টপিকঃ মাইক্রোসফটের অভিযোগ মুক্ত সফটওয়্যার সম্প্রদায় প্যাটেন্ট ভঙ্গ করেছে

শীর্ষ সফটওয়্যার নির্মাতা মাইক্রোসফট করপোরেশন দাবি করে আসছিল উন্নুক্ত প্রোগ্রামিং সংকেতভিত্তিক (ওপেন সোর্স) মুক্ত সফটওয়্যারগুলো তার প্যাটেন্ট লঙ্ঘন করছে। এবার প্রতিষ্ঠানটি হিসাব দিয়েছে কোন কোন ওপেন সোর্স প্রোগ্রাম তাদের কয়টি প্যাটেন্ট লঙ্ঘন করেছে। তবে মাইক্রোসফট জানিয়েছে, তারা এসব সফটওয়্যারের প্রোগ্রাম লেখকদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেবে না বরং তারা মুক্ত সফটওয়্যার নির্মাতা, বিতরণকারী ও ব্যবহারকারীদের লাইসেন্স দিতেই আগ্রহী।
মুক্ত সফটওয়্যারগুলো বিনামূল্যে ব্যবহারকারীদের দেওয়া হয়। সফটওয়্যারগুলোর উন্নয়ন এবং আবার বিতরণ করার অধিকারও ব্যবহারকারীর থাকে। মাইক্রোসফটের মতো প্রতিষ্ঠানগুলো যখন সফটওয়্যার বিক্রি করে টাকা বানায় সেখানে মুক্ত সফটওয়্যার নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর আয়ের উৎস সফটওয়্যার সম্পর্কিত বিভিন্ন সেবা বিক্রি।
মাইক্রোসফট দাবি করেছে, বিভিন্ন মুক্ত সফটওয়্যার মাইক্রোসফটের ২৩৫টি প্যাটেন্ট ভঙ্গ করেছে। এর মধ্যে লিনাক্স ভঙ্গ করেছে ৪২টি প্যাটেন্ট। ছবি নির্ভর (গ্রাফিক্যাল ইন্টারফেস) প্রোগ্রামগুলো ভঙ্গ করেছে ৬৫টি। ই-মেইল আদান-প্রদানের প্রোগ্রামগুলো ১৫টি ও অন্যান্য প্রোগ্রাম ৬৮টি প্যাটেন্ট ভঙ্গ করেছে।
মাইক্রোসফট দাবি করেছে, সান মাইক্রোসিস্টেমস সমর্থিত মুক্ত সফটওয়্যার ওপেন অফিস ৪৫টি প্যাটেন্ট ভঙ্গ করেছে। সান এ অভিযোগের ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করতে অস্বীকার করেছে। মাইক্রোসফট এর আগে কয়েকটি মুক্ত সফটওয়্যার নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সমঝোতা চুক্তি করেছে। গত বছরের নভেম্বরে মাইক্রোসফট নভেলের বানানো লিনাক্স সুসি বিক্রি করতে এবং এটির ব্যবহারকারীদের বিরুদ্ধে মামলা না করতে রাজি হয়। যদিও মাইক্রোসফট দাবি করছিল, এই প্রোগ্রামটি তাদের প্যাটেন্ট লঙ্ঘন করছিল।
মাইক্রোসফটের মেধাসম্পদ (ইন্টেলেকচুয়াল প্রোপার্টি) ও লাইসেন্স বিভাগের ভাইস প্রেসিডেন্ট হরাসিও গুটিয়েরেজ বলেন, ‘চাইলে বহু আগেই আদালতে যাওয়া যেত। কিন্তু আমরা তা না করারই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। বরং আমরা চাই মুক্ত সফটওয়্যার যেন মাইক্রোসফট পণ্যের সঙ্গে খাপ খায়। মাইক্রোসফট তাই সমঝোতা করতে আগ্রহী।’
নভেলের সঙ্গে মাইক্রোসফটের চুক্তিতে মুক্ত সফটওয়্যার সম্প্রদায়ের অনেকেই খুশি হননি। তাঁরা মনে করেন, এটা মুক্ত সফটওয়্যারের জেনারেল পাবলিক লাইসেন্সকে (জিএনইউ) বাধাগ্রস্ত করেছে। জিএনইউয়ের পরবর্তী সংস্করণে তাই এ ধরনের চুক্তির ওপর নিষেধাজ্ঞা রাখা হবে।
আইবিএম, রেড হ্যাট ও অন্যান্য বড় প্রতিষ্ঠানের তহবিলে গঠিত ওপেন ইনোভেশন নেটওয়ার্ক (ওআইএন) পাল্টা দাবি করেছে মাইক্রোসফট উল্টো তাদের প্যাটেন্টই ভঙ্গ করেছে। বিশ্লেষকেরা বলছেন, মাইক্রোসফট যদি মুক্ত সফটওয়্যারগুলোর বিরুদ্ধে মামলা করা শুরু করে তবে বিশ্বজুড়ে বড় ধরনের প্যাটেন্ট যুদ্ধ শুরু হবে।






