৬১

Re: উবুন্টু বনাম ম্যাক

স্বপ্নচারী লিখেছেন:

...আর যেটা চুরি করে চালানো হয় সেটা উইন্ডোজের চাইতেও খারাপ চলে।

...ইজিবাইকে মার্সিডিজ ইঞ্জিন লাগিয়ে চলার চাইতে রিকশায় চড়া অনেক নিরাপদ।...

এই পোস্টখানা একজন ফুলটাইম ম্যাক ইউজারের যে তার জীবনে তিনখানা কম্পিউটার জাতীয় ডিভাইস কিনেছে এবং প্রত্যেকটাই ম্যাক। এবং ওএস এক্সের সাথে ডুয়াল বুটে উবুন্তু চালায়।

এইসব হাই প্রোফাইল টপিকে এমন ইন্টেলেকচ্যুয়ালদের পোষ্ট না থাকলে টপিকই কেন যেন পূর্ণতা পায় না।

ম্যাক-বিরহে মনটা মেঘলা ছিল। মেঘ কেটে গেছে।

You'll never reach your destination if you stop and throw stones at every dog that barks.

৬২

Re: উবুন্টু বনাম ম্যাক

ম্যাক ছিলনা কোনদিন। আমার এক আত্মীয়, যিনি প্রফেশনাল মিউজিক কম্পোজার, কাজের জন্য ম্যাক কিনেছেন, ওটা একটু নাড়াচাড়া করেছি, এছাড়া কলিগের ম্যাক দেখেছি।

যা হোক বিভিন্ন জায়গা থেকে পড়ে যা বুঝেছি, তা হল, ম্যাক মূলত একটা হার্ডওয়্যার ওরিয়েন্টেড সফটওয়্যার। অ্যাপল আসলে হার্ডওয়্যার বিক্রয়ের টার্গেট নিয়ে মাঠে নামে। আর হার্ডওয়্যার চালাতে তো কিছু সফটওয়্যার লাগবে, তাই সম্ভবত ম্যাকের জন্ম। ম্যাকবুক, আইম্যাক, বা আইপ্যাড সবজায়গাতেই এটা প্রযোজ্য; আর এই কারণেই এটা অন্য হার্ডওয়্যার সাপোর্ট করেনা। সাপোর্ট করার প্রয়োজনও নাই.... কারণ সফটওয়্যার বিক্রয়টা এদের মূল লক্ষ্য নয়।

উবুন্টু নিয়ে কিছু কমুনা। খালি বলবো আমি আমার বাসা, অফিস মিলিয়ে তিনটা মেশিনে সর্বদা এটা ব্যবহার করি (করতাম)। অবশ্য দুইদিন হল, নেটবুকটায় মিন্ট১১ দিয়েছি (এটা উবুন্টুর ফর্ক)।

শামীম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

৬৩

Re: উবুন্টু বনাম ম্যাক

স্বপ্নচারী লিখেছেন:

@সাইফ দ্যা বস, কেন? এখানে পরিবেশ নষ্ট করার কী হলো? এখানে উবুন্তু বনাম ম্যাক নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। এর মানে কি, শুধু ম্যাকের গুণগান গাইতে হবে?

mr.linux লিখেছেন:

আমরা যারা গরীব মানুষ, তাদের ম্যাক-ট্যাকের কথা চিন্তা না করাই ভালো।ম্যাক আমাদেরকে target করে বানানো হয়নি।উবুন্টু আমাদের মতো ফকির-মিছকিনদেরকে target করেই বানানো হয়েছে।ম্যাক অনেক ভালো সেটা আমিও স্বীকার করি।তবে এটা বিক্রী করে যা আয় করা হচ্ছে তা দিয়ে এর developmentও চলছে।উবুন্টু ফ্রী হওয়ায় সেটা সম্ভব না।তারপরও উবুন্টু যথেষ্ট ভালো।একটা ফ্রি জিনিস যে এতোটা ভালো, এইটাই অনেক কিছু।এই কারণেই উবুন্টুর জন্য আমি একটা ভালোবাসা feel করি যে এটা মূলত মানুষের সেবার জন্যই।এজন্য এর অনেক দোষই আমার চোখে পড়েনা।ভালোবাসা দোষ দেখতে দেয় না।আমাকে যদি কেউ এখন একটা ম্যাকবুক দিয়েও দেয়, তবুও আমার কাছে মনে হয় উবুন্টুকেই বেশি ভালো লাগবে।একটা অন্ধত্বও সৃষ্টি হয়ে গেছে মনে হয়।

মি. লিনাক্সের এই উক্তিখানার মধ্যে লিনাক্স এবং ম্যাকের মধ্যে কি তুলনা করা হয়েছে আমাকে একটু বলুন তো দেখি। আরে বাবা লিনাক্স ফ্রি এইটাতে সবাই জানে। এখানে আলোচনা হচ্ছিল উবুন্টু বনাম ম্যাকের ফিচার + পার্থক্য। এখানে Feelings এর ব্যাপার আসছে কেন? উবুন্টু ভাল জিনিস সেটাতে তো আমার কোন সমস্যা নেই। আমার সমস্যা সেইখানে যে তাহারা তুলনামুলক আলোচনা না করে (আপনার যেমনটা করেছেন সেরকম করলে তো কোন সমস্যা নেই) কেন এইসব feelings এর কথা লিখছে?

