টপিকঃ জঙ্গী বই সম্পর্কে জানতে চাই।

বেশ কয়েকদিন যাবত আমরা দেখতে পাচ্ছি বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন জনের নিকট থেকে প্রশাসন জঙ্গী বই উদ্বার করছে এবং তাদের নামে মামলা করে জেল হাজতে প্রেরন করছে। আমরা বাংলাদেশের বেশি সংখ্যক লোক মুসলমান। আর আমরা জন্মগত ভাবেই ইসলামের সকল বিষয়াদি শিখে আসি না। বা আমরা সবাই কিন্তু মাদ্রাসায়ও পড়াশুনা করি না। কিন্তু আমরা যেহেতু মুসলমান তাই আমাদের জানা উচিত আমাদের কি করা উচিত এবং কি করা উচিত নয়। আর এসব কিছু আমাদের জানার জন্য কোরআন, হাদিস এবং ইসলামী সাহিত্যের আশ্রয় নিতে হয়। কিন্তু বর্তমানে যেহেতু শোনা যাচ্ছে এসব বইয়ের মধ্যে ও নাকি ভেজাল আছে। আর প্রশাসন যেহেতু কিছু বইয়ের অভিযোগে বিভিন্ন জনকে জেল হাজতে প্রেরন করছে। তাই আমাদের এখন জানা উচিত কোন বইগুলো জঙ্গী বই এবং কেন।
অনুগ্রহ পূর্বক কেউ কি এসব বইয়ের তালিকা দিয়ে আমাদের দেশের ইসলাম প্রিয় মানুষদের সহযোগিতা করবেন।

জানি না আমার পোস্টটি সঠিক জায়গায় করা হয়েছে কিনা। না হলে সঠিক জায়গায় স্থানান্তর করার জন্য মডারেটরদের সহযোগিতা কামনা করছি।

Re: জঙ্গী বই সম্পর্কে জানতে চাই।

যে বইগুলো মানুষকে ধর্মের দোহাই দিয়ে উসকে দেয় সেগুলোকেই জঙ্গী বই বলা হয়ে থাকে।

....

Re: জঙ্গী বই সম্পর্কে জানতে চাই।

রাসেল আহমেদ লিখেছেন:

যে বইগুলো মানুষকে ধর্মের দোহাই দিয়ে উসকে দেয় সেগুলোকেই জঙ্গী বই বলা হয়ে থাকে।

ব্যাপারটা আরো বিস্তারিত হলে ভাল হত।

লিনাক্স ব্যবহার করুন-------
     কম্পিউটার থাকুক ভাইরাসমুক্ত,
     দেশ থাকুক দূর্নীতিমুক্ত।

Re: জঙ্গী বই সম্পর্কে জানতে চাই।

আচ্ছা এটা জানেন জঙ্গী রা কোন বই পড়ে বেশি আক্রমাত্মক হয় ?

রাহাত'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nd 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: জঙ্গী বই সম্পর্কে জানতে চাই।

http://www.sangbad.com.bd/admin/news_images/265/image_265_24999.jpg

বিভিন্ন সময়ে জঙ্গি সংগঠন নিষিদ্ধ হলেও প্রকাশ্যে বিক্রি হচ্ছে সশস্ত্র জিহাদি বই। এসব বইয়ে ইসলাম প্রতিষ্ঠার নামে সশস্ত্র জিহাদের আহ্বান জানানো হয়েছে। রাজধানীর বায়তুল মোকাররম, কাঁটাবন মসজিদের ঢাল ও মগবাজার ওয়ারলেসে জিহাদের বই প্রকাশ্যেই বিক্রি হচ্ছে। বিশিষ্ট ব্যক্তিরা মনে করেন এসব বই পড়ে অনেকেই জঙ্গি সংগঠনে যোগ দিতে অনুপ্রাণিত হচ্ছে।
শীর্ষ জঙ্গিনেতা শায়খ রহমান ও বাংলা ভাই গ্রেফতার, ফাঁসি ও তাদের সংগঠন জেএমবি নিষিদ্ধ হওয়ার পর জিহাদি বই বিক্রি অনেকটাই কমে গিয়েছিল। তবে বর্তমানে আবার এসব বই রাজধানীর বিভিন্ন দোকানে বিক্রি করতে দেখা গেছে। জিহাদ ও জঙ্গিবাদের কোন বই সরকার নিষিদ্ধ করেনি। বিক্রি করতেও কোন বাঁধা নেই। তাই এসব বই এখন ওপেনসিক্রেট। এছাড়া বইয়ের পাশাপাশি বিক্রি হচ্ছে জিহাদের সিডি।
অনুসন্ধানে জানা গেছে, জামায়াতে ইসলামী পরিচালিত বাংলাদেশ ইসলামিক ইনস্টিটিউটের প্রকাশনা সংস্থা আধুনিক প্রকাশনীতে বেশকিছু জিহাদি বই বিক্রি হচ্ছে। মগবাজার ওয়ারলেস, বায়তুল মোকাররম, কাঁটাবন মসজিদ ও বাংলাবাজারের শিরিশ দাশ লেনে আধুনিক প্রকাশনীর বিক্রয় কেন্দ্র রয়েছে।
বায়তুল মোকাররম মসজিদের নিচতলার লাইব্রেরি ও সিডির দোকানে জিহাদ, ইসলামী আইন প্রতিষ্ঠা, লাদেন ও আফগানিস্তানের যুদ্ধ নিয়ে রচিত বিভিন্ন বই, সিডি এবং অডিও ক্যাসেট বিক্রি হচ্ছে। 'আয় তোরা রক্ত ঢালতে হবে' 'আবার জেগে ওঠো' 'জাগো মুজাহিদ' নামে ইত্যাদি সিডি বিক্রি হচ্ছে।
আধুনিক প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত জিহাদের বিভিন্ন বইয়ের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- সাইয়েদ আবুল আলা মওদুদির 'জিহাদের হাকিকত,' 'ইসলামের শক্তির উৎস', 'আল্লাহর পথে জিহাদ,' 'ইসলাম ও ধর্মহীন গণতন্ত্র', সাইয়েদ কুতুবের 'জিহাদ' 'ইসলামী বিপ্লবের ধারা-জিহাদ' মোস্তফা মাশহুরের 'ইসলামী আন্দোলনের পথ ও পাথেয়', মুহম্মদ কামারুজ্জামানের 'আধুনিক যুগে ইসলামী বিপ্লব' কাজী নিজামুল হকের 'বিশ্বময় ইসলামের পুনর্জাগরণ, আব্বাস আলী খানের 'ইসলামী বিপ্লব একটি পরিপূর্ণ নৈতিক বিপ্লব' হাসানুল বান্নার 'ইসলাম ও জিহাদ'।
বায়তুল মোকাররম মার্কেটে বিক্রি হচ্ছে হাবিবুর রহমানের 'আফগান রণাঙ্গন থেকে ফিরে', 'আফগানিস্তানে আমি আল্লাহকে দেখেছি'। মাকতাবাতুল আশরাফ প্রকাশনী থেকে আফগান যুদ্ধের ওপর লেখা মুফতি মুহম্মদ রফি উসমানির 'আল্লাহ পথের মুজাহিদ' ও 'জানবাজ মুজাহিদ' মাওলানা আবদুল্লাহ মাসউদ লিখিত 'জীবন ও জিহাদ' বিক্রি হতে দেখা গেছে। একই প্রকাশনীর বই মুফতি মুহম্মদ হাবীবুর রহমানের 'কিতাবুল জিহাদ'।