উৎসঃ প্রথম আলো

সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন তপু (১৬-০৫-২০০৭ ১২:৫৫)

Re: মাইক্রোসফটের অভিযোগ মুক্ত সফটওয়্যার সম্প্রদায় প্যাটেন্ট ভঙ্গ করেছে

আমি আজই এই খবরটা প্রথম আলোতে পড়লাম। আমার মনে হয়, ওপেন সোর্সের ব্যাপক প্রসারে মাইক্রোসফট চিন্তিত, তাই মামলার ভয় দেখাচ্ছে।

তোমাকে ভালবাসি, তোমারই চরণে ঠাঁই,
মা,
তোমার ভালবাসার কোন তুলনা নাই।

Re: মাইক্রোসফটের অভিযোগ মুক্ত সফটওয়্যার সম্প্রদায় প্যাটেন্ট ভঙ্গ করেছে

মাইক্রোসফট বারবার জুজুর ভয় দেখাচ্ছে। তাদের সাথে চুক্তি করলেই কি সব বৈধ হয়ে যায়?

শুরু হোক প‌্যাটেন্ট যুদ্ধ।

রক্তের গ্রুপ: O+ve
আমার ব্লগ

Re: মাইক্রোসফটের অভিযোগ মুক্ত সফটওয়্যার সম্প্রদায় প্যাটেন্ট ভঙ্গ করেছে

মুক্ত সফটওয়্যার ব্যাপারটি ঠিক আছে। এটি না থাকলে হয়তো এ ফোরামও তৈরি হত না। এরকম আরও অনেক উদাহরণ আছে। কিন্তু একটা প্রশ্ন সব জায়গায় কী ফ্রি ওপেন সোর্স সফটওয়্যার খাপ খায় কিনা? বিশেষ করে এন্টারপ্রাইজ লেভেলে। যেমন: মুক্ত সফটওয়্যার গুলো কিন্তু কোন রকম এন্টারপ্রাইজ সাপোর্ট ছাড়াই আসে। আর সেসব কারণে এখন এসব সফটওয়্যারের এন্টারপ্রাইজ এডিশন বের হচ্ছে। তাহলে লাভ কি হল? হ্যাঁ, লাভ আমাদের মত মানুষের জন্য এবং উদীয়মান ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের জন্য। কারণ, কম খরচে ব্যবসায় দাঁড় করানো যাচ্ছে।
এছাড়াও লাইসেন্স এগ্রিমেন্টে কতগুলো বিষয় থাকে। যেমন:
1. As it was
2. Without Any warranty
আমার জানতে ইচ্ছে করে এ বিষয়ে গুলো বড় বড় এন্টারপ্রাইজরা কিভাবে দেখে।

মাইক্রোসফটের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। আর আমাকে তো সফটওয়্যার টাকা দিয়ে কিনতে হয় না। কিন্তু বিষয় হলো, মাইক্রোসফট যদি উম্মুক্ত সফটওয়্যারের বিরুদ্ধে যায়, তাহলে তাদের বিরুদ্ধে যেতেও আমার একটুকুও সময় লাগবে না। বর্জন করতে শুরু করব তাদের সফটওয়্যার।

মাইক্রোসফট এখন বাংলাদেশে। তারা হয়তো খুব শীঘ্রই চাইবে ইন্টালেকচুয়াল প্রপার্টির স্বত্ত্ব সংরক্ষণ করতে। তাই আমাদেরকে ধরা খাওয়ার আগেই আস্তে আস্তে তাদেরকে ছাড়ার অভ্যাস করতে হবে।

মাইক্রোসফটের জুজুর গুল্লি মারি:-@

[img]http://twitstamp.com/thehungrycoder/standard.png[/img]
what to do?

Re: মাইক্রোসফটের অভিযোগ মুক্ত সফটওয়্যার সম্প্রদায় প্যাটেন্ট ভঙ্গ করেছে

শাবাস, হাঙ্গরিকোডার! এখনই সময় মাইক্রোসফটের এসব পণ্য বর্জন করার। তাছাড়া চোরাই সফটওয়্যার ব্যবহারের অপবাদটাও দূর করা দরকার। মাইক্রোসফট এখন নিজের পায়ে নিজেই কুড়োল মারা শুরু করেছে।
ওপেন সোর্সের এখনও সীমাবদ্ধতা আছে, এটি ঠিক। ওপেন সোর্স মানেই ফ্রি সফটওয়্যার নয়, ফ্রি সফটওয়্যার মানেই ওপেন সোর্স নয়। ওপেন সোর্সের সুবিধা হলো আপনি সোর্স কোড দেখতেপাচ্ছেন, নিশ্চিত হতে পারছেন তাতে কোনো ক্ষতিকর কোড আছে কি না। আবার সেটি নিজের প্রয়োজনমতো পরিবর্তন করার স্বাধীনতাও আপনার থাকছে। অন্যকে দেয়ার, অন্যের সাথে শেয়ার করার যে অবারিত স্বাধীনতা সেটিই ওপেন সোর্সের বড় পাওনা।

হাঙ্গরিকোডার লিখেছেন:

মাইক্রোসফট এখন বাংলাদেশে। তারা হয়তো খুব শীঘ্রই চাইবে ইন্টালেকচুয়াল প্রপার্টির স্বত্ত্ব সংরক্ষণ করতে। তাই আমাদেরকে ধরা খাওয়ার আগেই আস্তে আস্তে তাদেরকে ছাড়ার অভ্যাস করতে হবে।

খুবই ভাল কথা। আসুন, সবাই আইনভঙ্গ হতে বিরত থাকি। চোরাই সফটওয়্যার বাদ দিয়ে মুক্ত সফটওয়্যার ব্যবহার করি।

রক্তের গ্রুপ: O+ve
আমার ব্লগ

Re: মাইক্রোসফটের অভিযোগ মুক্ত সফটওয়্যার সম্প্রদায় প্যাটেন্ট ভঙ্গ করেছে

সেভারাস লিখেছেন:

বরং আমরা চাই মুক্ত সফটওয়্যার যেন মাইক্রোসফট পণ্যের সঙ্গে খাপ খায়। মাইক্রোসফট তাই সমঝোতা করতে আগ্রহী।’
উৎসঃ প্রথম আলো

তারা তা তো চাইবেই। কারন যে যত খুশি সফটওয়্যার বানাক মূল প্লাটফরম উইন্ডোজ টা তো ঠিক থাকবে।

...ঈশ্বরের মত
ভবঘুরে স্বপ্নগুলো.....                                                                        রক্তের গ্রুপঃ A+

Re: মাইক্রোসফটের অভিযোগ মুক্ত সফটওয়্যার সম্প্রদায় প্যাটেন্ট ভঙ্গ করেছে

মাইকোরোসফট এর বিসনেস পলিসি খুবই বাজে । ওদের পন্ন বরজন করাই উচিত ।

Re: মাইক্রোসফটের অভিযোগ মুক্ত সফটওয়্যার সম্প্রদায় প্যাটেন্ট ভঙ্গ করেছে

black_box লিখেছেন:

মাইকোরোসফট(মাইক্রোসফট) এর বিসনেস(বিজনেস বা ব্যবসা) পলিসি খুবই বাজে । ওদের পন্ন(পন্য) বরজন(বর্জন) করাই উচিত ।

ব্ল্যাক বক্স কে প্রজন্ম ফোরামে স্বাগতম