সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন সেভারাস (০৩-০৮-২০০৭ ১১:২০)

টপিকঃ জ্ঞান প্রদানের বৃথা চেষ্টা ৩

১.লিবিয়া-র এল আজিজিয়া-এ ১৯২২সালের ১৩ই সেপ্টেম্বর পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি তাপমাত্রা ১৩৬ডিগ্রি ফারেনহাইট রেকর্ড করা হয়।
২.আন্টার্টিকা-র ভস্টক-এ ১৯৮৩ সালের ২১এ জুলাই পৃথিবীর সবচেয়ে কম তাপমাত্রা -১২৯ ডিগ্রি ফারেনহাইট রেকর্ড করা হয়।
৩.হাওয়াই-এর মাউনা লোয়া আগ্নেয়গিরি পৃথিবীর সবচেয়ে বড় আগ্নেয়গিরি। এটি তার বেস থেকে ৫০০০০ফুট উঁচু।
৪.১৫৫৭ সালের চায়নায় সবচেয়ে মারাত্মক ভূমিকম্প অনুভূত হয় যাতে ৮৩০০০০ লোক মারা যায়।
৫.আফ্রিকার নীল নদ ৪১৬০ মাইল দীর্ঘ, এটিই বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘ নদ।
৬.চিলি-র আরিয়া-তে বছরে .০৩ ইঞ্চি বৃষ্টি হয়। এটাই পৃথিবীর সবচেয়ে কম বৃষ্টিপাতের এলাকা।
৭.লরা, কলাম্বিয়ায় বছরে গড়ে ৫২৩.৬ ইঞ্চি বৃষ্টি হয়। এটাই পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি বৃষ্টিপাতের এলাকা।
৮.মোট পানির ৯৭ ভাগই সমুদ্রে অবস্থিত।
৯. পৃথিবীর মোট আয়তন ১৯৬,৯৫০,৭১১ বর্গ মাইল।
১০. পৃথিবীর মোট স্থল ভূমির এক-তৃতীয়াংশ মরুভূমি।
১১. পৃথিবীতে বর্তমানে মোট পানির সংখ্যা ৩২৬০ লক্ষ ঘন মাইল।
১২.সারা বিশ্বে প্রতি সেকেন্ডে কমপক্ষে ১০০টি বজ্রপাত হয় যা মাটি স্পর্শ করে।

সুত্রঃ আজকের বিশ্ব (গোলাম মোস্তফা কিরণ)

Re: জ্ঞান প্রদানের বৃথা চেষ্টা ৩

সেভারাস লিখেছেন:

১.লিবিয়া-র এল আজিজিয়া-এ ১৯২২সালের ১৩ই সেপ্টেম্বর পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি তাপমাত্রা ১৩৬ডিগ্রি ফারেনহাইট রেকর্ড করা হয়।
২.আন্টার্টিকা-র ভস্টক-এ ১৯৮৩ সালের ২১এ জুলাই পৃথিবীর সবচেয়ে কম তাপমাত্রা -১২৯ ডিগ্রি ফারেনহাইট রেকর্ড করা হয়।
৩.হাওয়াই-এর মাউনা লোয়া আগ্নেয়গিরি পৃথিবীর সবচেয়ে বড় আগ্নেয়গিরি। এটি তার বেস থেকে ৫০০০০ফুট উঁচু।
৪.১৫৫৭ সালের চায়নায় সবচেয়ে মারাত্মক ভূমিকম্প অনুভূত হয় যাতে ৮৩০০০০ লোক মারা যায়।
৫.আফ্রিকার নীল নদ ৪১৬০ মাইল দীর্ঘ, এটিই বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘ নদ।
৬.চিলি-র আরিয়া-তে বছরে .০৩ ইঞ্চি বৃষ্টি হয়। এটাই পৃথিবীর সবচেয়ে কম বৃষ্টিপাতের এলাকা।
৭.লরা, কলাম্বিয়ায় বছরে গড়ে ৫২৩.৬ ইঞ্চি বৃষ্টি হয়। এটাই পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি বৃষ্টিপাতের এলাকা।
৮.মোট পানির ৯৭ ভাগই সমুদ্রে অবস্থিত।
৯. পৃথিবীর মোট আয়তন ১৯৬,৯৫০,৭১১ বর্গ মাইল।
১০. পৃথিবীর মোট স্থল ভূমির এক-তৃতীয়াংশ মরুভূমি।
১১. পৃথিবীতে বর্তমানে মোট পানির সংখ্যা ৩২৬০ লক্ষ ঘন মাইল।
১২.সারা বিশ্বে প্রতি সেকেন্ডে কমপক্ষে ১০০টি বজ্রপাত হয় যা মাটি স্পর্শ করে।

