে আর্জেন্টিনা-নাইজেরিয়া ম্যাচের কারণ বাফুফের হাতে জুলাই মাস ছাড়া কোনো সময় নেই। সেটা হওয়া মানে জাতীয় দলের স্বার্থ পুরোপুরি উপেক্ষিত। ২৩ জুলাই বৈরুতে লেবাননের বিপক্ষে প্রাক বাছাইয়ে অ্যাওয়ে ম্যাচ খেলার আগে প্র্যাকটিসের কোনো সুযোগই পাবে না বাংলাদেশ দল। অথচ হারুনুর রশিদ বলে যাচ্ছেন, 'আমাদের চেষ্টা থাকবে জাতীয় দলকে যত বেশি সময় দেওয়া যায় প্র্যাকটিসের জন্য। এ জন্য গ্রুপ পর্বে ডাবল লিগ নাও হতে পারে, আনুষ্ঠানিকভাবে তা জানানো হবে আগামী ৫ জুলাই।' ডাবল লিগ না হলেও কিন্তু কোটি টাকার এই সুপার কাপ শেষ হবে জুলাইয়ের ১৯-২০ তারিখের দিকে। এরপর তো ২৩ তারিখের ম্যাচের জন্য বাংলাদেশ দলকে লেবানন রওনাই হতে হবে!
এই সমস্যা আরেকবার মনে করিয়ে দিল বাফুফের পরিকল্পনাহীন পথচলাকে। লিগ-টুর্নামেন্টের নির্দিষ্ট সূচি থাকে না বলেই এই দুরবস্থার মধ্যে পড়তে হয়। যেমন গত বাংলাদেশ লিগ মার্চে শুরু হয়ে প্রথম লেগের পর এক মাসেরও বেশি বিরতি দেওয়ার কোনো যৌক্তিতা ছিল না। সেখানে অপ্রত্যাশিত এবং অপরিকল্পিত সংযোজন হয়েছিল স্বাধীনতা কাপের। তারপর আরো নানা অজুহাতে ছেদ পড়ে লিগে। তখনো তারা পরিকল্পনাহীন, কবে করবে কিংবা কোন সময়ে করলে জাতীয় দলের জন্য সমস্যা হবে না_সেসব বাফুফে কর্তাদের মাথাতেই ছিল না।
তাই কোটি টাকার সুপার কাপ বাংলাদেশ দলের জন্য হয়ে গেল অভিশাপ!
http://www.dailykalerkantho.com/?view=d … _id=168340

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত