সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন শান্ত বালক (১৭-০১-২০১১ ০১:১৩)

টপিকঃ ইউনিপে-টু-ইউ নিয়ে এবার সরকারের সতর্কবার্তা

'মাল্টি লেভেল মার্কেটিং' সংস্থা ইউনিপে-টু-ইউ মিথ্যা প্রচারণার মাধ্যমে সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করছে বলে রোববার এক তথ্য বিবরণীতে জানানো হয়েছে।

তথ্য বিবরণীতে বলা হয়, ওই প্রতিষ্ঠানটি বিভিন্ন নেতাদের নামে এসএমএস পাঠিয়ে মানুষকে বিনিয়োগের আহ্বান জানাচ্ছে। তাদের বিজ্ঞাপনী প্রচারে বলা হচ্ছে- "ইউনিপে-টু-ইউতে টাকা রাখুন। ১০ মাসে ১ লাখে দুই লাখ টাকা লাভ করুন, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়–ন।"

এই 'ভুয়া' প্রচারণার বিষয়টি সরকারের নজরে এসেছে উল্লেখ করে তথ্য বিবরণীতে বলা হয়, " এদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। বাংলাদেশ ব্যাংক এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিচ্ছে।"

ইউনিপে-টু-ইউর 'চটকদার' প্রচারে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য বিনিয়োগকারী ও সাধারণ মানুষের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে ওই তথ্য বিবরণীতে।

এর আগে ৯ জানুয়ারি বাংলাদেশ ব্যাংকের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জনসাধারণকে সতর্ক করে বলা হয়, এমএলএম ব্যবসায় কিছু প্রতিষ্ঠান উচ্চ মুনাফার লোভ দেখিয়ে প্রতারণামূলকভাবে অর্থ সংগ্রহ করছে। এসব প্রতিষ্ঠানে বিনিয়োগে প্রতারিত হওয়ার ঝুঁকি অত্যন্ত বেশি।

ওইদিনই অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত সাংবাদিকদের জানান, ইউনিপে-টু-ইউর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পরদিন বাণিজ্যমন্ত্রী ফারুক খান এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, এমএলএম ব্যবসার বিষয়ে শিগগিরই নীতিমালা চূড়ান্ত করবে সরকার।

যৌথ মূলধনী কোম্পানি ও ফার্মগুলোর পরিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশে ৭০টি এমএলএম কোম্পানি রয়েছে।

সূত্র : http://www.bdnews24.com/bangla/details. … ;id=147212

ইউনিপে-টু-ইউর 'চটকদার' প্রচারে/ফাঁদে না পড়তে বিনিয়োগকারী ও সাধারণ মানুষকে সতর্ক হতে হবে (বিনিয়োগ না করা উচিত)।

Re: ইউনিপে-টু-ইউ নিয়ে এবার সরকারের সতর্কবার্তা

আজব, মাত্র কয়েক মাস আগে এই বাণিজ্যমন্ত্রী নিজেই এই মলম কোম্পানীকে ডিফেন্ড করে সাংবাদিকদের সাক্ষাৎকার দিয়েছিলেন। আর এখন তুলছেন প্রতারণা এবং ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণের অভিযোগ!  roll

আমার কিছু বন্ধুবান্ধব ইউনিপে-তে টাকা খাটিয়েছিলো। এদের দুয়েকজন সন্দেহ পোষণ করায় তাদেরকে ইউনিপে-র অফিসে নিয়ে গিয়ে ঐ ইন্টারভিউ-এর ভিডিও দেখিয়ে বলা হয়েছিলো স্বয়ং বাণিজ্যমন্ত্রীর সম্মতি নাকি আছে ইউনিপে-র প্রতি।

দুষ্ট লোকে গুজব ছড়িয়েছিলো দেশের বাইরে বসে যিনি কলকাঠি নাড়েন তিনিসহ সরকারের শীর্ষ পর্যায়ের হোমড়াচোমড়াদের ৩০০ কোটি টাকা নাকি এই ফাটকা কোম্পানীতে খাটছে। কে জানে, ইতিমধ্যেই হয়তো সে টাকা সুদে আসলে বহুগুণে ফুলে ফেঁপে যেখান থেকে এসেছে সেখানেই ফেরত গেছে। এবার তলায় বিশাল ফুটো-ওয়ালা জাহাজটাকে ডুবতে দেয়া যায়...

Calm... like a bomb.

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন শান্ত বালক (১৭-০১-২০১১ ১২:৫২)

Re: ইউনিপে-টু-ইউ নিয়ে এবার সরকারের সতর্কবার্তা

invarbrass লিখেছেন:

দুষ্ট লোকে গুজব ছড়িয়েছিলো দেশের বাইরে বসে যিনি কলকাঠি নাড়েন তিনিসহ সরকারের শীর্ষ পর্যায়ের হোমড়াচোমড়াদের ৩০০ কোটি টাকা নাকি এই ফাটকা কোম্পানীতে খাটছে। কে জানে, ইতিমধ্যেই হয়তো সে টাকা সুদে আসলে বহুগুণে ফুলে ফেঁপে যেখান থেকে এসেছে সেখানেই ফেরত গেছে। এবার তলায় বিশাল ফুটো-ওয়ালা জাহাজটাকে ডুবতে দেয়া যায়...