এছাড়া আন্তর্জাতিকভাবে বিতর্কিত নসিম হিজাজির প্রায় ২০টি বই বিভিন্ন ইসলামী প্রকাশনী সংস্থা প্রকাশ করছে।
আধুনিক প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত জামায়াতে ইসলামীর প্রতিষ্ঠাতা আদর্শিক নেতা সাইয়েদ আবুল আলা মওদুদীর 'আল্লার পথে জিহাদ' বইয়ে সশস্ত্র সংগ্রামের কথা বলা হয়েছে। এ বইয়ের ৭ ও ৮ পৃষ্ঠায় বলা হয়েছে- 'ইসলাম চায় পৃথিবী, পৃথিবীর কোনও অংশ নয়। সমগ্র বিশ্বমানবকে ইসলামের দ্বারা পরিতৃপ্ত ও ঐশ্বর্যম-িত করিয়া তুলিতে হবে। এই মহান উদ্দেশে বিপ্লব সৃষ্টির অনুকূলে ইহা সমগ্র কার্যকর শক্তিকেই প্রয়োগ করিতে চায়। এইভাবে সমস্ত শক্তি প্রয়োগের সমষ্টিগত নামই হইতেছে জিহাদ। তরবারি (শক্তি) ব্যবহার করিয়া প্রতিষ্ঠিত জীবন ব্যবস্থা নির্মূল করিয়া নবতর সুবিচারমূলক ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করাকেও জিহাদ বলে। এই পথে ধ্যান-ধন-মাল ব্যয় করা, শারীরিক শক্তি-সামর্থ নিয়োগ করাও জিহাদ'।
এছাড়াও বইটির ১৯ পৃষ্ঠায় বলা হয়েছে, 'রাষ্ট্রযন্ত্র দখল করা ছাড়া ইসলামী দলের অন্য কোন উপায় থাকিতে পারে না। কোনও সু্স্থ, নির্ভুল ও কল্যাণময় সমাজ ব্যবস্থাই কায়েম হইতে পারে না, যতক্ষণ না রাষ্ট্রব্যবস্থা ও বিপর্যয়কারীদের হাত হইতে সত্যাশ্রয়ী ও সংস্কারবাদীদের হাতে ন্যস্ত হইবে'। এমনকি বইটিতে ইসলামী বিপ্লবের পর রাষ্ট্র কেমন ভাবে পরিচালিত হবে তাও বলা হয়েছে। মগবাজার ওয়ারলেস গেটের শতাব্দি প্রকাশনীর বই 'ইসলামী বিপ্লবের পথ'। একই বইয়ের ২৯ পৃষ্ঠায় বলা হয়েছে, 'আমি কাউকেই সম্রাট মানি না। শাসন মানি না। কোন সরকারকে স্বীকার করি না। কোন আদালত মানি না। এক আল্লাহ ছাড়া আমি সকলের বিরুদ্ধে বিদ্রোহী'।
একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহরিয়ার কবির জিহাদি বই সম্পর্কে গতকাল সংবাদ'কে বলেন, সশস্ত্র জিহাদ সম্পর্কিত বই পড়ে অনুপ্রাণিত হয়ে জঙ্গিবাদের সঙ্গে অনেকেই জড়িয়ে পড়েন। আমার তৈরি করা 'জিহাদের প্রতিকৃতি' প্রামাণ্যচিত্রে জঙ্গিরা সাক্ষাৎকারে স্বীকার করেছেন যে, তারা জিহাদি বই পড়ে অনুপ্রাণিত হয়ে জঙ্গি সংগঠনে এসেছেন। জামায়াত ও অন্যান্য ইসলামী প্রকাশনা সংস্থা থেকেও জিহাদি বই বের হচ্ছে। তিনি বলেন, ধর্মীয় রাজনীতি নিষিদ্ধ হলেই জিহাদি বই প্রকাশও বন্ধ হয়ে যাবে।

