সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন পথহারা_পথিক (৩১-১০-২০০৯ ১৬:০৩)

টপিকঃ দুই বাঁহাতির বীরত্বগাথা!!!

দুই বাঁহাতির বীরত্বগাথা

লেখক: উৎপল শুভ্র , তারিখ: ৩০-১০-২০০৯

সূত্র: http://www.prothom-alo.com/detail/date/ … news/15917


২৯ রানে ৫ উইকেট, না ৬৯ বলে ১০৫ রান? আবদুর রাজ্জাক না সাকিব আল হাসান?

ক্রিকেটে সেঞ্চুরি আর ৫ উইকেটকে একই মর্যাদা দেওয়ার একটা অলিখিত নিয়ম আছে। সেই হিসাবে রাজ্জাক-সাকিব লড়াইয়ের রায় হওয়া উচিত—‘কেহ কারে নাহি জিনে সমানে সমান’।
আহ্হা, এখানে রাজ্জাক-সাকিবের লড়াইয়ের কথা আসছে কেন? ওরা তো কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে একই লক্ষ্যের অভিযাত্রী। খেলায় যদি লড়াই-টড়াই জাতীয় শব্দ ব্যবহার করতেই হয়, তাহলে বলতে পারেন বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে লড়াই। বাংলাদেশের সিরিজে ফেরার, জিম্বাবুয়ের আরও এগিয়ে যাওয়ার। সেই লড়াইয়ে বাংলাদেশ এমনই দোর্দণ্ড প্রতাপে জয়ী যে, মাত্র দুদিন আগের প্রথম ম্যাচটাকে একটু অবাস্তবই লাগছিল। মনে ডালপালা ছড়াচ্ছিল এই বিশ্বাসটাও—সেই ম্যাচে বাংলাদেশের অসহায় আত্মসমর্পণের মূলে আংশিক ভূমিকা বোধ হয় ‘অমিরপুরীয়’ উইকেটের, আংশিক মৌসুমের প্রথম ম্যাচ খেলতে নামার জড়তার।
সাকিব-রাজ্জাকের মধ্যে একটা লড়াই অবশ্য ছিল। পুরস্কার বিতরণীতে ঘোষণা আসার আগ মুহূর্তেও গুঞ্জরিত ছিল ‘রাজ্জাক না সাকিব’ প্রশ্নটা। শেষ পর্যন্ত রাজ্জাক। সেটি বোধহয় কোনো একজনকে বেছে নিতে হতো বলেই। তবে সিদ্ধান্তটা সহজ ছিল না। সবচেয়ে ভালো হতো, ম্যান অব দ্য ম্যাচের ‘ম্যান’টাকে ‘মেন’ করে দিয়ে দুজনকেই পুরস্কারটা দিয়ে দিলে। কারও অবদানই তো কম নয়।
রাজ্জাকের ৫ উইকেট অবশ্যই গড়ে দিয়েছে ভিত্তিটা। তবে সেই ভিত্তির ওপর দাঁড়িয়ে জয়ের ইমারত গড়ার কৃতিত্ব সাকিব আল হাসানের ঝোড়ো সেঞ্চুরির। যখন তিনি নামেন, ঝোড়ো একটা শুরুর পর ১২ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে ভিত্তিটা একটু নড়বড়েই হয়ে গিয়েছিল। রকিবুল হাসানের সামান্য সহায়তা নিয়ে সেটিকে আগে নিষ্কম্প করলেন, এর পর শুরু করলেন ‘সাকিবীয়’ মার। ক্রিকেট-ব্যাকরণ যার পুরোপুরি ব্যাখ্যা দিতে অসমর্থ।
৪৪ বলে হাফ সেঞ্চুরি। দ্বিতীয় ফিফটি মাত্র ২৪ বলে। সব মিলিয়ে ৬৮ বলে সেঞ্চুরি ২৯১৬ ম্যাচের ওয়ানডে ইতিহাসে দ্বাদশ দ্রুততম। তবে সাকিবের দ্রুততম নয়, গত আগস্টে বুলাওয়েতে এই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেই যে ৬৩ বলে একটা সেঞ্চুরি করে রেখেছেন।
২২০ রানের লক্ষ্যটাও তো নেহাত কম নয়। বাংলাদেশ সেটি পেরিয়ে গেল ১২৩ বল বাকি রেখেই। রকিবুলের সঙ্গে অপরাজিত চতুর্থ উইকেটে ১৬৫ রান। পার্টনারশিপ রেকর্ড নয়, কারণ ওয়ানডেতে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ ১৭৫ রানের জুটিটি এই চতুর্থ উইকেটেই (রাজিন সালেহ ও হাবিবুল বাশার, বিপক্ষ কেনিয়া, ২০০৬)। তবে সব মিলিয়ে এই ১৬৫ ওয়ানডেতে বাংলাদেশের তৃতীয় সর্বোচ্চ জুটি (দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৭০, শাহরিয়ার হোসেন ও মেহরাব হোসেন, প্রথম উইকেট, বিপক্ষ জিম্বাবুয়ে, ১৯৯৯)। রকিবুলের ‘সামান্য’ অবদান বলছি, তবে তাঁর ৭৫ বলে ৩৯ রানের ইনিংসটি সাকিবের আলোকচ্ছটার পাশে যতই টিমটিম করে জ্বলুক, ম্যাচ আর সিরিজের প্রেক্ষাপটে সেটিকেও বলতে হবে অমূল্য।
অমূল্য না বলুন, তামিম ও জুনায়েদের ৪৪ রানের উদ্বোধনী জুটিটাকে ম্যাচের সবচেয়ে রোমাঞ্চকর বলে স্বীকৃতি দিতেই হবে। স্থায়ী হলো মাত্র ৩.৫ ওভার, কিন্তু সেটিতেই ফ্লাডলাইটের উজ্জ্বল আলোতেও চোখে অন্ধকার দেখল জিম্বাবুইয়ান বোলাররা। জুনায়েদই ছিলেন বেশি আগ্রাসী। মাত্র ১২ বলের ইনিংসে স্কোরিং শট মাত্র ৬টি, তাতেই ২৩ রান! বল বাই বল হিসাবটাও তুলে দিতে ইচ্ছে করছে: ৬ ১ ৪ ০ ০ ৪ ৪ ৪ ০ ০ ০ আউট।
তামিম ১৯ বলে ২৬—কিন্তু সপ্তম ওভারের প্রথম বলে তাঁর আউটটিই বদলে দিয়েছিল ম্যাচের রং। আগের ওভারের শেষ বলেই যে মোহাম্মদ আশরাফুল উপহার দিয়েছেন তাঁর ক্যারিয়ারের সবচেয়ে পরিচিত দৃশ্যটা। জায়গায় দাঁড়িয়ে অফ স্টাম্পের বাইরের বলে চালিয়ে দিয়ে কট বিহাইন্ড। দ্রুত আরেকটা উইকেটই বাংলাদেশকে কোণঠাসা করে দিতে পারত। সাকিব আর রকিবুল সেই সম্ভাবনাই জাগতে দিলেন না। চোটের কারণে জিম্বাবুইয়ান অধিনায়ক প্রসপার উতসেয়ার না থাকাটা অবশ্যই তাঁদের উপকারে এসেছে। খেলতে পারলে যেটি হতো শততম ওয়ানডে, সেটিতে দর্শকে পরিণত উতসেয়াকে দেখতে হলো সাকিবের ব্যাটিং-তাণ্ডব। মার-মার-কাট-কাট ব্যাটিংয়ের যুগেও এই অফ স্পিনারের ইকোনমি রেট ৪.০৪—বাংলাদেশের অন্তত উতসেয়ার আরোগ্য কামনা করার কোনো কারণ নেই!
উতসেয়ার অভাবটা জিম্বাবুয়ের আরও বেশি বুকে বেজেছে বাংলাদেশের স্পিনারদের সাফল্যে। জিম্বাবুয়ের ১০ উইকেটই পড়েছে স্পিনে। দুই পেসার মার খাওয়ার প্রতিযোগিতায় নামায় পঞ্চম ওভারেই আসতে হয়েছে সাকিবকে। প্রথম উইকেট অবশ্য নাঈমের। তবে মাসাকাদজার বিরুদ্ধে এনামুল হকের যে এলবিডব্লু সিদ্ধান্তটিতে ৫৯ রানের উদ্বোধনী জুটিটি ভাঙল, সেটির জন্য মাসাকাদজা ক্ষুব্ধ হতেই পারেন। টিভি রিপ্লে বলছে, বল প্যাডে লেগেছিল অফ স্টাম্পের বাইরে।
রাজ্জাকের ৫ উইকেটের কোনোটি নিয়েই এমন সংশয় নেই। যেমন আশরাফুলকে ‘ম্যান উইথ গোল্ডেন আর্ম’ বলে ডাকাতেও এখন আর সংশয় থাকা উচিত নয়। কালও প্রথম ওভারেই উইকেট। পরে দ্বিতীয় স্পেলে ফিরে আরেকটি। চিবাবাকে স্টাম্পিংয়ের শিকার বানিয়ে আশরাফুলের প্রথম উইকেটটিতেই জিম্বাবুয়ে ইনিংসের পতনের সূচনা। পরের ওভারেই পাঁচ বলের মধ্যে টেলর ও কভেন্ট্রিকে ফিরিয়ে দিলেন রাজ্জাক। ওয়ানডেতে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রানের রেকর্ড গড়ার পর কভেন্ট্রির উইকেটটি যেকোনো বোলারেরই প্রার্থিত এখন। তবে রাজ্জাক বোধহয় বেশি মনে রাখবেন টেলরের উইকেটটি। যে বলটিতে তাঁকে বোল্ড করলেন, সেটি যে বাঁহাতি স্পিনারের স্বপ্নের বল। লেগ স্টাম্পে পড়ে টার্ন করে বল গিয়ে লাগল অফ স্টাম্পে।
৯৬ রানে তিন-তিনটি উইকেট হারিয়ে ৪ উইকেটে ৯৬-এ পরিণত জিম্বাবুয়ের শেষটা চোখের পলকে শেষ করে দেওয়ায়ও বড় ভূমিকা রাজ্জাকের। ৩৫ রানে পড়েছে শেষ ৫ উইকেট, ১২ রানে শেষ ৪টি। ২৯ রানে ৫ উইকেট রাজ্জাকের ক্যারিয়ার-সেরা বোলিং, বাংলাদেশের প্রথম বোলার হিসেবে দুবার ৫ উইকেট নেওয়ার একমাত্র কীর্তিটাও গড়া হয়ে গেল এতেই।
ম্যান অব দ্য ম্যাচ তিনি হতেই পারেন। কিন্তু সাকিবের ব্যাটে হেসে ওঠা ১৫টি চার ও ৩টি ছয়ও যে চোখের সামনে নেচে বেড়াচ্ছে। ওই খুনে ব্যাটিংয়ের আগে ৯ ওভারে ২৪ রানে ১ উইকেট। দর্শক-হূদয়ে সাকিব-রাজ্জাক বোধহয় পাশাপাশিই বসে।
এই ম্যাচের নাম দেওয়াটাও তাই খুবই সহজ—রাজ্জাক-সাকিবের ম্যাচ। আরেকটু কাব্যিক হতে চাইলে না হয় বলুন—দুই বাঁহাতির বীরত্বগাথা!

______________________
লিনাক্সের জগতে প্রবেশের প্রচেষ্টা চলছে।

Re: দুই বাঁহাতির বীরত্বগাথা!!!

ভাই!
চমৎকার লিখেছেন!  thumbs_up  thumbs_up

আমার সবচেয়ে মজা লেগেছে ঝড়ো অপেনিংটা দেখে!  thumbs_up  thumbs_up
ফাটাফাটি হইছিল!  big_smile

OH DEAR NEVER FEAR SAIF IS HERE
BOSS অর্থাৎ সাইফ
Cloud Hosting BossHostBD

Re: দুই বাঁহাতির বীরত্বগাথা!!!

সাইফ দি বস ৭ লিখেছেন:

ভাই!
চমৎকার লিখেছেন!  thumbs_up  thumbs_up
  big_smile

ওটা তো প্রথম আলোর উৎপল শুভ্র'র লেখা। roll উৎপল শুভ্র আসেলেই ভাল লেখে।

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন স্বপ্নীল (৩০-১০-২০০৯ ১১:০৩)

Re: দুই বাঁহাতির বীরত্বগাথা!!!

দক্ষিণের-মাহবুব লিখেছেন:
সাইফ দি বস ৭ লিখেছেন:

ভাই!
চমৎকার লিখেছেন!  thumbs_up  thumbs_up
  big_smile

ওটা তো প্রথম আলোর উৎপল শুভ্র'র লেখা। roll উৎপল শুভ্র আসেলেই ভাল লেখে।

 

আমিও প্রথমে পথহারা_পথিকের নিজের লেখা ভেবেছিলাম  sad 

@পথহারা_পথিক,টপিকের একদম শুরুতে প্রথম আলোতে দেয়া লেখার শিরোনাম ও লেখকের নাম এবং লেখার সূত্র দিয়ে দিন, নিচে নয়। তা নাহলে অনেকেই আমাদের মত ভুল করবে।

যেমন:টপিকের শুরুতে থাকবে..............


দুই বাঁহাতির বীরত্বগাথা

লেখক: উৎপল শুভ্র , তারিখ: ৩০-১০-২০০৯

সুত্র: http://www.prothom-alo.com/detail/date/ … news/15917

এরপর লেখাটা দিতে পারেন........

Re: দুই বাঁহাতির বীরত্বগাথা!!!

ওওহ!
ভুল হয়ে গেছে!

OH DEAR NEVER FEAR SAIF IS HERE
BOSS অর্থাৎ সাইফ
Cloud Hosting BossHostBD

Re: দুই বাঁহাতির বীরত্বগাথা!!!

দক্ষিণের-মাহবুব লিখেছেন:
সাইফ দি বস ৭ লিখেছেন:

ভাই!
চমৎকার লিখেছেন!  thumbs_up  thumbs_up
  big_smile

ওটা তো প্রথম আলোর উৎপল শুভ্র'র লেখা। roll উৎপল শুভ্র আসেলেই ভাল লেখে।

আমি তো আরেকটু হইলেই  + দিয়ে বসতাম। কপাল ভাল মাহবুব ভাই ব্যাপারটা জানানোর জন্য।

Re: দুই বাঁহাতির বীরত্বগাথা!!!

এই জয়ে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলকে প্রান ঢালা অভিনন্দন জানাই...

Re: দুই বাঁহাতির বীরত্বগাথা!!!

স্বপ্নীল লিখেছেন:

আমিও প্রথমে পথহারা_পথিকের নিজের লেখা ভেবেছিলাম  sad 

@পথহারা_পথিক,টপিকের একদম শুরুতে প্রথম আলোতে দেয়া লেখার শিরোনাম ও লেখকের নাম এবং লেখার সূত্র দিয়ে দিন, নিচে নয়। তা নাহলে অনেকেই আমাদের মত ভুল করবে।

এরপর লেখাটা দিতে পারেন........



স্বপ্নীল, টপিকের একদম শুরুতে প্রথম আলোর সূত্র দিলে অনেকেই হয়তো তা আর পুরাটুকু পড়ে দেখবেননা।

লেখাটা এতই চমৎকার যে ইচ্ছে করেই তা দিইনি। আশা করি একমত হবেন।

______________________
লিনাক্সের জগতে প্রবেশের প্রচেষ্টা চলছে।

Re: দুই বাঁহাতির বীরত্বগাথা!!!

পথহারা_পথিক লিখেছেন:

স্বপ্নীল, টপিকের একদম শুরুতে প্রথম আলোর সূত্র দিলে অনেকেই হয়তো তা আর পুরাটুকু পড়ে দেখবেননা।

লেখাটা এতই চমৎকার যে ইচ্ছে করেই তা দিইনি। আশা করি একমত হবেন।

দেখুন,অনেকেই আপনার লেখা মনে করে লেখা পড়ার সময়ই মনে মনে হয়ত আপনার লেখার ক্ষমতার প্রশংসা করেছে(যেমনটি আমি করেছি),এমনকি আপনার লেখা এত চমৎকার মনে করে রেপুও দিয়ে ফেলেছিল।কিন্তু এতে লেখার শেষে এসে প্রথম আলোর লেখা দেখে আপনার সম্পর্কে অনেকরই ভুল ধারণা হতে পারে বা কেউ বিরক্তও হতে পারে।শুধু এটুকুর জন্যই আপনাকে আমার বলা যে সূত্রটুকু সহ প্রয়োজনীয় সব কিছুই প্রথমে দিয়ে দিতে যাতে অন্তত আপনাকে ভুল বোঝার সুযোগটুকু না রাখেন।

১০

Re: দুই বাঁহাতির বীরত্বগাথা!!!

স্বপ্নীল, আপনাকে ধন্যবাদ।

______________________
লিনাক্সের জগতে প্রবেশের প্রচেষ্টা চলছে।

১১

Re: দুই বাঁহাতির বীরত্বগাথা!!!

পথহারা_পথিক লিখেছেন:

স্বপ্নীল, আপনাকে ধন্যবাদ।


আপনাকেও ধন্যবাদ।