স্বপ্নচারী লিখেছেন:

.dmg নিয়ে অনেকেই খুব উৎফুল্ল।

জ্বী হ্যা। কারণ যেখানে নেট নেই সেখানে একটি মাত্র dmg ফাইল নামিয়েই ইন্সটল করা যায়। উবুন্টু'র মত .deb প্যাকেজ নামানোর পর অর্ধেক ইন্সটলের পর ডিপেডেন্সি'র জন্য নেটে যাওয়া লাগে না।

স্বপ্নচারী লিখেছেন:

পৃথিবীর অন্যতম সেরা বাজে সফটওয়্যার হচ্ছে আইটিউনস। এটা চালু হতেই লাগে মিনিটখানেক। একটা অংশ থেকে আরেকটা অংশে যেতে লাগে সেকেন্ডখানেক। শুধু তাই নয়, এটা দিয়ে এ্যপলের যত কন্ট্রোল তার সব ডিভাইসের উপর। (আইওএস ৫ থেকে অবশ্য আর আইটিউনস লাগবে না ডিভাইস চালানোর জন্য) সবচেয়ে বড় সমস্যা এটা ডাটাবেস রাখে একটা প্লেইন এক্সএমএল ফাইলে। এক্সএমএল ফাইল কুয়েরি করা যেকোন সিকুয়েল ডাটাবেস থেকে অনেকগুণ স্লো। এই জিনিসটা পরিবর্তন করতে এ্যপলের কিসের সমস্যা সেটাই বুঝি না। এই একটা জিনিস পরিবর্তন করলেই এটা সুপার ফাস্ট হবে।

সহমত। অতীব বাজে একখান সফ্টওয়্যার।

স্বপ্নচারী লিখেছেন:

আর ফাইন্ডারের কথা আর কি বলব। এটা ব্যবহার করার ন্যুনতম চেষ্টাও আমি করি না। এটা দিয়ে কিছুই করা যায় না। আশা করি, লায়নে এটাকে উন্নত করবে এ্যপল। এর চাইতে ডসের মিডনাইট কমান্ডারও অনেক উন্নতমানের।

ফাইন্ডারে সমস্যা কী? কাভারফ্লো এর উন্নত ফিচার আছে। ফাস্ট কাজ করে। স্মুথস্ক্রলসহ দারুণ লাগে এটি।   thumbs_up

স্বপ্নচারী লিখেছেন:

অবশ্যই ম্যাক ওএস এক্সের অনেক অনেক এডভান্সড ফিচার আছে যা অন্য কোথাও নেই। তবে সেগুলোর অনেক বিকল্পও আছে।
হ্যাকিন্টোশ সম্পর্কে আমার মন্তব্য হলো - ইজিবাইকে মার্সিডিজ ইঞ্জিন লাগিয়ে চলার চাইতে রিকশায় চড়া অনেক নিরাপদ।
আর চোখ খোলার মানে যদি পাইরেসি করা বোঝাও, তাহলে বলব - চোখ বন্ধ থাকাই ভাল।

চোখ খোলার মানে উবুন্টুকে অন্ধভাবে সমর্থন করার কথা বুঝিয়েছি। লিনাক্স ফ্রি বলে জঘন্য কিছু প্রব্লেম থাকলেও তার সমালোচনা করা যাবে না? সেখানে শুনতে হবে "যা দিয়েছে তাতেই বেশী!"

OH DEAR NEVER FEAR SAIF IS HERE
BOSS অর্থাৎ সাইফ
Saifiction!| Cloud Hosting BossHostBD

৬৪

Re: উবুন্টু বনাম ম্যাক

Feelings-এর কথা আসে। পাইরেসির বিরুদ্ধে এই যে আন্দোলন করছি, সেটা ফিলিংসের কারণেই। এটা সম্পূর্ণরূপে নিজের সম্মান রক্ষার ফিলিংস থেকেই করা হচ্ছে। এখানে এসব করার জন্য আমাকে কেউ টাকা দেয় না। বরং অনেক ওপেনসোর্স এডভোকেটের মতই নিজের আত্মসম্মানবোধ টিকিয়ে রাখতে এই কাজ করি আমরা। এই ব্যাপারটা ফেলে দেওয়ার মত নয়। এটাই মূল ব্যাপার।

আমার পাশের বাড়ির লোক কী করল না করল, সেটা যখন আমরা দেখেও না দেখার ভান করি - তখন ঢাকা শহরের মত একটা অস্বাস্থ্যকর পরিবেশের জন্ম নেয়। আমাদের দেশের এই অবস্থার জন্য আমাদের এই - যার যা খুশি করুক - মানসিকতায়ই দায়ী।

এছাড়া এই টপিকটাতে যদি ভালমত নজর বুলাও, তাহলে দেখবে যে - ওএস এক্স-টার কিভাবে পাইরেটেড কপি নিজেদের কম্পিউটারে চালানো যাবে সেই সংক্রান্ত পোস্ট। এখন এগুলো কি অফটপিক নয়? বা মূল আন্দোলনটাতে আঘাত করা নয়? উইন্ডোজ চুরি করলে পাইরেসি হবে আর ওএস টেন চুরি করলে হবে না?

এছাড়াও যেকোন প্রডাক্টের গ্রহণযোগ্যতার সর্বপ্রথম গুণ হচ্ছে - সেটা সাধ্যের মধ্যে আছে কিনা। সে জায়গাতেই তো ম্যাক ফেইল। আমি বলছি না যে, ম্যাকের দাম অত্যধিক। কিন্তু যে দামে তারা বিক্রি করে সেটা বাংলাদেশ কেন পৃথিবীর অধিকাংশ মানুষেরই ক্রয়ক্ষমতার বাইরে। এখন যেটা আয়ত্বের বাইরে সেটা নিয়ে স্বপ্ন দেখে তো লাভ নাই।

ফাইন্ডারের এই কাভার ফ্লো স্রেফ আইক্যান্ডি। এটা দিয়ে কিছু হয় না। কাট-পেস্ট করা যায় না। কপি করে পেস্ট করার সময় একই নামে ফোল্ডার থাকলে সেটা মুছে পেস্ট করে, মার্জ করে না। একটা নেটওয়ার্ক ফাইলসিস্টেম মাউন্ট করলে হ্যাং করে - আরও হাজারটা সমস্যা আছে। FTFF দিয়ে গুগল মারো আরও বহুত কিছু পাবে।

৬৫

Re: উবুন্টু বনাম ম্যাক

আমার মনে হয় ম্যাক আসলে হার্ডওয়্যার। আর হার্ডওয়্যার আর সফটওয়্যারের মধ্যে তুলনা হয় না। lol lol lol

আমি একবার একটা ম্যাক নামিয়েছিলাম টরেন্টে। তখন হ্যাকিন্টোশের কেস বুঝতাম না। এইবার নামিয়ে বুট করতে গিয়ে দেখি কি একটা এরর দেখায়! তারপর একটু খোঁজ খবর নিয়ে হ্যাকিন্টোশ সম্পর্কে জানতে পারি। হ্যাকিন্টোশ টেস্টও করেছি। বেশ দারুণ জিনিস।

কিন্তু আমার কাছে কেমন যেন গ্রাফিক্সসর্বস্ব মনে হয়েছে। এমনও হতে পারে যে আমি বাকি দিকগুলাতে মনোযোগ দিই নি। মনে হয়েছে ওই রকম চোখ ধাঁধানো গ্রাফিক্সই যদি সব হয় তো ওর থেকে ঢের কম সাইজে উবুন্টু নামিয়ে সেটাকে ম্যাকের মত থিম দেওয়াই উচিত কাজ হবে।

পাইরেসি কথন তো এড়িয়ে যাওয়ার যো নেই। উইন্ডোজের থেকে ম্যাকে বেশী পাইরেসি করতে হয়। যার জন্য ম্যাক বেশ পছন্দ হলেও আমি সযত্নে এড়িয়ে চলি। উবুন্টু বেশী প্রেফারেবল (আমার ব্যক্তিগত মতামত।) ম্যাক অ্যারিস্ট্রোক্রেটিক ওএস, এবং অপারেটিং সিস্টেমের দাম উইন্ডোজের থেকে বহুত কম হলেও পাইরেসি মুক্ত থাকতে উইন্ডোজের থেকে ম্যাকে বহুগুন খরচ।

সামর্থ্য হলে একটা ম্যাকবুক কেনার ইচ্ছা আছে।

"No ship should go down without her captain."

হৃদয়১'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি LGPL এর অধীনে প্রকাশিত

৬৬

Re: উবুন্টু বনাম ম্যাক

স্বপ্নচারী লিখেছেন:

Feelings-এর কথা আসে। পাইরেসির বিরুদ্ধে এই যে আন্দোলন করছি, সেটা ফিলিংসের কারণেই। এটা সম্পূর্ণরূপে নিজের সম্মান রক্ষার ফিলিংস থেকেই করা হচ্ছে। এখানে এসব করার জন্য আমাকে কেউ টাকা দেয় না। বরং অনেক ওপেনসোর্স এডভোকেটের মতই নিজের আত্মসম্মানবোধ টিকিয়ে রাখতে এই কাজ করি আমরা। এই ব্যাপারটা ফেলে দেওয়ার মত নয়। এটাই মূল ব্যাপার।

সেই ফিলিংসের কথা আমরা বুঝছি। তাই বলে মি. লিনাক্সের মত হাজারটা টপিকে মাইক মেরে জানানোর কি দরকার! donttell আর সবজায়গায় এই ফিলিংস এর হাত ধরলে আর তুলনার দরকার কী! উবুন্টু যতই খারাপ হোক আর অন্যান্য অপারেটিং সিস্টেম যতই ভাল হোক ঐ ফিলিংস নিয়ে উবুন্টু ব্যাবহারকারীরা জিতে যাক! তুলনার কি দরকার!  ghusi আর যাইহোক..যুক্তিতর্ক তো আর ফিলিংস দিয়ে চলে না।  waiting
ম্যাকের আরো কিছু বাজে সফ্টের মধ্যে iPhoto কেও উল্লেখ করা যায়। সকল ছবির আলাদা আলাদা কপি করে রাখে! ৪৫ জিবির পিকচার থাকলে তা iPhoto তে ইনপুট দিলে হয়ে যাবে 90 জিবি। এইদিক থেকে Picasa সবসময় ১ নম্বর।

OH DEAR NEVER FEAR SAIF IS HERE
BOSS অর্থাৎ সাইফ
Saifiction!| Cloud Hosting BossHostBD

৬৭

Re: উবুন্টু বনাম ম্যাক

স্বপ্নচারী লিখেছেন:

ম্যাকের সবচেয়ে বড় ও প্রধান সমস্যা এটা যেকোন মেশিনে চলে না।

এটা মোটেই সমস্যা নয়, এটা অ্যাপল ইচ্ছাকৃত ।

Despise Wisdom

৬৮

Re: উবুন্টু বনাম ম্যাক

এখন প্রশ্ন আসে, তাহলে আমি কেন ম্যাক ব্যবহার করি?

প্রথমত, হার্ডওয়্যার ডিজাইন। ম্যাকের হার্ডওয়্যার তো অন্যান্য পিসির মতই, অন্য জগতের কিছু না। কিন্তু এর যথাযথ কম্বিনেশন, অসাধারণ ডিজাইন আর কোন ব্র্যান্ডে নাই। সবচেয়ে বেশি ভাল লাগার ব্যাপারটা হচ্ছে কোনপ্রকার বাহুল্য নাই প্রোডাক্টে। স্মুথ, প্লেইন সারফেস। এদিকে বাঁকা, ওদিকে ত্যাড়া, নাক থ্যাবড়ানো নাই। ল্যাপটপের উপর-নীচ দুটোই একই জিনিস দিয়ে মোড়ানা, একই ডিজাইনে। শুধু বাহ্যিক রূপেই নয়, ভেতরের কম্পোনেন্টস সিলেকশনেও একই রকম সতর্কতা অবলম্বন করা হয়। বাজারের হট ডিভাইস, টেকনোলজি যেখানে সেখানে যোগ করে দেয় না। একটা কম্পিউটার যতটুকু হ্যান্ডল করতে পারবে, ঠিক ততটুকুই দেয়। এটা দেখে বাইরে থেকে মনে হয় যে, আরে এর চাইতে কম দামে ঐ ল্যাপটপে আরও কতকিছু পাই, তাহলে ম্যাকে কেন নাই? কারণ এতকিছু যোগ করলে পারফরম্যান্সের ঘাটতি থাকে। একটা মাদারবোর্ডের ডিভাইস হ্যান্ডল করারও একটা সীমা থাকে।

আই-ক্যান্ডি সম্পর্কে বলার কোনই প্রয়োজন নাই। সিম্পল ইজ দ্যা বেস্ট। এটাই এ্যপলের সাফল্যের মূল চাবিকাঠি। অনেক সময় মনে হয়, সবার সাথে আমারটাও এই একই চেহারার কেন থাকবে। একটু বদলাই। কিন্তু বদলাতে গেলেই বোঝা যায়, কতটা যত্ন সহকারে একটা এলিমেন্টের সাথে আরেকটার সামঞ্জস্য এরা বজায় রাখে।

এ্যপল অনেক ওপেনসোর্স প্রজেক্টের সাথে জড়িত, যেগুলো আমি প্রতিনিয়ত ব্যবহার করি। যেমন - ওয়েবকিট, এলএলভিএম (জিসিসি-এর বিকল্প), ম্যাকপোর্টস, বিএসডি কার্ণেল (ওএস টেনের কার্নেল), ম্যাকরুবি ইত্যাদি। যদিও এ্যপল ওপেনসোর্স থেকে যতটুকু নেয় তার চাইতে অনেক অনেক কম পরিমাণে ফেরত দেয়, অন্ততপক্ষে তারা ওপেনসোর্সের সাথে আছে। ২০০০ সালে এ্যপলের পূনর্জন্মই হয়েছে ওপেনসোর্সের কল্যাণে। তবে তাদের আইওএস প্লাটফরমটা সম্পূর্ণ রূপে ক্লোজড করে দিয়েছে। এই ব্যাপারটা আমার মানতে খুব কষ্ট হয়। ওএস টেন ক্লোজড হলেও এতে যা খুশি করা যায়। কিন্তু আইওএসে করা যায় না। এ্যপল যতটুকু করতে দেয়, শুধু ততটুকুই করা যায়। জেইলব্রেক করে অবশ্য আরও কিছু করা যায়।