ঠিক এই একই ধরনের ঘটনা ঘটেছে শেয়ারের ক্ষেত্রেও। ক্ষমতাসীন দলের (উচ্চ পর্যায়ের)নেতা-কর্মীরা শেয়ার কিনে নাকি শেয়ারের রেট আকাশচুম্বী তুলে তাদের টাকা বের করে নিয়ে বর্তমান এই অবস্হা করেছে। শোনা যাচ্ছে, সামনে আসছে আরেকটা ধাক্কা সেখানেও নাকি ঘটতে যাচ্ছে শেয়ার-ইউনিপে র মতো একই ধরনের ঘটনা.......ধারনা করতে পারেন কি সামনের ধাক্কাটা কি?

Re: ইউনিপে-টু-ইউ নিয়ে এবার সরকারের সতর্কবার্তা

আমার এলাকার এক বড় ভাই আমাকেতো পাগল করে ফেলছিল ইউনিপে-টুইউ করার জন্য।
জানতাম এমনই কিছু হবে ভূয়া কোম্পানী ১০ মাসে ডাবল বেনিফিট কি করে সম্ভব বুঝি না।

অপ্রিয়

Re: ইউনিপে-টু-ইউ নিয়ে এবার সরকারের সতর্কবার্তা

শান্ত বালক লিখেছেন:

ঠিক এই একই ধরনের ঘটনা ঘটেছে শেয়ারের ক্ষেত্রেও। ক্ষমতাসীন দলের (উচ্চ পর্যায়ের)নেতা-কর্মীরা শেয়ার কিনে নাকি শেয়ারের রেট আকাশচুম্বী তুলে তাদের টাকা বের করে নিয়ে বর্তমান এই অবস্হা করেছে। শোনা যাচ্ছে, সামনে আসছে আরেকটা ধাক্কা সেখানেও নাকি ঘটতে যাচ্ছে শেয়ার-ইউনিপে র মতো একই ধরনের ঘটনা.......ধারনা করতে পারেন কি সামনের ধাক্কাটা কি?

শেয়ারবাজারের অস্থিরতার জন্য অনেকগুলি বিষয় কাজ করেছে। মুল যে সমস্যাটা হয়েছে সেটা হলো ব্যাংক এবং নন ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্টানগুলোর অতিরিক্ত মাত্রায় শেয়ার বাজারে বিনোয়োগ করা এবং পরবর্তীতে বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক স্বল্প সময়ের মধ্যে সেই অতিরিক্ত বিনিয়োগ তুলে ফেলার নির্দেশ। বাংলাদেশ ব্যাংকের নিয়ম অনুযায়ী ব্যাংকগুলো তাদের আমানতের সর্বোচ্চ ১০% শেয়ারবাজারে বিনোয়োগ করতে পারে। কিন্তু দেখা গেছে অনেকগুলো ব্যাংক অতিরিক্ত মুনাফার লোভে নির্ধারিত মাত্রার অনেক বেশী শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ করে ফেলে। এই অতিরিক্ত তারল্য সরবরাহের কারনে শেয়ার মার্কেট কিছু কিছু ক্ষেত্রে অতিমূল্যায়িত হয়ে পড়েছিল। একপর্যায়ে বাংলাদেশ ব্যাংক যখন অতিরিক্ত বিনিয়োগ প্রত্যাহারের জন্য তাদের উপর চাপ সৃষ্টি করে তখন তারা ফোর্স সেলে চলে যায়। যার কারনে তাদের হাতে থাকা শেয়ারের দাম খুব দ্রুত পড়তে থাকে। এই শেয়ারের মূল্যের দ্রুত পতন দেখে বেশীরভাগ ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীও তাদের হাতে থাকা শেয়ার বিক্রি করার জন্য অস্থির হয়ে উঠে। যার ফলাফল আজকের শেয়ারবাজারের বর্তমান অবস্থা। তার সাথে আবার যুক্ত হয়েছিল এসইসির কিছু আবাল সিদ্ধান্ত। অন্যদিকে ইউনিপে টাইপের মাল্টিলেভেল মার্কেটিং কোম্পানীর অতিরিক্ত মুনাফার লোভে অনেক মানুষ ব্যাংকের ফিক্সড ডিপোজিট ভাংগিয়ে এই সব হায় হায় কোম্পানীতে বিনিয়োগ করে যার কারনে ব্যাংকগুলো তারল্য সংকট প্রবল হয়ে উঠে। তখন তারা কলমানি মার্কেট থেকে চড়া সুদে টাকা নিতে বাধ্য হয়। আরো অনেকগুলো কারন আছে যার কারনে সাধারন মানুষ পুজিবাজার থেকে আস্থা হারিয়ে ফেলেছে।

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: ইউনিপে-টু-ইউ নিয়ে এবার সরকারের সতর্কবার্তা

কিভাবে মানুষ ঠকানোর এইসব শয়তানী চাল চালে এরা বুঝে পাই না।

Re: ইউনিপে-টু-ইউ নিয়ে এবার সরকারের সতর্কবার্তা

সরকারের প্রথম থেকেই এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া উচিত ছিল। smile