তথ্যসূত্র?

১. ১৩৬ ডিগ্রী ফারেনহাইট মানে ৫৭.৭৮ ডিগ্রী সেলসিয়াস। (আমার অভিজ্ঞতা ৪৮ ডিগ্রী সেলসিয়াস পর্যন্ত)
২. -১২৯ ডিগ্রী ফারেনহাইট মানে - ৮৯.৪৪ ডিগ্রী সেলসিয়াস।
৩. এখানে বেস থেকে কথাটা বিভ্রান্তিকর। সমূদ্রপৃষ্ঠ থেকে কত উঁচু সেটাও দিলে ভালো হয়। কারণ মাউন্ট এভারেস্টও সমূদ্রপৃষ্ঠ থেকে ২৯হাজার ফুট উঁচু। কাজেই ৫০ হাজার ফুট শুনলে একটু কেমন জানি লাগে।
৭. একসময় শুনেছিলাম যে মেঘালয় রাজ্যের চেরাপুঞ্জীতে সবচেয়ে বেশি বৃষ্টিপাত হয়। এখনও শুনেছে জায়গাটা চেরাপুঞ্জীর পাশেই, নামটা আলাদা। কাজেই তথ্যটা একটু যাচাই করা প্রয়োজন।
৮. আমি জানি যে এটা ৯৭.৩% (তথ্যসূত্র: Todd D. K.: The Water Encyclopedia, Water information center, Port Washington, New York, 1970)
৯. এটা পৃথিবীপৃষ্ঠের ক্ষেত্রফল হতে পারে। আয়তনের একক ঘনমাত্রার।
১১. পানির সংখ্যা? পরিমান। পরিমানটাঃ ১.৩৬ *১০^১৮ ঘনমিটার। (তথ্যসূত্র:  Todd D. K.: The Water Encyclopedia, Water information center, Port Washington, New York, 1970)

শামীম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: জ্ঞান প্রদানের বৃথা চেষ্টা ৩

শামীম লিখেছেন:

এটা পৃথিবীপৃষ্ঠের ক্ষেত্রফল হতে পারে। আয়তনের একক ঘনমাত্রার।

ভাইয়া আমরা কিন্তু আয়তনের ক্ষেত্রেও বর্গ মাইল ব্যবহার করি। যেমনঃ বাংলাদেশের আয়তন "ক" বর্গ মাইল।

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন শামীম (০৩-০৮-২০০৭ ১১:২৯)

Re: জ্ঞান প্রদানের বৃথা চেষ্টা ৩

সেভারাস লিখেছেন:
শামীম লিখেছেন:

এটা পৃথিবীপৃষ্ঠের ক্ষেত্রফল হতে পারে। আয়তনের একক ঘনমাত্রার।

ভাইয়া আমরা কিন্তু আয়তনের ক্ষেত্রেও বর্গ মাইল ব্যবহার করি। যেমনঃ বাংলাদেশের আয়তন "ক" বর্গ মাইল।

এটি একটি ভুল এবং সেটা চর্চা না করাই ভালো।

শামীম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: জ্ঞান প্রদানের বৃথা চেষ্টা ৩

donttelldonttell:-#:-#
এরা এতকিছু জানে!!!!!!!!~X(

তথ্যপ্রযুক্তির সবকিছু চাই বাংলায়
খেরোখাতায় লিখি মনের কথা।