সূত্র :প্রকাশ্যেই বিক্রি হচ্ছে শিবিরের জিহাদি বই

শ্রাবন'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

Re: জঙ্গী বই সম্পর্কে জানতে চাই।

কিনতে হবে...........  thinking

এম. মেরাজ হোসেন
IQ: 113
http://www.iq-test.cc/badges/4774105_3724.png

Re: জঙ্গী বই সম্পর্কে জানতে চাই।

জিহাদী বই কি? সেটা বোঝার জন্য আগে বুঝতে হবে 'জিহাদ' কি?

জিহাদ সম্পর্কে অনেকেই ভুল ধারণা পোষন করেন, আবার অনেকেই পাশ্চাত্যের মিথ্যা প্রচারণার শিকার হয়ে বিভ্রান্ত হয়ে আছেন।

-----------------------------------------------------
আমি এই বিষয়ে কিছু পড়াশোনা করেছি। আমি যা বুঝেছি অতি সংক্ষেপে তা এই রকমঃ

জিহাদ ব্যাপক অর্থ বহন করে। এর বিস্তৃতি ''নিজের মনের খারাপ প্রবৃত্তির বিরুদ্ধে লড়াই'' থেকে শুরু করে ''সশস্ত্র যুদ্ধ'' পর্যন্ত। মধ্যবর্তী অনেক কিছুও আছে, যেমনঃ ''ইসলামী রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার জন্য অহিংস গণতান্ত্রিক পথে আন্দোলন করা''।

সকল পর্যায়ের জিহাদের বিধান ইসলামে রয়েছে। প্রয়োজন ও প্রেক্ষিত ভেদে ভিন্ন ভিন্ন পর্যায়ের জিহাদ করা প্রতিটি মুসলিমের উপর কর্তব্য। নামাজ রোজার মতই এটা আল্লাহর একটা স্পষ্ট বিধান। (ইসলামের কোনো একটা অংশকে অস্বীকার করলে কেউ আর মুসলিম থাকেনা)।

যখন শান্তিপূর্ণ উপায়ে কাজ করা সম্ভব তখন অস্ত্র হাতে নেয়া যেমন পাপ, তেমনই যখন যুদ্ধের প্রয়োজন তখন ঘরে বসে থাকাও পাপ।

সকল কাজের মত জিহাদের ক্ষেত্রেও বিচক্ষণতা অবলম্বন করতে হয়। চারিদিকে বোমা ফাটিয়ে ত্রাস সৃষ্টি করলে ইসলামের কোন উন্নতিও হয়না, ইসলাম প্রতিষ্ঠাও হয় না। বরং ইসলামের ক্ষতি করা হয়।
-----------------------------------

এখন আমার কয়েকটা প্রশ্নঃ

সশস্ত্র রুশ বিপ্লবকে কি আপনি সমর্থন করেন?
১৯৭১ সালের সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধকে কি আপনি সমর্থন করেন?
হজরত মুহাম্মদ সাঃ এর সশস্ত্র যুদ্ধগুলোকে কি আপনি সমর্থন করেন?

কোনো আদর্শ বাস্তবায়েনের জন্য অহিংস বা সহিংস আন্দোলনকে আপনি কেমন চোখে দেখেন?

সমাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে যেসব অহিংস প্রচেষ্টা চলছে তা কি নিষিদ্ধ করা উচিত?

ইসলামকে কি আপনি একটা (ব্যাপক অর্থে) আদর্শ মনে করেন?
এই আদর্শ বাস্তবায়নের অহিংস প্রচেষ্টাগুলোকে কি নিষিদ্ধ করা উচিত?

----------------------------------

ইসলামের বিশালতা সমাজতন্ত্রের চাইতে কয়েকশ গুণ বেশি। সমাজতন্ত্র যেখানে শুধুমাত্র অর্থনৈতিক বিধানের কথা বলে, সেখানে ইসলাম মানব জীবনের প্রতিটি বিষয় নিয়ে সুস্পষ্ট বিধান দিয়েছে।
---------------------------------------

** সমাজতন্ত্রকে আমি এখানে একটা ''আদর্শের'' উদাহরণ হিসেবে দিয়েছি।

** আমার বক্তব্য অতি সংক্ষেপে দেয়ার কারণে ভুল বোঝাবুঝি হতে পারে। কোনো বিষয়ে বিস্তারিত জানতে চাইলে দয়া করে জানাবেন।
---------------------------------

লেখাটি CC by-nc-nd 3. এর অধীনে প্রকাশিত

Re: জঙ্গী বই সম্পর্কে জানতে চাই।

বইগুলো না পড়ে মন্তব্য করা ঠিক হবে না।
কিন্তু এখানে নসিম হিজাজির কথা বলা হয়েছে। তার বই যতগুলো বই পড়েছি সবগুলো ইতিহাস ভিত্তিক ঊপন্যাস।মুসলমানদের বিভিন্ন যুদ্ধ বিজয় নিয়ে বলা হয়েছে।এই বই গুলাকে যদি জঙ্গী বলা হয় তবে আমার কিছু বলার নাই।

লিনাক্স ব্যবহার করুন-------
     কম্পিউটার থাকুক ভাইরাসমুক্ত,
     দেশ থাকুক দূর্নীতিমুক্ত।

Re: জঙ্গী বই সম্পর্কে জানতে চাই।

নসীম হিজাজীর বই জঙ্গী !!!!!!!!!!!
পত্রিকা আর শাহরিয়ার কবিরের মত নাস্তিকের কাছে শিখতে হবে কোন গুলা জঙ্গী বই ? হায়রে.....

আরাফাত রহমান
Web Application Developer
চি‌ৎকার করতে করতে গলাটা ফাইট্টা গেছে (প্রজন্ম ফোরামে)

আরাফাত'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১০

Re: জঙ্গী বই সম্পর্কে জানতে চাই।

আরাফাত লিখেছেন:

নসীম হিজাজীর বই জঙ্গী !!!!!!!!!!!
পত্রিকা আর শাহরিয়ার কবিরের মত নাস্তিকের কাছে শিখতে হবে কোন গুলা জঙ্গী বই ? হায়রে.....

আরাফাত ভাই আপনি এটা কি বললেন ?আপনার এত সাহস ?
আপনি পত্রিকার বিরুদ্ধে কথা বললেন ?আপনি কি জানেন না উনারা জাতির বিবেক । পৃথিবীর সব আলোর সাথে উনারা থাকেন।জাতি ভুল করতে পারে কিন্তু উনারা ভুল করেন না । উনারা সমাজের দর্পন উনারা কি মিথ্যা বলতে পারেন?আর মিথ্যা বললেই বা আমি আপনি কি করতে পারব বলেন?উনারা যেমন পারেন তিলকে তাল করতে ঠিক আমরাও তেমনি পারি না বুঝে ফাল দিতে।

আর শাহরিয়ার কবির ? উনি তো আমাদের সুশীল সমাজের অংশ ?আর সুশীল সমাজে কারা থাকে আপনি ভাল করেই জানেন ?উনারা যা বলবেন তাই সত্যি ।আপনি যা বলছেন তা অনেক, আর কিছু বললে হয়ত দেখবেন আপনাকে মৌলবাদী বলা হতে পারে ,আপনি জংগী ও হয়ে যেতে পারেন ।আরাফাত ভাই ইসলাম নিয়ে কথা বলতে আমার কেন জানি ভয় লাগে কেও যদি কিছু বলে কেউ যদি কিছু মনে করে, আমি সবার কাছে অন্যরকম হয়ে যাব কিনা?সবাই আবার আমার দিকে বাকা চোখে তাকাবে কিনা?তারপর ও কেন জানি সাহস করে কথাগুলো বললাম . . . . . . . .
অন্যদের  এ ব্যপারে কথা বলতে কেমন লাগে আমি জানি না ।

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১১

Re: জঙ্গী বই সম্পর্কে জানতে চাই।

গোয়েবলস মিয়া খুব সুন্দর একটা ফর্মুলা দিয়া গেছিলো।
''মিথ্যা বলতে থাকো শতবার, হাজার বার, কোটিবার... একদিন তা সত্য বলেই মনে হবে।''

সারা দুনিয়া জুড়ে এই ফর্মুলা অনুসরণ করে এমন একটা অবস্থা সৃষ্টি করা হয়েছে, যেন মনে হয় ইসলাম মানেই জংগীবাদ। বাংলাদেশে এখনো পুরা ইসলামকে জংগী বলা হয়না, একটু রেখে ঢেকে বলা হয়। পাশ্চাত্যে পুরা ইসলামকেই জংগী-ধর্ম বলা হয় সরাসরি। কুরআন ও হাদীসকে বলা হয় জঙ্গী বই।
সেদিন একটা বিদেশী সাইটে দেখলাম, আবু রাফি সংক্রান্ত হাদিসটিকে জঙ্গীবাদের প্রমান হিসেবে দেখানো হয়েছে।

সেদিন বোধ হয় বেশি দূরে নয়, যেদিন আমাদের দেশের গোয়েবলস-শিষ্যরাও সরাসরি কুরান-হাদীসকে জঙ্গী বই বলতে শুরু করবে। কিংবা বলা যায় শুরু হয়ে গেছে।
দাউদ হায়দার নামক এক কবি বহুদিন আগেই একটা কবিতায় লিখেছিলঃ ''মুহাম্মদ তুখোড় বদমাশ, চোখে মুখে রাজনীতি''।

দাউদ হায়দার, শাহরিয়ার কবির, প্রথম আলো, সজিব ওয়াজেদ জয়, সাহারা খাতুন প্রমুখ একই আদর্শের অনুসারী।

(আমাকেও আজ থেকে জঙ্গী বলা হতে পারে)

লেখাটি CC by-nc-nd 3. এর অধীনে প্রকাশিত

১২

Re: জঙ্গী বই সম্পর্কে জানতে চাই।

মাজহার লিখেছেন:

(আমাকেও আজ থেকে জঙ্গী বলা হতে পারে)

হা হা হা ...@মাজহার ভাই খুব মজা পেলাম।
আপনার কথা শুনে একজনের বক্তব্য মনে পড়ল......তিনি বলেছিলেন............
"যদি ইসলামের কথা বললে জঙ্গীবাদ হয়, তবে আমি জঙ্গী। এবং আমি এই জঙ্গীবাদ পৃথিবীতে তা ছড়িয়ে দিব।"

তামিলদের,মাওয়াবাদিদের বলা হয় গেরিলা।আর হামাস,হিজবুল্লাহদের কে বলা হয় জঙ্গী।এদের মধ্যে কাজের পার্থক্য কি?
আমি তো একই রকম দেখি।

লিনাক্স ব্যবহার করুন-------
     কম্পিউটার থাকুক ভাইরাসমুক্ত,
     দেশ থাকুক দূর্নীতিমুক্ত।

১৩

Re: জঙ্গী বই সম্পর্কে জানতে চাই।

সত্য মিথ্যার মাপকাঠি শাহরিয়ার কবির নয়। আর এসকল শাহরিয়ার কবিরের কারনে ও তার আনুগত্যশীলদের কারনে আস্তে আস্তে বাংলাদেশ থেকে ইসলাম নির্মূল হতে থাকবে মনে হচ্ছে।
ড. মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ বলেছিলেন- পৃথিবীতে দু'ধরনের পন্ডিত আছে (১) শিক্ষিত পন্ডিত (২) মূর্খ্য পন্ডিত
যাদের মাঝে আল্লাহর ওহিলিয়াতের জ্ঞান আছে তারা হলেন শিক্ষিত পন্ডিত আর যাদের মাঝে আল্লাহর ওহিলিয়াতের জ্ঞান নাই তারা হলেন মূর্খ্য পন্ডিত।
আর বর্তমান সুশীল সমাজে যারা আছেন তারা তো বেশির ভাগই নাস্তিক। তাদের কাছে এর ভালো বিবৃতি আশা করা যায় না। যদি কোন ভালো আলেমের দৃষ্টিতে বিচার বিশ্লেষন করা হতো আর তারা যদি এই ব্যাপারে কোন বইয়ের ব্যাপারে বলত তাহলে ব্যাপারটা মানা যেত। এখন ব্যাপারটি মনে হচ্ছে সম্পূর্ন উদ্দেশ্য প্রনোদিত এবং ইসলাম ধর্মকে দূর্বল করে ফেলার চক্রান্ত।
এর স্বপক্ষে একটি বাস্তব উদাহরন তুলে ধরলে সবার বুঝতে সুবিধা হবে। কিছুদিন আগে জঙ্গী বইয়ের অপরাধে বদরুন্নেসা কলেজ থেকে কয়েকজন মেয়েকে হল থেকে বাহির করে দিয়েছে। আমার এক ভাতিজি বদরুন্নেসায় পড়ে। সে হলে থাকে। সকাল বেলা সে বাসায় এসে বলল এই কাহিনী। আর বলল ছাত্রলীগের নেত্রী তাদের সবাইকে বলে দিয়েছে বাংলা কোরআন শরীফ ছাড়া কেউ কোনো ইসলামী বই রাখতে পারবা না। আর রাখলে তাকে জঙ্গী বলে পুলিশের হাতে সোপার্দ করে দেওয়া হবে।
এমনিতেই আমরা ধর্মের প্রতি উদাসহীন। তারপর যদি আবার হুমকি দেয় তাহলে কি ধর্মীয় অনুভুতি কি দূর্বল হয়ে পড়বে না?

১৪

Re: জঙ্গী বই সম্পর্কে জানতে চাই।

সজিব ওয়াজেদ জয় কে কি কারনে একই তালিকায় রাখছেন জানতে পারি????

১৫ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন মেরাজ০৭ (০৭-০৩-২০১০ ১৩:৪০)

Re: জঙ্গী বই সম্পর্কে জানতে চাই।

আচ্ছা,
জংগি=জাংগ+ই
মানে যে জাংগ(যুদ্ধ) করে সে হল জংগি। ঠিক না?  thinking
তাহলে তো আমেরিকানরাও জংগি। তারা নিজেদেরকে ধরেনা কেন?  thinking

এম. মেরাজ হোসেন
IQ: 113
http://www.iq-test.cc/badges/4774105_3724.png

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

১৬

Re: জঙ্গী বই সম্পর্কে জানতে চাই।

বই গুলো পরি তারপর দেখতে হবে বই গুলো জংগি না ইসলামিক

১৭

Re: জঙ্গী বই সম্পর্কে জানতে চাই।

সেভারাস লিখেছেন:

সজিব ওয়াজেদ জয় কে কি কারনে একই তালিকায় রাখছেন জানতে পারি????

মাইন্ড খাইলেন নাকি ? আপনার (এবং আমার) ভাগনে কে এই তালিকায় রাখার জন্য?
"বাংলাদেশের সেনবাহিনীতে কওমী মাদ্রাসার ছাত্ররা ঢুকে বাংলাদেশ কে জঙ্গী বানানোর পথ ক্লিয়ার করেছে" - আপনার (এবং আমার) ভাগনে এক গবেষণার রিপোর্টে লিখেছিলেন।

ভাগনে কেন বললাম?
বঙ্গবন্ধু যদি হন জাতির পিতা তাহলে সজিব আহমেদ ওয়াজেদ তো জাতির ভাগনেই হয়, তাই না?

আরাফাত রহমান
Web Application Developer
চি‌ৎকার করতে করতে গলাটা ফাইট্টা গেছে (প্রজন্ম ফোরামে)

আরাফাত'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

১৮ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন মাজহার (১৬-০৩-২০১০ ২০:৫৬)

Re: জঙ্গী বই সম্পর্কে জানতে চাই।

............................

১৯

Re: জঙ্গী বই সম্পর্কে জানতে চাই।

আরাফাত লিখেছেন:

বঙ্গবন্ধু যদি হন জাতির পিতা তাহলে সজিব আহমেদ ওয়াজেদ তো জাতির ভাগনেই হয়, তাই না?

lol2 lol2 lol2 lol2 lol2
আজকের দিনের সেরা জোকস

লিনাক্স ব্যবহার করুন-------
     কম্পিউটার থাকুক ভাইরাসমুক্ত,
     দেশ থাকুক দূর্নীতিমুক্ত।