ইউনিভার্সাল বাইনারি - একমাত্র ওএস টেনেই এটা সম্ভব। একই সাথে ৩২ বিট ও ৬৪ বিট বাইনারি বানানো এবং এটা দুটোর যেকোন প্লাটফরমে কোনরকম পারফরম্যান্স ইস্যু ছাড়াই চালানো কেবল ওএস টেনোই সম্ভব। শুধু তাই না, ইন্টেল ও পিপিসি দুটো সম্পূর্ণ ভিন্ন প্রসেসরের জন্যও একটা বাইনারি বানানো যয়। অবশ্য এটা এখন আর কেউ করে না। পিপিসি-কে মোটামুটি মৃত ধরা হয়েছে। (এটা একটা অন্যতম কারণ আমার নষ্ট আইম্যাক জি৫ টা মেরামত না করার)

টাইম মেশিন - এটা আমি ব্যবহার করি না। আমি ম্যানুয়াল ব্যাকআপ রাখি - কারণ আমি মাল্টিপ্লাটফরম ইউজার। তবে এটা অসাধারণ টেকনোলজি না হলেও সাধারণ ব্যবহারকারীদের ব্যাকআপ রাখা শিখিয়েছে। সেটা একটা বিরাট সাফল্য।

স্পটলাইট। এর ধারে কাছে কেউ নাই। হ্যান্ডস ডাউন। আর এটার উপর ভিত্তি করে তৈরী কুইকসিলভার, আলফ্রেডের তুলনা কোথাও নাই। নোম-ডু এর খুব কাছাকাছি।

পাইথন, রুবি ইত্যাদি প্রোগ্রামিংয়ের সাপোর্ট। ওএস টেন ইনস্টল করেই প্রোগ্রামিং শুরু করা যায় লিনাক্সের মতই। আলাদা করে ডাউনলোড, ইনস্টল করতে হয় না।

ইউনিক্স সাপোর্ট - সম্পূর্ণ কমান্ডলাইন ইন্টারফেস। টার্মিনালেই জীবন আমার। কেবলমাত্র ওয়েব ব্রাউজারেই মাউস ব্যবহার করাটা যুক্তিযুক্ত মনে হয় আমার কাছে। উইন্ডোজে কাজ করতে পারি না, মূলত এই কারণেই। তবে একেবারেই মাউস ব্যবহার করি না, তা নয়। যেখানে মাউসের সুবিধা আছে সেখানে করি।

মেনুবার - ম্যাকের এই একটি মেনুবার যে কত প্রয়োজনীয় একটা ডিজাইন ব্যবহার না করলে বোঝা যাবে না। একটা ১৩.৩" মনিটরে প্রতিটা উইনড্োর যদি নিজস্ব মেনুবার থাকে তাহলে সেটা এত সমস্যা করে বলার মত না। এছাড়াও উইন্ডো ক্লেজ করলেই পুরো প্রোগ্রাম বন্ধ হয়ে যায় না। এটাও খুবই প্রয়োজনীয় একটা ফিচার। অফিস, আইটিউনস ইত্যাদি যেসব ভারী ভারী সফটওয়্যার চালু হতেই বছরখানেক সময় লাগায়। সেগুলোক একবার চালু করে রাখলেই হয়। তারপর উইন্ডোগুলো যদি বেশি ক্লাটার্ড মনে হয়, তবে শুধু উইন্ডো গুলো ক্লোজ করে দিলেই হয়। মিনিমাইজ করে ডকের জায়গা নষ্ট করতে হয় না।

আর লায়নের কথা আগে থেকেই বলার কিছু নাই। যদি কিনতে পারি, ব্যবহার করে দেখা যাবে নতুন ফিচারগুলো কতটুকু ব্যবহারযোগ্য।

৬৯

Re: উবুন্টু বনাম ম্যাক

স্বপ্নচারী লিখেছেন:

আই-ক্যান্ডি সম্পর্কে বলার কোনই প্রয়োজন নাই। সিম্পল ইজ দ্যা বেস্ট। এটাই এ্যপলের সাফল্যের মূল চাবিকাঠি। অনেক সময় মনে হয়, সবার সাথে আমারটাও এই একই চেহারার কেন থাকবে। একটু বদলাই। কিন্তু বদলাতে গেলেই বোঝা যায়, কতটা যত্ন সহকারে একটা এলিমেন্টের সাথে আরেকটার সামঞ্জস্য এরা বজায় রাখে।

এটাই হল সাফল্যের মূল কাঠি। আমিও এটা সম্পর্কে বলতে চাচ্ছিলাম। কিন্তু গতকালের ৬ ঘন্টা লোডশেডিংয়ের ফলে লেখাটা লেখার টাইমই পাইনি।  neutral স্টিভ জবসের একটা উক্তি আছে এ সম্পর্কে: "It Just Works!" মানুষ জানতে চায় না ভিতরে কি হচ্ছে না হচ্ছে। তারা শুধু চায় আউটপুট। এবং যেটা এপল খুব ভালভাবেই দিয়ে যাচ্ছে। আর ম্যাকের ডেস্কটপ ইন্টারফেসটা এত সুন্দর করে সাজানো যে একটা এলেমেন্টও উল্টাপাল্টা করলে পরে মনে হয় কি জন্য যে করলাম!!

স্বপ্নচারী লিখেছেন:

স্পটলাইট। এর ধারে কাছে কেউ নাই। হ্যান্ডস ডাউন। আর এটার উপর ভিত্তি করে তৈরী কুইকসিলভার, আলফ্রেডের তুলনা কোথাও নাই। নোম-ডু এর খুব কাছাকাছি।

হেহেহে...এর কথা তো আগেই বলেছিলাম। অসাধারণ এক জিনিস।  thumbs_up thumbs_up thumbs_up

স্বপ্নচারী লিখেছেন:

মেনুবার - ম্যাকের এই একটি মেনুবার যে কত প্রয়োজনীয় একটা ডিজাইন ব্যবহার না করলে বোঝা যাবে না। একটা ১৩.৩" মনিটরে প্রতিটা উইনড্োর যদি নিজস্ব মেনুবার থাকে তাহলে সেটা এত সমস্যা করে বলার মত না। এছাড়াও উইন্ডো ক্লেজ করলেই পুরো প্রোগ্রাম বন্ধ হয়ে যায় না। এটাও খুবই প্রয়োজনীয় একটা ফিচার। অফিস, আইটিউনস ইত্যাদি যেসব ভারী ভারী সফটওয়্যার চালু হতেই বছরখানেক সময় লাগায়। সেগুলোক একবার চালু করে রাখলেই হয়। তারপর উইন্ডোগুলো যদি বেশি ক্লাটার্ড মনে হয়, তবে শুধু উইন্ডো গুলো ক্লোজ করে দিলেই হয়। মিনিমাইজ করে ডকের জায়গা নষ্ট করতে হয় না।

উইন্ডোজ+লিনাক্স ইউজার বলে ব্যাপারটাতে প্রথম প্রথম একটু অসুবিধা হচ্ছিল। কিছুদিন ইউজ করার পর এতটাই ফ্রেন্ডলি হয়ে গেছে যে এখন উইন্ডোজে এসেও মেনুবার খুঁজি!  sad

OH DEAR NEVER FEAR SAIF IS HERE
BOSS অর্থাৎ সাইফ
Saifiction!| Cloud Hosting BossHostBD

৭০ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন তৌফিক ইমাম (১২-০৬-২০১১ ২১:০১)

Re: উবুন্টু বনাম ম্যাক

সাইফ দি বস ৭ লিখেছেন:

# iTunes, iPhoto, iCal, iChat,Audium ইত্যাদি অসাধারণ সফ্ট আছে।

সাইফ দি বস ৭ লিখেছেন:

স্বপ্নচারী লিখেছেন:
পৃথিবীর অন্যতম সেরা বাজে সফটওয়্যার হচ্ছে আইটিউনস। এটা চালু হতেই লাগে মিনিটখানেক। একটা অংশ থেকে আরেকটা অংশে যেতে লাগে সেকেন্ডখানেক। শুধু তাই নয়, এটা দিয়ে এ্যপলের যত কন্ট্রোল তার সব ডিভাইসের উপর। (আইওএস ৫ থেকে অবশ্য আর আইটিউনস লাগবে না ডিভাইস চালানোর জন্য) সবচেয়ে বড় সমস্যা এটা ডাটাবেস রাখে একটা প্লেইন এক্সএমএল ফাইলে। এক্সএমএল ফাইল কুয়েরি করা যেকোন সিকুয়েল ডাটাবেস থেকে অনেকগুণ স্লো। এই জিনিসটা পরিবর্তন করতে এ্যপলের কিসের সমস্যা সেটাই বুঝি না। এই একটা জিনিস পরিবর্তন করলেই এটা সুপার ফাস্ট হবে।
সহমত। অতীব বাজে একখান সফ্টওয়্যার।

একটু স্ববিরোধী লাগছে। আইটিউনস অসাধারন হলে অতীব বাজে হল কিভাবে? অবশ্য অসাধারন বাজে অর্থে বুঝালে ঠিকই অাছে। কিন্তু তাহলে  iPhoto, iCal, iChat,Audium এগুলোও খারাপ? lol

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

৭১ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন সাইফ দি বস ৭ (১২-০৬-২০১১ ২১:৪০)

Re: উবুন্টু বনাম ম্যাক

তৌফিক ইমাম লিখেছেন:

একটু স্ববিরোধী লাগছে। আইটিউনস অসাধারন হলে অতীব বাজে হল কিভাবে? অবশ্য অসাধারন বাজে অর্থে বুঝালে ঠিকই অাছে। কিন্তু তাহলে  iPhoto, iCal, iChat,Audium এগুলোও খারাপ?

জিনিসগুলো অসাধারণ বলে খ্যাতি পেয়েছে বিশ্বব্যাপী। সাধারণ ইউজারদের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয়। (এপল ইচ্ছাকৃতভাবে চাপিয়ে দিয়েছে অনেকটা) তাই ইউজ করতে না চাইলেও ইউজ করতে করতে ব্যবহারকারীদের বেশ ফেভারিট।
iPhoto দারুণ একটি সফ্ট। যতদিন পিকাসা ছিল না তার আগ পর্যন্ত। অনেক এডভান্সড ফিচার আছে। তবে সবচেয়ে বড় সমস্যা লেগেছে ডাবল কপি রাখতে হয় হার্ডওয়্যারে। এজন্যই আমার পছন্দ হয় নি। তবে জনপ্রিয়তাতে Picasa কে পিছনে ফেলেছে আগেই।
iTunes সফ্টটা খারাপ না। কিন্তু ঐযে স্বপ্নচারী ভাই যে কথাটা বললেন। বহুত স্লো।
আর iCal, iChat, Audium সফ্টগুলো দারুণ।  thumbs_up thumbs_up আমার ফেভারিট।  love

OH DEAR NEVER FEAR SAIF IS HERE
BOSS অর্থাৎ সাইফ
Saifiction!| Cloud Hosting BossHostBD

৭২

Re: উবুন্টু বনাম ম্যাক

আমি mac কিনমু  smile smile smile smile

৭৩

Re: উবুন্টু বনাম ম্যাক

আমার কাছে ম্যাকের ইন্টারফেস + হার্ডওয়ার ছাড়া কোনকিছুই ভাল লাগে নাই। ম্যাক ব্যবহার করার ইচ্ছাও নাই, তবে যদি iPhone অ্যাপ্লিকেশন ডেভলপ করার জন্যে যদি ব্যবহার করি তাহলে অন্য কথা। উবুন্টু নিয়েই সুখে আছি, ম্যাকের প্রতি আকৃষ্ট হওয়ার মত এমন কোন কিছুই দেখিনি।

৭৪

Re: উবুন্টু বনাম ম্যাক

অয়ন খান লিখেছেন:
mr.linux লিখেছেন:

উবুন্টু আমাদের মতো ফকির-মিছকিনদেরকে target করেই বানানো হয়েছে।

তাই নাকি? তথ্যটি জানা ছিল না।

অয়ন খান লিখেছেন:
mr.linux লিখেছেন:

উবুন্টু আমাদের মতো ফকির-মিছকিনদেরকে target করেই বানানো হয়েছে।

তাই নাকি? তথ্যটি জানা ছিল না।

surprised surprised surprised surprised surprised

এটা কি শুনাইলেন ভাই  lol

۞ بِسْمِ اللهِ الْرَّحْمَنِ الْرَّحِيمِ •۞
۞ قُلْ هُوَ اللَّهُ أَحَدٌ ۞ اللَّهُ الصَّمَدُ ۞ لَمْ * • ۞
۞ يَلِدْ وَلَمْ يُولَدْ ۞ وَلَمْ يَكُن لَّهُ كُفُوًا أَحَدٌ * • ۞

৭৫

Re: উবুন্টু বনাম ম্যাক

অলোক লিখেছেন:
স্বপ্নচারী লিখেছেন:

ম্যাকের সবচেয়ে বড় ও প্রধান সমস্যা এটা যেকোন মেশিনে চলে না।

এটা মোটেই সমস্যা নয়, এটা অ্যাপল ইচ্ছাকৃত ।

তাই তো বলা হচ্ছে। এটা অ্যাপল করুক আর যেই করুক সমস্যা তো সমস্যাই।

৭৬

Re: উবুন্টু বনাম ম্যাক

ভাই, আমি লিনাক্স নিয়েই ভাল আছি।
তবে ম্যাকের অনেক নাম-ডাক শুনি, তাই টেস্ট করার ইচ্ছা আছে। কিন্তু ইচ্ছা থাকলেও উপায় নাই। একে তো এর দাম আমার ধরা-ছোঁয়ার বাইরে, আবার হ্যাকিন্টোশ চালানোর মত পি.সি. কনফিগারেশনও নাই।  sad sad sad

আমার ব্লগ দেখে আসুনঃ আগন্তুকের ব্লগ
প্রযুক্তি বিষয়ক বাংলা ব্লগঃ টেককথা

৭৭

Re: উবুন্টু বনাম ম্যাক

সবচাইতে মজার জিনিসটাই বলতে ভুলে গেছি। সেটা একটু ধাঁধা আকারেই দিলাম। নিচের ছবিতে ফিচারটি বর্ণিত আছে -
http://farm6.static.flickr.com/5157/5845745451_5e79a0962f.jpg

৭৮

Re: উবুন্টু বনাম ম্যাক

কোন কিছু মিস করলাম কি না বুঝতে পারছি না।
তবে মনে হচ্ছে uname সঠিক রেজাল্ট দিচ্ছে না। অথবা g++ ডিফল্ট ভাবেই Mach-0 64 bit এক্সিকিউটেবল তৈরী করছে।

Feed থেকে ফোরাম সিগনেচার, imgsign.com
ব্লগ: shiplu.mokadd.im
মুখে তুলে কেউ খাইয়ে দেবে না। নিজের হাতেই সেটা করতে হবে।

শিপলু'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি GPL v3 এর অধীনে প্রকাশিত

৭৯ সর্বশেষ সম্পাদনা করেছেন সারিম (১৯-০৬-২০১১ ১১:৩৬)

Re: উবুন্টু বনাম ম্যাক

হুম, আমার এখানেও একই অবস্থা, কিন্তু ওএস চলতেছে ৬৪ বিট এ। তবে বুট লোডার থেকে ,
http://www.rongmohol.com/extensions/pic_man/img/upload/3637Screen%20shot%202011-06-19%20at%2011.14.55%20AM.png
http://www.rongmohol.com/extensions/pic_man/img/upload/3640Screen%20shot%202011-06-19%20at%2011.13.38%20AM.png
কি বোঝা গেল ঠিক বুঝলাম না।

Sarim-Khans-Mac-Pro:~ sarimkhan$ gcc  -arch i386 -arch x86_64 hello.c 
Sarim-Khans-Mac-Pro:~ sarimkhan$ file a.out 
a.out: Mach-O universal binary with 2 architectures
a.out (for architecture i386):    Mach-O executable i386
a.out (for architecture x86_64):    Mach-O 64-bit executable x86_64
Sarim-Khans-Mac-Pro:~ sarimkhan$ gcc  hello.c 
Sarim-Khans-Mac-Pro:~ sarimkhan$ file a.out 
a.out: Mach-O 64-bit executable x86_64
Sarim-Khans-Mac-Pro:~ sarimkhan$ gcc  -arch i386  hello.c 
Sarim-Khans-Mac-Pro:~ sarimkhan$ ./a.out 
Hello World


সিস্টেম ৬৪ বিটে আছে তাই ডিফল্ট ভাবে ৬৪ বিট বাইনারি জেনারেট করতেছে মনে হয়। আর uname টা ঠিকমত দেখাচ্ছে না। মনে হয় ৬৪ বিট আর ৩২ বিট এর জন্য আলাদা কার্নেল প্রয়োজন হচ্ছে না ,একটাই কার্নেল দুই মোডে চলতে পারে। তাই একটাই নাম দেওয়া আছে।

সারিম'এর ওয়েবসাইট

লেখাটি CC by-nc-sa 3.0 এর অধীনে প্রকাশিত

৮০

Re: উবুন্টু বনাম ম্যাক

আমার ম্যাকবুকটা একটু পুরনো। তখন সম্পূর্ণরূপে ৬৪বিট সাপোর্ট আসেনি কোথাও। আমার ফার্মওয়্যারটা ৩২বিটের। সুতরাং যখন স্নো লেপার্ড ইনস্টল করেছি। তখন এটা ৩২বিটে ইনস্টল হয়েছে। কিন্তু আমার প্রসেসর যেহেতু ৬৪বিট, সেহেতু এখানে ৬৪বিট সফটওয়্যার তৈরী করা যাচ্ছে (বাই ডিফল্ট, ক্রস কম্পাইলেশন নয়)। ৬৪বিট সফটওয়্যার সম্পূর্ণ পারফরম্যান্সে রান করা যাচ্ছে।

এটা অন্যকোন উইন্ডোজ বা লিনাক্সে সম্ভব না। ওগুলোতে ৩২ বিট ওএসে ৬৪বিট সফটওয়্যার কখনই চলবে না। এমনকি ৬৪বিট ওএসে ৩২ বিট চালালেও নানান ঝামেলায় পড়তে হয়।

যাই হোক, এ্যপল যদি বর্তমান গতিতে ওপেনসোর্সের সাথে গাদ্দারি করতে থাকে। তাহলে এর সফটওয়্যার ব্যবহার করাটা আমার পক্ষে আর সম্ভব হবে না। আশা করি, এ্যপল তার বর্তমান কার্যকলাপগুলো একটু পর্যালোচনা করে ভবিষ্যতের জন্য সতর্ক হবে। যার কাঁধে চড়ে তারা পুনর্জীবন পেল, তাকে লাথি মারলে পরিণাম ভাল হবে না।