টপিকঃ তরমুজের নানা গুণ

গ্রীষ্ম আমাদের ফল বৈচিত্র্যের ঋতু। ষড়ঋতুর মধ্যে গ্রীষ্ম ঋতুই সবচেয়ে বেশি ফল সমৃদ্ধ। এসব ফল শুধু সুস্বাদুই নয়- এসবে রয়েছে নানা পুষ্টিগুণ। তরমুজ তেমনি একটি পুষ্টি সমৃদ্ধ ফল। সাধারণত তরমুজের বাইরের অংশ সবুজ এবং ভিতরের অংশ লাল। প্রতি ১০০ গ্রাম তরমুজের পুষ্টিমান বিচার করলে দেখা যায় এতে রয়েছে শতকরা ৯৩ ভাগ পানি। আঁশের পরিমাণ ০.২ গ্রাম। আঁশ জাতীয় খাবার আমাদের কষ্ট-কাঠিন্য দূর করতে সাহায্য করে। এতে আমিষ ০.৫ গ্রাম, চর্বি ০.২ গ্রাম, ক্যালরি ১৬ মিলিগ্রাম যা আমাদের দেহের বৃদ্ধি সাধন, ক্ষয়পূরণ ও শক্তি জোগায়। তরমুজে আছে ১০ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম যা হাঁড়কে মজবুত রাখতে সাহায্য করে। লোহার পরিমাণ আছে ৭.৯ মিলিগ্রাম যা রক্তশূন্যতা দূর করতে সহায়ক ভিটামিন এ ৫৯০ আইইউ, ভিটামিন সি ৬ মিলিগ্রাম, ভিটামিন বি১-০.০৪ মিলিগ্রাম এবং ভিটামিন বি২ ০.৬ মিলিগ্রাম। এছাড়া আরও রয়েছে কার্বোহাইড্রেট ৩.৫ গ্রাম, খনিজ পদার্থ ০.২ গ্রাম, ফসফরাস ১২ মিলিগ্রাম, নিয়াসিন ০.২ মিলিগ্রাম। তরমুজের এতসব পুষ্টিমান বিচার করে সহজেই বলা যায় তরমুজ নানা পুষ্টিগুণ সম্পন্ন একটি ফল যা শরীরের বিভিন্ন পুষ্টি উপাদান পূরণে সহায়তা করে থাকে।
যদিও তরমুজে ৯৩ ভাগই পানীয় অংশ তবুও বাকী অংশে যে পরিমাণ পুষ্টি রয়েছে তাতে এটিকে নিছক গরমে তৃষ্ণা মেটানোর ফল বলা যাবে না। আর দাম এবং খাওয়ার সক্ষমতার বিচার করলে তরমুজ শরীরের দৈনিক পুষ্টি চাহিদার একটি বড় অংশ মেটাতে সক্ষম। একটি ৩ কেজি ওজনের তরমুজ অনায়াসেই ৬ জন মানুষ খেতে পারে এবং প্রত্যেকের ভাগে যায় ৫০০ গ্রাম করে। পূর্বে উল্লেখিত পুষ্টিগুণ প্রতি ১০০ গ্রামের। তাই এর পাঁচগুণ পুষ্টি হিসাব করলে সবাই স্বীকার করবেন যে পুষ্টিমানে ও তৃপ্তিতে তরমুজ সত্যিই অনন্য।
সূত্রঃ আল-ইহসান

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন তপু (৩০-০৮-২০০৭ ১৫:২৫)

Re: তরমুজের নানা গুণ

সেভারাস লিখেছেন:

গ্রীষ্ম আমাদের ফল বৈচিত্র্যের ঋতু। ষড়ঋতুর মধ্যে গ্রীষ্ম ঋতুই সবচেয়ে বেশি ফল সমৃদ্ধ। এসব ফল শুধু সুস্বাদুই নয়- এসবে রয়েছে নানা পুষ্টিগুণ। তরমুজ তেমনি একটি পুষ্টি সমৃদ্ধ ফল। সাধারণত তরমুজের বাইরের অংশ সবুজ এবং ভিতরের অংশ লাল। প্রতি ১০০ গ্রাম তরমুজের পুষ্টিমান বিচার করলে দেখা যায় এতে রয়েছে শতকরা ৯৩ ভাগ পানি। আঁশের পরিমাণ ০.২ গ্রাম। আঁশ জাতীয় খাবার আমাদের কষ্ট-কাঠিন্য দূর করতে সাহায্য করে। এতে আমিষ ০.৫ গ্রাম, চর্বি ০.২ গ্রাম, ক্যালরি ১৬ মিলিগ্রাম যা আমাদের দেহের বৃদ্ধি সাধন, ক্ষয়পূরণ ও শক্তি জোগায়।

ধন্যবাদ। আমার প্রিয় ফলের একটি হলো তরমুজ। এর সর্ম্পকে অনেক কিছু জেনে আরো ভাল লাগল। তবে বোল্ড করা অংশের অর্থটুকু পরিস্কার হয়নি। ক্যালরির একক মিলিগ্রাম হয় কিভাবে? কেননা ক্যালরিতো নিজেই একটা একক। এটা কি ক্যারোটিন হবে?
জাপানি ভাষায় তরমুজকে বলে ছুইকা (ছুই আর কা এর কাঞ্জি মিলিয়ে লেখে, ছুই কাঞ্জির অর্থ পানি আর 'কা' কাঞ্জির অর্থ ফল)। যেহেতু তরমুজে পানির পরিমান বেশি তাই এর এরুপ নাম (চাইনিজ ভাষার লিখিত রুপকে কাঞ্জি বলে)।
আমরা সবাই গোলাকার তরমুজের কথা জানি কিন্তু জাপানে চর্তুভূজাকৃতি ও পিরামিড আকৃতির তরমুজও পাওয়া  যায় ।

তোমাকে ভালবাসি, তোমারই চরণে ঠাঁই,
মা,
তোমার ভালবাসার কোন তুলনা নাই।

Re: তরমুজের নানা গুণ

একক হবে না বোধহয়:(

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন স্বপ্নচারী (০৬-১০-২০০৭ ২০:৩৯)

Re: তরমুজের নানা গুণ

সেভারাস লিখেছেন:

গ্রীষ্ম আমাদের ফল বৈচিত্র্যের ঋতু। ... স্বীকার করবেন যে পুষ্টিমানে ও তৃপ্তিতে তরমুজ সত্যিই অনন্য।
সূত্রঃ আল-ইহসান

ধন্যবাদ কিন্তু আমার তরমুজ ভালো লাগে না