টপিকঃ ক্যান্সার চিকিৎসায় সোনা

সোনা মূল্যবান ধাতু হলেও সেটি আসলে যে কাজের জিনিস তা আবারও প্রমাণিত হলো চিকিৎসা বিজ্ঞানের গবেষণায়। দুরারোগ্য ব্যাধি ক্যান্সার শনাক্ত করার আধুনিক এক প্রযুক্তি হলো কোয়ান্টাম উট দিয়ে ক্যান্সার কোষ অণুবীক্ষণ যন্ত্রে দৃশ্যমান করা। এটি সফল এক পদ্ধতি হলেও কোষ এবং মানবদেহের জন্য টক্সিক বিক্রিয়া সৃষ্টি করতে পারে। তাই এ প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ নিরাপদ নয়। কিন্তু বিজ্ঞানীরা সম্প্রতি ক্যান্সার কোষ শনাক্ত করার এমন এক পদ্ধতি আবিষ্কার করেছেন যা সম্পূর্ণ নিরাপদ এবং অনেক বেশি কার্যকর। আর সেটি হলো স্বর্ণধূলি দিয়ে পরীক্ষা। সোনাকে বিচূর্ণ করে ন্যানো পর্যায়ের অতি সূক্ষ্ম আণুবীক্ষণিক ধূলিতে রূপান্তরিত করে ক্যান্সার কোষের মার্কার হিসেবে ব্যবহার করে দেখা গেছে এটি অত্যন্ত কার্যকর। আর সোনার একটি বড় গুণ_ এটি নন টক্সিক। দেহের কোনো ক্ষতি করে না। তাই ক্যান্সার কোষ শনাক্ত করার জন্য এই স্বর্ণধূলি সহজেই মানবদেহে ইনজেক্ট করা যায়। আর এ ধূলি ক্যান্সার কোষের গায়ে জড়িয়ে উজ্জ্বল আভায় উদ্ভাসিত হয়। যার ফলে বিজ্ঞানীরা অতি সহজে ক্যান্সার কোষ চিহ্নিত করতে পারেন। ক্যান্সার শনাক্ত করার এ নতুন পদ্ধতি নিয়ে কাজ করছেন পিতা-পুত্রের একটি টিম। পিতা ড. মোস্তফা আল সাইয়েদ জর্জিয়া ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি এবং পুত্র আইভান আল সাইয়েদ সানফ্রান্সিসকো মেডিক্যাল সেন্টারের গবেষক।



( সংগ্রহীত )

জীবনে চলার পথে কখনও কখনও উদাসীন হতে হয় , তা না হলে জীবন জটিল হয়ে যায় ।

লেখাটি CC by-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: ক্যান্সার চিকিৎসায় সোনা

সোনার দামতো তাইলে আরো বাড়বে  nailbiting

ওয়েব হোস্টিং | রিসেলার হোস্টিং | অনলাইন রেডিও হোস্টিং
টেট্রাহোস্ট বাংলাদেশ - www.tetrahostbd.com

Re: ক্যান্সার চিকিৎসায় সোনা

টেট্রাহোস্ট লিখেছেন:

সোনার দামতো তাইলে আরো বাড়বে  nailbiting

সমস্যা নাকি ? সোনা কেনা হয় নাকি কারো জন্য ?

জীবনে চলার পথে কখনও কখনও উদাসীন হতে হয় , তা না হলে জীবন জটিল হয়ে যায় ।

লেখাটি CC by-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত